Print Sermon

এই ওয়েবসাইটের উদ্দেশ্য হল ধর্ম্মোপদেশের পান্ডুলিপি এবং ধর্ম্মোপদেশের ভিডিওগুলি বিশ্বব্যাপী পালক ও মিশনারিদের বিনামূল্যে সরবরাহ করা, বিশেষ করে তৃতীয় বিশ্বে, যেখানে ধর্ম্মতত্ত্বমূলক সেমিনারী বা বাইবেল স্কুল থাকলেও খুব কম রয়েছে|

এই সমস্ত ধর্ম্মোপদেশের পান্ডুলিপি ও ভিডিওগুলি www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটের মাধ্যমে এখন প্রতি বছর 221টি দেশের প্রায় 1,500,000 কম্প্যুটারে যায়| আরও শত শত লোক ইউটিউবের ভিডিওর মাধ্যমে এগুলি দেখেন, কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই তারা ইউটিউব ছেড়ে বেরিয়ে যান এবং আমাদের ওয়েবসাইটে চলে আসেন| ইউটিউব আমাদের ওয়েবসাইটে লোক এনে দেয়| ধর্ম্মোপদেশের পান্ডুলিপিগুলি প্রতি মাসে 43টি ভাষায় প্রায় 120,000 কম্প্যুটারে প্রচারিত হয়| ধর্ম্মোপদেশের পান্ডুলিপিগুলি গ্রন্থসত্ত্ব দ্বারা সংরক্ষিত নয়, কাজেই প্রচারকগণ আমাদের অনুমতি ছাড়াই এইগুলি ব্যবহার করতে পারেন| মুসলিম এবং হিন্দু রাষ্ট্রসমেত, সমগ্র পৃথিবীতে সুসমাচার ছড়িয়ে দেওয়ার এই মহান কাজে সাহায্য করার জন্য কিভাবে আপনি একটি মাসিক অনুদান প্রদান করতে পারেন তা জানতে অনুগ্রহ করে এখানে ক্লিক করুন|

যখনই আপনি ডঃ হেইমার্‌সকে লিখবেন সর্বদা তাকে জানাবেন যে আপনি কোন দেশে বাস করেন, অথবা তিনি আপনাকে উত্তর দিতে পারবেন না| ডঃ হেইমার্‌সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net |




কিভাবে একজন জয়কারী হবেন !

HOW TO BE AN OVERCOMER!
(Bengali)

লেখক: ডঃ আর. এল. হেইমার্‍স, জুনিয়র,
এমিরিটাস পালক
24 বছরের জন্যে আমার পালক, তিমথী লিন, পিএইচ.ডি দ্বারা
প্রচারিত একটি জীবন-পরিবর্তনকারী ধর্ম্মোপদেশ থেকে গৃহীত|

2020 সালের, 26শে জুলাই, প্রভুর দিনের অপরাহ্নে লস্‍ এঞ্জেল্‌সের
ব্যাপটিষ্ট ট্যাবারন্যা‌ক্‌ল মন্ডলীতে প্রচারিত একটি ধর্ম্মোপদেশ
A sermon preached at the Baptist Tabernacle of Los Angeles
Lord’s Day Afternoon, July 26, 2020

প্রচারের আগে গীত সঙ্গীত:
      “আমি কি ক্রুশের এক সৈনিক?”(আইজ্যাক ওয়াট্‌স, 1674-1748)|

“হে উত্তরীয় বায়ু, জাগ, হে দক্ষিণ বায়ু, আইস, আমার উপবনে বহ; উপবনের বিবিধ সুগন্ধি প্রবাহিত হউক” (পরমগীত 4:16)|


এটি আমার জীবনে শোনা খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি ধর্ম্মোপদেশ| আপনি যদি আমার আত্মজীবনী পড়েন তো আপনি দেখবেন কেন এই ধর্ম্মোপদেশটি আমার জীবন বদলে দিয়েছিল| ডঃ রবার্ট এল. সুমনার বলেছিলেন, “আমি একজন মানুষকে প্রশংসা ও শ্রদ্ধা করি যিনি সর্বদা সত্যের পক্ষে দাঁড়াতে ইচ্ছুক – এমনকী যখন সমস্ত প্রতিকূলতা তার বিরুদ্ধে থাকে| আর. এল. হেইমার্‌স, জুনিয়র হলেন সেই ধরণের একজন খ্রীষ্ট বিশ্বাসী” (দ্য অনার ওয়াজ অল মাইন: জায়ান্টস অফ্‌ দ্য ফেইথ হুজ্‌ পাথ্‌স ক্রস্‌ড মাইন, বিবলিকাল ইভাঞ্জেলিজ্‌ম প্রেস, 2015, পৃ. 103-105)| ইন্দোনেশিয়াতে আমাদের একজন মিশনারি বলেছিলেন, “ডঃ হেইমার্‌স হলেন একজন আদর্শ ব্যক্তি যিনি বহু প্রাণঘাতী সংগ্রামের পরেও বিদ্যমান|” এটা ডঃ তিমথী লিন-এর দ্বারা প্রচারিত একটি ধর্ম্মোপদেশ যা আমাকে একজন জয়কারী হওয়ার প্রতি কাজ করতে অনুপ্রাণিত করেছিল| আমি আশা করি এই বার্তা আপনার জীবনকেও বদলে দেবে|

+ + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + +
এখন আপনার সেল ফোনেই আমাদের ধর্ম্মোপদেশগুলি পাওয়া যাবে|
WWW.SERMONSFORTHEWORLD.COM ওয়েবসাইটে যান|
“অ্যাপ” লেখা সবুজ বোতামটি ক্লিক্‌ করুন|
যে নির্দেশগুলি আসবে সেগুলি অনুসরণ করুন|

+ + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + +

ডঃ তিমথী লিন বলেছিলেন, “মানুষ কোন ঘটনাক্রমে বা হঠাৎ সৃষ্ট হয় নাই; ঈশ্বরের সৃষ্টির উপরে বিশেষভাবে কর্তৃত্ব করিবার জন্য তাহাকে সৃষ্টি করা হইয়াছিল…যোষেফের জীবন সেই প্রস্তুতি প্রকাশ করিতেছে যাহা ভবিষ্যতে [খ্রীষ্টের আগত রাজ্যে] প্রভুত্ব করিতে খ্রীষ্ট বিশ্বাসীগণের প্রয়োজন|”

যোষেফ মিশরের শাসকে পরিণত হওয়ার আগে, তাকে একজন জয়কারী এবং [তার] জীবনের শেষ পর্যন্ত তাঁর বাক্যের এক রক্ষাকারী হিসাবে প্রস্তুত করতে ঈশ্বর এক দীর্ঘ কঠিন পথে তাকে নিয়ে গেছিলেন| সেই মহান বিষয় যা যোষেফ করেছিলেন তা কেবলমাত্র মিশরের সাথে সম্পর্কযুক্ত ছিল না, কিন্তু ইস্রায়েল এর সাথেও, আর যুগ যুগ ধরে ঈশ্বরের মন্ডলীর সাথে সম্পর্কিত ছিল| যোষেফের রাজত্ব ছাড়া, শুধুমাত্র ক্ষুধার জ্বালাতেই মিশরীয়দের মৃত্যু হত তাই নয়, কিন্তু সম্ভবত সমগ্র ইস্রায়েল জাতি ধ্বংস হয়ে যেত, আর আদিপুস্তকে ঈশ্বরের মুক্তির পরিকল্পনা’র প্রকাশ সম্পূর্ণ হত না|

যোষেফের আত্মিক জীবন গঠন করতে ঈশ্বর যে পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিলেন তা পরমগীত 4:16 পদের আলোকে বিবেচনা করা যেতে পারে|

“হে উত্তরীয় বায়ু, জাগ, হে দক্ষিণ বায়ু, আইস, আমার উপবনে বহ; উপবনের বিবিধ সুগন্ধি প্রবাহিত হউক” (পরমগীত 4:16)|

যোষেফের জীবন যত্নপূর্বক অধ্যয়ন করলে, একজন উপলব্ধি করতে পারেন যে কিভাবে ঈশ্বর উত্তরীয় বায়ু এবং দক্ষিণ বায়ু পালাক্রমে তার উপরে প্রবাহিত করিয়েছিলেন যতক্ষণ না তার চরিত্রের সৌরভযুক্ত সুগন্ধ প্রবাহিত হয়| দুঃখভোগ দ্বারা ঈশ্বর তার চরিত্র প্রস্তুত করেছিলেন, কঠোর পরিশ্রম অনুশীলনের দ্বারা তার শরীর গঠন করেছিলেন, মর্যাদাহানি ও অপমানের প্রতি তাকে অনাবৃত করেছিলেন, অবিচার ও অকৃতজ্ঞতা দিয়ে তাকে আশাহীন করেছিলেন, যাতে তার মন কর্ষন করা যায়, তার সংবেদনশীলতা স্থিতিশীল হয়, তার ইচ্ছাশক্তি জোরদার হয়, তার বিশ্বাস ও চরিত্র উন্নত হয়, আর প্রভুর উপরে তার বিশ্বাস বৃদ্ধি পায়| যোষেফের জীবনে উত্তরীয় বায়ু এবং দক্ষিণ বায়ুর সমস্ত ক্রিয়াকলাপ স্পষ্টভাবে দেখা যেতে পারে|

দক্ষিণ বায়ু - পিতামাতার স্নেহ উপভোগ

অনুগ্রহ করে আদিপুস্তক 37:1-4 পদগুলি দেখুন|

“তৎকালে যাকোব আপন পিতার প্রবাস-দেশে, কনান দেশে বাস করিতেছিলেন| যাকোবের বংশ-বৃত্তান্ত এই| যোষেফ সতের বৎসর বয়সে আপন ভ্রাতৃগণের সহিত পশুপাল চরাইত; সে বাল্যকালে আপন পিতৃভার্য্যা বিল্‌হার ও সিল্পার পুত্ত্রগণের সহচর ছিল, এবং যোষেফ তাহাদের কুব্যবহারের বার্ত্তা পিতার নিকটে আনিত| যোষেফ ইস্রায়েলের বৃদ্ধাবস্থার সন্তান, এই জন্য ইস্রায়েল সকল পুত্ত্র অপেক্ষা তাহাকে অধিক ভালবাসিতেন, এবং তাহাকে একখানি চোগা প্রস্তুত করিয়া দিয়াছিলেন| কিন্তু পিতা তাহার সকল ভ্রাতা অপেক্ষা তাহাকে অধিক ভাল বাসেন, ইহা দেখিয়া তাহার ভ্রাতৃগণ তাহাকে দ্বেষ করিত, তাহার সঙ্গে প্রণয়ভাবে কথা কহিতে পারিত না” (আদিপুস্তক 37:1-4)|

ডঃ লিন বলেছিলেন, “পিতামাতার ভালবাসা একটি শিশুর ভবিষ্যৎ চারিত্রিক বৈশিষ্ট্যের সহিত অনেকটা সম্পর্কযুক্ত…”

“প্রেম ও মন্দ উভয়ের মধ্যে পার্থক্য যোষেফ জানিতেন…প্রেম ও সত্য হইতেছে দুইটি পরস্পর পরস্পরের উপরে ক্রিয়াকারী ধারণা, কিন্তু প্রেম ও মন্দের ক্ষেত্রে ইহা সত্য নয়, যাহারা দুইটি ভিন্ন শ্রেণীর হয়| কিন্তু মন্দ উন্মুক্ত করা হইতে বিরত থাকা প্রেম নয়, বরং উহা ভীরুতা… যতক্ষণ পর্যন্ত একজন ব্যক্তির অভিপ্রায় স্বার্থশূন্য, মন্দ উন্মুক্তকরণ হইতেছে একটি মহৎ কর্ম এবং ইহা উৎসাহিত হওয়া উচিৎ..| যোষেফের দুইটি স্বপ্নের বিবরণ তাহার ভ্রাতাদের গর্বে আঘাত করিয়াছিল এবং তাহাদের ঈর্ষাকে উত্তেজিত করিয়াছিল; তথাপি যোষেফ তাহার ভ্রাতাদের ভালবাসিতেন এবং তাহার পিতার কাছে তিনি একজন বাধ্য পুত্র ছিলেন|”

আমি নিজে আমার বাবার ভালবাসা পাইনি, কিন্তু আমার মায়ের ভালবাসা এবং অনুমোদন আমাকে আমার বাবার প্রতি তিক্ত হওয়া থেকে দূরে রেখেছিল| আমার মা নির্ভুল হওয়া থেকে অনেক দূরে ছিলেন, কিন্তু “আমার যৌবনকালে আমি জানতাম তিনি ছিলেন পরম স্নেহশীল, সুন্দরতম, সর্বাপেক্ষা বুদ্ধিমান মহিলা| তিনি আমাকে শিখিয়েছিলেন বই ভালবাসতে, গাড়ি চালাতে, আর সবথেকে গুরুত্বপূর্ণভাবে শিখিয়েছিলেন মাথা উঁচু করে দাঁড়াতে এবং এমনকী যদি আমি একা দাঁড়িয়ে থাকি তাহলেও, যা বলার প্রয়োজন তাই বলতে” (আমার আত্মজীবনীর 16 নং পৃষ্ঠা)| সেইজন্যে, আমার মা সর্বদা ছিলেন আমার সমর্থক এবং উপদেশক| আমার প্রতি আমার মায়ের শেষ বাক্য ছিল, “রবার্ট, আমি তোমাকে ভালবাসি” (পৃ.181)| 80 বছর বয়সে শেষপর্যন্ত যখন আমার মা পরিত্রাণ পান, এটা সেই শ্রেষ্ঠ বিষয়গুলির মধ্যে একটি ছিল যা আমার জীবনে আমার প্রতি ঘটেছিল|

উত্তরীয় বায়ু – দাসত্বে বিক্রীত –
আদিপুস্তক 37:18-36

অনুগ্রহ করে আদিপুস্তক 37:23-28 পদ খুলুন এবং যখন আমি পড়ছি উঠে দাঁড়ান|

“পরে যোষেফ আপন ভ্রাতৃগণের নিকটে আসিলে তাহারা তাহার গাত্র হইতে সেই বস্ত্র, সেই চোগাখানি খুলিয়া লইল; আর তাহাকে ধরিয়া গর্ত্তমধ্যে ফেলিয়া দিল; সেই গর্ত্ত শূন্য ছিল, তাহাতে জল ছিল না| পরে তাহারা আহার করিতে বসিল; এবং চক্ষু তুলিয়া চাহিল, আর দেখ, গিলিয়দ হইতে এক দল ইশ্মায়েলীয় ব্যবসায়ী লোক আসিতেছে; তাহারা উষ্ট্রবাহনে সুগন্ধি দ্রব্য, গুগ্‌গুলু ও গন্ধ রস লইয়া মিসর দেশে যাইতেছিল| তখন যিহূদা আপন ভ্রাতৃগণকে কহিল, আমাদের ভ্রাতাকে বধ করিয়া তাহার রক্ত গোপন করিলে আমাদের কি লাভ? আইস, আমরা ঐ ইশ্মায়েলীয়দের কাছে তাহাকে বিক্রয় করি, আমরা তাহার উপরে হাত তুলিব না; কেননা সে আমাদের ভ্রাতা, আমাদের মাংস| ইহাতে তাহার ভ্রাতৃগণ সম্মত হইল| পরে মিদিয়নীয় বণিকেরা নিকটে আসিলে উহারা যোষেফকে গর্ত্ত হইতে টানিয়া তুলিল; এবং বিংশতি রৌপ্যমুদ্রায় সেই ইশ্মায়েলীয়দের কাছে যোষেফকে বিক্রয় করিল; আর তাহারা যোষেফকে মিসর দেশে লইয়া গেল” (আদিপুস্তক 37:23-28).

আপনারা বসতে পারেন|

ডঃ লিন বলেছিলেন, “একটি সহজ জীবনের মাধ্যমে আন্তরিকতা, আনুগত্য, ধৈর্য্য, বিশ্বস্ততা, অধ্যাবসায়, চিন্তাশীলতা এবং প্রজ্ঞা অর্জন করা যায় না, কিন্তু কঠোর পরিশ্রম ও বাধা সহ্য করিয়া অর্জন করিতে হয়| যোষেফ কখনই [একজন জয়কারী হইবার জন্য] সম্পূর্ণভাবে সজ্জিত হইতে পারিত না যদি সে গৃহে থাকিত| তাহার অস্তিত্ব 20 টুকরা রৌপ্যের বিনিময়ে বিক্রীত হওয়ার ফল অনেককেই মারাত্মকভাবে অসুস্থ করিতে পারিত| কিন্তু যোষেফ তাহার ভ্রাতাদের দোষারোপ করেন নাই বা অভিশাপ দেন নাই, যদিও তিনি হয়ত বিস্মিত হইয়া থাকিবেন যে এই সমস্ত পরিস্থিতির মধ্য দিয়া কিভাবে ঈশ্বর তাহার দুইটি স্বপ্ন পরিপূর্ণ করিবেন|”

দক্ষিণ বায়ু – আত্মবিশ্বাস ও শ্রদ্ধা অর্জন –
আদিপুস্তক 39:1-6

আমার পাঠ করাকালীন অনুগ্রহ করে আদিপুস্তক 39:1-6 পদগুলি খুলুন|

“যোষেফ মিসর দেশে আনীত হইলে পর, যে ইশ্মায়েলীয়েরা তাঁহাকে তথায় লইয়া গিয়াছিল, তাহাদের নিকটে ফরৌণের কর্ম্মচারী পোটীফর তাঁহাকে ক্রয় করিলেন; ইনি রক্ষক সেনাপতি, এক জন মিস্রীয় লোক| আর সদাপ্রভু যোষেফের সহবর্ত্তী ছিলেন, এবং তিনি সফলকর্ম্মা হইলেন, ও আপন মিস্রীয় প্রভুর গৃহে রহিলেন| আর সদাপ্রভু তাঁহার সহবর্ত্তী আছেন, এবং তিনি যে কিছু করেন, সদাপ্রভু তাঁহার হস্তে তাহা সফল করিতেছেন, ইহা তাঁহার প্রভু দেখিলেন| অতএব যোষেফ তাঁহার দৃষ্টিতে অনুগ্রহ প্রাপ্ত হইলেন, ও তাঁহার পরিচারক হইলেন, এবং তিনি যোষেফকে আপন বাটীর অধ্যক্ষ করিয়া তাঁহার হস্তে আপনার সর্ব্বস্ব সমর্পণ করিলেন| যে অবধি তিনি যোষেফকে আপন বাটীর ও সর্ব্বস্বের অধ্যক্ষ করিলেন, সেই অবধি সদাপ্রভু যোষেফের অনুরোধে সেই মিস্রীয় ব্যক্তির বাটীর প্রতি আশীর্ব্বাদ করিলেন; বাটীতে ও ক্ষেত্রে স্থিত তাঁহার সমস্ত সম্পদের প্রতি সদাপ্রভুর আশীর্ব্বাদ বর্ত্তিল| অতএব তিনি যোষেফের হস্তে আপনার সর্ব্বস্বের ভার দিলেন, আপনি নিজ আহারীয় দ্রব্য ব্যতীত আর কিছুরই তত্ত্ব লইতেন না| যোষেফ রূপবান্‌ ও সুন্দর ছিলেন” (আদিপুস্তক 39:1-6)|

উপরে দেখুন|

ফরৌণের রক্ষকদের মধ্যে পোটীফর নামে এক সেনাধ্যক্ষের কাছে যোষেফকে বিক্রী করা হয়েছিল| অভিযোগ জানানোর পরিবর্তে যোষেফ কাজ করতে গিয়েছিলেন এবং তাকে দেওয়া দায়িত্ব সম্পূর্ণ করেছিলেন| তিনি তার প্রভু, পোটীফর-এর আস্থা অর্জন করলেন এবং তিনি সাফল্যের দ্বারা চিহ্নিত এক মানুষে পরিণত হয়েছিলেন| কিন্তু যোষেফের আরও প্রশিক্ষণ নেওয়ার দরকার ছিল| সেইজন্যে ঈশ্বর তাকে অবমানিত হওয়ার অনুমোদন দিয়েছিলেন|

উত্তরীয় বায়ু – প্রলোভন ও অবিচারের সম্মুখীন হওয়া –
আদিপুস্তক 39:7-20

যেহেতু এখন আমি আদিপুস্তক 39:1-18 পড়ছি উঠে দাঁড়ান| ডঃ লিন বলেছিলেন, “যখন তাহাদের জীবনে উত্তরীয় বায়ু প্রবাহিত হয়, অনেক যুবক মনে করেন ইহা দুঃখদায়ক…কিন্তু এমন সমস্যা প্রায়ই ঈশ্বরের অনুগ্রহের প্রকাশ হইয়া থাকে| যিরমিয় বলিয়াছিলেন, ‘যৌবনকালে যোঁয়ালি বহন করা মানুষের মঙ্গল’ (বিলাপ 3:27)| কঠোর সংগ্রাম ব্যতীত একটি সহজ জীবন একজন যুবককে ধ্বংস করিতে পারে| কিন্তু যুবক বয়সে যোঁয়ালি বহন করা হইতেছে তাহার জন্য একটি উচ্চতর স্থানে পৌঁছাইতে পদক্ষেপ করিবার প্রস্তর স্বরূপ|”

“যোষেফ মিসর দেশে আনীত হইলে পর, যে ইশ্মায়েলীয়েরা তাহাকে তাঁহাকে তথায় লইয়া গিয়াছিল, তাহাদের নিকটে ফরৌণের কর্ম্মচারী পোটীফর তাঁহাকে ক্রয় করিলেন; ইনি রক্ষক সেনাপতি, এক জন মিস্রীয় লোক| আর সদাপ্রভু যোষেফের সহবর্ত্তী ছিলেন, এবং তিনি সফলকর্ম্মা হইলেন, ও আপন মিস্রীয় প্রভুর গৃহে রহিলেন| আর সদাপ্রভু তাঁহার সহবর্ত্তী আছেন, এবং তিনি যে কিছু করেন, সদাপ্রভু তাঁহার হস্তে তাহা সফল করিতেছেন, ইহা তাঁহার প্রভু দেখিলেন| অতএব যোষেফ তাঁহার দৃষ্টিতে অনুগ্রহ প্রাপ্ত হইলেন, ও তাঁহার পরিচারক হইলেন, এবং তিনি যোষেফকে আপন বাটীর অধ্যক্ষ করিয়া তাঁহার হস্তে আপনার সর্ব্বস্ব সমর্পণ করিলেন| যে অবধি তিনি যোষেফকে আপন বাটীর ও সর্ব্বস্বের অধ্যক্ষ করিলেন, সেই অবধি সদাপ্রভু যোষেফের অনুরোধে সেই মিস্রীয় ব্যক্তির বাটীর প্রতি আশীর্ব্বাদ করিলেন; বাটীতে ও ক্ষেত্রে স্থিত তাঁহার সমস্ত সম্পদের প্রতি সদাপ্রভুর আশীর্ব্বাদ বর্ত্তিল| অতএব তিনি যোষেফের হস্তে আপনার সর্ব্বস্বের ভার দিলেন, আপনি নিজ আহারীয় দ্রব্য ব্যতীত আর কিছুরই তত্ত্ব লইতেন না| যোষেফ রূপবান্‌ ও সুন্দর ছিলেন| এই সকল ঘটনার পর তাঁহার প্রভুর স্ত্রী যোষেফের প্রতি দৃষ্টিপাত করিল; আর তাঁহাকে কহিল, আমার সহিত শয়ন কর| কিন্তু তিনি অস্বীকার করতঃ আপন প্রভুর স্ত্রীকে কহিলেন, দেখুন, এই বাটীতে আমার হস্তে কি কি আছে, আমার প্রভু তাহা জানেন না; আমারই হস্তে সর্ব্বস্ব রাখিয়াছেন; এই বাটীতে আমা অপেক্ষা বড় কেহই নাই; তিনি সমুদয়ের মধ্যে কেবল আপনাকেই আমার অধীনা করেন নাই, কারণ আপনি তাঁহার ভার্য্যা| অতএব আমি কিরূপে এই মহা দুষ্কর্ম্ম করিতে ও ঈশ্বরের বিরুদ্ধে পাপ করিতে পারি? সে দিন দিন যোষেফকে সেই কথা কহিলেও তিনি তাহার সহিত শয়ন করিতে কিম্বা সঙ্গে থাকিতে তাহার কথায় সম্মত হইতেন না| পরে একদিন যোষেফ কার্য্য করিবার জন্য গৃহমধ্যে গেলেন, বাটীর লোকদের মধ্যে অন্য কেহ তথায় ছিল না, তখন সে যোষেফের বস্ত্র ধরিয়া বলিল, আমার সহিত শয়ন কর; কিন্তু যোষেফ তাহার হস্তে আপন বস্ত্র ফেলিয়া বাহিরে পলাইয়া গেলেন| তখন যোষেফ তাহার হস্তে বস্ত্র ফেলিয়া বাহিরে পলাইলেন দেখিয়া, সে নিজ ঘরের লোকদিগকে ডাকিয়া কহিল, দেখ, তিনি আমাদের সহিত ঠাট্টা করিতে এক জন ইব্রীয় পুরুষকে আনিয়াছেন; সে আমার সঙ্গে শয়ন করিবার জন্য আমার নিকটে আসিয়াছিল, তাহাতে আমি চীৎকার করিয়া উঠিলাম; আমার চীৎকার শুনিয়া সে আমার নিকটে নিজ বস্ত্রখানি ফেলিয়া বাহিরে পলাইয়া গেল| আর যে পর্য্যন্ত তাঁহার কর্ত্তা ঘরে না আসিলেন, সে পর্য্যন্ত সেই স্ত্রীলোক তাঁহার বস্ত্র আপনার কাছে রাখিয়া দিল| পরে সেই বাক্যানুসারে তাঁহাকে কহিল, তুমি যে ইব্রীয় দাসকে আমাদের কাছে আনিয়াছ, সে আমার সহিত ঠাট্টা করিতে আমার কাছে আসিয়াছিল; পরে আমি চীৎকার করিয়া উঠিলে সে আমার নিকটে তাহার বস্ত্রখানি ফেলিয়া বাহিরে পলাইয়া গেল” (আদিপুস্তক 39:1-18)|

আপনারা বসতে পারেন|

একদিন যোষেফ যখন পোটীফর-এর ঘরে কাজ করছিলেন, তার স্ত্রী যোষেফকে ধরে ফেলেন এবং তার সাথে তাকে শোয়ানোর চেষ্টা করেন| কিন্তু যোষেফ নিজেকে বলপূর্বক তার হাত থেকে ছাড়িয়ে নেন, আর নিজের বস্ত্র তার হাতে রেখে দৌড়ে পালিয়ে যান|

অন্য কোন যুবকের কাছে এই প্রলোভন হয়ত অপ্রতিরোধ্য হতে পারত, কিন্তু যোষেফ এটি জয় করেছিলেন| তিনি দ্রুত পলায়ন করার দ্বারা এই প্রলোভন দ্রুতভাবে জয় করেছিলেন| কিছু প্রলোভন জয় করা যায় সেসবের সম্মুখীন হওয়ার দ্বারা, কিন্তু যৌনতা ও কাম-এর সাথে সম্পর্কযুক্ত প্রলোভন একমাত্র পলায়নের দ্বারাই অতিক্রম করা যায় (II তীমথিয় 2:22 পদ বলছে, “যৌবনকালের অভিলাষ হইতে পলায়ন কর”)| যোষেফের জয় ছিল – তার বিশ্বস্ততা - ঈশ্বরের প্রতি, পোটীফরের প্রতি, যিনি যোষেফ ও তার নিজের প্রতি এত আস্থা রেখেছিলেন, যাতে যোষেফের পবিত্রতাকে সমস্ত কলুষতা থেকে দূরে রাখা যেত| দুষ্ট নারীর ইচ্ছার কাছে নিজেকে সমর্পণ করার পরিবর্তে বরং ঈশ্বরের জন্য তিনি কারাগারে যাবেন| পোটীফরের জন্য তিনি নিজেকে প্রতিহত করেননি, কিন্তু তার প্রভুর স্ত্রীর অবমাননা এড়াতেই তিনি এটা করেছিলেন| সেইজন্যে তিনি চুপ করে ছিলেন| যখন পোটীফর বাড়ি ফিরে এলেন, তিনি তার স্ত্রীর অভিযোগ মেনে নিয়েছিলেন, আর যোষেফকে কারাগারে নিক্ষেপ করেছিলেন|

দক্ষিণ বায়ু – উন্নতিবর্ধন এবং বন্ধুত্ব -
আদিপুস্তক 39:21-40:22

আদিপুস্তক 39:19-22 পদ খুলুন| যখন পড়ছি উঠে দাঁড়ান|

“তাঁহার প্রভু আপন স্ত্রীর এই কথা শুনিলেন যে, ‘তোমার দাস আমার প্রতি এইরূপ ব্যবহার করিয়াছে,’ তখন ক্রোধে প্রজ্জ্বলিত হইয়া উঠিলেন| অতএব যোষেফের প্রভু তাঁহাকে লইয়া কারাগারে রাখিলেন, যে স্থানে রাজার বন্দিগণ বদ্ধ থাকিত; তাহাতে তিনি সেখানে, সেই কারাগারে থাকিলেন| কিন্তু সদাপ্রভু যোষেফের সহবর্ত্তী ছিলেন, এবং তাঁহার প্রতি দয়া করিলেন; ও তাঁহাকে কারারক্ষকের দৃষ্টিতে অনুগ্রহপাত্র করিলেন| তাহাতে কারারক্ষক কারাস্থিত সমস্ত বন্দির ভার যোষেফের হস্তে সমর্পণ করিলেন, এবং তথাকার লোকদের সমস্ত কর্ম্ম যোষেফের আজ্ঞানুসারে চলিতে লাগিল” (আদিপুস্তক 39:19-22)|

আপনারা বসতে পারেন|

এমনকী যদিও যোষেফের শারীরিক পরিবেশ মন্দতার প্রতি পরিবর্ত্তিত হয়েছিল, কিন্তু তাঁর আত্মিক দৃঢ়প্রত্যয় পরিবর্ত্তিত হয়নি| এবং কারাগারে ঈশ্বরের উপস্থিতি ক্রমাগত তাঁকে আশীর্ব্বাদ করে চলেছিল|

কারাগারে যোষেফ একটি বন্ধুত্বপূর্ণ পরিবেশ সৃষ্টি করতে সক্ষম হয়েছিলেন| ফরৌণের পানপাত্রবাহক ও মোদক, যারাও ঐ কারাগারে ছিলেন, কোন স্বপ্নের দ্বারা বিব্রত ছিলেন| এই স্বপ্নগুলির অর্থ কেউই তাদের বলতে পারছিলেন না| যোষেফের মনে ঈশ্বর যেকোন কিছু করতে পারতেন| তিনি পানপাত্রবাহক ও মোদকের স্বপ্নের ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন| তিন দিন পরে উভয় ব্যাখ্যাই পরিপূর্ণতা লাভ করেছিল| পানপাত্রবাহক তার পূর্বপদে নিযুক্ত হয়েছিলেন এবং মোদককে ফাঁসীকাঠে ঝোলানো হয়েছিল| এমনকী কারাগারেও, এটাই ছিল যোষেফের দক্ষিণ বায়ু প্রবাহ|

উত্তরীয় বায়ু - স্থায়ী অকৃতজ্ঞতা এবং বিলম্বতা -
আদিপুস্তক 40:23

আদিপুস্তক 40:23 দেখুন|

“তথাপি প্রধান পানপাত্রবাহক যোষেফকে স্মরণ করিল না, ভুলিয়া গেল” (আদিপুস্তক 40:23)|

আরও দুটি দীর্ঘ বছরের জন্য যোষেফের কারাবাস অবশ্যই নিশ্চিতভাবে তার জন্য একটি তীব্র উত্তরীয় বায়ু ছিল| “তথাপি প্রধান পানপাত্রবাহক যোষেফকে স্মরণ করিল না, ভুলিয়া গেল” (আদিপুস্তক 40:23)| এটা পানপাত্রবাহকের কৃতজ্ঞতাহীন চরিত্রের দিকটি প্রকাশ করছে| এই ধরণের একটি পরিস্থিতি এই অকৃতজ্ঞতার জন্য অন্য কোন ব্যক্তিকে জগৎকে ঘৃণা করার দিকে চালিত করতে পারে, কিন্তু যোষেফকে নয়| ঈশ্বরের কাজ করার জন্য অপেক্ষা করার মূল্য তিনি জেনেছিলেন| ঈশ্বর কারাগারে যোষেফের থাকার সময় দীর্ঘান্বিত করেছিলেন ঈশ্বরের কাজ করার অপেক্ষায় থাকার প্রতি তার ধৈর্য্য বৃদ্ধি করতে, আর ঈশ্বরের বিশ্বস্ততার প্রতি তাঁর আস্থা আরও গভীর করতে| ঈশ্বরের বিলম্ব ছিল তাঁর বিজয়লাভের প্রতি তাঁর অতিরিক্ত অনুগ্রহের লক্ষণ| পরে দাউদ বলেছিলেন, “সদাপ্রভুর অপেক্ষায় থাক; সাহস কর, তোমার অন্তঃকরণ সবল হউক; হাঁ, সদাপ্রভুরই অপেক্ষায় থাক” (গীতসংহিতা 27:14)|

দক্ষিণ বায়ু - রাজা হিসাবে রাজত্ব করা -
আদিপুস্তক 47:12-31

উঠে দাঁড়ান যখন আমি আদিপুস্তক 47:12-17 পড়ছি|

“আর যোষেফ আপন পিতা ও ভ্রাতাদিগকে এবং পিতার সমস্ত পরিজনকে তাঁহাদের পরিবারানুসারে ভক্ষ্য দ্রব্য দিয়া প্রতিপালন করিলেন| তৎকালে সমগ্র দেশে ভক্ষ্য দ্রব্য ছিল না, কারণ অতি ভারী দুর্ভিক্ষ হইয়াছিল, তাহাতে মিশর দেশ ও কনান দেশ দুর্ভিক্ষপ্রযুক্ত অবসন্ন হইয়া পড়িল| আর মিসর দেশে ও কনান দেশে যত রৌপ্য ছিল, লোকে তাহা দিয়া শষ্য ক্রয় করাতে যোষেফ সেই সমস্ত রৌপ্য সংগ্রহ করিয়া ফরৌণের ভান্ডারে আনিলেন| মিসর দেশে ও কনান দেশে রৌপ্য ব্যয় হইয়া গেলে মিস্রীয়েরা সকলে যোষেফের নিকটে আসিয়া কহিল, আমাদিগকে খাদ্যদ্রব্য দিউন, আমাদের রৌপ্য শেষ হইয়া গিয়াছে বলিয়া আমরা কি আপনার সম্মুখে মরিব? যোষেফ কহিলেন, তোমাদের পশু দেও; যদি রৌপ্য শেষ হইয়া থাকে, তবে তোমাদের পশুর পরিবর্ত্তে তোমাদিগকে ভক্ষ্য দিব| তখন তাহারা যোষেফের কাছে আপন আপন পশু আনিলে যোষেফ অশ্ব, মেষপাল, গোপাল ও গর্দ্দভদিগকে পরিবর্ত্ত লইয়া তাহাদিগকে ভক্ষ্য দিতে লাগিলেন; এইরূপে যোষেফ তাহাদের সমস্ত পশু লইয়া সেই বৎসর ভক্ষ্য দিয়া তাহাদের চালাইয়া দিলেন” (আদিপুস্তক 47:12-17)|

আপনারা বসতে পারেন|

ডঃ লিন বলেছিলেন, “কোন শাসনই আনন্দদায়ক নয় যখন ইহা গ্রহণীয় হয়; ইহা সর্বদা যন্ত্রণাদায়ক এবং অপ্রীতিকর হয়| কিন্তু যাহারা ইহার দ্বারা প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত হয় তাহাদের সম্মুখে ইহা ধার্ম্মিকতার ফল আনয়ন করে|” ইব্রীয় 12:11 পদটি খুলুন,

“কোন শাসনই আপাততঃ আনন্দের বিষয় বোধ হয় না, কিন্তু দুঃখের বিষয় বোধ হয়; তথাপি তদ্দ্বারা যাহাদের অভ্যাস জন্মিয়াছে, তাহা পরে তাহাদিগকে ধার্ম্মিকতার শান্তিযুক্ত ফল প্রদান করে” (ইব্রীয় 12:11)|

উপরে দেখুন|

এই দীর্ঘ্য দুই বছরের শেষে, ঈশ্বর ফরৌণকে একটি স্বপ্ন দেখিয়েছিলেন যখন সেই পানপাত্রবাহক স্মরণ করতে পেরেছিলেন যে যোষেফ একবার তার স্বপ্নের ব্যাখ্যা দিয়েছিলেন| সেই পানপাত্রবাহক তখন ফরৌণকে তার স্বপ্নের ব্যাখ্যা করার জন্যে যোষেফকে বলতে বলেছিলেন! স্বপ্নটি বোঝাচ্ছে যে সাত বছরের শষ্যবাহুল্য শেষ হবে পরবর্তী সাত বছরের দুর্ভিক্ষ সমেত| ফরৌণ যোষেফকে পরিকল্পনা রূপায়নের কাজে নিযুক্ত করলেন, এবং আসন্ন সাত বছরের দুর্ভিক্ষের জন্য প্রস্তুতি নিলেন| ফরৌণ দেখেছিলেন যে যোষেফ এই কাজ করার জন্য অতিপ্রাকৃতিকভাবে প্রতিভাশালী ছিলেন| সেইজন্যে যোষেফকে সমগ্র মিসর দেশের একজন অধ্যক্ষ নিয়োগ করা হয়েছিল (আদিপুস্তক 41:38-43)| যোষেফ মিস্রীয়দের উপরে প্রজ্ঞা ও সহানুভূতি সহ রাজত্ব করেছিলেন – এবং নিয়মানুবর্তীতা এবং ভালবাসা সহ তিনি তাঁর ভাইদের উপরে রাজত্ব করেছিলেন| শেষ পর্য্যন্ত যোষেফকে তাঁর ভাইদের থেকেও বেশী সম্মান দেওয়া হয়েছিল (আদিপুস্তক 49:26)|

ডঃ লিন বলেছিলেন, “ঈশ্বর যেমন যোষেফকে একটি জাগতিক রাজ্য পরিচালনা করিবার প্রশিক্ষণ দিয়াছিলেন, তেমনই ঈশ্বর তাঁহার আগত রাজ্যের উপরে কর্তৃত্ব করিতে তাঁহার জয়কারীদের প্রশিক্ষিত করেন| পরিত্রাণ শর্তবিহীন, উহাতে কোন কার্য্য সংযুক্ত নয়| কিন্তু তাঁহার আগত রাজ্যে খ্রীষ্টের সহিত রাজত্ব করা শর্তসাপেক্ষ|” বাইবেল বলছে,

“যদি সহ্য করি, তাঁহার সহিত রাজত্বও করিব” (II তীমথিয় 2:12)|

পালক উর্মব্রান্ড একটি কম্যুনিস্ট কারাগারে 14 বছর দুঃখভোগের মধ্যে দিয়ে গিয়েছিলেন| পালক উর্মব্রান্ড বলেছিলেন, “আমার একজন খ্রীষ্ট বিশ্বাসীকেও জানা নাই যিনি প্রতিকূলতা এবং অভ্যন্তরীন কঠোর সংগ্রামের মধ্যেও বিশ্বস্ত ছিলেন যাহারা ইহার মধ্য হইতে সমৃদ্ধ হন নাই” (“যদি কারাগারের দেওয়াল কথা কহিতে পারে” গ্রন্থের মুখবন্ধ)|

আবার, পালক উর্মব্রান্ড বলেছিলেন, “আমার ভ্রাতা ও ভগিনীগণ, আপনার অবশ্যই বিশ্বাস করুন যে ঈশ্বরের হস্তে আপনাদের জীবন কাদামাটীর ন্যায়| তিনি কখনও ভুল করেন না| যদি কোন সময়ে তিনি আপনার প্রতি কঠোর হন…শুধু বিশ্বাস করুন| সেই বাণী আবিষ্কার করুন যাহার জন্য তিনি আপনাকে গঠন করিতেছেন| আমেন|” (পৃ. 16)|

আপনি যদি যোষেফের মতন একজন জয়কারী হন, তবে ঈশ্বর থেকে আপনার প্রতি এই প্রতিজ্ঞা আছে| প্রকাশিত বাক্য 2:26 পদটি খুলুন|

“আর যে জয় করে, ও শেষ পর্য্যন্ত আমার আদিষ্ট কার্য্য সকল পালন করে তাহাকে আমি আপনি পিতা হইতে যেরূপ পাইয়াছি, তদ্রূপ জাতিগণের উপরে কর্ত্তৃত্ব দিব” (প্রকাশিত বাক্য 2:26)|

ধন্যবাদ, ডঃ তিমথী লিন, আমাকে শিক্ষা দেওয়ার জন্য যা আমরা আপনার মহান ধর্ম্মোপদেশে শুনেছি| প্রিয় পালক, এটা আমার জীবন পরিবর্তন করেছে| আমি এই শিক্ষার জন্যে ঋণী!

অনুগ্রহ করে উঠে দাঁড়ান এবং আজকের জন্য আমাদের গানটি করুন, “আমি কি ক্রুশের এক সৈনিক?”

আমি কি ক্রুশের এক সৈনিক, মেষশাবকের এক অনুসরণকারী;
আমি তাঁর উদ্দেশ্য জানতে ভয় পাই, অথবা তাঁর নাম বলতে অপ্রতিভ হই?

আমি অবশ্যই পুষ্পময় শান্তি শয্যায় আকাশে পৌঁছাব,
যখন অন্যেরা পুরস্কারের জন্য যুদ্ধ করছিল, এবং রক্তাক্ত সাগরে পাল তুলেছিল?

সাক্ষাতের জন্য আমার কি কোন শত্রু নাই? আমি কি প্লাবনের মূল ধারায় বইব না?
তারা কি অনুগ্রহের প্রতি জঘণ্য জগতের বন্ধু, ঈশ্বরের প্রতি আমাকে সাহায্য করুন?

নিশ্চয় আমি যুদ্ধ করব, যদি আমি রাজত্ব করি; প্রভু, আমার সাহস বৃদ্ধি কর!
আমি কঠোর পরিশ্রম করব, যন্ত্রণা সহ্য করব, তোমার বাক্যের সহায়তায়|
 (“আমি কি ক্রুশের এক সৈনিক?” ডঃ আইজ্যাক ওয়াট্‌স, 1674-1748)|

+ + + + + + + + + + + + + + + + + + + + + +

আপনি যদি এখনও পরিত্রাণ না পেয়ে থাকেন, আমি চাই আপনি যীশুতে বিশ্বাস স্থাপন করুন| আপনার পাপের দেনা শোধ করার জন্যে ক্রুশের উপরে মৃত্যু বরণ করতে তিনি স্বর্গ থেকে নেমে এসেছিলেন| যে মুহূর্তে আপনি যীশুতে বিশ্বাস করেন, তাঁর রক্ত আপনাকে সব পাপ থেকে শুচি করবে| আমি প্রার্থনা করছি যে আপনি যীশুতে বিশ্বাস করবেন|


যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তাহলে ডঃ হাইমার্স আপনার কাছ থেকে কিছু শুনতে চান| যখন আপনি ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখবেন তখন অবশ্যই তাকে জানাবেন যে কোন দেশ থেকে আপনি তাকে লিখছেন নয়ত তিনি আপনার ই-মেলের জবাব দিতে সক্ষম হবেন না| যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তবে ডঃ হাইমার্সকে একট ই-মেল পাঠান এবং তাকে সেইকথা জানান, কিন্তু কোন দেশ থেকে আপনি লিখছেন চিঠিতে সেটা অবশ্যই অন্তর্ভূক্ত করবেন| ডঃ হাইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net (এখানে ক্লিক করুন) | আপনি যে কোন ভাষায় ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখতে পারেন, কিন্তু যদি পারেন তো ইংরাজিতেই লিখুন| যদি আপনি ডঃ হাইমার্সকে ডাক-ব্যবস্থার মাধ্যমে চিঠি পাঠাতে চান, তবে তার ঠিকানা হল P.O. Box 15308, Los Angeles, CA 90015 | আপনি তাকে (818)352-0452 নম্বরে ফোন করতে পারেন|

(সংবাদের পরিসমাপ্তি)
ডঃ হাইমার্সের সংবাদ আপনি প্রতি সপ্তাহে ইন্টারনেটে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে গিয়ে পড়তে পারেন| ক্লিক করুন “প্রচার পান্ডুলিপি|”

আপনি ডাঃ হাইমার্সকে মেইল পাঠাতে পারেন rlhymersjr@sbcglobal.net - আপনি
তাকে পত্র লিখতে পারেন P.O. Box 15308, Los Angeles, C A 90015.এই ঠিকানায়
। আপনি তাকে টেলিফোন করতে পারেন (818) 352-0452.

এই সুসমাচারের ম্যানুস্ক্রিপ্ট এর ওপর ডাঃ হাইমসের কোন কপিরাইট নেই। আপনারা
ইহা ব্যাবহার করতে পারেন ডাঃ হাইমসের অনুমতি ছাড়াই। অবশ্য, ভিডিও মেসেজ
সবই কপিরাইটের সহিত আছে এবং কেবলমাত্র তার অনুমতি নিয়েই ব্যাবহার করা যাবে।