Print Sermon

এই ওয়েবসাইটের উদ্দেশ্য হল ধর্ম্মোপদেশের পান্ডুলিপি এবং ধর্ম্মোপদেশের ভিডিওগুলি বিশ্বব্যাপী পালক ও মিশনারিদের বিনামূল্যে সরবরাহ করা, বিশেষ করে তৃতীয় বিশ্বে, যেখানে ধর্ম্মতত্ত্বমূলক সেমিনারী বা বাইবেল স্কুল থাকলেও খুব কম রয়েছে|

এই সমস্ত প্রচারের পান্ডুলিপি এবং ভিডিওগুলি এখন www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রতি মাসে 221টিরও বেশি দেশের প্রায় 1,500,000 কম্প্যুটারে যায়| শত শত লোক ইউটিউবের ভিডিওর মাধ্যমে এগুলি দেখেন, কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই তারা ইউটিউব ছেড়ে বেরিয়ে যান এবং আমাদের ওয়েবসাইটে চলে আসেন| ইউটিউব আমাদের ওয়েবসাইটে লোক এনে দেয়| প্রচারের এই পান্ডুলিপিগুলি প্রতি মাসে 40টি ভাষায় প্রায় 120,000 কম্প্যুটারে প্রচারিত হয়| প্রচারের পান্ডুলিপিগুলি গ্রন্থসত্ত্ব দ্বারা সংরক্ষিত নয়, কাজেই প্রচারকগণ আমাদের অনুমতি ছাড়াই এইগুলি ব্যবহার করতে পারেন| মুসলিম এবং হিন্দু রাষ্ট্রসমেত, সমগ্র পৃথিবীতে সুসমাচার ছড়িয়ে দেওয়ার এই মহান কাজে সাহায্য করার জন্য কিভাবে আপনি একটি মাসিক অনুদান প্রদান করতে পারেন তা জানতে অনুগ্রহ করে এখানে ক্লিক করুন|

যখনই আপনি ডঃ হেইমার্‍সকে লিখবেন সর্বদা তাকে জানাবেন যে আপনি কোন দেশে বাস করেন, অথবা তিনি আপনাকে উত্তর দিতে পারবেন না| ডঃ হেইমার্‌সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net |




প্রাচীন মন্ডলীগুলিতে সুসমাচার প্রচার

EVANGELISM IN THE EARLY CHURCHES
(Bengali)

লেখক : ডঃ আর. এল. হেইমার্‍স, জুনিয়র
by Dr. R. L. Hymers, Jr.

2018 সালের, 19শে অগাষ্ট, প্রভুর দিনের সন্ধ্যাবেলায় লস্‍ এঞ্জেল্‍সের
ব্যাপটিষ্ট ট্যাবারন্যাক্‍ল মন্ডলীতে প্রচারিত একটি ধর্ম্মোপদেশ
A sermon preached at the Baptist Tabernacle of Los Angeles
Lord's Day Evening, August 19, 2018

‘‘আর তিনি সেই বারো জনকে ডাকিয়া দুই দুই জন করিয়া তাঁহাদিগকে প্রেরণ করিতে আরম্ভ করিলেন’’ (মার্ক 6:7)|


এই বারো জন ব্যক্তি শুধুমাত্র কয়েক সপ্তাহ যীশুর সঙ্গে ছিলেন| কিন্তু তিনি সেইসময়ে তাদের দুইজন দুইজন করে প্রচার করতে পাঠিয়েছিলেন (মার্ক 6:12)| এমনকী সেই সময়েই যীশু তাদের ডেকেছিলেন, তিনি সেরকম করেছিলেন "যেন তিনি তাঁহাদিগকে প্রচার করিবার জন্য প্রেরণ করেন" (মার্ক 3:14)| নিশ্চিতভাবে আপনি জানেন যে ঐ ব্যক্তিগণ তখনও অবধি খুব বেশি আত্মিক ছিলেনন না| নিশ্চিতভাবে আপনি জানেন যে যিহূদা পরিত্রাণ লাভ করেননি, থোমা তখনও অবধি সুসমাচার বিশ্বাস করতেন না, পিতর পরবর্তীতে যীশুকে ক্রুশের কাছে যাওয়া থেকে নিরস্ত করার চেষ্টা করেছিলেন| তা সত্ত্বেও খ্রীষ্ট তাদের প্রচারের কাজে তৎক্ষণাৎ প্রেরণ করেছিলেন| পিতর ও আন্দ্রিয়কে সর্বপ্রথম যে বিষয়ে যীশু বলেছিলেন তা ছিল, "আমার পশ্চাৎ আইস| আমি তোমাদিগকে মনুষ্যধারী করিব| আর তখনই তাঁহারা জাল পরিত্যাগ করিয়া তাঁহার পশ্চাদগামী হইলেন" (মথি 4:19-20)|

আবার প্রায় এক বছর পরে, খ্রীষ্ট তাঁর অনুগামীদের মধ্যে সত্তর জনকে ডেকেছিলেন, "আর আপনি যেখানে যেখানে যাইতে উদ্যত ছিলেন, সেই সমস্ত নগরে ও স্থানে আপনার অগ্রে দুই দুই জন করিয়া তাহাদিগকে প্রেরণ করিলেন" (লূক 10:1)| অনুগ্রহ করে লূক 10 অধ্যায়ের দিকে দেখুন| আমি যখন 1 থেকে 3 নং পদটি পড়ছি সেইসময়ে উঠে দাঁড়ান|

“তৎপরে প্রভু আরও সত্তর জনকে নিযুক্ত করিলেন, আর আপনি যেখানে যেখানে যাইতে উদ্যত ছিলেন, সেই সমস্ত নগরে ও স্থানে আপনার অগ্রে দুই দুই জন করিয়া তাহাদিগকে প্রেরণ করিলেন| তিনি তাহাদিগকে বলিলেন, শষ্য প্রচুর বটে, কিন্তু কার্য্যকারী লোক অল্প; অতএব শষ্যক্ষেত্রের স্বামীর নিকটে প্রার্থনা কর, যেন তিনি নিজ শষ্যক্ষেত্রে কার্য্যকারী লোক পাঠাইয়া দেন| তোমরা যাও, দেখ, কেন্দুয়াদের মধ্যে যেমন মেষশাবক, তদ্রূপ তোমাদিগকে প্রেরণ করিতেছি” (লূক 10:1-3)|

আপনারা এখন বসতে পারেন|

এই ছিল লোকদের প্রচারে পাঠানোর জন্যে খ্রীষ্টের গৃহীত দুই-দুই-জন করে লোক পাঠানোর পদ্ধতি| আমি মনে করি যে বর্তমানে ঠিক এই রকম করা আমাদেরও দরকার| এছাড়া লক্ষ করুন যে তারা সকলেই ছিলেন নেহাত কাঁচা বা অনভিজ্ঞ, বড়জোর শিশু খ্রীষ্ট বিশ্বাসী, কিন্তু তিনি তাদেরই তৎক্ষণাৎ প্রচারে পাঠিয়েছিলেন| তাদের পাঠানোর আগে তিনি কয়েক বছর ধরে তাদের বাইবেল শিক্ষা দিতে গিয়ে সময় নষ্ট করেননি| না! তিনি তাদের বলেছিলেন,

“তোমরা যাও, দেখ, কেন্দুয়াদের মধ্যে যেমন মেষশাবক, তদ্রূপ তোমাদিগকে প্রেরণ করিতেছি” (লূক 10:3)|

তাছাড়া এটাও লক্ষ করুন যে তাদের কি প্রার্থনা করতে হবে সেটাও খ্রীষ্ট এই অনভিজ্ঞ যুবক অনুগামীদের বলে দিয়েছিলেন| এবং কি প্রার্থনা করতে হবে সেটা দুই নম্বর পদে তিনি একেবারে সঠিকভাবে বলে দিয়েছিলেন,

“অতএব শষ্যক্ষেত্রের স্বামীর নিকটে প্রার্থনা কর, যেন তিনি নিজ শষ্যক্ষেত্রে কার্য্যকারী লোক পাঠাইয়া দেন” (লূক 10:2)|

এই সত্তর জন অনভিজ্ঞ যুবক অনুসরণকারীদের তিনি বলেছিলেন সেই প্রার্থনা করতে যে ঈশ্বর যেন আরও অনেক বেশি করে লোক শষ্য চয়নের জন্য পাঠিয়ে দেন! ডঃ জন্‌ আর. রাইস তার একটি চলমান সঙ্গীতের মাধ্যমে আরও ভাল করে এই কথাই বলেছেন| এটা আপনার গানের পাতার 4 নং গান| উঠে দাঁড়ান এবং গানটি করুন!

আমাদের উচিৎ শষ্যক্ষেত্রের স্বামীর কাছে প্রার্থনা করা,
   "তোমার ক্ষেত্রে শষ্য কর্তক পাঠান হইয়াছে|"
অল্প শষ্য কর্তনকারী; শ্বেতবর্ণ হইয়াছে
   ক্ষেত্রগুলি কি, উৎপন্ন বস্তু কত সমৃদ্ধ|
হে ক্ষেত্র স্বামী, এখানে আমি! এখানে আমি! আমাকে পাঠাও,
   তোমার পবিত্র আত্মা আমার উপরে সঞ্চারিত কর|
এখানে আমি! এখানে আমি!
   কিছু মূল্যবান আত্মা জয় করতে আমাকে পাঠাও|
(“Here Am I,” Dr. John R. Rice, 1895-1980) |

দ্বিতীয় শতাব্দীতে মহান ঈশ্বরতাত্ত্বিক ওরিজিন বলেছিলেন, "খ্রীষ্ট বিশ্বাসীগণ সমগ্র জগতে বিশ্বাস বিস্তৃত করিতে তাহাদের ক্ষমতায় সবকিছু করেন|" তাঁর জাগতিক সেবাকাজের শেষভাগে, খ্রীষ্ট বলেছিলেন,

“স্বর্গে ও পৃথিবীতে সমস্ত কর্ত্তৃত্ব আমাকে দত্ত হইয়াছে| অতএব তোমরা গিয়া সমুদয় জাতিকে শিষ্য কর; পিতার ও পুত্ত্রের ও পবিত্র আত্মার নামে তাহাদিগকে বাপ্তাইজ কর; আমি তোমাদিগকে যাহা যাহা আজ্ঞা করিয়াছি, সে সমস্ত পালন করিতে তাহাদিগকে শিক্ষা দেও| আর দেখ, আমিই যুগান্ত পর্য্যন্ত প্রতিদিন তোমাদের সঙ্গে সঙ্গে আছি| আমেন” (মথি 28:18-20)|

মার্ক-এর শেষের দিকে খ্রীষ্ট বলেছেন,

“তোমরা সমুদয় জগতে যাও, সমস্ত সৃষ্টির নিকটে সুসমাচার প্রচার কর” (মার্ক 16:15)|

লূক-এর শেষভাগে খ্রীষ্ট বলেছেন,

“...আর তাঁহার নামে পাপমোচনার্থক মনপরিবর্ত্তনের কথা সর্ব্বজাতির কাছে প্রচারিত হইবে - যিরূশালেম হইতে আরম্ভ করা হইবে” (লূক 24:47)|

যোহনের সুসমাচারের শেষভাগে খ্রীষ্ট বলেছেন,

“পিতা যেমন আমাকে প্রেরণ করিয়াছেন, তদ্রূপ আমিও তোমাদিগকে পাঠাই” (যোহন 20:21)|

এবং স্বর্গে ফিরে যাওয়ার আগে খ্রীষ্টের সর্বশেষ বাক্য ছিল,

“আর তোমরা যিরূশালেমে, সমুদয় যিহূদীয়া ও শমরিয়া দেশে, এবং পৃথিবীর প্রান্ত পর্য্যন্ত আমার সাক্ষী হইবে” (প্রেরিত 1:8)|

সেখানে কোন একজন মানুষ ছিলেন যিনি একবার নিজের মন্ডলীর বিভাজন ঘটিয়েছিলেন এই বলে যে এইসব আদেশ কেবলমাত্র প্রেরিতগণের জন্যে, এবং এখন কোন খ্রীষ্ট বিশ্বাসীর এইগুলি মেনে চলবার প্রয়োজন নাই| লোকেরা যাতে তার প্রতি আকর্ষিত হয় এবং নিজ নিজ মন্ডলী ত্যাগ করেন তার জন্যে তিনি অস্বাভাবিক ক্যালভিন মতবাদের ছদ্মবেশ ধারণ করেছিলেন| কিন্তু এর কোন ফল পাওয়া যায়নি, কেননা যেখানে যীশুর বাক্য বিকৃত এবং অমান্য করা হয় সেখানে কখনও কোন আশীর্ব্বাদ থাকতে পারে না|

স্পারজিয়ন ছিলেন একজন পাঁচ-পয়েন্টের ক্যালভিনবিদ, কিন্তু তিনি অস্বাভাবিক ক্যালভিনবাদী ছিলেন না| যেমন আমরা দেখব, এই দুটির মধ্যে সেখানে কিছু পার্থক্য রয়েছে| স্পারজিয়ন বলেছিলেন,

ওহ! আমি ভাবিয়াছিলাম যে মন্ডলী এখন তাহার প্রতি সম্বোধিত পরিত্রাতার বাক্যগুলি শুনিবে; কেননা খ্রীষ্টের বাক্যগুলি সবই জীবন্ত বাক্য, কেবলমাত্র গতকল্য উহাদের মধ্যে ক্ষমতা ছিল, তাহা নয় বরং বর্তমানেও রহিয়াছে| পরিত্রাতার আদেশ [আজ্ঞা] তাহাদের চিরস্থায়ী বাধ্যবাধকতা: উহারা বিশুদ্ধভাবে কেবলমাত্র প্রেরিতগণের জন্য সীমাবদ্ধ নয়, বরং আমাদের প্রতিও প্রযোজ্য, এবং প্রত্যেক খ্রীষ্ট বিশ্বাসীর উপরে এই যোঁয়ালি আপতিত হয়, "অতএব তোমরা গিয়া সমুদয় জাতিকে শিষ্য কর; পিতার ও পুত্ত্রের ও পবিত্র আত্মার নামে তাহাদিগকে বাপ্তাইজ কর|" মেষশাবকের প্রথম অনুসরণকারীর সেবাকার্য্য হইতে আমরা বর্তমানে অব্যহতিপ্রাপ্ত নই; আমাদের দৃঢ়ভাবে অগ্রসর হইবার আদেশসমূহ তাহাদেরই অনুরূপ, এবং আমাদের নেতা তাহাদের হইতে যেরূপ তৎপর এবং নিখুঁত আনুগত্য পাইতেন সেইরূপ আনুগত্য আমাদের নিকট হইতেও দাবি করেন (C. H. Spurgeon, The Metropolitan Tabernacle Pulpit, Pilgrim Publications, 1986 reprint, volume VII, p. 281) |

আমাদের প্রত্যেকেই যেন ডঃ জন্‌ আর. রাইস-এর সঙ্গে একসুরে বলেন,

হে ক্ষেত্র স্বামী, এখানে আমি! এখানে আমি! আমাকে পাঠাও,
   তোমার পবিত্র আত্মা আমার উপরে সঞ্চারিত কর|
এখানে আমি! এখানে আমি!
   কিছু মূল্যবান আত্মা জয় করতে আমাকে পাঠাও|

মহাভোজের দৃষ্টান্তে যীশু বলেছিলেন, "বাহির হইয়া রাজপথে রাজপথে ও বেড়ায় বেড়ায় যাও, এবং আসিবার জন্য লোকদিগকে পীড়াপীড়ি কর, যেন আমার গৃহ পরিপূর্ণ হয়" (লূক 14:23)| বিবাহভোজের দৃষ্টান্তে যীশু বলেছিলেন, "অতএব তোমরা রাজপথের মাথায় মাথায় গিয়া যত লোকের দেখা পাও, সকলকে বিবাহের ভোজে ডাকিয়া আন" (মথি 22:9)|

যিরূশালেমে যীশু যে স্থানীয় মন্ডলী প্রতিষ্ঠা করেছিলেন সেটি আক্ষরিকভাবেই সুসমাচার সংক্রান্ত প্রচার করতে তাঁর আজ্ঞা পালন করেছিল| পঞ্চসপ্তমীর পরের কয়েক সপ্তাহের মধ্যেই মহাযাজক অভিযোগ করেছিলেন যে "তোমরা আপনাদের উপদেশে যিরূশালেম পরিপূর্ণ করিয়াছ" (প্রেরিত 5:28)| এরপরে প্রেরিত 5:42 পদে আমাদের বলা হয়েছে, "আর তাঁহারা প্রতিদিন ধর্ম্মধামে ও বাটীতে উপদেশ দিতেন, এবং যীশুই যে খ্রীষ্ট, এই সুসমাচার প্রচার করিতেন, ক্ষান্ত হইতেন না|" প্রেরিত 6:1 পদে আমরা পড়ছি, "শিষ্যগণের সংখ্যা বৃদ্ধি পাইতেছিল|" এরপরে, প্রেরিত 12:24 পদে, আমরা পড়ছি যে "ঈশ্বরের বাক্য বৃদ্ধি পাইতে ও ব্যাপ্ত হইতে থাকিল|" ডঃ জন্‌ আর. রাইস বলেছিলেন,

     শমরিয়া নগর, যেস্থানে ডিকন ফিলিপ প্রচার করিতে গিয়াছিলেন, প্রেরিত 8:6 পদে আমাদের বলা হইতেছে যে সেইস্থানে, "লোকসমূহ ফিলিপের কথা শুনিয়া ও তাঁহার কৃত চিহ্ন-কার্য্য সকল দেখিয়া একচিত্তে তাঁহার কথায় অবধান করিল...|" পুনরায় 12 নং পদ বলিতেছে, "কিন্তু ফিলিপ ঈশ্বরের রাজ্য ও যীশু খ্রীষ্টের নাম বিষয়ক সুসমাচার প্রচার করিলে তাহারা যখন তাঁহার কথায় বিশ্বাস করিল, তখন পুরুষ ও স্ত্রীলোকেরাও বাপ্তাইজিত হইতে লাগিল|" ঈশ্বরের ক্ষমতার এবং লোকদিগের পরিত্রাণ লাভ করিবার এরূপ বিস্ময়কর জোয়ার সেইসময়ে নতুন নিয়মের মন্ডলীগুলিতে অতীব স্বাভাবিক ছিল|
     বাস্তবিকই, প্রেরিত 9:31 পদ বলিতেছে, "তখন...সর্ব্বত্র মন্ডলী শান্তিভোগ করিতে ও গ্রথিত হইতে লাগিল, এবং প্রভুর ভয়ে ও পবিত্র আত্মার আশ্বাসে চলিতে চলিতে বহুসংখ্যক হইয়া উঠিল|"
     মন্ডলীগুলি "বহুসংখ্যক" হইয়া উঠিয়াছিল, ইহার অর্থ, মন পরিবর্তকারীগণ বহুসংখ্যক হইয়া উঠিয়াছিলেন এবং মন্ডলীগুলি বৃদ্ধি পাইতেছিল| উহাই ছিল এই নতুন নিয়মের মন্ডলীগুলির নিয়মিত এবং সঙ্গতিপূর্ণ নকশা, যেস্থানে খ্রীষ্ট বিশ্বাসীগণ প্রত্যহ সাক্ষ্য দিতেন এবং তাহারা যতটা পারিতেন প্রত্যেককে জয় করিতে বাহির হইতেন (John R. Rice, D.D., Why Our Churches Do Not Win Souls, Sword of the Lord Publishers, 1966, p. 25) |

ডঃ রাইস ক্রমাগত বলেই যেতেন, "তাড়না সত্ত্বেও, অ-খ্রীষ্টিয়, অন্ধ লোকদের অভ্যন্তরে, তাহারা বহুসংখ্যক লোক জয় করিয়াছিলেন...নতুন নিয়মের মন্ডলীগুলির বিস্ময়কর বৃদ্ধি ছিল সর্ব্বদা আমাদের উপলব্ধির প্রায় অতীত| ওয়ারনক, তাঁর হিস্ট্রি অফ প্রোটেস্টান্ট মিশনস বইতে, বলছেন যে পঞ্চসপ্তমীর পরের প্রথম শতাব্দীর বছরগুলির [সাতষট্টি] শেষ দিকে, সেখানে প্রায় 200,000 খ্রীষ্ট বিশ্বাসী ছিলেন| তিনি বলছেন যে তৃতীয় শতাব্দীর শেষভাগ পর্যন্ত সমস্ত নারকীয় তাড়না এবং সহস্রাধিক [সেই] শহিদ হওয়া সত্ত্বেও সেখানে [8,000,000] খ্রীষ্ট বিশ্বাসী ছিলেন| তারাই ছিলেন রোম সাম্রাজ্যের প্রায় পনের ভাগের একভাগ! [অর্থাৎ, প্রতি 15 জন লোকের মধ্যে একজন খ্রীষ্ট বিশ্বাসী ছিলেন]... রোম সাম্রাজ্যের সর্বত্র হতে থাকা রক্তাক্ত তাড়না হওয়া সত্ত্বেও| যিরূশালেমে স্তিফান এবং যাকোব-এর শহিদ হওয়া, এবং আরও অনেককে, 'প্রাণনাশ পর্য্যন্ত, পুরুষ ও স্ত্রীলোকদিগকে বাঁধিয়া কারাগারে সমর্পণ' (প্রেরিত 22:4) করে তাড়না করা, এবং কারাগারে পৌলের বন্দীত্ব ও তাকে হত্যা করার প্রচেষ্টা হওয়া সত্ত্বেও, যিহূদিদের মধ্যে থেকে সহস্রাধিক লোক জয় করা হয়েছিল| যিনি পৌল এবং আরও অনেকের শিরশ্ছেদ করেছিলেন, সেই নিরো-এর নিয়ন্ত্রণে হওয়া রক্তাক্ত তাড়না সত্ত্বেও; হেরোদীয় এবং বিশেষ করে এন্তোনিনাস পিয়াস, মারকাস আরিলিয়াম এবং সেপ্টিমাস সেভেরাস-এর অধীনে হওয়া তাড়না সত্ত্বেও, তখনও পর্য্যন্ত সুসমাচারের প্রজ্বলিত অগ্নি এগিয়ে চলেছিল| ওয়ারকম্যান বলছেন,

     দুইশত বৎসর ধরিয়া, একজন খ্রীষ্ট বিশ্বাসী হইবার অর্থ ছিল বিশাল আত্মত্যাগ, প্রতারিত এবং তাড়নাকৃত সম্প্রদায়ের সহিত যুক্ত থাকা, জনপ্রিয় কুসংস্কারের জোয়ারের বিপরীতে সাঁতার কাটা, সম্রাটের নিষেধাজ্ঞার অধীনে আসা, এবং ইহার সর্ব্বাপেক্ষা ভয়ংকর আকারের অধীনে যে কোন মুহূর্ত্তে বন্দীত্ব এবং মৃত্যুর সম্ভাবনার মধ্যে থাকা| দুইশত বৎসর ধরিয়া ইহাই চলিয়াছিল যে যিনি খ্রীষ্টকে অনুসরণ করিবেন তাহাকে অবশ্যই মূল্য গুনিতে হইবে, এবং মূল্য প্রদানে প্রস্তুত থাকিতে হইবে...তাহার স্বাধীনতা এবং জীবন বিসর্জন দিয়া| দুইশত বৎসর ধরিয়া শুধুমাত্র খ্রীষ্টধর্মের প্রকাশ্য ঘোষণা ছিল এক শাস্তিযোগ্য অপরাধ" (Rice, ibid., pp. 27-28) |

ডঃ রাইস বলেছিলেন, "সর্ব্বাপেক্ষা প্রতিকূল পরিস্থিতি, ভয়ানক ঘৃণা, তাড়না এবং 'বদ্ধ দ্বার' এর মধ্যেও, নতুন নিয়মের খ্রীষ্ট বিশ্বাসীগণ তাহাদের বিস্ময়কর আত্মা-জয়কারী কার্য্য চালাইয়া আসিতেছিলেন| নতুন নিয়মের শিক্ষাদান এবং অনুশীলন-এর সহিত আমাদের মন্ডলীর আত্মা-জয়ের তুলনা কিভাবে করা যাইবে?" (Rice, ibid.)| "নতুন নিয়মের মন্ডলী এবং নতুন নিয়মের খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের তুলনায়, আমাদের বর্তমান দিনের মন্ডলী এবং খ্রীষ্ট বিশ্বাসী লোকজন সাধারণত বিপর্যয়কর ও লজ্জাজনকভাবে অকৃতকার্য্য হইবে" (Rice, ibid., p. 29) |

আবার, ডঃ রাইস বলেছেন, "কেবলমাত্র সর্ব্বাত্মক প্রচেষ্টা নতুন নিয়মের আত্মা-জয়ের সমকক্ষ হইতে পারে... আমাদের দুর্বল মাংসিক চরিত্রের মধ্যে সর্ব্বাত্মক বাধ্যতা হইতে সরিয়া যাইবার, ঈশ্বরের কার্য্য করিবার লোহিত-তপ্ত প্রগাঢ় উৎসাহ ও প্রবল আবেগ হইতে সরিয়া কদুষ্ণ হইবার, অর্ধ-হৃদয় পন্থা অবলম্বন করিবার একটি প্রবণতা আছে| যেমন একটি বিখ্যাত পুরানো গান বলিতেছে,

প্রভু, আমি অনুভব করি, ইহা নিম্নমুখী পথভ্রষ্ট,
ঈশ্বর আমার প্রেম অবকাশে নিম্নমুখী|

অতএব মন্ডলীতে উৎসাহের উদ্দীপনা, সমবেদনা পূর্ণ আত্মা-জয়কারী উদ্দীপনা, আমাদের উপরে ঈশ্বরের ক্ষমতা বর্ষণের উদ্দীপনা আনয়নের পুনঃ পুনঃ প্রয়োজন সেখানে রহিয়াছে| নতুন নিয়মের আদর্শের পরে একটি সর্ব্বাত্মক প্রচেষ্টা দ্বারা আত্মা-জয় করা ব্যাতীত মন্ডলীর নিকটে আর কোন পথ অবশিষ্ট নাই" (Rice, ibid., p. 149-150) |

আমি জানি যে সেখানে কিছু লোক আছেন যারা বলেন যে প্রত্যেক মানুষের উপরে সুসমাচার প্রচারের বিষয়ে জোর দেওয়ার প্রতি ডঃ রাইস-এর মতবাদ "কাজ" করবে না| সেইজন্যে কিছু লোক অস্বাভাবিক-ক্যালভিন মতবাদের দিকে ঝুঁকে পড়েন - পাঁচ-পয়েন্ট ক্যালভিন মতবাদ নয় - কিন্তু অস্বাভাবিক ক্যালভিন মতবাদ, যা হচ্ছে সেই ধারণা যে হারানোদের পিছনে আপনার ছোটার প্রয়োজন নাই; খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের সুসমাচার প্রচারের কাজ করা ছাড়াই ঈশ্বর তাঁর সার্বভৌম অনুগ্রহের দ্বারা তাদের ভিতরে টেনে আনবেন| জর্জ হোয়াইটফিল্ড, উইলিয়াম কেরী, স্পারজিয়ন এবং আরও অন্যান্য মহান আত্মা-জয়কারীগণ পাঁচ-পয়েন্ট ক্যালভিনবিদ ছিলেন, কিন্তু তারা অস্বাভাবিক ক্যালভিন মতবাদী ছিলেন না| তারা বিশ্বাস করতেন যে আমাদের প্রত্যেকের উচিৎ "সুসমাচার-প্রচারকের কার্য্য" করা (II তীমথিয় 4:5)| আমি আশা করছি যে প্রত্যেক পুনঃজাগরিত পালক, রেভারেন্ড আয়ান এইচ. ম্যুরের লেখা, স্পারজিয়ন ভার্সাস হাইপার-ক্যালভিনিজ্‌ম বইটি পড়বেন (Banner of Truth Trust, 1995)| অর্ডার দেওয়ার জন্য এখানে ক্লিক করুন| এটা একটা আশ্চর্য্যজনক বই যা আপনাকে অনুপ্রাণিত করবে, আপনার হৃদয় উষ্ণ করবে, এবং হারানোদের প্রতি সুসমাচার প্রচারে আপনার প্রগাঢ় উৎসাহকে পুনরুজ্জীবিত করবে!

খ্রীষ্ট বিশ্বাসী লোকদের কাছে সুসমাচার প্রচারের কাজে তাদের হৃদয় এবং আত্মা প্রদানের আবেদন জানিয়ে ডঃ রাইস ভুল করেননি| দুর্বলতা এসেছিল কারণ যেসব মন্ডলী তাকে অনুসরণ করত তাদের বেশির ভাগই সেই সমস্ত হারানো লোকদের সঙ্গে ভাল আচরন করতে যথেষ্ট সময় ব্যয় করেনি যাদের ভিতরে আনা হয়েছিল| সেই লোকদের ব্যাপ্তাইজিত করার আগে, তারা অনুতাপ করেছেন এবং খ্রীষ্ট যীশুতে মন পরিবর্তনের প্রকৃত অভিজ্ঞতা লাভ করেছেন, সেই বিষয় নিশ্চয়ভাবে স্থির করার পিছনে বেশি সময় খরচ না করে তাদের দিয়ে সাধারণত তারা একটা "সত্বর প্রার্থনা" করাতেন| ডাঃ কেগান এবং আমি মিলে "সিদ্ধান্তবাদ"-এর সমস্যার উপরে Today's Apostasy: How Decisionism is Destroying Our Churches নামে একটা বই লিখেছি যেটা আপনি বিনামূল্যে এখানে ক্লিক করে এই ওয়েবসাইটে পড়ে নিতে পারেন|

স্নানের জল এর সঙ্গে শিশুকেও ছুঁড়ে ফেলে দেবেন না! ডঃ জন্‌ আর. রাইসের থেকে আমার দেওয়া সব উদ্ধৃতির সঙ্গে আমি সম্পূর্ণভাবে সহমত| প্রাচীনকালের মন্ডলীগুলির সুসমাচার সংক্রান্ত প্রচারের উৎসাহ পুনঃপরীক্ষা করা, এবং তাদের উদাহরণ অনুসরণ করা আমাদের প্রয়োজন! আসুন আমরা হারানোদের কাছে সুসমাচার সংক্রান্ত প্রচারের কাজে নিজেদের বিস্তৃত করি! আসুন তাদের ব্যাপ্তিস্ম দেওয়ার আগে আমরা খুব যত্ন সহকারে যতদূর সম্ভব নিশ্চিত হই যে তারা প্রকৃতভাবেই মন পরিবর্তন করেছেন! সর্বোপরি, আমরা খ্রীষ্টের সেই আদেশ স্মরণ করি,

"বাহির হইয়া রাজপথে রাজপথে ও বেড়ায় বেড়ায় যাও, এবং আসিবার জন্য লোকদিগকে পীড়াপীড়ি কর, যেন আমার গৃহ পরিপূর্ণ হয়" (লূক 14:23)|

দ্বিতীয় শতাব্দীতে ওরিজেন বলেছিলেন, "খ্রীষ্ট বিশ্বাসীগণ সমগ্র জগতে বিশ্বাস বিস্তৃত করিতে তাহাদের ক্ষমতায় সবকিছু করেন|" আসুন আমরাও এই একই জিনিস করি! উঠে দাঁড়ান এবং ডঃ অসওয়াল্ড জে. স্মিথের বিখ্যাত গান - ইভাঞ্জেলাইজ! ইভাঞ্জেলাইজ! গানটি করুন| এটা আপনার গানের পাতার 1 নং গান|

আমাদের এক জাগ্রত নীতিবাক্য দাও, এক রোমাঞ্চকর বাক্য, এক শক্তির বাক্য দাও,
এক যুদ্ধের ক্রন্দন, এক উত্তপ্ত শ্বাস যা বিজয় অথবা মৃত্যু আহ্বান করে|
এক বাক্য যা মন্ডলীকে বিশ্রাম থেকে উত্থিত করে, প্রভুর মহান অনুরোধকে সতর্ক করে|
আহ্বান দেওয়া হয়েছে, তোমরা দূতগণ, ওঠ, আমাদের নীতিবাক্য, ইভাঞ্জেলাইজ!

এখন মনোরম শুভ বার্তা, যীশুর নামে, জগতের সর্বত্র প্রচার কর;
ইভাঞ্জেলাইজ! ইভাঞ্জেলাইজ! এই শব্দ আকাশের মধ্যে বাজছে:
মৃত্যুপথযাত্রী মানুষ, পতিত জাতি, জানুক সুসমাচার অনুগ্রহ;
জগত যা এখন অন্ধকারাচ্ছন্ন, ইভাঞ্জেলাইজ! ইভাঞ্জেলাইজ!
   (“Evangelize! Evangelize!” by Dr. Oswald J. Smith, 1889-1986;
      to the tune of “And Can It Be?” by Charles Wesley, 1707-1788) |


যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তাহলে ডঃ হাইমার্স আপনার কাছ থেকে কিছু শুনতে চান| যখন আপনি ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখবেন তখন অবশ্যই তাকে জানাবেন যে কোন দেশ থেকে আপনি তাকে লিখছেন নয়ত তিনি আপনার ই-মেলের জবাব দিতে সক্ষম হবেন না| যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তবে ডঃ হাইমার্সকে একট ই-মেল পাঠান এবং তাকে সেইকথা জানান, কিন্তু কোন দেশ থেকে আপনি লিখছেন চিঠিতে সেটা অবশ্যই অন্তর্ভূক্ত করবেন| ডঃ হাইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net (এখানে ক্লিক করুন) | আপনি যে কোন ভাষায় ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখতে পারেন, কিন্তু যদি পারেন তো ইংরাজিতেই লিখুন| যদি আপনি ডঃ হাইমার্সকে ডাক-ব্যবস্থার মাধ্যমে চিঠি পাঠাতে চান, তবে তার ঠিকানা হল P.O. Box 15308, Los Angeles, CA 90015 | আপনি তাকে (818)352-0452 নম্বরে ফোন করতে পারেন|

(সংবাদের পরিসমাপ্তি)
ডঃ হাইমার্সের সংবাদ আপনি প্রতি সপ্তাহে ইন্টারনেটে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে গিয়ে পড়তে পারেন| ক্লিক করুন “প্রচার পান্ডুলিপি|”

আপনি ডাঃ হাইমার্সকে মেইল পাঠাতে পারেন rlhymersjr@sbcglobal.net - আপনি
তাকে পত্র লিখতে পারেন P.O. Box 15308, Los Angeles, C A 90015.এই ঠিকানায়
। আপনি তাকে টেলিফোন করতে পারেন (818) 352-0452.

এই সুসমাচারের ম্যানুস্ক্রিপ্ট এর ওপর ডাঃ হাইমসের কোন কপিরাইট নেই। আপনারা
ইহা ব্যাবহার করতে পারেন ডাঃ হাইমসের অনুমতি ছাড়াই। অবশ্য, ভিডিও মেসেজ
সবই কপিরাইটের সহিত আছে এবং কেবলমাত্র তার অনুমতি নিয়েই ব্যাবহার করা যাবে।

প্রচারের আগে একক সংগীত পরিবেশন করেছেন মিঃ বেঞ্জামিন কিন্‌কেড গ্রিফিথ:
“Here Am I” (Dr. John R. Rice, 1895-1980) |