Print Sermon

এই ওয়েবসাইটের উদ্দেশ্য হল ধর্ম্মোপদেশের পান্ডুলিপি এবং ধর্ম্মোপদেশের ভিডিওগুলি বিশ্বব্যাপী পালক ও মিশনারিদের বিনামূল্যে সরবরাহ করা, বিশেষ করে তৃতীয় বিশ্বে, যেখানে ধর্ম্মতত্ত্বমূলক সেমিনারী বা বাইবেল স্কুল থাকলেও খুব কম রয়েছে|

এই সমস্ত প্রচারের পান্ডুলিপি এবং ভিডিওগুলি এখন www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রতি মাসে 221টিরও বেশি দেশের প্রায় 1,500,000 কম্প্যুটারে যায়| শত শত লোক ইউটিউবের ভিডিওর মাধ্যমে এগুলি দেখেন, কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই তারা ইউটিউব ছেড়ে বেরিয়ে যান এবং আমাদের ওয়েবসাইটে চলে আসেন| ইউটিউব আমাদের ওয়েবসাইটে লোক এনে দেয়| প্রচারের এই পান্ডুলিপিগুলি প্রতি মাসে 40টি ভাষায় প্রায় 120,000 কম্প্যুটারে প্রচারিত হয়| প্রচারের পান্ডুলিপিগুলি গ্রন্থসত্ত্ব দ্বারা সংরক্ষিত নয়, কাজেই প্রচারকগণ আমাদের অনুমতি ছাড়াই এইগুলি ব্যবহার করতে পারেন| মুসলিম এবং হিন্দু রাষ্ট্রসমেত, সমগ্র পৃথিবীতে সুসমাচার ছড়িয়ে দেওয়ার এই মহান কাজে সাহায্য করার জন্য কিভাবে আপনি একটি মাসিক অনুদান প্রদান করতে পারেন তা জানতে অনুগ্রহ করে এখানে ক্লিক করুন|

যখনই আপনি ডঃ হেইমার্‍সকে লিখবেন সর্বদা তাকে জানাবেন যে আপনি কোন দেশে বাস করেন, অথবা তিনি আপনাকে উত্তর দিতে পারবেন না| ডঃ হেইমার্‌সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net |




দিয়াবলের উপর বিজয়
যাহা আমাদের দুর্বল করে – “এই জাতি”!

OVERCOMING THE DEMONS THAT WEAKEN US –
“THIS KIND”!
(Bengali)

লেখক : ডঃ আর. এল. হেইমার্‍স, জুনিয়র
by Dr. R. L. Hymers, Jr.

2018 সালের, 5ই অগাষ্ট, প্রভুর দিনের সন্ধ্যাবেলায় লস্‍ এঞ্জেল্‍সের
ব্যাপটিষ্ট ট্যাবারন্যাক্‍ল মন্ডলীতে প্রচারিত একটি ধর্ম্মোপদেশ
A sermon preached at the Baptist Tabernacle of Los Angeles
Lord’s Day Evening, August 5, 2018f

‘‘পরে তিনি গৃহে আসিলে তাঁহার শিষ্যেরা বিজনে তাঁহাকে জিজ্ঞাসা করিলেন, আমরা কেন সেটা ছাড়াইতে পারিলাম না? তিনি কহিলেন, প্রার্থনা এবং উপবাস ভিন্ন আর কিছুতেই এই জাতি বাহির হয় না’’ (মার্ক 9:28-29)|


আজ রাত্রে আমি দিয়াবল ও শয়তান, এবং ডঃ জে. আই. পেকার যাকে বলতেন "বর্তমান দিনের মন্ডলীর ভগ্নদশা" এবং যার কারণ হল 1859 সালের পর থেকে আমেরিকাতে বড় কোন জাতীয় উদ্দীপনা না হওয়া, এসব বিষয়ে কিছু বলতে চলেছি| ডঃ মার্টিন লয়েড-জোন্‌স এর লেখা একটি ধর্ম্মোপদেশের রূপরেখার উপরে আমি নির্ভর করছি| এর মূল বিষয়বস্তু এবং রূপরেখা ডঃ লয়েড-জোন্‌স এর লেখা থেকে নেওয়া হয়েছে|

‘‘পরে তিনি গৃহে আসিলে তাঁহার শিষ্যেরা বিজনে তাঁহাকে জিজ্ঞাসা করিলেন, আমরা কেন সেটা ছাড়াইতে পারিলাম না? তিনি কহিলেন, প্রার্থনা এবং উপবাস ভিন্ন আর কিছুতেই এই জাতি বাহির হয় না’’ (মার্ক 9:28-29)|

আমি চাই আপনারা এই দুটি পদের বিষয়ে চিন্তা করুন| আমাদের মন্ডলীর প্রতি প্রযোজ্য কিছু বিষয়সহ - আমেরিকা এবং পাশ্চাত্য জগতের "ভগ্ন" মন্ডলীগুলির নিদারুণ চাহিদার প্রতি আমি ঐ পদদুটির প্রয়োগ করতে চলেছি|

আমি জানি "উদ্দীপনা" শব্দটি আজকের মানুষদের মনোযোগ কাড়ে না| তারা এই বিষয়ে কিছু শুনতে চায় না| কিন্তু তাদের এইরকম ভাবার কারণটি শয়তানীয়! এটা সেরকম একটা বিষয় যার সম্বন্ধে লোকে চিন্তা করুক সেটা দিয়াবল চায় না| সেইজন্যে আমি প্রার্থনা করছি যে আমাদের মন্ডলীর, আর সেইসঙ্গে সব মন্ডলীগুলির এই গুরুতর চাহিদার বিষয়ে আমি আলোচনা করার সময়ে আপনারা যত্নসহকারে সেটা শুনবেন|

এটা একটা বিষয় যাতে আমাদের প্রত্যেকের প্রবল আগ্রহ থাকা উচিৎ| বর্তমানে আমাদের মন্ডলীগুলির বিষয়ে যদি না আমরা গভীর উদ্বেগ অনুভব করি তবে আমরা খুবই দুর্বল খ্রীষ্ট বিশ্বাসী| আসলে, প্রকৃত উদ্দীপনা সম্পর্কে যদি আপনার কোন আগ্রহ না থাকে তবে আপনি আদৌ একজন খ্রীষ্ট বিশ্বাসী কি না, সেই প্রশ্ন নিজেকেই আপনার করা উচিৎ! যদি আমাদের মন্ডলীর সম্বন্ধে, অন্যদের মন্ডলী সম্বন্ধে আপনার কোন উদ্বেগ না থাকে, নিশ্চিতভাবে আপনি একজন সচল খ্রীষ্ট বিশ্বাসী নন! আমি আবারও বলছি, প্রকৃত উদ্দীপনা হওয়া উচিৎ এমন একটি বিষয় যা আমাদের প্রত্যেকের কাছে গভীরভাবে আকর্ষনীয়|

সেইজন্য আসুন আমরা মার্ক-এর নবম অধ্যায়ে লেখা এই ঘটনার সম্বন্ধে চিন্তা করি| এটা খুব গুরুত্বপূর্ণ একটি ঘটনা, কারণ চারটি সুসমাচারের মধ্যে, মথি, মার্ক এবং লূক, এই তিনটিতে পবিত্র আত্মা এর বিবরণ আমাদের কাছে দিতে গভীর যত্ন নিয়েছেন| মার্ক-এর মধ্যে দেওয়া বিবরণ থেকে আমি দুটি পদ পড়ে শোনাচ্ছি| অধ্যায়ের প্রথম দিকের অংশে মার্ক আমাদের বলেছেন যে খ্রীষ্ট পিতর, যাকোব ও যোহনকে সঙ্গে নিয়েছিলেন এবং রূপান্তরের পর্বতে উঠেছিলেন যেখানে তারা একটি আশ্চর্য্যজনক ঘটনার সাক্ষী হয়েছিলেন| কিন্তু, যখন তারা পর্বত থেকে নেমে এসেছিলেন তারা দেখেছিলেন এক বিশাল জনতা চারিদিক থেকে বাকি শিষ্যদের ঘিরে ধরে তাদের সঙ্গে বাদানুবাদে ব্যস্ত রয়েছে! সেই তিনজন যারা যীশুর সঙ্গে নেমে এসেছিলেন তারা বুঝে উঠতে পারেননি যে কি বিষয়ে এইসব হচ্ছে| তখন একজন লোক সেই জনতা দল থেকে বেরিয়ে এলেন এবং যীশুকে বললেন যে তার পুত্রকে অশুচি আত্মায় পেয়েছে যা তার মুখ দিয়ে ফেনা বের করাচ্ছে এবং তার দাঁত কিড়মিড় করাচ্ছে| তখন সেই মানুষটি বলেছিলেন, "আমি আপনার শিষ্যদিগকে তাহা ছাড়াইতে [দিয়াবলকে বাইরে নিক্ষেপ করতে] বলিলাম, কিন্তু তাঁহারা পারিলেন না" (মার্ক 9:8)| তারা চেষ্টা করেছিলেন, কিন্তু তারা ব্যর্থ হয়েছেন|

যীশু ঐ লোকটিকে কয়েকটি প্রশ্ন করেছিলেন| তারপরেই তিনি খুব দ্রুত ঐ ছেলেটির থেকে দিয়াবলকে বাইরে বের করে দিলেন| তারপর খ্রীষ্ট বাড়িটির ভিতরে প্রবেশ করেছিলেন, এবং শিষ্যেরা তার সঙ্গে গিয়েছিলেন| তারা সকলে বাড়িতে অবস্থান করার পরে শিষ্যেরা তাঁকে জিজ্ঞাসা করলেন, "আমরা কেন সেটা ছাড়াইতে পারিলাম না?" (মার্ক 9:8)| তারা কাজটি করার জন্যে কঠোর চেষ্টা করেছিলেন| এর আগে তারা অনেকবার সফলও হয়েছিলেন| কিন্তু এইবারে তারা সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছেন| যদিও খ্রীষ্ট সরলভাবে বলেছিলেন, "তাহার হইতে বাহির হও" এবং সেই ছেলেটি আরোগ্য লাভ করেছিল| তারা বলেছিলেন, "আমরা কেন সেটা ছাড়াইতে পারিলাম না?" খ্রীষ্ট শিষ্যদের উত্তর করেছিলেন, "প্রার্থনা এবং উপবাস ভিন্ন আর কিছুতেই এই জাতি বাহির হয় না" (মার্ক 9:29)|

এখন আমি বর্তমানে আমাদের মন্ডলীর সমস্যা দেখাতে এই ঘটনাটি ব্যবহার করতে চলেছি| এই ছেলেটি হল আধুনিক বিশ্বের যুবকদের প্রতিরূপ| শিষ্যেরা হলেন আমাদের মন্ডলীগুলির প্রতিরূপ| এটা কি স্পষ্ট নয় যে আমাদের মন্ডলীগুলি আজকের যুবকদের সাহায্য করতে ব্যর্থ হচ্ছে? জর্জ বারনা আমাদের বলছেন যে আমরা মন্ডলীতে প্রতিপালিত, আমাদের নিজেদের যুবকদের 88% যুবককেই হারাচ্ছি| এবং বিশ্ব থেকে আমরা অত্যন্ত কম সংখ্যায়, খুব কম সংখ্যক, যুবক জয় করছি| আমাদের মন্ডলীগুলি শীর্ণ হচ্ছে এবং দ্রুত অপারগ হয়ে পড়ছে| সাউদার্ন ব্যাপটিষ্ট এখন প্রতি বছরে প্রায় 1,000টি মন্ডলী হারাচ্ছে! সেটা তাদের নিজস্ব হিসাব! এবং আমাদের স্বাধীন মন্ডলীগুলিও এর থেকে ভাল কিছু করছে না| সংখ্যাগুলির দিকে তাকালে যে কোন ব্যক্তি দেখতে পাবেন যে একশ বছর আগে আমাদের মন্ডলী যতটা শক্তিশালী ছিল এখন তার অর্দ্ধেকও নেই| সেটাই কারণ যে ডঃ জে. আই. পেকার "বর্তমান মন্ডলীগুলির ভগ্ন দশার" কথা বলেছিলেন|

আমাদের মন্ডলীগুলি, সেই শিষ্যদের মতন, সবকিছু করছে যা তারা পারছে, কিন্তু তবুও তারা ব্যর্থ হচ্ছে| যতটা শোচনীয়ভাবে সম্ভব তারা ব্যর্থ হচ্ছে ঠিক যেমন শিষ্যেরা সেই সময়ে হয়েছিলেন যখন তারা সেই ছেলেটিকে সাহায্য করার চেষ্টা করেছিলেন| প্রশ্নটি আমাদেরও করা উচিৎ হবে যে "আমরা কেন সেটা ছাড়াইতে পারি না?" এই ব্যর্থতার কারণ কি?

এখানে, মার্ক-এর নবম অধ্যায়ে, আমার কাছে মনে হচ্ছে যে খ্রীষ্ট সেই প্রশ্নটিরই চর্চা করছেন| এবং খ্রীষ্ট যে উত্তর করেছেন তা বর্তমানেও ততটাই গুরুত্বপূর্ণ যতটা সেই সময়ে ছিল|

‘‘পরে তিনি গৃহে আসিলে তাঁহার শিষ্যেরা বিজনে তাঁহাকে জিজ্ঞাসা করিলেন, আমরা কেন সেটা ছাড়াইতে পারিলাম না? তিনি কহিলেন, প্রার্থনা এবং উপবাস ভিন্ন আর কিছুতেই এই জাতি বাহির হয় না’’ (মার্ক 9:28-29)|

তিনটি সহজ বিষয়ে এই পাঠ্যাংশটিকে ভাগ করা যায়|

I. প্রথম বিষয়টি হল ‘‘এই জাতি |’’

কেন তারা তাকে বের করতে পারেনি? খ্রীষ্ট বলেছিলেন, "প্রার্থনা এবং উপবাস ভিন্ন আর কিছুতেই এই জাতি বাহির হয় না|" তিনি তাদের বলেছিলেন যে একটি ঘটনা এবং অন্য ঘটনার মধ্যে সেখানে পার্থক্য রয়েছে| এর আগে খ্রীষ্ট তাদের প্রচার এবং দিয়াবল বের করতে পাঠিয়েছিলেন - এবং তারা সেইমতন গিয়েছিলেন এবং প্রচার করেছিলেন এবং অনেক দিয়াবল বের করেছিলেন| তারা আনন্দ করতে করতে ফিরে এসেছিলেন| তারা বলেছিলেন যে দিয়াবলেরা তাদের অধীনে ছিলেন|

সেইজন্যে যখন সেই লোকটি তার পুত্রকে এদের কাছে নিয়ে এসেছিলেন তারা নিশ্চিত ছিলেন যে তারা তাকে সাহায্য করতে সক্ষম হবেন সেই একই জিনিস করে যা তারা এর আগে করেছেন| তবুও এই সময় তারা সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হয়েছিলেন| তাদের করা সমস্ত চেষ্টা সত্ত্বেও সেই ছেলেটি মোটেও কোন সাহায্য পেল না, আর কেন হলনা ভেবে তারা আশ্চর্যান্বিত হলেন| তারপরে খ্রীষ্ট, "এই জাতি"-এর বিষয়ে বলেছিলেন| "এই জাতি" এবং এর আগে যে জাতির সঙ্গে তারা মোকাবিলা করতেন তার মধ্যে সেখানে পার্থক্য ছিল|

এক দিক থেকে, সমস্যাটি সবসময়ে একই আছে| মন্ডলীর কাজ হল শয়তান এবং তার দিয়াবলের ক্ষমতা থেকে যুবকদের মুক্তি দেওয়া, "যেন তাহারা অন্ধকার হইতে জ্যোতির প্রতি, এবং শয়তানের কর্ত্তৃত্ব হইতে ঈশ্বরের প্রতি ফিরিয়া আইসে" (প্রেরিত 26:18)| প্রতিটি যুগ, এবং প্রতিটি সংস্কৃতিতে ঐটা সব সময়ে একই| মন্ডলীগুলিকে সব সময়েই শয়তান এবং দিয়াবলদের সঙ্গে মোকাবিলা করতে হয়| কিন্তু দিয়াবলদের মধ্যে সেখানে কিছু পার্থক্য আছে| তারা সকলে এক রকমের হয় না| প্রেরিত পৌল বলেছিলেন যে "কেননা রক্তমাংসের সহিত নয়, কিন্তু আধিপত্য সকলের সহিত, কর্ত্তৃত্ব সকলের সহিত, এই অন্ধকারের জগৎপতিদের সহিত, স্বর্গীয় স্থানে দুষ্টতার আত্মাগণের সহিত আমাদের মল্লযুদ্ধ হইতেছে" ইফিষীয় 6:12)| তিনি আমাদের বলেছিলেন যে দিয়াবলদের মধ্যে সেখানে বিভিন্ন পদমর্যাদা রয়েছে, এবং তাদের নেতা হল শয়তান স্বয়ং, "আকাশের কর্ত্তৃত্বাধিপতির অনুসারে, যে আত্মা এখন অবাধ্যতার সন্তানগণের মধ্যে কার্য্য করিতেছে" (ইফিষীয় 2:2)| তার সমস্ত ক্ষমতার মধ্যে শয়তান এখনও জীবিত রয়েছে| কিন্তু এই সমস্ত নিম্নতর দিয়াবলীয় ক্ষমতাগুলি শয়তানের ক্ষমতার অধীনে রয়েছে| শিষ্যেরা সহজেই এই দুর্বলতর শ্রেণীর দিয়াবলদের বের করে দিতে পারতেন| কিন্তু এখানে, সেই ছেলেটির মধ্যে, উচ্চতর ক্ষমতাসম্পন্ন আত্মা ছিলেন| "এই জাতি" হল আলাদা, এবং সেইজন্যে এটা অপেক্ষাকৃত অনেক বড় একটি সমস্যা| প্রথম বিষয় হল আমাদের অবশ্যই খুঁজে বের করতে হবে যে "এই জাতি" কি ধরণের যার সঙ্গে বর্তমানে আমাদের অবশ্যই মোকাবিলা করতে হবে|

যখন আমরা "এই জাতি" শব্দসমষ্টির দিকে দেখি আমি আশ্চর্য হই যে আজকের দিনে যদি অনেক পালক অন্তত এটুকু উপলব্ধি করতেন যে আমরা যে সংগ্রামের মধ্যে আছি তা হল একটা আত্মিক সংগ্রাম| আমি নিশ্চিত যে বেশির ভাগ পালক কখনও ভাবেন না যে তাদের কাজ হল শয়তান ও মন্দ আত্মার বিরুদ্ধে যুদ্ধ করা| সেমিনারি এবং এমনকী বাইবেল কলেজগুলিও, মানবিক প্রণালীর উপরে বেশি জোর দেয়| কিন্তু তারা পালকদের শিক্ষা দেন না যে তাদের প্রধান সমস্যা আত্মিক ক্ষেত্রের মধ্যে নিহিত আছে|

সেইজন্যে তারা নির্দ্দিষ্ট একটা পদ্ধতি অবলম্বন করে চলেন যা অতীতে সাফল্য পেত| তারা উপলব্ধি করেন না যে সেই পুরানো পদ্ধতিগুলি বর্তমানের "এই জাতি"র সঙ্গে মোকাবিলা করে না| প্রত্যেকে জানেন যে সেখানে একটা চাহিদা আছে| কিন্তু প্রশ্ন হচ্ছে - সেই চাহিদাটি সঠিকভাবে কি? যতক্ষণে আমরা বর্তমানের সঠিক চাহিদার বিষয়ে সচেতন না হচ্ছি, আমরা সেই শিষ্যদের মতই অসফল হব যেমন তারা ঐ ছেলেটির ক্ষেত্রে হয়েছিলেন|

আজকের দিনে "এই জাতি" কি? "এই জাতি" হল অস্তিত্ববাদের এক দিয়াবল| অস্তিত্ববাদ বলছে যে কোন কিছু বাস্তব হয় একমাত্র যদি আপনি তার অভিজ্ঞতা লাভ করেন - একমাত্র যদি আপনি তা অনুভব করেন| বর্তমানে এক "অনুভূতির দিয়াবল"-এর দ্বারা লোকদের মন আচ্ছন্ন করা হয়েছে| অনুভূতির সেই অস্তিত্ববাদী দিয়াবল বলছে যে একটা আবেগমুক্তিকর অভিজ্ঞতা - নিশ্চয়তার একটা অনুভূতি আপনাকে পেতেই হবে| সেই দিয়াবল বলছে যে যদি আপনার সেই অনুভূতি হয়, তবে প্রমাণিত হয় যে আপনি উদ্ধার লাভ করেছেন|

আচ্ছন্ন করে রাখা এই সব লোকরা একজন বিচারের ঈশ্বরে বিশ্বাস করেন না| তারা কেবল অনুভূতিতে বিশ্বাস করেন| তারা ভাবেন যে উদ্ধার লাভ করতে হলে তাদের অবশ্যই একটা অনুভূতি পেতেই হবে| তারা যে উদ্ধার লাভ করেছেন তা প্রমাণ করতে তাদের একটা "নিশ্চয়তা"র অনুভূতি দরকার| তাদের "নিশ্চয়তা" হল এক আদর্শ! তারা নিজেদের অনুভূতিতে বিশ্বাস করেন, যীশু খ্রীষ্টকে নয়! আমরা লোকদের প্রশ্ন করি, "আপনি কি খ্রীষ্টে বিশ্বাস করেছিলেন?" তারা উত্তর দেন, "না|" কেন লোকেরা না বলেন? কারণ তারা সঠিক "অনুভূতি" পাননি! তারা তাদের অনুভূতিতে বিশ্বাস করেন, খ্রীষ্টকে নয়! দিয়াবল তাদের মনগুলিকে আচ্ছন্ন করে রেখেছে| দিয়াবলের "এই জাতি" একমাত্র প্রার্থনা এবং উপবাসের দ্বারাই পরাজিত হতে পারে! "এই জাতির" বাঁধন ছিন্ন করতে আমাদের অবশ্যই উপবাস করতে হবে!

II. দ্বিতীয় বিষয় হল সেই প্রণালী যা ব্যর্থ হয়েছে |

আমি দেখছি যে আমাদের মন্ডলীগুলি সেই সব কাজ করছে যা অতীতে খুবই সাহায্যকারী ছিল, কিন্তু বর্তমানে "এই জাতি"র উপরে এর আর খুব বেশি একটা প্রভাব নেই| এবং আমরা পুরানো প্রণালীতে নির্ভর করি সেই কারণে, আমরা আমাদের যুবকদের প্রায় সকলকেই হারাচ্ছি, এবং আমরা জগত থেকে খুব কমই কারও মন পরিবর্তন করাতে পারছি| ভুল বোঝাবুঝির ঝুঁকি নিয়েও, আমি সানডে স্কুলকেও সেই শ্রেণীতে রাখব| একশপঁচিশ বছর আগে এই পদ্ধতি খুবই কার্যকরী ছিল| কিন্তু আমি মনে করি আজকে এর মূল্য খুব সামান্য| পরিত্রাণের বই সম্বন্ধেও আমি একই জিনিস বলব| একটা সময় ছিল যখন লোকে প্রকৃতপক্ষে সেগুলি পড়তেন এবং মন্ডলীতে আসতেন| কিন্তু আমি সরলভাবে যেকোন পালককে জিজ্ঞাসা করব, "আপনার মন্ডলীতে কি এমন কোন যুবক আছেন যিনি মন্ডলীতে এসেছেন এবং একটা বই পড়ে উদ্ধার লাভ করেছেন?" আমি মনি করি এটা স্পষ্ট যে আমাদের সময়ে "এই জাতি" খুব ভালভাবে এই প্রণালীর প্রতি সাড়া দেয় না যা পুরানো দিনে ব্যবহৃত হত| দরজায় দরজায় ঘুরে সাক্ষাৎ করার প্রণালীকেও আমি ঐ পর্যায়ে ফেলছি| এই প্রণালীটি খুব জোরদারভাবে অতীতে ব্যবহার করা হত, কিন্তু যেখানে আমরা "এই জাতি"র সঙ্গে এখন সংগ্রাম করছি সেই সময়ে যুবকদের মন্ডলীতে আনতে এটা আমাদের আর সাহায্য করছে না|

সেখানে নির্দ্দিষ্ট কিছু বিষয় রয়েছে যা বর্তমানে অকেজো বলে দেখা যাচ্ছে, যখন সেগুলি "এই জাতি"র প্রতি প্রয়োগ করা হয়| অন্য কথায়, খ্রীষ্ট কার্যত বলেছিলেন, "তোমরা এই ঘটনায় ব্যর্থ হইয়াছিলে কারণ যে ক্ষমতা তোমাদের ছিল, যাহা অন্য ঘটনার পক্ষে যথেষ্ট, এখানে তাহার মূল্য নাই| ইহা তোমাকে বালকটিকে সাহায্য করিতে ক্ষমতাহীন করিয়া ছাড়িয়াছে যাহা 'এই জাতির' ক্ষমতার অধীনে|"

আমি জানি সেখানে অনেক পালক আছেন যারা উপলব্ধি করেন যে অতীতে আমাদের করা বহু বিষয় বর্তমানে অকেজো| কিন্তু শয়তানের "ফন্দি"র (II করিন্থীয় 2:11) তুলনায় বরং প্রণালী-বিদ্যার সম্বন্ধে চিন্তা করতে তাদের প্রশিক্ষিত করা হয়েছে - সেইজন্যে তারা নতুন পদ্ধতিগুলির দিকে দুর্দান্তভাবে ঝুঁকে পড়েন যা পুরানোর তুলনায় বেশি ভাল নয় - অর্থাৎ, মন্ডলীর দৃঢ় সদস্য করার জন্যে যদি আমরা আমাদের যুবকদের পাওয়ার চেষ্টা করি| উদাহরণস্বরূপ আমাদের কিছু লোক আছেন যারা আমাদের বলছেন যে এর উত্তর হল যুবকদের কাছে "প্রমাণ" করা যে সৃষ্টির সম্পর্কে আদিপুস্তকে দেওয়া বিবরণ সত্য এবং বিবর্তনবাদ মিথ্যা| তারা মনে করছেন যে এতে যুবকরা মন পরিবর্তন করবেন, এবং জগৎ থেকে অন্যেরাও চলে আসবেন, যদি আমরা বিবর্তনবাদ মিথ্যা বলে প্রতিপাদন করতে পারি এবং আদিপুস্তকের মধ্যে এর উত্তর তাদের দিয়ে খোঁজাই| তারা মনে করেন যে এই পদ্ধতির দ্বারা তারা বর্তমান পরিস্থিতির মোকাবিলা করতে পারবেন|

ডঃ লয়েড-জোন্‌স বলেছিলেন, "ইহা হইতেছে যথাযথভাবে সেই একই পদ্ধতি যাহা অষ্টাদশ শতাব্দীর প্রারম্ভে ছিল, যখন লোকেরা তাহাদের বিশ্বাস [ধর্মীয় মতবাদ] এর মধ্যে আবদ্ধ করিয়া রাখিতেন| যাহা তাহারা আমাদের শিখাইয়াছিলেন, এইগুলি হইতেছে সেই বিষয়সমূহ, যাহা খ্রীষ্ট ধর্ম্মের সত্যতা দেখাইতে চলিয়াছে, কিন্তু তাহারা উহা করেন নাই| এই পদ্ধতি অনুসরণে কোন কিছুর দ্বারাই 'এই জাতি' বাহির হয় না|"

ব্যর্থ হওয়া অন্য আর একটি পদ্ধতি হল আধুনিক অনুবাদের ব্যবহার| আমাদের বলা হয়েছিল যে যুবকেরা কিং জেমস বাইবেল বোঝেন না| আমাদের যা দরকার তা হল আধুনিক ভাষায় লেখা একটা বাইবেল| তাহলে যুবকরা সেটা পড়বেন| তখন যুবকরা বলবেন, "এই হল খ্রীষ্ট ধর্ম" - এবং তারা সক্রিয় হয়ে আমাদের মন্ডলীতে আসবেন| কিন্তু সেরকম হয়নি| বাস্তবিকে, হয়েছিল আসলে এর ঠিক উল্টো| প্রায় ষাট বছর ধরে আমি স্বতন্ত্রভাবে যুবকদের সঙ্গে কাজ করে যাচ্ছি| বাস্তবিকপক্ষে আমি জানি যে এই সমস্ত আধুনিক অনুবাদ যুবকদের মোটেও আকর্ষণ করে না| আসলে, আমি শুনি তাদের অনেকে বলছেন, "এটা শুনতে ঠিক লাগছে না| এটা একেবারে সঠিক বাইবেলের মতন শুনতে লাগছে না|"

একটা আধুনিক অনুবাদ থেকে আমি কখনও প্রচার করিনি, এবং কখনও করব না| এবং আমরা দেখছি যুবকরা সব সময় মন পরিবর্তন করেছেন, আমাদের মন্ডলীতে, আর সেইসঙ্গে সমগ্র বিশ্বে| এইসব আধুনিক অনুবাদের যে মূল্যই যাই হোক না কেন, সেগুলি সমস্যা সমাধান করতে পারছে না| তারা "এই জাতি"র সঙ্গে মোকাবিলা করছে না|

তারা আর বাকি কি চেষ্টা করছেন? ওহ, বড় একটা বিষয় হল আধুনিক সঙ্গীত! "আমাদের সঠিক গানটি পেতে হবে এবং তখন তারা ভিতরে আসবেন এবং খ্রীষ্ট বিশ্বাসী হবেন|" এটা খুব দুঃখজনক| আমার কি সত্যিই এই বিষয়ের উপরে কোন মন্তব্য করার দরকার আছে? সেখানে একটা সাউদার্ন ব্যাপটিষ্ট মন্ডলী রয়েছে যা লস এঞ্জেল্‌সের একটা ভাড়া করা জায়গাতে মিলিত হয়| পালক একটা টি-শার্ট পরেন এবং একটা টুলের ওপরে বসে থাকেন| তিনি তার বক্তব্য রাখার আগে, এক ঘন্টা ধরে র‌ক্‍-সঙ্গীত চলতে থাকে| আমাদের মধ্যে একজন সেখানে পরীক্ষা করতে গিয়েছিলেন| তিনি হতভম্ব হয়ে গেছিলেন| তিনি বলেছিলেন যে সেবাকাজটি ছিল অন্ধকারাচ্ছন্ন এবং করুণা-উদ্রেককারী, এবং মোটেও আত্মিক নয়| তিনি বলেছিলেন যে সেই লোকেরা আত্মা জয় করেন না, এবং আমাদের যুবকরা যেমন করেন সেভাবে এক ঘন্টা ধরে তারা প্রার্থনা করবেন এটা তিনি কল্পনাও করতে পারেন না| এক ঘন্টা ধরে অন্য কিছুই নয় শুধু প্রার্থনা? এটা ভুলে যান! কাজেই, আধুনিক সঙ্গীতও "এই জাতি" বের করতে ব্যর্থ হয়েছে|

III. তৃতীয় বিষয় হল যে আমাদের কিছু একটা প্রয়োজন আছে যা ঐ মন্দ শক্তিকে অন্তরালে নিয়ে যেতে পারে, এবং একে চূর্ণ-বিচূর্ণ করতে পারে, এবং সেখানে একটাই জিনিস রয়েছে যা সেটা করতে পারে, আর সেটা হল ঈশ্বরের শক্তি !

ডঃ লয়েড-জোন্‌স বলেছিলেন, "আমাদের উপলব্ধি করিতে হইবে যে "এই জাতি" যত শক্তিশালী হউক না কেন, ঈশ্বরের শক্তি সীমাহীনভাবে বিশাল, আমাদের যাহা প্রয়োজন উহা আরও অধিক জ্ঞান, আরও অধিক বোধশক্তি, আরও অধিক কৈফিয়ত [নতুন অনুবাদ, বা রক-সঙ্গীত] নহে - না, আমাদের প্রয়োজন একটি শক্তির যাহা মানুষের অন্তরে প্রবেশ করিতে পারে এবং পরে তাহাদের চূর্ণ করিবে এবং তাহাদের বিনম্র করিবে এবং তাহার পরে তাহাদের নতুন মানুষে পরিণত করিবে| এবং উহাই হইতেছে জীবন্ত ঈশ্বরের শক্তি|" আর এটা আমাদের ফিরিয়ে নিয়ে যায় সেই পাঠ্যাংশের প্রতি,

‘‘পরে তিনি গৃহে আসিলে তাঁহার শিষ্যেরা বিজনে তাঁহাকে জিজ্ঞাসা করিলেন, আমরা কেন সেটা ছাড়াইতে পারিলাম না? তিনি কহিলেন, প্রার্থনা এবং উপবাস ভিন্ন আর কিছুতেই এই জাতি বাহির হয় না’’ (মার্ক 9:28-29)|

প্রার্থনা এবং উপবাস| এছাড়া অন্য কিছুই "এই জাতি"র শয়তানিয় আক্রমণ-এর উপর বিজয় লাভ করতে আমাদের মন্ডলীকে সাহায্য করতে পারে না| আমাদের মন্ডলীগুলি বর্তমানে যুবকদের কাছে পৌছাচ্ছে না| আমরা কি করতে পারি? "প্রার্থনা ও উপবাস ভিন্ন আর কিছুতেই এই জাতি বাহির হয় না|"

কোন কোন "পন্ডিত" হয়তো বলবেন, "উত্তম পান্ডুলিপি 'এবং উপবাস'-এর কথা বলছে না|" কিন্তু সেই "পন্ডিত" দিয়াবল সম্বন্ধে কি জানেন? আমাদের শহরের রাস্তা এবং কলেজ প্রাঙ্গন থেকে পরজাতীয়দের মন পরিবর্তন করার বিষয়ে তিনি কি জানেন? উদ্দীপনা সম্বন্ধে তিনি কি জানেন - সেইরকমের উদ্দীপনা যার অভিজ্ঞতা এই মুহূর্তে তারা চীনদেশে লাভ করছেন? তিনি সেইসব বিষয়ের কিছুই জানেন না| আমার জীবনে আমি তিনবার পাপ-ধ্বংসকারী উদ্দীপনা ঘটার প্রত্যক্ষদর্শী হয়েছি| আমি বিস্মিত হই এই ভেবে যে সেই উদ্দীপনা তিনটির সবগুলিতেই আমি প্রচার করার বিশেষ সুবিধাপ্রাপ্ত হয়েছিলাম| সেগুলি কোন সুসমাচার প্রচারমূলক সভা ছিল না| সেটা ছিল সেই সময় যখন ঈশ্বরের শক্তি মানুষের অন্তরে প্রবেশ করেছিল, এবং তাদের ভগ্ন করেছিল, এবং তাদের চূর্ণ করেছিল, এবং তাদের বিনম্র করেছিল, এবং খ্রীষ্ট যীশুর মধ্যে তাকে নতুন করে সৃষ্টি করেছিল!

সেইজন্যে, আমরা সেই পুরানো দুটি পান্ডুলিপি অনুসরণ করতে যাচ্ছি না যা "উপবাস" শব্দটি বাদ দিয়েছে| জ্ঞানবাদীরা উপবাসের উপরে প্রভূত জোর দিয়েছেন| সেইজন্যে জ্ঞানবাদীদের ব্যবহার করা থেকে পদগুলিকে রক্ষা করতে সেই মানুষটি যিনি সিনাইটিকাস পান্ডুলিপি নকল করেছিলেন তিনি এই "এবং উপবাস" শব্দগুলি বাদ দিয়েছিলেন| "জ্ঞানবাদীরা উপবাস অনুশীলন করে একে প্রায় অনাহারের পর্যায়ে নিয়ে গেছিলেন" (উইলিয়াম আর. হর্নি, ট্রিনিটি ইভাঞ্জেলিকাল সেমিনারি, “দ্য প্র্যাকটিস অফ ফাস্টিং ইন চার্চ হিস্টোরি,” পৃ. 3)| আধুনিক "পন্ডিতগণ" আমাদের বলেন যে নকলকারী ব্যক্তি ঐ শব্দগুলি যোগ করেছিলেন| কিন্তু এটা অনেক বেশি সম্ভব ছিল যে তারা ঐগুলি বাদ দিয়েছিলেন (দেখুন দ্য সিক্রেট হিস্টোরি অফ দ্য নস্টিক্‌স: দেয়ার স্ক্রিপ্‌চারস, বিলিফ্‌স এন্ড ট্র্যাডিশনস, লেখক এন্ড্রু ফিলিপ স্মিথ, অধ্যায় 5, পৃষ্ঠা 1)| আমরা জানি যে খ্রীষ্ট বলেছিলেন, "এবং উপবাস|" কিভাবে আমরা সেটা জানলাম? দুটি কারণে আমরা এটা জেনেছি| প্রথম, শিষ্যের যখন এর আগে দিয়াবল বের করতেন তারা স্পষ্টতই প্রার্থনা করে থাকবেন| কাজেই অন্য আর একটা কিছু যোগ করার দরকার হয়েছিল| অন্য আর একটা কিছুর দরকার হয়েছিল - উপবাস! শুধুমাত্র প্রার্থনাই যথেষ্ট ছিল না| আমরা অভিজ্ঞতা দ্বারাও এটা জানি| কারণ আমরা উপবাস করেছি এবং যখন আমরা উপবাস ও প্রার্থনায় নিজেদের হৃদয় উজাড় করে দিই তখন ঈশ্বর কি করতে পারেন সেটা আমরা নিজেদের চোখে প্রত্যক্ষ করেছি|

এখন আমি ডঃ মার্টিন লয়েড-জোন্‌স-এর আর একটি উদ্ধৃতি দিয়ে শেষ করব| কি সুন্দর এক পালক! কি অন্তর্দৃষ্টি! তার জন্য আমি কিভাবে ঈশ্বরকে ধন্যবাদ জানাব| অন্য আর এক জায়গাতে তিনি বলেছেন,

আমি বিস্মিত কখনও কি ইহা আমাদের প্রতি ঘটিয়াছিল যে আমাদের উপবাসের বিষয়ে বিবেচনা করা উচিৎ হইত? সত্য ঘটনা হইল, ইহা কি নয়, যে মনে হইতেছে যেন এই সমগ্র বিষয়টি আমাদের জীবন হইতে একেবারে বাহিরে অন্তর্হিত হইয়াছে এবং আমাদের সকল খ্রীষ্ট বিশ্বাসীর চিন্তা হইতে মুছিয়া গিয়াছে?

এবং সেই কারণে, সম্ভবত অন্য যেকোন কিছুর তুলনায় বেশি, আমরা "এই জাতি"র উপরে বিজয় লাভ করতে সক্ষম হইনি|

আমাদের মন্ডলীতে আমি একটা সাধারণ উপবাসের আহ্বান করতে চলেছি| আমি পরে আপনাদের বিষয়ে আরও কিছু বলব| যখন আমরা উপবাস করব তখন আমি বলে দেব| কিভাবে উপবাস করতে হয় এবং কিভাবে আপনার উপবাস শেষ করতে হয়, সেটা আমি আপনাদের বলে দেব|

সেই সময়ে আমরা এখানে এই মন্ডলীতে আসব এবং আমাদের প্রার্থনা সভার আগেই আমরা আহার গ্রহণ করব| যারা ফোন করেন তাদের কয়েকজনকে ডঃ কেগানের দ্বারা কিছুক্ষণের জন্য ফোন করতে বলা হবে| আমাদের অবশিষ্ট সকলেই একটা প্রার্থনায় যোগ দেব, আর ডঃ কেগান ও আমি প্রশ্নের উত্তর দেব|

1. আমাদের নতুন কর্মসূচির সাফল্যের জন্য আমরা উপবাস ও প্রার্থনা করব|

2. ছেলেদের একটা নতুন "মঞ্চ" এবং মেয়েদের একটা নতুন "মঞ্চ"-এর জন্য আমরা উপবাস ও প্রার্থনা করব| একটা "মঞ্চ" হচ্ছে পাঁচ বা ছয়জন লোক, যারা শনিবার, রবিবারের সকাল এবং রবিবারের সন্ধ্যায় আসেন এবং যারা শিষ্যে পরিণত হতে আগ্রহী থাকেন|

3. এছাড়া আমাদের মন্ডলীতে মন পরিবর্তনের জন্যেও আমরা উপবাস ও প্রার্থনা করব| আমরা বিশেষভাবে দৃষ্টিপাত করব "এই জাতি"- দিয়াবলের উপরে যা একজন লোককে অনুভূতির প্রতি দৃষ্টিদানের জন্য তাকে ক্রীতদাস করে রাখে|


এখন যীশুর বিষয়ে কথা না বলে আমি অবশ্যই এই সভা শেষ করব না। আমাদের সব প্রয়োজন হল তাঁর মধ্যে অন্বেষণ করা| ইব্রীয়-এর বই বলছে,

‘‘কিন্তু দূতগণ অপেক্ষা যিনি অল্পই ন্যূনীকৃত হইলেন, সেই ব্যক্তিকে অর্থাৎ যীশুকে দেখিতেছি, তিনি মৃত্যুভোগ হেতু প্রতাপ ও সমাদরমুকুটে বিভূষিত হইয়াছেন, যেন ঈশ্বরের অনুগ্রহে সকলের নিমিত্ত মৃত্যুর আস্বাদ গ্রহণ করেন’’ (ইব্রীয় 2:9)|

যীশু, ঈশ্বরের সেই পুত্র, পাপীদের পরিবর্তে নিজে মৃত্যুবরণ করেছিলেন, পাপীদের প্রতিকল্প হিসাবে| আপনাকে জীবন দান করতে যীশু স্বশরীরে, মাংস ও অস্থির সঙ্গে, মৃত্যু থেকে পুনরুত্থিত হয়েছিলেন| যে মুহূর্তে আপনি যীশুর প্রতি আত্মসমর্পণ করেন আপনার সমস্ত পাপ ক্রুশের উপরে তাঁর মৃত্যুর দ্বারা বাতিল হয়ে যায়| যে মুহূর্তে আপনি পরিত্রাতার উপরে স্বয়ং নিজেকে অর্পন করেন, খ্রীষ্টের বহুমূল্য রক্তের দ্বারা ঈশ্বরের নথি থেকে চিরকালের জন্য আপনার সমস্ত পাপ শুচিকৃত হয়| কিভাবে আমরা প্রার্থনা করব যে আপনি প্রভু যীশু খ্রীষ্টকে বিশ্বাস করবেন এবং তাঁর দ্বারা পাপ থেকে পরিত্রাণ লাভ করবেন| আমেন এবং আমেন| অনুগ্রহ করে উঠে দাঁড়ান এবং আপনার গানের পাতার 4 নম্বর গানটি করুন|

দৃঢ় দূর্গ মোদের ঈশ্বর, অবিভেদ্য রক্ষা প্রাচীর,
   তিনিই মাত্র মোদের আশ্রয়, যখন পাপ-প্লাবন পিছে ধায়|
কারণ চিরশত্রু মোদের অমঙ্গল চায়;
   তার চাতুরির ছলে, হিংসা লোভের বলে,
জগতে তার তুল্য কেহ নয়|

যদি আপন বলে নির্ভর, পরাজিত হব নিশ্চয়,
   যদি না ঈশ্বর-প্রেরিত সুজন, মোদের হয় সহায়ক|
কে সে জন জানে কি? খ্রীষ্ট যীশু, সেই ব্যক্তি;
   বিশ্রামবারের কর্ত্তা, ভবের অধিকর্ত্তা,
তিনি হন বিজয়ী নায়ক|
(“A Mighty Fortress Is Our God,” Martin Luther, 1483-1546) |


যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তাহলে ডঃ হাইমার্স আপনার কাছ থেকে কিছু শুনতে চান| যখন আপনি ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখবেন তখন অবশ্যই তাকে জানাবেন যে কোন দেশ থেকে আপনি তাকে লিখছেন নয়ত তিনি আপনার ই-মেলের জবাব দিতে সক্ষম হবেন না| যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তবে ডঃ হাইমার্সকে একট ই-মেল পাঠান এবং তাকে সেইকথা জানান, কিন্তু কোন দেশ থেকে আপনি লিখছেন চিঠিতে সেটা অবশ্যই অন্তর্ভূক্ত করবেন| ডঃ হাইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net (এখানে ক্লিক করুন) | আপনি যে কোন ভাষায় ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখতে পারেন, কিন্তু যদি পারেন তো ইংরাজিতেই লিখুন| যদি আপনি ডঃ হাইমার্সকে ডাক-ব্যবস্থার মাধ্যমে চিঠি পাঠাতে চান, তবে তার ঠিকানা হল P.O. Box 15308, Los Angeles, CA 90015 | আপনি তাকে (818)352-0452 নম্বরে ফোন করতে পারেন|

(সংবাদের পরিসমাপ্তি)
ডঃ হাইমার্সের সংবাদ আপনি প্রতি সপ্তাহে ইন্টারনেটে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে গিয়ে পড়তে পারেন| ক্লিক করুন “প্রচার পান্ডুলিপি|”

আপনি ডাঃ হাইমার্সকে মেইল পাঠাতে পারেন rlhymersjr@sbcglobal.net - আপনি
তাকে পত্র লিখতে পারেন P.O. Box 15308, Los Angeles, C A 90015.এই ঠিকানায়
। আপনি তাকে টেলিফোন করতে পারেন (818) 352-0452.

এই সুসমাচারের ম্যানুস্ক্রিপ্ট এর ওপর ডাঃ হাইমসের কোন কপিরাইট নেই। আপনারা
ইহা ব্যাবহার করতে পারেন ডাঃ হাইমসের অনুমতি ছাড়াই। অবশ্য, ভিডিও মেসেজ
সবই কপিরাইটের সহিত আছে এবং কেবলমাত্র তার অনুমতি নিয়েই ব্যাবহার করা যাবে।

প্রচারের আগে একক সংগীত পরিবেশন করেছেন মিঃ বেঞ্জামিন কিন্‌কেড গ্রিফিথ:
“Old-Time Power” (Paul Rader, 1878-1938).


খসড়া চিত্র

দিয়াবলের উপর বিজয়
যাহা আমাদের দুর্বল করে – “এই জাতি”!

OVERCOMING THE DEMONS THAT WEAKEN US –
“THIS KIND”!

ডঃ আর. এল. হেইমার্‌স, জুনিয়র

‘‘পরে তিনি গৃহে আসিলে তাঁহার শিষ্যেরা বিজনে তাঁহাকে জিজ্ঞাসা করিলেন, আমরা কেন সেটা ছাড়াইতে পারিলাম না? তিনি কহিলেন, প্রার্থনা এবং উপবাস ভিন্ন আর কিছুতেই এই জাতি বাহির হয় না’’ (মার্ক 9:28-29)|

(মার্ক 9:18)

I.   প্রথম বিষয়টি হল ‘‘এই জাতি,’’ প্রেরিত 26:18; ইফিষীয় 6:12; 2:2 |

II.  দ্বিতীয় বিষয় হল সেই প্রণালী যা ব্যর্থ হয়েছে, II করিন্থীয় 2:11 |

III. তৃতীয় বিষয় হল যে আমাদের কিছু একটা প্রয়োজন আছে যা ঐ মন্দ শক্তিকে অন্তরালে নিয়ে যেতে পারে, এবং একে চূর্ণ-বিচূর্ণ করতে পারে, এবং সেখানে একটাই জিনিস রয়েছে যা সেটা করতে পারে, আর সেটা হল ঈশ্বরের শক্তি, ইব্রীয় 2:9 |