Print Sermon

এই ওয়েবসাইটের উদ্দেশ্য হল ধর্ম্মোপদেশের পান্ডুলিপি এবং ধর্ম্মোপদেশের ভিডিওগুলি বিশ্বব্যাপী পালক ও মিশনারিদের বিনামূল্যে সরবরাহ করা, বিশেষ করে তৃতীয় বিশ্বে, যেখানে ধর্ম্মতত্ত্বমূলক সেমিনারী বা বাইবেল স্কুল থাকলেও খুব কম রয়েছে|

এই সমস্ত প্রচারের পান্ডুলিপি এবং ভিডিওগুলি এখন www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রতি মাসে 221টিরও বেশি দেশের প্রায় 1,500,000 কম্প্যুটারে যায়| শত শত লোক ইউটিউবের ভিডিওর মাধ্যমে এগুলি দেখেন, কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই তারা ইউটিউব ছেড়ে বেরিয়ে যান এবং আমাদের ওয়েবসাইটে চলে আসেন| ইউটিউব আমাদের ওয়েবসাইটে লোক এনে দেয়| প্রচারের এই পান্ডুলিপিগুলি প্রতি মাসে 40টি ভাষায় প্রায় 120,000 কম্প্যুটারে প্রচারিত হয়| প্রচারের পান্ডুলিপিগুলি গ্রন্থসত্ত্ব দ্বারা সংরক্ষিত নয়, কাজেই প্রচারকগণ আমাদের অনুমতি ছাড়াই এইগুলি ব্যবহার করতে পারেন| মুসলিম এবং হিন্দু রাষ্ট্রসমেত, সমগ্র পৃথিবীতে সুসমাচার ছড়িয়ে দেওয়ার এই মহান কাজে সাহায্য করার জন্য কিভাবে আপনি একটি মাসিক অনুদান প্রদান করতে পারেন তা জানতে অনুগ্রহ করে এখানে ক্লিক করুন|

যখনই আপনি ডঃ হেইমার্‍সকে লিখবেন সর্বদা তাকে জানাবেন যে আপনি কোন দেশে বাস করেন, অথবা তিনি আপনাকে উত্তর দিতে পারবেন না| ডঃ হেইমার্‌সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net |




দুঃখভোগ ও আধিপত্য

SUFFERING AND REIGNING
(Bengali)

লেখকঃ ডাঃআর.এল.হাইমার্স,জুনি.
by Dr. R. L. Hymers, Jr.

২৯-শে সেপ্টেম্বর, ২০১৩ সালে লস এঞ্জেলেসের ব্যাপটিস্ট ট্যাবারনেকেলে
সদা প্রভুর দিনে সকালে,এক সংবাদ প্রচারিত হয়
A sermon preached at the Baptist Tabernacle of Los Angeles
Lord’s Day Morning, September 29, 2013

“যদি সহ্য করি, তাঁহার সহিত রাজত্বও করিবঃ যদি তাঁহাকে অস্বীকার করি, তিনিও আমাদিগকে অস্বীকার করিবেন” (২-য় টিমোথি ২:১২).


এখানেই আমরা আবার এগিয়ে যাই! এই উপদেশ লেখার জন্য আমি বসে পড়লাম আর এখানে “সহ্য করিব” বলে যে শব্দের উল্লেখ হয়েছে সেই বিষয়ে আমি আবিষ্কার করলাম যা আধুনিক বাংলাতে অনুবাদ করা হয়েছে “ধৈর্য্য ধরা।” তথাপি ১৫৯৯ এবং ১৬১১ ইংরাজীতে কিং জেমস অনুবাদে জিনিভা বাইবেলে “সহ্য করি” বলেই উল্লেখ করেছে। ইহার বিষয়ে আমি যখন আরো বেশী করে অধ্যয়ন করলাম সেখানে আমি দেখতে পেলাম যেখানে গ্রীক শব্দে অনুবাদ করা হয়েছে হয় “সহ্য করি” অথবা “ধৈর্য্য ধরা” বলেই। সুতরাং ইহা দুভাবেই চলতে পারে।

অতএব এখানের যে বিষয় সূচী তাকে অবশ্যই বিবেচনা করতে হবে। ১১ এবং ১২ পদে প্রেরিত বলেছেন খ্রীষ্টের সঙ্গে একাত্ম হওয়ার বিষয়ে। ১১ পদে তিনি বলেছেন, “যদি সহ্য করি, তাঁহার সহিত রাজত্বও করিব।” এটা একজন খ্রীষ্টিয়ান নির্দেশ করে জগতের কাছে ঘোষণা করছে ও পাপ ও নিজেকে মেরে ফেলছে। সুতরাং, ১১ পদ তাঁর মৃত্যুর মধ্য দিয়ে একজন প্রকৃত খ্রীষ্টিয়ানের খ্রীষ্টের সহিত একাত্ম হওয়ার বিষয়ে বলছে (রোমিয় ৬:১৩)। ১২ পদ “তাঁর সহ্য করার” মধ্য দিয়ে খ্রীষ্টের সঙ্গে খ্রীষ্টিয়ানদের একতা বা একাত্ম বিষয়েই বলা হচ্ছে। সুতরাং “সহ্য করি/করা” হল মনের মতো শব্দ যা জিনিভা বাইবেল এবং কিং জেমস বাইবেলের মহান অনুবাদেরা উল্লেখ করেছেন। তারা জানতেন যে দ্বিতীয় অধ্যায়ের সমস্ত প্রসঙ্গটা “সহ্য করার” প্রতিই পরিচালিত হয়েছে আর তা কেবলমাত্র “ধৈর্য্যই” নয় । সেই সমস্ত অনুবাদকেরা বোকা ছিলেন না। ইংলণ্ডে তারা ছিলেন শ্রেষ্ঠ গ্রীক পণ্ডিত। তারা জানতেন এই দুটি অধ্যায়ের সমস্ত বক্তব্য আমাদের চালনা করে “ধৈর্য্য ধরতে,” শুধু কেবল “সহ্য করা” নয়। এখানে সেই অধ্যায়টি একজন প্রকৃত খ্রীষ্টিয়ানকে সৈন্য হিসেবে চিত্রিত করেছে, যা সেই সমস্ত প্রতিদ্বন্দ্বীমূলক শব্দগুলি এই বিষয়কেই অনুশীলন করায় চরম মাত্রায়,

“বিশ্বস্তের কথা এমনঃ আমরা যদি তাঁহার সঙ্গে মৃত্যু বরণ করি, তবে ইহাও জানি যে আমরা তাঁহার সঙ্গে রাজত্ব করিবঃ যদি সহ্য করি, তাঁহার সহিত রাজত্বও করিব...”

আমরা যদি তাঁর মৃত্যুর মধ্য দিয়ে, যীশুর অনুসরণ করি তবে তাঁর সঙ্গে রাজত্বও করিব। তাঁর দুঃখভোগের,মধ্য দিয়ে আমরা যদি যীশুর অনুসরণ করি তবে তাঁর সঙ্গে রাজত্বও করবো! খুবই সাধারণ তাই “সহ্য করা” থেকে “ধৈর্য্য ধরার” দ্বারা কেন এতটা জটিল করে তুলি, ঠিক যেমন ভাবে আধুনিক সময়ের সমস্ত অনুবাদকেরা করে থাকেন? সেই বিষয়টাকে চিহ্নিত করার প্রতি আপনাকে গ্রীক পন্ডিত হয়ে ওঠার প্রয়োজন নেই! কিন্তু আধুনিক সময়ের মন্ডলীর সদস্যরা সহ্য বা দুঃখভোগ করতে চায় না! সুতরাং,আধুনিক সময়ের অনুবাদকেরা সেই পদটাকে দুর্বল করে তোলে যতদূর সম্ভব যেন তাদে নরম-সুসমাচার মূলক পাঠকের কাছে সন্তুষ্ট করার মধ্য দিয়ে তাকে সরল করে তুলতে পারে। ইহা কিন্তু একেবারেই খুব সরল বিষয়!

সেই সঙ্গে, প্রাচীন অনুবাদকের শাস্ত্র সম্বন্ধে এতটাই উচ্চমানের দর্শন রয়েছে যা বর্তমান সময়ে রক্ষণপ্রবণ অনুবাদকের মতোই। অতএব, তারা আমাদের পাঠ্যাংশের বিষয়টাকে অনুবাদ করেছে রোমিয় ৮:৭-র মতো করে, যা বলে,

“...আমরা যদি তাঁহার সহিত দুঃখভোগ করি, তবে আমরা তাঁর সঙ্গে একত্রে গৌরবাণ্বিতও হবো”(কেজেভি).

আমি এখানে ইংরাজী এন আই ভি’র অনুবাদ দিই,

“...আমরা যদি তাঁহার দুঃখভোগের অংশীদারী হই তবে আমরা তাঁর গৌরবে রাজত্বও করিব” (এন আই ভি).

রোমিয় ৮:১৭ এই শব্দে অনুবাদ করা হয়েছে “দুঃখভোগ” যার পরিষ্কার অর্থ “দুঃখভোগ বা যন্ত্রণা উপলব্ধি করা,” “ইহার সঙ্গে কষ্ট সহ্য করা।” আমাদের পাঠ্যাংশে যেহেতু এই শব্দে দুঃখভোগ ও সহ্য করার বিষয়টা রয়েছে, তাই আগে যে ব্যাক্তিরা ইহাকে অনুবাদ করেছেন তা কিন্তু রোমিয় ৮:১৭ পদের আলোকেই তা করেছেন। আর এটাকেই লুথার বলে থাকেন “শাস্ত্রের বিশ্লেষণ করা।”

আধুনিক অনুবাদকদের দ্বারা এই পরিবর্তনের প্রকৃত যে অর্থ তা অন্যত্রও রয়েছে। তারা জানেন যে আধুনিক সময়ের পাঠকেরা দুঃখভোগ করতে চায় না! অতএব আজকের দিনে দুর্বলমনোভাবাপন্ন সুসমাচার প্রচারকারীদের প্রতি সেই বিষয়ে এক নরম শব্দকে অভিযোজিত করে! আমি প্রায় সময়ে বলে থাকি, “কিং জেমস বাইবেল আধুনিক অনুবাদকদের আলোকে এক বিরাট বিষয় নিয়ে আদান প্রদান করেন!”

“যদি সহ্য করি, তাঁহার সহিত রাজত্ব করিবঃ যদি তাঁহাকে অস্বীকার করি, তিনি আমাদিগকে অস্বীকার করিবেন” (২-য় টিমোথি ২:১২).

রোমিয় ৮:১৭ পদের অনুসিদ্ধান্ত ইহাকে এতটাই স্বচ্ছ করে তোলে যে প্রকৃত খ্রিষ্টিয়ানেরা হলেন “খ্রীষ্টের সহ-দায়দ; যদি বাস্তবিক আমরা তাঁহার সহিত দুঃখভোগ করি, তবে তাঁহার সহিত প্রতাপাণ্বিতও হই” (রোমিয় ৮:১৭)।

১. প্রথম, “আমরা যদি দুঃখভোগ করি, তবে তাঁর সঙ্গে প্রতাপান্বিতও হই।”

এই বিষয়ের উপরে ডাঃ যে ভার্নন ম্যাকগী এর উপরে এক চিত্তাকর্ষক উদ্ধৃতি প্রদান করেন । তিনি বলেন,

“আমরা যদি দুঃখভোগ করি, তবে আমরা তাঁর সঙ্গে প্রতাপান্বিতও হব”...আমি বিশ্বাস করি যারা তাঁর জন্য দুঃখভোগ করেছেন সেই দিক দিয়ে এই পদটি একটু সংকীর্ণমানের হয়ে গিয়েছে ...পলের সময়ে রোমিয় জগতে সেখানে বহু খ্রীষ্টিয়ান ছিলেন যারা শহীদ হয়ে গিয়েছে-তাদের জনসংখ্যা পঞ্চাশ লক্ষাধিক,ফক্সের কথা অনুযায়ী-কেননা তারা খ্রীষ্টকে অস্বীকার করাটা প্রত্যাখান করে ছিলেন। “আমরা যদি তাঁকে অস্বীকার করি, তবে তিনিও আমাদের অস্বীকার করেন।” এটা সত্যই এক কঠিন ভাষা । যাই হোক না কেন, ইহা প্রকাশ করে,যেখানে পল বিশ্বাস করতেন যে কর্ম বিহীন বিশ্বাস মৃত (জেমস২:১৭)। এখানে আপনি দেখবেন, পল ও জেমস একে অপরের সঙ্গে কোন সময়েই তা বিরোধিতা করেন নি। জ্যাকব এখানে বিশ্বাসের কার্য সম্বন্ধে বলছেন, আর পল বলছেন প্রকৃত বিশ্বাস কার্যে উৎপাদন করে। (J. Vernon McGee, Th.D., Thru the Bible, Thomas Nelson Publishers, 1983, volume V, p. 466; note on II Timothy 2:12).

“যদি সহ্য করি, তাঁহার সহিত রাজত্বও করিবঃ যদি তাঁহাকে অস্বীকার করি, তিনি আমাদিগকে অস্বীকার করিবেন” (২-য় টিমোথি ২:১২).

প্রাচীন মন্ডলীতে প্রতিটি খ্রীষ্টিয়ানদের শিক্ষা দেওয়া হতো যে তাদের দুঃখভোগ ও পরীক্ষার মধ্য দিয়ে যেতে হবে। এই বিষয়ে আমরা প্রেরিত ১৪:২২ পদে, আমরা পরিষ্কার ভাবেই দেখতে পাই যেখানে পল ও বারনাবাসরা লিস্ট্রা, আইকোনিয়াম, এন্টিওখে ছিলেন,

“যাইতে যাইতে তাহারা শিষ্যদের মন সুস্থির করিলেন,এবং তাহাদিগকে আশ্বাস দিতে লাগিলেন যেন তাহারা বিশ্বাসে স্থির থাকে, আর কহিলেন অনেক ক্লেশের মধ্য দিয়া আমাদের ঈশ্বরের রাজ্যে প্রবেশ করিতে হইবে” (প্রেরিত ১৪:২২).

“অতি অবশ্যই ক্লেশের মধ্য দিয়ে আমাদের ঈশ্বরের রাজ্যে প্রবেশ করতে হবে।” “ক্লেশ” বলে যে শব্দ তা গ্রীকে অনুবাদ করা হয়েছে “থিলপসিস।” ইহার অর্থ হল “চাপ, মানসিক যন্ত্রণা, সমস্যা, দুঃখভোগ” (কঠিন ভাবে)।

প্রাচীনকালের খ্রীষ্টিয়ানেরা এতটাই কষ্টসহিষ্ণু ছিলেন ফলে “জগৎকে ওলোট পালট করে দিয়েছিলেন” (প্রেরিত ১৭:৬) কেননা তাদের শিক্ষা প্রদান করা হয়েছিল ক্রুশ বহন করাটা তাদের কাছে স্বাভাবিক হয়ে গিয়েছিল,যেমন খ্রীষ্ট “তাদের সকলকে যেমন ভাবে বলেছিলেন” সেই ভাবে,

“কেহ যদি আমার পশ্চাৎ আসিতে ইচ্ছা করে, তবে সে আপনাকে অস্বীকার করুক, প্রতিদিন আপন ক্রুশ তুলিয়া লউক,এবং আমার পশ্চাদ্গামী হউক”(লিউক ৯:২৩).

“ঈশ্বরের দরবারে পৌঁছাতে গেলে আমাদের অবশ্যই দুঃখভোগের [চাপ, দুঃখ, সমস্যা, ভোগান্তি] মধ্যে দিয়ে যেতে হবে” (প্রেরিত ১৪:২২)।

“যদি সহ্য করি,তাঁহার সহিত রাজত্বও করিব:যদি তাঁহাকে অস্বীকার করি, তিনিও আমাদিগকে অস্বীকার করিবেন” (২-য় টিমোথি ২:১২).

“দুঃখভোগ ও খ্রীষ্টের সঙ্গে রাজত্ব করা,” নামক সংবাদে “প্রচারকদের রাজপুত্র,” মহান স্পারজিউন, বলেন,

         যখন মারকাস আরেথুসাস(৩৬২এ.ডি.)এ্যাপোস্টেট জুলিয়ানের দ্বারা, আজ্ঞা প্রাপ্ত হন যেন পরাজিতদের জন্য মন্দির তৈরী করার [অর্থ প্রদান করা হয়] যা খ্রীষ্টিয়ানিটির ধর্মান্তকরণের দ্বারা, নীচে নামিয়ে দেওয়া হয়েছিল কিন্তু তা মান্য করাটাতে তিনি অবাধ্য হন; আর যদিও তিনি এক বৃদ্ধ ছিলেন, তাকে বিবস্ত্র করে [তাকে বর্শা] ও ছুরি দ্বারা বিদ্ধ করা হয়। তখনও পর্যন্ত সেই বৃদ্ধ মানুষটি দৃঢ় ছিলেন। তিনি যদি সেই মন্দিরটি [পাগান] নির্মাণ করার জন্য [কয়েকটি পেনি] দিয়ে দিতেন তবে তিনি মুক্ত হতে পারতেন...[কিন্তু] তিনি তা করেন নি। তার গায়ে মধু মাখিয়ে দেওয়া হয়েছিল, আর তার ক্ষতস্থান [তখনও] যখন রক্তাক্ত, তখন তার শরীরের উপর মৌমাছি ও বোলতা হুল ফুটিয়ে মৃত্যু মুখে ঠেলে দেয়। তিনি মরতে প্রস্তুত ছিলেন,কিন্তু তিনি তার প্রভুকে অস্বীকার করেন নি। আরেথুসাস তাঁর প্রভুর আনন্দে প্রবেশ করেন, কেননা তিনি অপূর্ব ভাবেই তাঁর সঙ্গে দুঃখভোগ স্বীকার করেন (C. H. Spurgeon, “Suffering and Reigning with Jesus,” The Metropolitan Tabernacle Pulpit, 1991 reprint, volume X, p. 11).

আমরা রিচার্ড ওয়ার্মব্রান্ডের(১৯০৯-২০০১),মতো লোকেদের নামকে সম্মান জানাই যিনি রোমানিয়ার সাম্যবাদীদের জেলে ১৪ বৎসর যাতনাভোগ করেন। আমরা স্যামুয়েল ল্যাম্বের (১৯২৪-২০১৩), মতো লোকের নামকে সম্মান করি যিনি প্রায় ২০ বৎসরেরও অধিক সময় চীনের সাম্যবাদীর একাগ্রমনা ক্যাম্পে কঠিন পরিশ্রম করেন। আমরা ডিট্রিখ বন হয়েফারকে (১৯০৬-১৯৪৫),সম্মান জানাই যাকে হিটলারের বিরুদ্ধে গজে ওঠার ফলে দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময়ে নাৎসীদের দ্বারা পিয়ানোর তার গলায় বেঁধে ঝুলিয়ে দেওয়া হয়। আমরা আরো বহু শতাধিক লোকেদের সম্মান জানাই যারা আজকের সকালেই মুসলমানদের দেশে খ্রীষ্টের মধ্যে তাদের বিশ্বাসের জন্য দুঃখভোগ করছেন। কিন্তু আপনার কি মনে হয় ? আপনি কি প্রতি রবিবার দিনে কয়েক ঘন্টা মন্ডলীর জন্য ব্যায় করবেন ? আপনি কি প্রার্থনা সভায় যোগদান করার দ্বারা সামান্য দুঃখভোগের মধ্য দিয়ে যাবেন, এবং প্রতি সপ্তাহে সুসমাচার প্রচারে যাবেন ?

আমার কাছে আমার অধ্যয়নের মধ্যে “ব্যাপটিস্ট রচিত গানের,” একটি কপি রয়েছে যা ১৯৫৬ সালে সাউদার্ন ব্যাপটিস্ট কনভেনশানের দ্বারা প্রকাশ করা হয়। এমন কি সেই তখন পর্যন্ত খ্রীষ্টিয়ানদের দুঃখভোগ করার জন্য স্নায়ুর মধ্যে একটা চাপ ছিল। আমি রেগিন্যাল্ড হেবার্স (১৭৮৩-১৮২৬) মহান গানের প্রতি তাকাই,“ঈশ্বরের সেই পুত্র যুদ্ধের জন্য অগ্রমান হন।” আমি যখন দেখলাম যে সাউদার্ন ব্যাপটিস্ট সেই শক্তিমন্ত অনুচ্ছেদটি অনুপ্রেরণা দায়ক গান থেকে বাতিল করে দিয়েছে তখন আমার হৃদয় যেন তলিয়ে গেল। এই সেই অনুচ্ছেদ যা তারা বাতিল করে দিয়েছে,

এক গৌরবময় দল,মনোনীতদের মধ্যে, যাদের মধ্যে আত্মার অবতরন,
অসমসাহসী সেই বারো সাধু, যারা তাদের প্রত্যাশাকে জেনে, ক্রুশ ও
তার অগ্নিকে করেছেন উপেক্ষা।
তারা সেই উদ্ধত ভঙ্গির লৌহ কঠিন অত্যাচারের সম্মুখীন,সেই
সিংহীকেশরীর গর্জন;
মৃত্যু অনুভবের প্রতি তারা তাদের ঘাড়কে নত করেছেঃযারা তাদের
প্রশিক্ষণে অনুসারী?
   (“The Son of God Goes Forth to War” by Reginald Heber, 1783-1826).

সেটাই হল এক অনুচ্ছেদ যা আপনাকে আঁকড়ে রাখে! এটাই হল সেই অনুচ্ছেদ যা যুবক ব্যাক্তিদের অনুপ্রাণিত করে এক সহজ জীবনধারাকে প্রত্যাখান করতে এবং মিশন ক্ষেত্রে প্রবেশ করতে, অথবা ঘরের মধ্যে আত্ম-উৎসর্গকারী খ্রীষ্টিয়ান হয়ে উঠতে! ১৯৫৬ সালে কেন তারা এই অনুচ্ছেদটি বাতিল করে দিল ? আমি আপনাকে বলছি কেন! বেশ কিছু বয়স্কা মহিলা এর দ্বারা ক্ষুব্ধ হয়েছিলেন! তারা এই “ক্রুশ ও দীপ্তির” বিষয়ে চিন্তা করতে চায় নি। তারা “উদ্যত ভঙ্গি স্বৈরতন্ত্রীর লৌহকঠিন” প্রতিমূর্তির সম্মুখীন হতে চান নি। ইহা তাদের “সিংহের রক্তমুখী কেশরের” কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে বিচলিত করে গেল, অথবা শহীদেরা “মৃত্যু স্বীকার করে যে ভাবে ঘাড়কে নত করেছেন” সেই ঘটনাকে স্মরণ করিয়ে দেয়। এটা তাদের কাছে অত্যন্ত যাতনাকারী বলে মনে হচ্ছিল,সুতরাং তারা সেই অনুচ্ছেদটি বাদ দিয়ে দিলেন। তাদের সেই কাপুরুষতার প্রতি লজ্জা হয়! সাউদার্ন ব্যাপটিস্টের সংগীত বিভাগের প্রতি লজ্জা হয় যারা শহীদদের বিশ্বাসের সাক্ষ্যের বিষয়ে এই ভাবে অমর্য্যাদা প্রকাশ করেছেন! আসুন আমরা যেন ইহা গাইবার জন্য লজ্জিত না হই। আসুন আমরা যেন ইহার দ্বারা জীবন যাপন করাতে লজ্জিত না হই, যে কোন ভাবেই হোক না কেন আমরা যেন তাদের মর্য্যাদা প্রদান করি! ইহা গানের পাতাটির শেষ গান। আসুন ইহা গাই!

এক গৌরবময় দল,মনোনীতদের মধ্যে, যাদের মধ্যে আত্মার অবতরন,
অসমসাহসী সেই বারো সাধু, যারা তাদের প্রত্যাশাকে জেনে, ক্রুশ ও
তার অগ্নিকে করেছেন উপেক্ষা।
তারা সেই উদ্ধত ভঙ্গির লৌহ কঠিন অত্যাচারের সম্মুখীন,সেই
সিংহীকেশরীর গর্জন;
মৃত্যু অনুভবের প্রতি তারা তাদের ঘাড়কে নত করেছেঃযারা তাদের
প্রশিক্ষণে অনুসারী?

এক মহান সেনাদল,পুরুষ এবং বালক, মহিলা ও বালিকাদের,
পরিত্রাতার সিংহাসনের চার পাশে গৌরব করে,গৌরবময় বস্ত্র পরিহিত হয়ে।
তারা অবিশ্বাস্য স্বর্গে আরোহন করেছেন, দুরাবস্থা, পরিশ্রম আর ব্যাথার
মধ্য দিয়ে;
হে ঈশ্বর, আমাদের দয়া কোরো, যেন তাদের অনুগামী হই।
(“The Son of God Goes Forth to War” by Reginald Heber, 1783-1826).

আপনারা সকলে বসুন। “তারা অবিশ্বাস্য স্বর্গে আরোহন করেছেন দুরাবস্থা, পরিশ্রম আর ব্যাথার মধ্য দিয়ে।” হ্যাঁ! প্রেরিতেরা যখন এই কথা বলেন তখন তাদের বলার অর্থ হল সেটাই,

“যদি সহ্য করি, তাঁহার সহিত রাজত্বও করিবঃ যদি তাঁহাকে অস্বীকার করি, তিনিও আমাদিগকে অস্বীকার করিবেন” (২-য় টিমোথি ২:১২).

২. দ্বিতীয়, “যদি তাঁকে অস্বীকার করি, তিনিও আমাদিগকে অস্বীকার করিবেন।”

“যদি সহ্য করি, তাঁহার সহিত রাজত্বও করিবঃ যদি তাঁহাকে অস্বীকার করি, তবে তিনিও আমাদিগকে অস্বীকার করিবেন” (২-য় টিমোথি ২:১২).

যীশু এই ভাবে আন্তরিকতা সহকারে সেই সতর্কীকরণ করে দিয়ে বলেন,

“যে কেহ মনুষ্যদের সাক্ষাতে আমাকে অস্বীকার করিবে,আমিও আপন স্বর্গস্থ পিতার সম্মুখে তাহাকে অস্বীকার করিব” (ম্যাথুজ ১০:৩৩).

প্রেরিত পল আমাদের পাঠ্যাংশে বলেছেন, “আমরা যদি তাঁকে অস্বীকার করি, তবে তিনিও আমাদের অস্বীকার করিবেন।”এটাই হল সেই অস্বীকার যখন ভ্রান্ত খ্রীষ্টিয়ানেরা সেই দুঃখভোগের সম্মুখীন হোন যা প্রকৃত শিষ্যত্ব করণের ক্ষেত্রে প্রযোজ্য। আর সেই একই বিষয় ঘটেছিল “পাথুরে ভুমিতে” যা বীজ বপনের গল্পে সেই লোকেদের বিষয়ে বর্ণনা করে।

“আর তাহারাই পাষানের ওপরের লোক, যাহারা, শুণিয়া আনন্দপূর্বক সেই বাক্য, গ্রহণ করে; কিন্তু তাহাদের মূল নাই, তাহারা আল্পকাল মাত্র বিশ্বাস করে, আর পরীক্ষার সময়ে সরিয়া পড়ে” (লিউক ৮:১৩).

ডাঃ রিনেকার বলেন যে “সরিয়া পড়ে” যার অর্থ “ফিরে য়ায়,” “নিজেকে গুটিয়ে নেয়” (Fritz Rienecker, Ph.D., A Linguistic Key to the Greek New Testament, Zondervan, 1980, p. 161; note on Luke 8:13).

যখন “পরীক্ষা” উপস্থিত হয় তখন প্রায় সময়ে তারা তাদের স্থানীয় মন্ডলী থেকে সরিয়া য়ায়। “এদের কোন মূল্য নেই” এর অর্থ হল তারা কোন সময়েই খ্রীষ্টে “বদ্ধমূল” হয় নি। ইহা প্রকাশ করে যে তারা কোন সময়েই প্রকৃত ভাবে রুপান্তরিত বা কনভার্ট হয় নি। মার্ক ৪:১৭দেখায় দৃষ্টান্তের মধ্যে দিয়ে“পরীক্ষার সময়টা কি প্রকার”যেটা এই প্যারাবলে বলা হয়েছে,

“যখন মানসিক যন্ত্রণা বা তাড়না উপস্থিত হয়...তখন অতি সত্বর তারা বিরক্তি প্রকাশ করে” [আক্ষরিক ভাবে,“সরিয়া পড়ে,” NASV].

এই প্রকার লোকেদের বিচারের সময়ে যীশুর দ্বারা অস্বীকার করা হবে। তিনি তাদের বলবেন,“আমি তোমাদের জানি নাঃ হে অধর্মচারীরা তোমরা, আমার কাছ থেকে দূর হও” (ম্যাথুজ ৭:২৩)।

অন্যরা যারা খ্রীষ্টকে অস্বীকার করে তারা কোন মন্ডলীতে যোগদান করে। তারা মনে করে থাকে যে তারা ঠিকই আছে, কিন্তু পাপে জীবন যাপন করার দ্বারা খ্রীষ্টকে অস্বীকার করে। এই লোকেরা হলেন ধর্মবিরুপক। আমার সংবাদ “ইতালির ধর্মবিরুপক” অংশে এই বিষয়ে বর্ণণা করেছি (সংবাদে গিয়ে ক্লিক করে পড়ুন) । তীতাস ১:১৬ পদে তাদের বিষয়ে পলের দ্বারা বর্ণনা করা হয়েছে,

“তাহারা স্বীকার করে যে ঈশ্বরকে জানে; কিন্তু কার্যে তাঁহাকে অস্বীকার করে, তাহারা ঘৃণাস্পদ, ও অবাধ্য,এবং সমস্ত সৎক্রিয়ার পক্ষে অপ্রামাণীক” (টিটাস ১:৬).

এই ধর্মনিরুপকেরা হয়তো যথার্থ কোন মতবাদকে শিখেছে, কিন্তু যেভাবে তারা জীবন যাপন করে তার দ্বারা তারা ঈশ্বরকে অস্বীকার করে। রিফর্মেশান স্টাডি বাইবেল বলে, “নুতন নিয়ম শিক্ষা দেয় পরিবর্তনশীল জীবনে সামঞ্জস্যপূর্ণ তার যে অভাব খ্রীষ্ট যে ভাবে সন্দিহান তা একজনের বিশ্বাস কেই প্রদর্শন করে... খ্রীষ্টিয়ানদের পরিবর্তনশীল জীবনে প্রয়োজন হয়ে পড়ে নিরাময় শিক্ষা এবং কার্যশীলতা এই উভয়েই” (টিটাস ১:৬-র নোট প্রযোজ্য)। “কার্য্যের মধ্যেও তারা তাঁকে অস্বীকার করেছে।”

লাওসে আমাদের অনুবাদক “ইতালীর ধর্মনিরুপক,”নামক সংবাদে যখন তা পড়েন তখন তিনি আমাকে লিখলেন ও বললেন,

ইহা প্রকৃত ভাবে সত্য যখন অনেক লোকে দাবী জানান যে তারা পরিত্রাণ লাভ করেছে কিন্তু পক্ষান্তরে কোন কিছুই তাদের জীবনকে পরিবর্তন করে নি। লাওসে, আমাদের দেশে, আর এমন কি থাইল্যাণ্ডেও লোকেরা দাবী করে যে তারা খ্রীষ্টিয়ান কিন্তু তারা বাস্তবে যীশু নামকে ধ্বংস করে ফেলেছে। তারা মদ্য পান করতে, নৃত্য করতে, চুরি এবং প্রতিবেশীদের কাছে খারাপ সাক্ষ্য দিতে অভ্যস্ত।

তিনি বলেন এই সমস্ত কারণগুলো লাওসে অপরিত্রাণপ্রাপ্ত লোকেদের খ্রীষ্টিয়ান হওয়া থেকে বাধার সৃষ্টি করে, কিন্তু “সব থেকে জঘন্য বিষয়টা হল তারা বলে থাকেন তারা এমন কি [এই প্রকার] খ্রীষ্টিয়ানদের সঙ্গে বন্ধুত্বও করতে চায় না।”

সুতরাং আমরা ইতালী,লাওসে,এ্যান্টিনমিয়ানিজমের এই প্রকার ভয়াবহ ফল দেখতে পাই,“আর তা এমন কি থাইল্যান্ডেও।”এই ভাবে আমরা আমাদের মাথাকে লজ্জায় ঝুলিয়ে ফেলি কেননা আমরা জানি যে খ্রীষ্টিয়ানিটীর এই প্রকার ভ্রান্ত ধারণা তা বেশী করেই আমেরিকা থেকে আসে,আর তা এই শেষ সময়ে সারা বিশ্বে খ্রীষ্টের সাক্ষ্যকে বিষাক্ত করে তোলে। যীশু এই ভবিষ্যবানী করেন,

“আর অধর্মের বৃদ্ধি হওয়াতে [ গ্রীকঃ অসংগতিপূর্ণ-ধর্ম বিদ্বেষভাব; “ধর্মবিরুপকতার” সমস্ত মূল্য] ছড়াইবে, অধিকাংশ লোকের প্রেম শীতল [হইয়া] যাইবে” (ম্যাথুজ২৪:১২).

খ্রীষ্টের দ্বিতীয় আগমনে এটা হল তার একটা চিহ্ন! এমন কি প্রকৃত খ্রীষ্টিয়ানেরা পর্যন্ত নিরুৎসাহ হবে, তাদের খ্রিষ্টিয়ান প্রেম হারিয়ে ফেলবে,কেননা এই শেষে সময়ে সেখানে বহু ধর্ম বিরুপকেরা উপস্থিত হবে! কিন্তু এখানে কোন ভুল করে বসবেন না-এই ধর্মবিরুপকেরা বাস্তবে হারানো লোক যারা তাদের পাপপূর্ণ জীবনের দ্বারা তাঁকে “অস্বীকার” করে (টিটাস ১:১৬)।

একজন প্রকৃত খ্রীষ্টিয়ান কোন মতেই খ্রীষ্টকে অস্বীকার করবেন না। আর তাই যীশু যখন বলেন, তখন তার কথার অর্থ হল এই প্রকার যা ম্যাথুজ ২৪-র পরবর্তী পদে উল্লেখ হয়েছে,

“কিন্তু যে কেহ শেষ পর্যন্ত স্থির থাকিবে, সেই পরিত্রাণ পাইবে” (ম্যাথুজ ২৪:১৩).

ঘৃণা সহ্য করার পরেও; ও ভ্রান্ত ভবিষ্যবানীর পরেও; “অন্যায় ও অবিচারের” পরেও, স্বেচ্ছাচারীতা, এই সকলের মধ্যে ধর্মবিরুপক যারা খ্রীষ্টিয়ান বলে নিজেরা স্বীকার করে কিন্তু তা নয়, কিন্তু যারা প্রকৃত ভাবে রুপান্তরিত সেই ব্যাক্তিরই “শেষ পর্যন্ত কষ্ট সহ্য করবে” (ম্যাথুজ ২৪:৯-১৩)। এক পুরাতন সঙ্গীতে ইহাকে যেমন ভাবে উল্লেখ করা হয়েছে,

রাত্রি ছিল অন্ধকারময়, পাপের সংঘর্ষ ছিল আমাদের,
যে দুঃখ আমরা বহন করছিলাম তার ভার ছিল অত্যন্ত কঠিন;
কিন্তু এখন আমরা তাঁর আগমণের চিহ্ন দেখতে পাচ্ছি;
আমাদের হৃদয় অন্তরের মধ্যে দেদীপ্যমান আনন্দে, পানপাত্র যেন উপচে পড়ছে!
তিনি পুণরায় আসিতেছেন, তিনি পুণরায় আসিতেছেন,
সেই একই যীশু, যিনি মানুষের দ্বারা প্রত্যাখিত,
তিনি পুণরায় আসিতেছেন, পুণরায় আসিতেছেন,
পরাক্রম ও মহান প্রতাপে, তিনি পুণরায় আসছেন!
(“He is Coming Again” by Mabel Johnston Camp, 1871-1937).

“যদি সহ্য করি, তাঁহার সহিত রাজত্বও করিবঃ যদি তাঁহাকে অস্বীকার করি, তিনিও আমাদিগকে অস্বীকার করিবেন” (২-য় টিমোথি ২:১২).

আপনার পাপ থেকে আপনাকে উদ্ধার করার জন্য খ্রীষ্ট প্রস্তুত আছেন। আপনার মূল্য মেটাবার জন্য তিনি ক্রুশের উপরে মৃত্যু বরণ করেছেন। সমস্ত পাপ থেকে আপনাকে পরিষ্কার করার জন্য তিনি তাঁর রক্ত ঝরিয়েছেন আপনাকে পাপ থেকে উদ্ধার করার জন্য। অনুশোচনা কর, এবং যীশুতে বিশ্বাস কর। জীবন দেওয়ার জন্য তিনি শারিরীক ভাবে পুণরুত্থিত হয়েছেন। আপনার পাপ থেকে মন পরিবর্তন করার জন্য আমি আপনাকে প্রতিদ্বন্দ্বীতা জানাই! মন পরিবর্তন ও অনুতাপ করে, যীশুর প্রতি নির্ভর করুন। তিনি আপনাকে উদ্ধার করবেন! তিনি আপনাকে পরিত্রাণ দেবেন।এখনই তিনি আপনাকে উদ্ধার করবেন!

যীশু দ্বারা উদ্ধার লাভ করার জন্য আপনি যদি আমাদের সংগে কথা বলতে চান, তবে অনুগ্রহ করে একনই আপনার স্থান ত্যাগ করুন, এবং এই অডিটরিয়ামের পিছনের কক্ষে যান। ডাঃ কাগান আপনাকে একটি নীরব কক্ষে নিয়ে যাবেন প্রার্থনা ও পরামর্শের জন্য। তাই এখনই পিছনের কক্ষে চলে যান। ডাঃ চ্যান, অনুগ্রহ করে প্রার্থনা করুন যীন কোন একজন আজকের সকালে যীশুকে গ্রহণ করতে পারেন। আমেন!

সংবাদের পরিসমাপ্তি
ডাঃ হাইমার্সের সংবাদ আপনি প্রতি সপ্তাহে ইন্টারনেটের মাধ্যমে
www.realconversion.com এই সাইটে পড়তে পারেন। ক্লিক করুন “সংবাদের হস্তলিপি”

অথবা আপনি ডাঃ হাইমার্সকে মেইল পাঠাতে পারেন rlhymersjr@sbcglobal.net
অথবা আপনি তাকে পত্র লিখতে পারেনঃ পোস্ট বক্স ১৫৩০৮, লস এঞ্জেলেস, সিএ ৯০০০১৫,
এই ঠিকানায় অথবা আপনি তাকে টেলিফোন করতে পারেন (৮১৮)৩৫২-০৪৫২

এই সুসমাচারের ম্যানুস্ক্রিপ্ট এর ওপর ডাঃ হাইমসের কোন কপিরাইট নেই। আপনারা ইহা ব্যাবহার করতে পারেন ডাঃ হাইমসের অনুমতি ছাড়াই। অবশ্য, ভিডিও মেসেজ সবই কপিরাইটের সহিত আছে এবং কেবলমাত্র তার অনুমতি নিয়েই ব্যাবহার করা যাবে।

সংবাদের আগে শাস্ত্রের যে অংশ পাঠ করা হয়েছে, তা করেছেন মিঃ আবেল প্রধম্মে ২-য় টিমোথি ২:৩-১২
সংবাদের আগে একক সংগীত গেয়েছেন মিঃ বেঞ্জামিন কিন গেইড গ্রীফিথঃ
“The Son of God Goes Forth to War” (by Reginald Heber, 1783-1826).


খসড়া চিত্র

দুঃখভোগ ও আধিপত্য

SUFFERING AND REIGNING

লেখকঃ ডাঃআর.এল.হাইমার্স,জুনি.
by Dr. R. L. Hymers, Jr.

“যদি সহ্য করি, তাঁহার সহিত রাজত্বও করিবঃ যদি তাঁহাকে অস্বীকার করি, তিনিও আমাদিগকে অস্বীকার করিবেন” (২-য় টিমোথি ২:১২).

(২-য় টিমোথি ২:১১; রোমিয় ৮:১৭)

১. প্রথম, “আমরা যদি দুঃখভোগ করি, তবে তাঁর সঙ্গে প্রতাপান্বিতও হই,”
জেমস ২:১৭; প্রেরিত১৪:২২, ১৭:৬; লিউক ৯:২৩.

২. দ্বিতীয়, “যদি তাঁকে অস্বীকার করি, তিনিও আমাদিগকে অস্বীকার করিবেন,”
ম্যাথুজ১০:৩৩; লিউক ৮:১৩; মার্ক ৪:১৭; ম্যাথুজ ৭:২৩; টিটাস ১:১৬; ম্যাথুজ ২৪:১২,১৩.