Print Sermon

এই সমস্ত প্রচারের পান্ডুলিপি এবং ভিডিওগুলি এখন প্রতি মাসে 215টিরও বেশি দেশের প্রায় 116,000 কম্প্যুটারে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে পাঠানো হয়| আরও শত শত লোক ইউ টিউবের ভিডিওর মাধ্যমে এগুলি দেখেন, কিন্তু খুব শীঘ্রই তারা ইউটিউব ছেড়ে বেরিয়ে যান, কারণ প্রত্যেকটি ভিডিও প্রচার তাদেরকে আমাদের ওয়েবসাইটের দিকে পরিচালিত করে| ইউটিউব আমাদের ওয়েব সাইটে লোক এনে দেয়| প্রচারের এই পান্ডুলিপিগুলি প্রতি মাসে 34টি ভাষায় প্রচারিত হয় হাজার হাজার লোকের কাছে| প্রচারের এই সব পান্ডুলিপিগুলি গ্রন্থসত্ত্ব দ্বারা সংরক্ষিত নয়, কাজেই প্রচারকগণ আমাদের অনুমতি ছাড়াই এইগুলি ব্যবহার করতে পারেন| মুসলিম এবং হিন্দু রাষ্ট্রসমেত, সমগ্র পৃথিবীতে সুসমাচার ছড়িয়ে দেওয়ার এই মহান কাজে সাহায্য করার জন্য কিভাবে আপনি একটি মাসিক অনুদান প্রদান করতে পারেন তা জানতে অনুগ্রহ করে এখানে ক্লিক করুন|

যখন আপনি ডঃ হেইমার্সকে লিখবেন সর্বদা তাকে জানাবেন যে আপনি কোন দেশে বাস করেন, অথবা তিনি আপনাকে উত্তর দিতে পারবেন না| ডঃ হেইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net |




মুক্তি একমাত্র অসন্তুষ্টদের জন্য

DELIVERANCE IS ONLY FOR THE DISSATISFIED
(Bengali)

A sermon written by Dr. R. L. Hymers, Jr.
and preached by Mr. John Samuel Cagan
at the Baptist Tabernacle of Los Angeles
Lord’s Day Morning, May 14, 2017

ডঃ আর. এল. হেইমার্স, জুনিয়র এর লেখা এবং
2017 সালের, 14ই মে, প্রভুর দিনের সকালবেলায়
লস্ এঞ্জেল্সের ব্যাপটিষ্ট ট্যাবারন্যাক্ল মন্ডলীতে
মি: জন শ্যমূয়েল কেগানের দ্বারা প্রচারিত
একটি ধর্ম্মোপদেশ

‘‘সুস্থ লোকদের চিকিৎসকে প্রয়োজন নাই, কিন্তু পীড়িত লোকদেরই প্রয়োজন আছে| আমি ধার্ম্মিকদিগকে নয়, কিন্তু পাপীদিগকেই ডাকিতে আসিয়াছি, যেন তাহারা মন ফিরায়’’ (লূক 5:31-32)|


যীশু বাইরে গিয়েছিলেন এবং লেবী নামের একজন করগ্রাহীকে দেখেছিলেন| সেটা ছিল মথির আর একটা নাম| যীশু তাঁকে অনুসরণ করার জন্যে মথিকে ডেকেছিলেন,

‘‘তাহাতে তিনি সকলই পরিত্যাগ করিয়া উঠিয়া তাঁহার পশ্চাৎ গমন করিলেন’’ (লূক 5:28)|

মথি একজন করগ্রাহী ছিলেন, রোমের জন্যে একজন খাজনা আদায়কারী| যিহূদীরা করগ্রাহকদের ঘৃণা করতেন, কারণ ব্যবস্থার নিয়মের অতিরিক্ত কর আদায়ের জন্যে তারা রোমীয়দের দ্বারা অনুমোদিত ছিল| তখন তারা সংগৃহীত অর্থের একটা অংশ তাদের ফিরিয়ে দিতেন, আর তাদের নিজেদের জন্যে বাকি অর্থ রেখে দিতেন| সেইজন্যে, বেশির ভাগ করগ্রাহীরা খুব ধনী ছিলেন, এবং অন্যান্য যিহূদীরা তাদের ঘৃণা করতেন| যিহূদী লোকদের দ্বারা তারা জঘণ্য পাপী হিসাবে পরিগণিত হতেন|

যখন মথি যীশুকে অনুসরণ করেছিলেন, ‘‘তিনি সকলই পরিত্যাগ করিয়াছিলেন,’’ যার মানে তিনি কর সংগ্রহের অতি লোভনীয় ব্যাবসা পরিত্যাগ করেছিলেন, ‘‘এবং তাঁহাকে অনুসরণ করিয়াছিলেন|’’

তখন মথি তার নিজের বাড়িতে একটি ভোজের আয়োজন করেছিলেন| এই ভোজসভায় অন্যান্য করগ্রাহী, এবং সব ধরনের পাপীদের, একটা বিশাল সমাবেশ হয়েছিল| তারা সকলে সবচেয়ে খারাপ ধরনের লোক ছিল| সেই কবি, জিনো, বলেছিলেন, ‘‘সব করগ্রাহীরা হলেন তাদের মধ্যে দস্যু|’’ এই সব করগ্রাহী, বা তাদের বন্ধুদের নিয়ে ফরীশীদের কিছুই করার ছিল না, যাদের ফরীশীরা ‘‘পাপী’’ বলে অভিহিত করতেন|

সেই ভোজে যখন এই করগ্রাহী এবং পাপীদের বিশাল জনতা বাড়ি ভর্তি করে দিয়েছিলেন, তখন ফরীশীরা গজগজ এবং বচসা করতে করতে এসেছিলেন| তারা শিষ্যদের বলেছিলেন,

‘‘তোমরা কি কারণ করগ্রাহী ও পাপীদের সঙ্গে ভোজন পান করিতেছ?’’ (লূক 5:30)|

ফরীশীদের উত্তর দেওয়ার জন্যে যীশু ভোজসভা থেকে বাইরে বের হয়েছিলেন,

‘‘সুস্থ [যারা ভাল আছে] লোকদের চিকিৎসকে প্রয়োজন নাই, কিন্তু পীড়িত লোকদেরই প্রয়োজন আছে| আমি ধার্ম্মিকদিগকে নয়, কিন্তু পাপীদিগকেই ডাকিতে আসিয়াছি, যেন তাহারা মন ফিরায়’’ (লূক 5:31-32)|

এই ভোজসভায় পাপীদের আহ্বান করার জন্যে যীশু ফরীশীদের তাঁর নিজের কারণটি বলেছিলেন| তিনি বলেছিলেন যে যারা শারীরিকভাবে অসুস্থ তাদের চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার প্রয়োজন নেই| একমাত্র যাদের অসুখ আছে তাদেরই একজন চিকিৎসকের কাছে যাওয়ার প্রয়োজন হয়| তাদের নিজস্ব মতে, অধ্যাপক এবং ফরীশীরা পাপের অসুখ থেকে মুক্ত ছিলেন| যেহেতু অধ্যাপক এবং ফরীশীরা ব্যবস্থার রক্ষণাবেক্ষণ করতেন, তারা নিজেদের অসুস্থ, এবং একটি পাপের অবস্থার মধ্যে রয়েছেন বলে নিজেদের বিবেচনা করতেন না| তখনকার দিনে ফরীশীরা গোঁড়া ধরনের যিহূদী ছিলেন| তারাই অধ্যাপক ছিলেন যারা বাইবেল নকল করতেন এবং বাইবেল শিক্ষা দিতেন| তারা মনে করতেন না যে তাদের সেই মহান চিকিৎসক, যীশুর প্রয়োজন রয়েছে| তারা ভাবতেন যে

‘‘তাহারাই ধার্ম্মিক, এবং অন্য সকলকে হেয়জ্ঞান করিত’’ (লূক 18:9)|

এবং এই সমস্ত গর্বিত, আত্ম-সন্তুষ্ট ফরীশীদের প্রতি যীশুর উত্তর ছিল তীব্র তিরস্কারমূলক,

‘‘সুস্থ লোকদের চিকিৎসকে প্রয়োজন নাই, কিন্তু পীড়িত লোকদেরই প্রয়োজন আছে| আমি ধার্ম্মিকদিগকে নয়, কিন্তু পাপীদিগকেই ডাকিতে আসিয়াছি, যেন তাহারা মন ফিরায়’’ (লূক 5:31-32)|

যদি আপনি অনুভব করেন যে আপনি ভাল আছেন, তাহলে আপনি যীশুর প্রয়োজন অনুভব করবেন না| যদি আপনি অনুভব করেন যে পাপের একটি অবস্থাতে আপনি ধ্বংস হচ্ছেন এবং মারা যচ্ছেন, তখন যীশু আপনার কাছে গুরুত্বপূর্ণ হবেন, এবং আপনার আত্মার রোগের উপশমের জন্যে এবং নিজেকে পাপ এবং তার ফলাফল থেকে রক্ষা করার জন্যে আপনি তাঁর অনুসন্ধান করবেন| এটা বাধ্যতামূলক যে আপনি নিজের পাপের একটি অনুভূতি পাবেন, আপনার আশাহীনতার একটি অনুভূতি পাবেন, আপনার অক্ষমতার একটি অনুভূতি পাবেন - অথবা খ্রীষ্টের জন্যে আপনার নিজের চাহিদা আপনি অনুভব করতে পারবেন না|

‘‘সুস্থ লোকদের চিকিৎসকে প্রয়োজন নাই, কিন্তু পীড়িত লোকদেরই প্রয়োজন আছে’’ (লূক 5:31)|

I. প্রথমত, যারা নিজেদের জীবনযাত্রা নিয়ে সন্তুষ্ট তারা যীশুর কোন প্রয়োজন অনুভব করে না |

যখন আপনি সুসমাচার পাঠ করেন, লক্ষ করবেন, যে যীশু প্রায়ই পাপীদের সঙ্গে ভোজন করতেন| পাপীরা তাদের নিজেদের জীবন নিয়ে অসন্তুষ্ট থাকত| পাপীরা অনুভব করতেন যে তাদের জীবনের বিষয়ে কোন একটা কিছু ভয়ানকভাবে ভুল| এর থেকে কিছু একটা শেখা যেতে পারে| এই সমস্ত দিশাহারা লোকেরা যীশুর প্রতি আকর্ষিত হয়েছিলেন কারণ তিনি তাদের প্রতি বন্ধুভাবাপন্ন ছিলেন| আর তাদের মধ্যে অনেকেই উদ্ধার পেয়েছিলেন|

তারা তাদের জীবনযাত্রা নিয়ে এতটাই অসন্তুষ্ট ছিলেন যে তারা খ্রীষ্টের প্রতি ফিরে এসেছিলেন| যেমন আমরা লূকের পঞ্চম অধ্যায়ে দেখছি, সেই করগ্রাহী মথি করেছিলেন| যেমন আমরা লূকের উনবিংশ অধ্যায়ে দেখছি, সেই করগ্রাহী সক্কেয় করেছিলেন| এবং যীশু তার উদ্দেশ্যে বলেছিলেন,

‘‘সক্কেয়, শীঘ্র নামিয়া আইস, কেননা আজ তোমার গৃহে আমাকে থাকিতে হইবে| তাহাতে শীঘ্র নামিয়া আসিল, এবং আনন্দের সহিত তাঁহার আতিথ্য করিল| তাহা দেখিয়া সকলে বচসা করিয়া বলিতে লাগিল, ইনি একজন পাপীর ঘরে রাত্রিযাপন করিতে গেলেন| তখন সক্কেয় দাঁড়াইয়া প্রভুকে কহিল, প্রভু, দেখুন, আমার সম্পত্তির অর্দ্ধেক আমি দরিদ্রদিগকে দান করি; আর যদি অন্যায়পূর্ব্বক কাহারও কিছু হরণ করিয়া থাকি, তাহার চতুর্গুণ ফিরাইয়া দিই| তখন যীশু তাহাকে কহিলেন, আজ এই গৃহে পরিত্রাণ উপস্থিত হইল; যেহেতুক এই ব্যক্তিও অব্রাহামের সন্তান| কারণ যাহা হারাইয়া গিয়াছিল, তাহার অন্বেষণ ও পরিত্রাণ করিতে মনুষ্যপুত্র আসিয়াছেন’’ (লূক 19:5-10)|

গর্বিত অধ্যাপক এবং ফরীশীরা খ্রীষ্টের জন্য কোন প্রয়োজন অনুভ করতেন না; তারা তাদের নিজেদের জীবন নিয়ে সন্তুষ্ট ছিলেন| কিন্তু করগ্রাহী এবং পাপীরা তাঁর কাছে এসেছিলেন এবং উদ্ধার পেয়েছিলেন|

‘‘সুস্থ লোকদের চিকিৎসকে প্রয়োজন নাই, কিন্তু পীড়িত লোকদেরই প্রয়োজন আছে’’ (লূক 5:31)|

যারা তাদের জীবনের চলার পথ নিয়ে সন্তুষ্ট তারা যীশুর প্রয়োজন অনুভব করেন না| কিন্তু যারা নিজেদের চলার পথ নিয়ে অসুস্থ বোধ করেন তারা তাঁর কাছে আসবেন এবং উদ্ধার পাবেন|

আপনার কি ব্যাপার? আমি অভিজ্ঞতা থেকে জানি যে আপনাদের অনেকের জন্যেই এটা সত্যি| আপনার জীবন যে পথে চলছে তা নিয়ে যদি আপনি সন্তুষ্ট থাকেন, তাহলে আপনি যীশুর কোন প্রয়োজন দেখবেন না, আর উদ্ধার পাবেন না| যে পথে আপনার জীবন চলছে তা নিয়েই যদি আপনি সন্তুষ্ট থাকেন, তাহলে খ্রীষ্টের আগমনের এবং কোন কিছু পরিবর্তনের প্রয়োজন আপনি অনুভব করবেন না|

‘‘সুস্থ লোকদের চিকিৎসকে প্রয়োজন নাই, বরং পীড়িতদেরই প্রয়োজন আছে’’ (মথি 9:12)|

II. দ্বিতীয়ত, যারা নিজেদের ঈশ্বরবিহীনতায় সন্তুষ্ট তারা যীশুর প্রয়োজন অনুভব করেন না |

আমাদের শহরের দিকে দেখুন| এখানকার লোকদের সম্বন্ধে চিন্তা করুন| তাদের প্রত্যেকেই কি আন্তরিকভাবে ঈশ্বরের বিষয়ে চিন্তা করেন? আপনি জানেন তারা সেটা করেন না| বাইবেল বলে,

‘‘ঈশ্বরের অন্বেষণ করে, এমন কেহই নাই’’ (রোমীয় 3:11)|

পবিত্র আত্মার কাজের মাধ্যমে যদি ঈশ্বরের অনুগ্রহ আপনার কাছে না পৌঁছায়, আপনি কখনও যীশুর মধ্যে ঈশ্বরের অন্বেষণ করবেন না| ঈশ্বরবিহীন একটি অবস্থাতে, ঈশ্বর ছাড়া হয়ে বেঁচে থাকতে এবং মারা যেতে আপনি সন্তুষ্ট থাকবেন|

কিন্তু যদি ঈশ্বরের অনুগ্রহ আপনার হৃদয়ে কাজ করতে শুরু করে, তবে আপনি আপনার এই জীবনের জন্য অসন্তুষ্ট হবেন| আপনি সব কিছু পৃথকভাবে দেখতে শুরু করবেন| আপনি হয়তো অনেক লোকের ভীড়ের মধ্যে থাকবেন এবং ভাবতে শুরু করবেন, ‘‘কিসের জন্য এই সব লোকেরা বেঁচে আছে? কেন তারা ঈশ্বরের সম্বন্ধে উদ্বিগ্ন হচ্ছে না?’’ আপনার নিজের জীবন এবং আপনার আসন্ন মৃত্যুর বিষয়ে আপনি চিন্তা করতে শুরু করবেন| আপনার নিজের ধর্মকে আপনার খুব অগভীর, এবং মোটেই সহায়ক নয় বলে মনে হতে থাকবে| অন্যান্য লোকেরা যাই অজুহাত তৈরী করুক না কেন, সেই অজুহাতগুলি আপনার কাছে আর পর্যাপ্ত বলে মনে হবে না| আর আপনি অনুভব করতে শুরু করবেন যে জীবনে খালি খাওয়া, ঘুমানো, পড়াশোনা করা, এবং খেলাধূলা করা ছাড়া সেখানে অবশ্যই আরও অতিরিক্ত কিছু আছে|

যখন ঈশ্বরের অনুগ্রহ আপনার জীবনে কাজ করতে শুরু করে তখন আপনার নিজের ঈশ্বরবিহীনতার একটি অনুভূতি আপনার মধ্যে জন্ম নেবে| আপনি অনুভব করতে থাকবেন

‘‘ঈশ্বরের জীবনের বহির্ভূত হইয়াছে’’ (ইফিষীয় 4:18)|

আপনি ভাবতে শুরু করবেন যে ঈশ্বর আপনার একজন অপরিচিত ব্যক্তি, আর তাঁকে ছাড়া আপনি একটা ভয়ঙ্কর অবস্থার মধ্যে রয়েছেন,

‘‘তোমাদের আশা ছিল না, আর তোমরা জগতের মধ্যে ঈশ্বরবিহীন ছিলে’’ (ইফিষীয় 2:12)|

আর সেইজন্যে আমি আপনাকে জিজ্ঞাসা করছি, যে ধরনের জীবন আপনার রয়েছে তা নিয়ে কি আপনি সম্পূর্ণ সন্তুষ্ট রয়েছেন? যদি তাই হয়ে থাকেন, তবে সেখানে আশা খুব ক্ষীণ যে আপনি খ্রীষ্টের কাছে আসবেন| আপনি যেমন আছেন সেইভাবেই চলতে থাকবেন - একটি নিজস্ব পথে ঈশ্বরকে না জেনে সন্তুষ্ট থাকবেন বাঁচা এবং মরা নিয়ে|

‘‘সুস্থ লোকদের চিকিৎসকে প্রয়োজন নাই, কিন্তু পীড়িত লোকদেরই প্রয়োজন আছে’’ (লূক 5:31)|

যদি আপনি ঈশ্বরবিহীন জীবনে সন্তুষ্ট থাকেন তাহলে আপনি যীশুর কোন প্রয়োজন বোধ করবেন না|

সেখানে একটা প্রবণতা আছে, বিশেষ করে যুবকদের মধ্যে, এইরকম ভাবার যে ধর্মের প্রতি মাত্রাতিরিক্ত আগ্রহী হওয়াটা হল দুর্বলতার একটা লক্ষণ| যারা প্রকৃত খ্রীষ্ট বিশ্বাসী নন তাদের ঝোঁক রয়েছে চিন্তা করার যে সেই সব লোক যারা ঈশ্বরের প্রতি অতি আগ্রহী হন তারা একটু অদ্ভুত, একটু অন্যরকম, আর পুরোপুরি স্বাভাবিক হন না|

এটা সাধারণত বলা হয় না| সাধারণত লোকেরা বলেন না, ‘‘ঐ লোকটি একটু অদ্ভুত| তিনি চলে যান এবং নিজে নিজেই প্রার্থনা করেন|’’ নিয়ম অনুযায়ী তারা সেটা বলেন না| কিন্তু তারা চিন্তা করেন| এবং আপনার খ্রীষ্ট-বিশ্বাসহীন বন্ধুরা এইসব চিন্তা করেন| তারা এই ধরনের কথা বলবেন, ‘‘অতি ধার্মিক হয়ো না| অন্ধবিশ্বাসী হয়ো না’’ - এই ধরনের বিষয় বলবেন| এটা অতি সর্বজনীন হয় তার কারণ যে মানবজাতি একটা পাপীয় অবস্থার মধ্যে আছে|

‘‘কেননা মাংসের ভাব ঈশ্বরের প্রতি শত্রুতা’’ (রোমীয় 8:7)|

তাদের অপরিত্রাত অবস্থায়, সমগ্র মানবজাতি হল

‘‘স্বভাবত: ক্রোধের সন্তান’’ (ইফিষীয় 2:3)|

সেই কারণে অপরিত্রাত বন্ধু এবং আত্মীয়স্বজনেরা যা পারেন তার সবই করবেন যাতে ঈশ্বর অন্বেষণের বিষয়ে আপনাকে আন্তরিক না হতে প্ররোচিত করা যায়| তারা হয়তো চেষ্টা করবে আপনাকে অন্য মন্ডলীতে নিয়ে যেতে, বা ‘‘তাদের মন্ডলীতে’’ - আপনাকে এই মন্ডলীতে ফিরে আসা থেকে বিরত করতে যে কোন কিছু করবে! কেন? তারা জানেন যে ‘‘তাদের’’ মন্ডলী হল শীতল, এবং ঈশ্বর সেখানে বিরাজ করেন না| তাদের আসল উদ্দেশ্য হল আপনাকে ঈশ্বর থেকে দূরে রাখতে চেষ্টা করা,

‘‘কেননা মাংসের ভাব ঈশ্বরের প্রতি শত্রুতা’’ (রোমীয় 8:7)|

তার এই নবজন্মহীন অবস্থাতে, মানবজাতি ঈশ্বরের প্রতি বিদ্রোহী হয়েছে| যখন ঈশ্বর আপনাকে আহ্বান করতে শুরু করেন, তখন আপনার দিশাহারা বন্ধু এবং আত্মীয়স্বজনেরা আপনাকে পিছনে টানার চেষ্টা করে এবং আপনাকে ঈশ্বর থেকে দূরে রাখেন| মাতাপিতা এবং দিশাহারা বন্ধুরা আপনার প্রতি হয়তো সেই একই জিনিষ করবেন|

কিন্তু যীশু বলেছেন,

‘‘সত্য, সত্য, আমি তোমাদিগকে বলিতেছি, এমন সময় আসিতেছে, বরং এখন উপস্থিত, যখন মৃতেরা ঈশ্বরের পুত্ত্রের রব শুনিবে, এবং যাহারা শুনিবে, তাহারা জীবিত হইবে’’ (যোহন 5:25)|

এমনকি যদিও ইফিষীয় 2:1, 5 পদ অনুযায়ী আপনি আত্মিকভাবে মৃত, তবুও ঈশ্বরের পুত্র আপনাকে আহ্বান করতে শুরু করেন| আপনার মৃত অবস্থায়, আপনি ‘‘শুনছেন ঈশ্বর পুত্রের স্বর|’’ যখন তা ঘটবে তখন আপনি আর সেই ঈশ্বর পুত্র, যীশু ব্যাতীত জীবন নিয়ে বেঁচে থাকতে সন্তুষ্ট হবেন না| আপনি আরও অতিরিক্ত কিছু চাইবেন| আপনি তখন যীশুর অন্বেষণ করবেন| কিন্তু যতদিন আপনি একটা অজাগ্রত এবং মৃত অবস্থাতে আছেন, আপনি খ্রীষ্ট ছাড়াই বাঁচা ও মরার জীবন নিয়ে সন্তুষ্ট হয়ে থাকবেন| একমাত্র যখন পবিত্র আত্মা আপনাকে দেখাবে যে সেখানে আপনার মধ্যে কিছু কিছু ভুল রয়েছে - কারণ আপনার হৃদয় ঈশ্বরবিহীন হয়ে রয়েছে - একমাত্র যখন আপনি নিজের মধ্যে এই ত্রুটি দেখতে পাবেন তখন আপনি যীশু খ্রীষ্টের প্রতি আগ্রহান্বিত হবেন|

‘‘সুস্থ লোকদের চিকিৎসকে প্রয়োজন নাই, কিন্তু পীড়িত লোকদেরই প্রয়োজন আছে’’ (লূক 5:31)|

III. তৃতীয়ত, যারা তাদের নিজেদের হৃদয়ের মন্দ নিয়ে সন্তুষ্ট থাকে তারা যীশুর প্রয়োজন অনুভব করে না |

সাধারণত প্রথমে ঈশ্বর আমাদের আবেগের প্রতি কথা বলেন| যখন পবিত্র আত্মা তাঁর বিশ্বাস উৎপাদনকারী কাজ করতে শুরু করেন, তিনি আমাদের পাপপূর্ণ অনুভব করান|

লক্ষ করুন কত ঘন ঘন বাইবেল আমাদের বলছে যে লোকেরা যখন মন পরিবর্তন করে তারা আবেগপূর্ণভাবে চালিত হয়| সেই মহিলা যিনি যীশুর পদচুম্বন করেছিলেন তিনিও আবেগের বশে চালিত হয়েছিলেন,

‘‘আর দেখ, সেই নগরে এক পাপিষ্ঠা স্ত্রীলোক ছিল; সে যখন জানিতে পাইল, তিনি সেই ফরীশীর বাটীতে ভোজনে বসিয়াছেন, তখন একটি শ্বেত প্রস্তরের পাত্রে সুগন্ধি তৈল লইয়া আসিল, এবং পশ্চাৎ দিকে তাঁহার চরণের নিকটে দাঁড়াইয়া রোদন করিতে করিতে চক্ষের জলে তাঁহার চরণ ভিজাইতে লাগিল, এবং আপনার মাথার চুল দিয়া তাহা মুছাইয়া দিল, আর তাঁহার চরণ চুম্বন করিতে করিতে সেই সুগন্ধি তৈল মাখাইতে লাগিল’’ (লূক 7:37-38)|

তিনি দ্রুত খ্রীষ্টের কাছে গিয়েছিলেন এবং উদ্ধার লাভ করেছিলেন|

পঞ্চসপ্তমীর দিনে, যারা পিতরের ধর্ম্মোপদেশ শুনেছিলেন

‘‘হৃদয়ে যেন শেল-বিদ্ধ হইল’’ (প্রেরিত 2:37)|

আক্ষরিকভাবে এর মানে হল যে তাদের ‘‘হৃদয়ে যেন বর্শা বিদ্ধ হয়েছিল|’’ এটা আবেগের কথা| ফিলিপীয় শহরের সেই কারাধ্যক্ষ

‘‘ত্রাসে কাঁপিতে কাঁপিতে আসিয়াছিল’’ (প্রেরিত 16:29)|

প্রেরিত পৌল বলেছিলেন,

‘‘দুর্ভাগ্য মনুষ্য আমি! এই মৃত্যুর দেহ হইতে কে আমাকে নিস্তার করিবে?’’ (রোমীয় 7:24)|

বাইবেলের এই সব ঘটনা দেখায় যে ঈশ্বর সাধারণত কোন ব্যক্তির অনুভূতিকে চালিত করেন যাতে তিনি নিজের মন্দ হৃদয় নিয়ে অসন্তুষ্ট হন| সব প্রকৃত মন পরিবর্তনে সাধারণ নির্ধারক, সেই জিনিষ যা সব প্রকৃত মনপরিবর্তনে একই থাকে, তা হল এই - লোকেরা অভ্যন্তরীনভাবে নিজেদের নিয়ে অতৃপ্ত হন| তারা নিজেদের হৃদয়ের দিকে দেখেন আর তারা সেখানে পাপ দেখতে পান| যা তারা নিজেদের মধ্যে দেখতে পান সেগুলিকে অপছন্দ করতে শুরু করেন| তারা নিজেদের হৃদয়ের অনুমোদন দেন না! কি তাদের পরিচয় তাই নিয়ে তারা অখুশি থাকেন|

যেখানে অধ্যাপক ও ফরীশীরা তাঁর থেকে পৃথক ছিলেন - সেখানে করগ্রাহী ও পাপীদের এত সহজে যীশুর কাছে আসার পিছনে একটা মানবীয় কারণ ছিল|

‘‘সুস্থ লোকদের চিকিৎসকে প্রয়োজন নাই, কিন্তু পীড়িত লোকদেরই প্রয়োজন আছে’’ (লূক 5:31)|

আজ সকালে আপনার প্রতি প্রশ্ন হল এই: আপনি কি অতৃপ্ত? আপনার জীবনের পথে আপনি কি অখুশি? ঈশ্বর ছাড়া বসবাস করতে করতে আপনি কি অসুস্থ? আপনি কি নিজের হৃদয় নিয়ে অসন্তুষ্ট? আপনার পাপের জন্য আপনি কি দোষী সাব্যস্ত হয়েছেন? যদি সেখানে আপনার মধ্যে এই বিষয়গুলির সম্বন্ধে কিছু মাত্রাতেও অসন্তোষ এবং পাপের চেতনা থাকে, তবে আপনি সেই মহান চিকিৎসক, যীশুর কাছে আসার জন্য প্রস্তুত হতে পারেন| মোটের উপর, খ্রীষ্টই হলেন একমাত্র একজন যিনি আপনাকে পাপ থেকে থেকে উদ্ধার করতে পারেন| তিনি হলেন একমাত্র একজন যিনি আপনার পাপের দেনা শোধ করতে মৃত্যুবরণ করেছিলেন| তিনিই হলেন একমাত্র একজন যিনি আপনাকে জীবন দিতে মৃত্যু থেকে পুনরুত্থিত হয়েছিলেন| তিনিই হলেন একমাত্র একজন, যিনি উপরে স্বর্গে, ঈশ্বরের ডানদিকে বসে আপনার জন্যে প্রার্থনা করে চলেছেন| আপনি কি তাঁর কাছে আসার জন্যে প্রস্তুত হয়েছেন? আপনি কি তাঁর রক্তের দ্বারা ধৌত হয়ে শুচি হওয়ার জন্যে প্রস্তত হয়েছেন?

‘‘সুস্থ লোকদের চিকিৎসকে প্রয়োজন নাই, কিন্তু পীড়িত লোকদেরই প্রয়োজন আছে’’ (লূক 5:31)|

আপনি যদি খ্রীষ্টে পরিত্রাণ পাওয়ার বিষয়ে আমাদের সঙ্গে কথা বলতে চান, তাহলে যেখানে বাকি লোকেরা পার্টির জন্যে উপরতলাতে চলে যাচ্ছেন তখন আপনারা অনুগ্রহ করে আমাদের কাছে আসুন এবং প্রথম দুটি সারিতে বসুন| ড: হেইমার্স, অনুগ্রহ করে আসুন এবং এই সেবা সমাপ্ত করুন|


যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তাহলে ডঃ হাইমার্স আপনার কাছ থেকে কিছু শুনতে চান| যখন আপনি ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখবেন তখন অবশ্যই তাকে জানাবেন যে কোন দেশ থেকে আপনি তাকে লিখছেন নয়ত তিনি আপনার ই-মেলের জবাব দিতে সক্ষম হবেন না| যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তবে ডঃ হাইমার্সকে একট ই-মেল পাঠান এবং তাকে সেইকথা জানান, কিন্তু কোন দেশ থেকে আপনি লিখছেন চিঠিতে সেটা অবশ্যই অন্তর্ভূক্ত করবেন| ডঃ হাইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net (এখানে ক্লিক করুন) | আপনি যে কোন ভাষায় ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখতে পারেন, কিন্তু যদি পারেন তো ইংরাজিতেই লিখুন| যদি আপনি ডঃ হাইমার্সকে ডাক-ব্যবস্থার মাধ্যমে চিঠি পাঠাতে চান, তবে তার ঠিকানা হল P.O. Box 15308, Los Angeles, CA 90015 | আপনি তাকে (818)352-0452 নম্বরে ফোন করতে পারেন|

(সংবাদের পরিসমাপ্তি)
ডঃ হাইমার্সের সংবাদ আপনি প্রতি সপ্তাহে ইন্টারনেটে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে গিয়ে পড়তে পারেন| ক্লিক করুন “প্রচার পান্ডুলিপি|”

আপনি ডাঃ হাইমার্সকে মেইল পাঠাতে পারেন rlhymersjr@sbcglobal.net - আপনি
তাকে পত্র লিখতে পারেন P.O. Box 15308, Los Angeles, C A 90015.এই ঠিকানায়
। আপনি তাকে টেলিফোন করতে পারেন (818) 352-0452.

এই সুসমাচারের ম্যানুস্ক্রিপ্ট এর ওপর ডাঃ হাইমসের কোন কপিরাইট নেই। আপনারা
ইহা ব্যাবহার করতে পারেন ডাঃ হাইমসের অনুমতি ছাড়াই। অবশ্য, ভিডিও মেসেজ
সবই কপিরাইটের সহিত আছে এবং কেবলমাত্র তার অনুমতি নিয়েই ব্যাবহার করা যাবে।

সংবাদের আগে শাস্ত্রাংশ পাঠ করেছেন মি: নোহ সং: লূক 5:27-35 |
সংবাদের আগে একক সংগীত পরিবেশন করেছেন মিঃ বেঞ্জামিন কিনকেড গ্রিফিত:
“I Am Amazed” (by A. H. Ackley, 1887-1960) |


খসড়া চিত্র

মুক্তি একমাত্র অসন্তুষ্টদের জন্য

DELIVERANCE IS ONLY FOR THE DISSATISFIED

ডঃ আর. এল. হেইমার্স, জুনিয়র এর দ্বারা লিখিত এবং
মি: জন শ্যমূয়েল কেগানের দ্বারা প্রচারিত একটি ধর্ম্মোপদেশ

‘‘সুস্থ লোকদের চিকিৎসকে প্রয়োজন নাই, কিন্তু পীড়িত লোকদেরই প্রয়োজন আছে| আমি ধার্ম্মিকদিগকে নয়, কিন্তু পাপীদিগকেই ডাকিতে আসিয়াছি, যেন তাহারা মন ফিরায়’’ (লূক 5:31-32)|

(লূক 5:28, 30; 18:9)

I.      প্রথমত, যারা নিজেদের জীবনযাত্রা নিয়ে সন্তুষ্ট তারা যীশুর কোন
প্রয়োজন অনুভব করে না, লূক 19:5-10; মথি 9:12 |

II.    দ্বিতীয়ত, যারা নিজেদের ঈশ্বরবিহীনতায় সন্তুষ্ট তারা যীশুর প্রয়োজন
অনুভব করেন না, রোমীয় 3:11; ইফিষীয় 4:18; 2:12;
রোমীয় 8:7; ইফিষীয় 2:3; যোহন 5:25 |

III.  তৃতীয়ত, যারা তাদের নিজেদের হৃদয়ের মন্দ নিয়ে সন্তুষ্ট থাকে তারা
যীশুর প্রয়োজন অনুভব করে না, লূক 7:37-38;
প্রেরিত 2:37; 16:29; রোমীয় 7:24 |