Print Sermon

এই সমস্ত প্রচারের পান্ডুলিপি এবং ভিডিওগুলি এখন প্রতি মাসে 215টিরও বেশি দেশের প্রায় 116,000 কম্প্যুটারে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে পাঠানো হয়| আরও শত শত লোক ইউ টিউবের ভিডিওর মাধ্যমে এগুলি দেখেন, কিন্তু খুব শীঘ্রই তারা ইউটিউব ছেড়ে বেরিয়ে যান, কারণ প্রত্যেকটি ভিডিও প্রচার তাদেরকে আমাদের ওয়েবসাইটের দিকে পরিচালিত করে| ইউটিউব আমাদের ওয়েব সাইটে লোক এনে দেয়| প্রচারের এই পান্ডুলিপিগুলি প্রতি মাসে 34টি ভাষায় প্রচারিত হয় হাজার হাজার লোকের কাছে| প্রচারের এই সব পান্ডুলিপিগুলি গ্রন্থসত্ত্ব দ্বারা সংরক্ষিত নয়, কাজেই প্রচারকগণ আমাদের অনুমতি ছাড়াই এইগুলি ব্যবহার করতে পারেন| মুসলিম এবং হিন্দু রাষ্ট্রসমেত, সমগ্র পৃথিবীতে সুসমাচার ছড়িয়ে দেওয়ার এই মহান কাজে সাহায্য করার জন্য কিভাবে আপনি একটি মাসিক অনুদান প্রদান করতে পারেন তা জানতে অনুগ্রহ করে এখানে ক্লিক করুন|

যখন আপনি ডঃ হেইমার্সকে লিখবেন সর্বদা তাকে জানাবেন যে আপনি কোন দেশে বাস করেন, অথবা তিনি আপনাকে উত্তর দিতে পারবেন না| ডঃ হেইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net |




যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং

JESUS CHRIST HIMSELF
(Bengali)

লেখক : ডঃ আর. এল. হাইমার্স, জুনিয়র।
by Dr. R. L. Hymers, Jr.

২০১৫ সালের, ১২ই এপ্রিল, প্রভুর দিনের সকালবেলায় লস্ এঞ্জেল্সের
ব্যাপটিষ্ট ট্যাবারন্যাকল মন্ডলীতে এই ধর্ম্মোপদেশটি প্রচার করেন
A sermon preached at the Baptist Tabernacle of Los Angeles
Lord’s Day Morning, April 12, 2015


আমার এবং আমার স্ত্রী এলিনার কাছে আজকের এই দিনটি একটা মহান দিন| আমাদের দুইজনের জন্মদিন আজ উদ্যাপন করা হয়েছে| ১২ই এপ্রিল, এই বিশেষ দিনটি, হল আমার চুয়াত্তরতম জন্মদিন| আজকের দিনটি আবার হচ্ছে ১৯৫৮ সালে সেবাকাজে আমার আহ্বানের সাতান্নতম বর্ষপূর্তি অনুষ্ঠান| কিন্তু, সবচেয়ে বড় কথা হচ্ছে, আমাদের মন্ডলীর জন্যে আজকের দিনটি হল এক মহান দিন| ওয়েষ্ট লস্ এঞ্জেল্সের বিখ্যাত বিশ্ববিদ্যালয়, UCLA এর থেকে কয়েকটি ব্লক দূরে, ওয়েষ্টউড এবং উইলশায়ার বুলেভার্দের এক কোনে অবস্থিত আমার বাসায়, আজ থেকে ঠিক চল্লিশ বছর আগে মাত্র ছয় বা সাতজন যুবককে সাথে নিয়ে আমি প্রথম এই মন্ডলীর কাজ শুরু করেছিলাম| কেবল দুইজন মাত্র লোক এখানে এখনও পর্যন্ত আছেন, আমি এবং মিঃ জন্ কুক| ঈশ্বরের অনুগ্রহে, জন্ এবং আমি আজ সকালে এখানে উপস্থিত আছি – চল্লিশ বছর পরেও| যীশু খ্রীষ্ট প্রশংসিত হোক!

চল্লিশ বছর ধরে এই মন্ডলী অনেক দুঃখ কষ্টের মধ্যে দিয়ে চলে আসছে| যেমন ইস্রায়েলের সন্তানেরা চল্লিশ বছর প্রান্তরে অতিবাহিত করেছিলেন, তেমনি এই মন্ডলী চল্লিশ বছর ধরে অনেক কষ্ট, অনেক সমস্যা, এবং অনেক প্রতিকূল অবস্থার মধ্যে দিয়ে অতিবাহিত করেছে| আজ রাত্রে আমি এই বিষয়ে আরও অনেক কথা বলব| কিন্তু আমরা এখন লস্ এঞ্জেল্স শহরের কেন্দ্রস্থলের পৌরকেন্দ্রে অবস্থিত, বিখ্যাত এক সুসমাচার প্রচারমূলক মন্ডলীতে উপস্থিত আছি| আর আমরা জানি যে, আমাদের সমস্তরকম তাড়নার মধ্যেও, ঈশ্বর আমাদের সঙ্গে আছেন এবং আমাদের মন্ডলীর চল্লিশ বছরের বাৎসরিক তিথি উদ্যাপনের জন্য, আজ তিনি আমাদের এক মহা বিজয় দিয়েছেন! যীশু খ্রীষ্ট প্রশংসিত হোক!

গতকাল রাত্রে আমাদের মন্ডলীর প্রার্থনা সভায় পালক রোজার হফম্যান বক্তৃতা দিয়েছিলেন| আজ রাত্রে আমাদের বাৎসরিক উদ্যাপন অনুষ্ঠানে তিনি আবার প্রচার করবেন| কিন্তু আজ সকালে আমি যখন তাকে প্রচার করার অনুরোধ জানিয়েছিলাম তিনি তা করতে অস্বীকার করেছিলেন| তিনি বলেছিলেন, “ডঃ হাইমার্স, রবিবারের সকালে আমি আপনার প্রচার শুনতে চাই|” এরপর, আমার কি বলা উচিৎ সেই বিষয়ে প্রার্থনা করার সময়ে, আমি পরিচালিত হয়েছিলাম ২০১০ সালের অগাষ্ট মাসে অন্য এক ব্যাপটিষ্ট মন্ডলীতে আমার করা একটি প্রচারকে, পুনঃপ্রচার করতে| অনুগ্রহ করে আমার সঙ্গে একসাথে ইফিষীয় বইয়ের, দ্বিতীয় অধ্যায়টি খুলুন| এটা স্কোফিল্ড স্টাডি বাইবেলের ১২৫১ পাতায় আছে| ইফিষীয় ২:১৯, ২০ পদগুলি আমি পড়ার সময় আপনি উঠে দাঁড়ান|

“অতএব তোমরা আর অসম্পর্কীয় ও প্রবাসী নহ, কিন্তু পবিত্রগণের সহপ্রজা, এবং ঈশ্বরের বাটির লোক; তোমাদিগকে প্রেরিত ও ভাববাদিগণের ভিত্তিমূলের উপরে গাঁথিয়া তোলা হইয়াছে, তাহার প্রধান কোনস্থ প্রস্তর স্বয়ং খ্রীষ্ট যীশু” (ইফিষীয় ২:১৯, ২০)|

আপনারা এবার বসতে পারেন|

এখানে এই পদগুলিতে প্রেরিত পৌল আমাদের বলছেন যে মন্ডলী হল ঈশ্বরের পরিবার| এরপর তিনি আমাদের বলেছেন যে প্রেরিত এবং ভাববাদিগণের উপরে ভিত্তি করে মন্ডলী গেঁথে তোলা হয়েছে, কিন্তু যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং হচ্ছেন “প্রধান কোনস্থ প্রস্তর|” ডঃ জে. ভারন্ন ম্যাকগী বলেছেন যে এর অর্থ হল “খ্রীষ্ট হলেন সেই প্রস্তর যাহার উপর মন্ডলী তৈয়ারী হইয়াছে” (Thru the Bible, Volume V, Thomas Nelson, p. 241; note on Ephesians 2:20)| ডঃ এ. টি. রবার্টসন বলেছেন, “akrogōniais…প্রাথমিক ভিত্তি প্রস্তর” (Word Pictures, Broadman, 1931; note on Ephesians 2:20)| স্বয়ং যীশু খ্রীষ্ট আমাদের সকল কাজের, এবং আমাদের সমস্ত জীবনের ভিত্তি প্রস্তর| “যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং” আমাদের মন্ডলীর প্রধান প্রস্তর| আজ সকালে আমাদের পাঠ্যাংশ হিসাবে ইফিষীয় ২:২০ পদের শেষাংশ থেকে আমি সেই শব্দগুলি তুলে ধরছি|

“যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং” (ইফিষীয় ২:২০)|

এই ধর্ম্মোপদেশের মূল বিষয়বস্তু হলেন যীশু খ্রীষ্ট| স্বয়ং যীশু খ্রীষ্টের মত আশ্চর্যজনক বিষয় ছাড়া খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের বিশ্বাস আর অন্য কিছুই ধারন করে না| যীশু খ্রীষ্টের মতন সেখানে কেউ ছিল না এবং আর কেউ সেইরকম হবেনও না| মানব সভ্যতার ইতিহাসে তিনি হচ্ছেন পরম এবং বিশুদ্ধভাবে অনুপম| যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং ঈশ্বর-মানব| যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং স্বর্গ থেকে নেমে এসেছিলেন এবং মানুষের মধ্যে বসবাস করেছিলেন| যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং আমাদের সমস্ত পাপের জন্য দুঃখভোগ করেছিলেন, নিজের রক্ত বইয়েছিলেন এবং মৃত্যু বরণ করেছিলেন| যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং আমাদের ধার্ম্মিকতার জন্য স্বশরীরে মৃত্যু থেকে পুনরুত্থিত হয়েছিলেন| যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং প্রার্থনায় আমাদের মধ্যস্থতা করার জন্য স্বর্গে ঈশ্বরের দক্ষিনপাশে ফিরে গিয়েছিলেন| এবং যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং পৃথিবীতে এক হাজার বছরের জন্য তাঁর নিজের রাজত্ব স্থাপন করবার প্রয়াসে আবার ফিরে আসবেন| এই হচ্ছেন যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং! উঠে দাঁড়ান এবং এই সমবেত সঙ্গীতটি করুন!

একমাত্র যীশু, আমাকে দেখেন,
   একমাত্র যীশু, তিনি ছাড়া কেউ উদ্ধার করেন না,
তখন আমার গান হবে চিরতরে –
   যীশু! একমাত্র যীশু!
(“Jesus Only, Let Me See” by Dr. Oswald J. Smith, 1889-1986)|

আপনারা এবার বসতে পারেন|

যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং, এই বিষয়টি এতটাই গভীর, এতটাই বিশাল এবং এতটাই গুরুত্বপূর্ণ যে আমরা একটা সুসমাচার প্রচারে এটাকে সম্পূর্ণভাবে কখনও ব্যাখ্যা করতে পারি না| আজ সকালে যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং এই বিষয়ে আমরা কেবলমাত্র কয়েকটি ধাপের উল্লেখ করতে পারি|

১| প্রথম, যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং মনুষ্যদের দ্বারা অবজ্ঞাপ্রাপ্ত এবং প্রত্যাখ্যাত হয়েছিলেন |

সুসমাচার প্রচারমূলক ভাববাদী যিশাইয় পরিষ্কার করে ব্যাখ্যা করে দিয়েছেন যখন তিনি বলেছিলেন,

“তিনি অবজ্ঞাত ও মনুষ্যদের ত্যাজ্য; ব্যাথার পাত্র, ও যাতনা পরিচিত হইলেন: লোকে যাহা হইতে মুখ আচ্ছাদন করে; তাহার ন্যায় তিনি অবজ্ঞাত হইলেন, আর আমরা তাঁহাকে মান্য করি নাই” (যিশাইয় ৫৩:৩)|

ডঃ টোরী বলেছিলেন, “যীশু খ্রীষ্টের উপর বিশ্বাসের [বিশ্বাস রাখার] ব্যর্থতা কোন দূর্ভাগ্যের বিষয় নয়, এটা হল এক ধরনের পাপ, একটি দুঃখদায়ক পাপ, একটি আতঙ্কজনক পাপ, একটি নরকযোগ্য পাপ” (R. A. Torrey, D.D., How to Work for Christ, Fleming H. Revell Company, n.d., p. 431)| ভাববাদী যিশাইয় খ্রীষ্টকে অবজ্ঞা এবং প্রত্যাখ্যান করার পাপকে বর্ণনা করেছিলেন এইভাবে যে, এটা হল এক ধরনের অভ্যন্তরীণ নৈতিক বিচ্যুতি যার কারণে ব্যর্থ লোকেরা খ্রীষ্ট থেকে তাদের মুখ লুকায়| মানুষের সম্পূর্ণ নৈতিক বিচ্যুতির সবচাইতে বড় প্রমাণ হল এই যে তারা যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং সম্বন্ধে খুব কমই চিন্তা করেন| ব্যর্থ মানব জাতি যে অগ্নিহ্রদে অনন্ত শাস্তির যোগ্য তার সবচাইতে বড় প্রমাণ যে তারা ইচ্ছাকৃতভাবে এবং অভ্যাসবশতঃ তাদের মুখ তাঁর থেকে লুকিয়ে রাখে|

অপরিত্রাণপ্রাপ্ত অবস্থায় মানুষেরা যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ংকে অবজ্ঞা করে| তাদের সম্পূর্ণ নৈতিক বিচ্যুতির অবস্থায়, তারা যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ংকে শ্রদ্ধা করে না| যতক্ষণ না আপনার বিবেক বিদ্ধ হচ্ছে, যতক্ষণ না আপনি আপনার পাপের জন্য অনুশোচনা করছেন, যতক্ষণ না আপনি অনুভব করছেন যে আপনার হৃদয় ঈশ্বরের প্রতি মৃত, ততক্ষণ পর্যন্ত আপনি ক্রমাগতভাবে যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ংকে অবজ্ঞা এবং প্রত্যাখ্যান করে চলবেন|

আমাদের মন্ডলীতে আমরা দেখছি যে সুসমাচার প্রচারের পরে, এই জিনিষটি ঘটছে অনুসন্ধান কক্ষে| আমরা শুনছি যে লোকেরা বিভিন্ন বিষয়ের আলোচনা করছে| বাইবেলের পদের বিষয়ে আলোচনা করছে| তারা এই বিষয়ে বা ঐ বিষয়ে “উপলব্ধি”র কথা বলছে| তারা যা অনুভব করেছিল এবং তারা যা করেছিল সেই বিষয়ে আমাদের কাছে তারা বলে| সাধারনত তারা এই কথা বলে শেষ করে যে, “তারপর আমি যীশুর কাছে এসেছিলাম|” ব্যস শুধু এইটুকুই! তারা যীশুর বিষয়ে এর বেশি আর একটি শব্দও উচ্চারন করতে পারে না! যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং সম্বন্ধে তাদের কিছুই বলার থাকে না! তাহলে কিভাবে তারা পরিত্রাণ পেতে পারে?

মহান স্পারজিয়ন বলেছিলেন, “সেখানে মনুষ্যদের মধ্যে সুসমাচার হইতে যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ংকে বাদ দিবার একটি শোচনীয় রকমের মন্দ প্রবণতা রহিয়াছে” (C. H. Spurgeon, Around the Wicket Gate, Pilgrim Publications, 1992 reprint, p. 24)|

পরিত্রাণের পরিকল্পনা সম্বন্ধে জানা আপনাকে উদ্ধার করতে পারে না! বাইবেলের বিষয়ে আরও বেশি করে শিক্ষা নেওয়া আপনাকে উদ্ধার করতে পারে না! আরও বেশি করে প্রচার শোনা আপনাকে উদ্ধার করতে পারে না! আপনার করা পাপের জন্য দুঃখ অনুভব করা আপনাকে উদ্ধার করতে পারে না! এগুলি যিহূদাকে উদ্ধার করেনি, করেছিল কী? আপনার জীবন উৎসর্গ করা আপনাকে উদ্ধার করতে পারে না! আপনার চোখের জল আপনাকে উদ্ধার করতে পারে না! কোন কিছুই আপনাকে সাহায্য করতে পারে না যদি না আপনি যীশু খ্রীষ্টকে অবজ্ঞা এবং প্রত্যাখ্যান করা থেকে বিরত থাকার জন্য পরিচালিত হন – যদি না আপনি তাঁর থেকে নিজের মুখ লুকিয়ে না রাখার জন্য চালিত হন – যদি না আপনি যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ংয়ের প্রতি আকর্ষিত হন! আবার করুন এই গানটি!

একমাত্র যীশু, আমাকে দেখেন,
   একমাত্র যীশু, তিনি ছাড়া কেউ উদ্ধার করেন না,
তখন আমার গান হবে চিরতরে –
   যীশু! একমাত্র যীশু!

আপনারা এবার বসতে পারেন|

২| দ্বিতীয়, যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং হলেন সমগ্র বাইবেলের মূল বিষয়বস্তু |

আমাদের পক্ষে কী অযৌক্তিক হবে আপনাকে এই কথা বলা যে যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং অবশ্যই আপনার চিন্তার কেন্দ্রবিন্দু হওয়া উচিৎ? না, এটা অযৌক্তিক নয়| কেন, এই বিষয়ে চিন্তা করুন, যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং হলেন সমগ্র বাইবেলের মহান বিষয়বস্তু – আদি পুস্তক থেকে প্রকাশিত বাক্য অবধি! মৃত্যু থেকে পুনরুত্থিত হওয়ার পর খ্রীষ্ট ইম্মায়ূর দিকে যাওয়ার সময়ে দুইজন শিষ্যের সাথে তাঁর সাক্ষাৎ হয়েছিল| তাদেরকে তিনি তখন যা বলেছিলেন সেই কথাগুলি আজকের দিনেও সমানভাবে প্রয়োগযোগ্য|

“তখন তিনি তাঁহাদিগকে কহিলেন, হে অবোধেরা, এবং ভাববাদিগণ যে সমস্ত কথা বলিয়াছেন সেই সকলে বিশ্বাস করণে শিথিল চিত্তেরা: খ্রীষ্টের কি আবশ্যক ছিল না যে এই সমস্ত দুঃখভোগ করেন, ও আপন প্রতাপে প্রবেশ করেন? পরে তিনি মোশি হইতে ও সমুদয় ভাববাদি হইতে আরম্ভ করিয়া, সমুদয় শাস্ত্রে তাঁহার নিজের বিষয়ে যে সকল কথা আছে তাহা তাঁহাদিগকে বুঝাইয়া দিলেন” (লূক ২৪:২৫-২৭)|

মোশির পাঁচটি বই থেকে, এবং বাইবেলের বাকি সমস্ত অংশ থেকে, খ্রীষ্ট তাদের কাছে ব্যাখ্যা করেছিলেন “সমুদয় শাস্ত্রে তাঁহার নিজের বিষয়ে|” এর চাইতে সরল ব্যাখ্যা আর কী হতে পারে? সমস্ত বাইবেলের মূল বিষয়বস্তু হল যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং! যেহেতু যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং হলেন বাইবেলের মূল বিষয়বস্তু, সেহেতু এটা কী সঙ্গত বা যুক্তিপূর্ণ নয় যে আপনি যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ংকে আপনার চিন্তার এবং আপনার জীবনের মূল বিষয় করবেন? আমি আপনাকে বলছি, আজকের সকালে যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং এর বিষয়ে গভীরভাবে চিন্তা করুন! এই গানটি করুন!

একমাত্র যীশু, আমাকে দেখেন,
   একমাত্র যীশু, তিনি ছাড়া কেউ উদ্ধার করেন না,
তখন আমার গান হবে চিরতরে –
   যীশু! একমাত্র যীশু!

আমি বিশ্বাস করি যে যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ংকে জানাটাই হল সবার চাইতে গুরুত্বপূর্ণ বিষয়, প্রকৃত মন পরিবর্তনের ক্ষেত্রে, যা যে কোন সময়ে আপনার প্রতি ঘটতে পারে| আপনি যদি সত্যিই যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ংকে বিশ্বাস করেন তবে আপনার খুব অল্প পরামর্শের প্রয়োজন হবে| আমি বিশ্বাস করি যে যীশু খ্রীষ্টের বিষয়ে প্রকৃত জ্ঞান সমস্ত খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের পরামর্শ দানের প্রয়োজনীয়তার ৯০ শতাংশ অপসারন করে| যখন কোন ব্যক্তি খ্রীষ্টকে জেনেছেন, প্রকৃত মন পরিবর্তনে, তিনি সেই খ্রীষ্টকে খুঁজে পাবেন,

“…যিনি হইয়াছেন [তাহার] জন্য ঈশ্বর হইতে জ্ঞান, ধার্ম্মিকতা, ও পবিত্রতা, এবং মুক্তি” (১ করিন্থীয় ১:৩০)|

যদি আমরা আমাদের মন্ডলীর “সিদ্ধান্তমূলক মতবাদ” থেকে মুক্ত হতে পেরেছি, যদি আমরা নিশ্চিত করতে পেরেছি যে লোকেরা প্রকৃতভাবে খ্রীষ্টের প্রতি মন পরিবর্তন করেছেন, তাহলে আজ মন্ডলীতে সমস্ত খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের পরামর্শ দানের প্রয়োজনীয়তার ৯০ শতাংশ অপসারিত হয়ে যাবে! যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ংকে পরামার্শদাতা হতে দিন! এই গানটি করুন!

একমাত্র যীশু, আমাকে দেখেন,
   একমাত্র যীশু, তিনি ছাড়া কেউ উদ্ধার করেন না,
তখন আমার গান হবে চিরতরে –
   যীশু! একমাত্র যীশু!

৩| তৃতীয়, যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং হলেন অপরিহার্য্য বৈশিষ্ট্য, কেন্দ্রীয় উপাদান, এবং সুসমাচারের যথাযথ মূল বিষয় |

ভাববাদী যিশাইয় যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ংকে সুসমাচারের মূল বিষয় বলে বর্ণনা করেছেন,

“আমরা সকলে মেষগণের ন্যায় ভ্রান্ত হইয়াছি; প্রত্যেকে আপন আপন পথের দিকে ফিরিয়াছি; আর সদাপ্রভু আমাদের সকলকার অপরাধ তাঁহার উপরে বর্ত্তাইয়াছেন” (যিশাইয় ৫৩:৬)|

“সদাপ্রভু আমাদের সকলকার অপরাধ তাঁহার উপরে বর্ত্তাইয়াছেন|” আপনার পরিবর্তে, আপনার প্রতিনিধি হিসাবে, খ্রীষ্টের প্রায়শ্চিত্তকর বলিদান, আপনার পরিবর্তে মূল্য প্রদান এবং ঈশ্বরের ক্রোধের জন্য দুঃখভোগ করা – এই হল সুসমাচারের মূল মর্ম! ইনি হলেন যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং যিনি গেৎশিমানী উদ্যানের অন্ধকারে আপনার সমস্ত পাপ নিজের উপরে গ্রহণ করেছিলেন| সেই উদ্যানে ইনিই হলেন যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং, যিনি বলেছিলেন,

“আমার প্রাণ মরণ পর্যন্ত দুঃখার্ত্ত হইয়াছে” (মার্ক ১৪:৩৪)|

ইনিই হচ্ছেন যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং যিনি,

“মর্ম্মভেদী দুঃখে মগ্ন হইয়া…ঘর্ম্ম…যেন রক্তের ঘনীভূত বড় বড় ফোঁটা হইয়া ভূমিতে পড়িতে লাগিল” (লূক ২২:৪৪)|

ইনি হলেন যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং যাঁকে গেৎশিমানী উদ্যানে গ্রেফতার করা হয়েছিল| ইনি হলেন যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং যাঁকে হিঁচড়ে টেনে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল সেই মহাযাজকের সামনে, যাঁর মুখে ঘুঁসি মারা হয়েছিল, যাঁকে বিদ্রূপ করা হয়েছিল এবং অপমান করা হয়েছিল| তারা যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং এর মুখে থুথু দিয়েছিল! তারা যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং এর দাড়ির চুল টেনে উপড়ে নিয়েছিল| ইনিই ছিলেন যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং যাঁকে পন্তীয় পিলাতের সামনে নিয়ে যাওয়া হয়েছিল, যাঁর পিঠে রোমীয় চাবুকের দ্বারা আড়াআড়িভাবে মারা হয়েছিল, মাথায় কাঁটার মুকুট পরানো হয়েছিল, কপাল থেকে রক্ত ঝরে পড়ছিল যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং এর সেই আশীর্ব্বাদধন্য মুখমন্ডলের উপর, তাঁকে চেনা যাচ্ছিল না এমনভাবে তাঁর মুখে মারা হয়েছিল,

“তাঁহার মুখ…মনুষ্য অপেক্ষা তাঁহার আকৃতি, মানব সন্তানগণ অপেক্ষা তাঁহার রূপ বিকারপ্রাপ্ত” (যিশাইয় ৫২:১৪)|

“এবং তাঁহার ক্ষত সকল দ্বারা আমাদের আরোগ্য হইল” (যিশাইয় ৫৩:৫)|

ইনিই হলেন যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং যাঁকে নিয়ে আসা হয়েছিল পিলাতের আদালত চত্বর থেকে, তাঁর নিজের ক্রুশ বহন করে বধ্যভূমির দিকে| ইনি হলেন সেই যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং যাঁকে পেরেকবিদ্ধ করা হয়েছিল সেই অভিশপ্ত কাঠের উপরে| ইনি ছিলেন যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং যিনি শুধুমাত্র তাঁর হাত ও পায়ের মধ্যে বিদ্ধ হওয়া পেরেকের যন্ত্রণা সহ্য করেছিলেন তাই নয় – কিন্তু তিনি আরও অনেক বেশি যন্ত্রণা সহ্য করেছিলেন যখন ঈশ্বর “আমাদের সকলকার অপরাধ তাঁহার উপরে বর্ত্তাইলেন” (যিশাইয় ৫৩:৬)| যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং “পাপভার তুলিয়া লইয়া আপনি নিজদেহে কাষ্ঠের উপর বহন করিলেন” (১ পিতর ২:২৪)| ডঃ ওয়াটস্ বলেছেন,

ঐ দেখ, তাঁহার শির, ও হাত, তাঁহার পায়ে কর দৃষ্টিপাত,
   তাহা হইতে প্রেম ও দুঃখচয় মিশ্রিত হইয়া পতিত হয়:
এই প্রেম ও দুঃখের বিমিশ্রন হয়েছে,
   এইরূপ অমূল্য কন্টকময় কিরীট কি কভু সজ্জিত হয়?
(“When I Survey the Wondrous Cross” by Isaac Watts, D.D., 1674-1748)|

উঠে দাঁড়ান এবং গানটি করুন! এখন আমাদের সমবেত সঙ্গীতটি করুন!

একমাত্র যীশু, আমাকে দেখেন,
   একমাত্র যীশু, তিনি ছাড়া কেউ উদ্ধার করেন না,
তখন আমার গান হবে চিরতরে –
   যীশু! একমাত্র যীশু!

আপনারা বসতে পারেন|

৪| চতুর্থ, যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং হলেন অনন্ত আনন্দের একমাত্র উৎস |

তারা যীশুর মৃতদেহ ক্রুশ থেকে নীচে নামিয়ে নিয়েছিল এবং সেটাকে প্রোথিত করেছিল একটি মুদ্রাঙ্কিত কবরে| কিন্তু তৃতীয় দিনে, তিনি মৃত্যু থেকে সশরীরে পুনরুত্থিত হয়েছিলেন| তারপর তিনি শিষ্যদের কাছে গিয়েছিলেন এবং বলেছিলেন, “তোমাদের শান্তি হউক” (যোহন ২০:১৯)|

“ইহা বলিয়া, তিনি তাঁহাদিগকে আপনার দুই হস্ত ও কুক্ষিদেশ দেখাইলেন| অতএব প্রভুকে দেখিতে পাইয়া শিষ্যেরা আনন্দিত হইলেন” (যোহন ২০:২০)|

“অতএব প্রভুকে দেখিতে পাইয়া শিষ্যেরা আনন্দিত হইলেন” (যোহন ২০:২০)| “যখন তাঁহারা প্রভুকে দেখিতে পাইয়াছিলেন” যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং তাদের আনন্দ দিয়েছিলেন| যতক্ষণ না আপনি যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ংকে জানছেন, ততক্ষণ কখনও আপনি প্রভুর গভীর শান্তি, এবং আনন্দকে জানতে পারবেন না!

ওহ, এই সকালে আমি আপনাদের বলছি – আমি স্মরণ করতে পারি সেই বিশেষ মুহূর্তটি যখন আমি যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ংকে বিশ্বাস করেছিলাম! কী পবিত্র এক অভিজ্ঞতা! আমি তাঁর দিকে তীব্রবেগে ছুটে গিয়েছিলাম! অথবা, পারতপক্ষে, এটা মনে হয়েছিল যে তিনিই আমার দিকে তীব্রবেগে ছুটে এসেছিলেন| তাঁর বহুমূল্য রক্ত দ্বারা আমি আমার সমস্ত পাপ থেকে ধৌত ও শুচি হয়েছিলাম! ঈশ্বরের পুত্রের দ্বারা আমাকে জীবন দান করা হয়েছিল! সেই সমবেত সঙ্গীতটি করুন!

একমাত্র যীশু, আমাকে দেখেন,
   একমাত্র যীশু, তিনি ছাড়া কেউ উদ্ধার করেন না,
তখন আমার গান হবে চিরতরে –
   যীশু! একমাত্র যীশু!

আপনারা বসতে পারেন|

যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং এর কাছে আসুন! পরিত্রাতাকে আপনার জীবনের বাইরে রাখবেন না| আপনার সাক্ষ্যের বাইরে তাঁকে রাখবেন না| স্পারজিয়ন যা বলেছিলেন “সুসমাচার হইতে যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ংকে বাদ দিবার…শোচনীয় রকমের মন্দ প্রবণতা” সেই ধরনের শপথ গ্রহণ করবেন না| না! না! এখন যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং এর কাছে আসুন| আমি এই গানটি গাওয়ার সময় মন দিয়ে গানের কথাগুলি শুনুন|

পাপিষ্ঠ আমি, নাই আশা,
   ঐ রক্তে আমার ভরসা,
মোর দীনহীন প্রাণে দাও আশা,
   হে যীশু, লও আমায়! লও আমায়!
(“Just As I Am” by Charlotte Elliott, 1789-1871)|

আপনার পাপের দেনা শোধ করার জন্য যীশু ক্রুশের উপরে মৃত্যুবরণ করেছেন| আপনাকে সমস্ত পাপ থেকে শুচি করার জন্য যীশু তাঁর নিজের রক্ত ঝরিয়েছেন| যীশুর কাছে আসুন| তাঁকে বিশ্বাস করুন আর তিনি আপনাকে সমস্ত পাপ থেকে উদ্ধার করবেন| আমেন|

(সংবাদের পরিসমাপ্তি)
ডাঃ হাইমার্সের সংবাদ আপনি প্রতি সপ্তাহে ইন্টারনেটের মাধ্যমে
www.realconversion.com এই সাইটে পড়তে পারেন। ক্লিক করুন “সংবাদের হস্তলিপি”

আপনি ডাঃ হাইমার্সকে মেইল পাঠাতে পারেন rlhymersjr@sbcglobal.net - আপনি
তাকে পত্র লিখতে পারেন P.O. Box 15308, Los Angeles, C A 90015.এই ঠিকানায়
। আপনি তাকে টেলিফোন করতে পারেন (818) 352-0452.

এই সুসমাচারের ম্যানুস্ক্রিপ্ট এর ওপর ডাঃ হাইমসের কোন কপিরাইট নেই। আপনারা
ইহা ব্যাবহার করতে পারেন ডাঃ হাইমসের অনুমতি ছাড়াই। অবশ্য, ভিডিও মেসেজ
সবই কপিরাইটের সহিত আছে এবং কেবলমাত্র তার অনুমতি নিয়েই ব্যাবহার করা যাবে।

সংবাদের আগে শাস্ত্রাংশ পাঠ করেছেন মিঃ আবেল প্রধুম্মে: যিশাইয় ৫৩:১-৬ |
সংবাদের আগে একক সংগীত পরিবেশন করেছেন মিঃ বেঞ্জামিন কিনকেড গ্রিফিত:
“When Morning Gilds the Skies” (translated from the German by Edward Caswall, 1814-1878) |


খসড়া চিত্র

যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং

JESUS CHRIST HIMSELF

লেখক : ডঃ আর এল হাইমার্স, জুনিয়র।

“স্বয়ং যীশু খ্রীষ্ট” (ইফিষীয় ২:২০)|

১| প্রথম, যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং মনুষ্যদের দ্বারা অবজ্ঞাপ্রাপ্ত এবং প্রত্যাখ্যাত হয়েছিলেন,
যিশাইয় ৫৩:৩ |

২| দ্বিতীয়, যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং হলেন সমগ্র বাইবেলের মূল বিষয়বস্তু,
লূক ২৪:২৫-২৭; ১ করিন্থীয় ১:৩০ |

৩| তৃতীয়, যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং হলেন অপরিহার্য্য বৈশিষ্ট্য, কেন্দ্রীয় উপাদান, এবং সুসমাচারের যথাযথ মূল বিষয়, যিশাইয় ৫৩:৬; মার্ক ১৪:৩৪; লূক ২২:৪৪; যিশাইয় ৫২:১৪; ৫৩:৫; ১ পিতর ২:২৪ |

৪| চতুর্থ, যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং হলেন অনন্ত আনন্দের একমাত্র উৎস, যোহন ২০:১৯,২০ |