Print Sermon

এই ওয়েবসাইটের উদ্দেশ্য হল ধর্ম্মোপদেশের পান্ডুলিপি এবং ধর্ম্মোপদেশের ভিডিওগুলি বিশ্বব্যাপী পালক ও মিশনারিদের বিনামূল্যে সরবরাহ করা, বিশেষ করে তৃতীয় বিশ্বে, যেখানে ধর্ম্মতত্ত্বমূলক সেমিনারী বা বাইবেল স্কুল থাকলেও খুব কম রয়েছে|

এই সমস্ত প্রচারের পান্ডুলিপি এবং ভিডিওগুলি এখন www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটের মাধ্যমে প্রতি মাসে 221টিরও বেশি দেশের প্রায় 1,500,000 কম্প্যুটারে যায়| শত শত লোক ইউটিউবের ভিডিওর মাধ্যমে এগুলি দেখেন, কিন্তু কিছুক্ষণ পরেই তারা ইউটিউব ছেড়ে বেরিয়ে যান এবং আমাদের ওয়েবসাইটে চলে আসেন| ইউটিউব আমাদের ওয়েবসাইটে লোক এনে দেয়| প্রচারের এই পান্ডুলিপিগুলি প্রতি মাসে 38টি ভাষায় প্রায় 120,000 কম্প্যুটারে প্রচারিত হয়| প্রচারের পান্ডুলিপিগুলি গ্রন্থসত্ত্ব দ্বারা সংরক্ষিত নয়, কাজেই প্রচারকগণ আমাদের অনুমতি ছাড়াই এইগুলি ব্যবহার করতে পারেন| মুসলিম এবং হিন্দু রাষ্ট্রসমেত, সমগ্র পৃথিবীতে সুসমাচার ছড়িয়ে দেওয়ার এই মহান কাজে সাহায্য করার জন্য কিভাবে আপনি একটি মাসিক অনুদান প্রদান করতে পারেন তা জানতে অনুগ্রহ করে এখানে ক্লিক করুন|

যখনই আপনি ডঃ হেইমার্‍সকে লিখবেন সর্বদা তাকে জানাবেন যে আপনি কোন দেশে বাস করেন, অথবা তিনি আপনাকে উত্তর দিতে পারবেন না| ডঃ হেইমার্‌সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net |




যখন আপনি ক্রুশের দিকে তাকান তখন আপনি কি দর্শন করেন?

WHAT DO YOU SEE WHEN YOU LOOK AT THE CROSS?
(Bengali)

লেখক : ডঃ আর এল হাইমার্স, জে আর।
By Dr. R. L. Hymers, Jr.

২০১৪ সালের, ১৩ই এপ্রিল, লস এঞ্জেলসের ব্যাপটিষ্ট ট্যাবারন্যাকলে সদাপ্রভুর দিনে এক সকালে এক সংবাদ প্রচারিত হয়েছিল
A sermon preached at the Baptist Tabernacle of Los Angeles
Lord’s Day Morning, April 13, 2014

“এবং সেখানে বসিয়া তাঁহাকে চৌকি দিতে লাগিল” (মথি ২৭:৩৬)|


যখন আমি কিশোর ছিলাম যদিও আমি পরিত্রাণ পাই নি তবুও যখনি আমি শুনতাম ক্রুশবিদ্ধ যীশুর কথা তখনই আমার শ্বাসরুদ্ধ হয়ে আসত এবং চোখে অশ্রু এসে যেত| আমি সম্পূর্ণ ভাবে অনুভব করতাম খ্রীষ্টের হাতে ও পায়ে পেরেক বিদ্ধ হয়েছে| আমি মিঃ গ্রিফিত এর সম্প্রতি গাওয়া গানটি শুনলে সর্বদা ক্রন্দন করি| আমি বাধ্য হই মাথাকে ঘুরিয়ে নিতে কারন তা আমাকে হতবুদ্ধি করে| আমি অনুভব করি খ্রীষ্টের যন্ত্রনা| তাঁর দুঃখভোগের জন্য আমি হৃদয়ে কষ্ট পাই| এটা কোন ভণিতা ছিল না| এই বিষয়ে কোন কৃত্রিমতা ছিল না| যখন আমি ক্রুশের উপরে যীশুর দুঃখভোগের কথা চিন্তা করি তখন আমি আমার উদরের গভীরে এক অসহ্য যন্ত্রনা অনুভব করি|

আজকের রবিবারের উপাসনায় আমি কখনও কোন যুবকের মধ্যে এই ধরনের অনুভূতি লক্ষ্য করি নি| আর আমি বিস্মিত হই কেন কখনো এটা হয় না| কেন লোকেদের কাছে খ্রীষ্টের দুঃখভোগকে হৃদয় দিয়ে অনুভব করা এত কষ্টসাধ্য? এম্প্যাথি শব্দের অর্থ হলো অন্যের প্রাপ্ত যন্ত্রনাকে নিজের হৃদয় দিয়ে অনুভব করা| মনে হয় বর্তমানে বেশির ভাগ লোক অপরের দুঃখভোগের প্রতি সমবেদনা, দুঃখ ও অনুকম্পা প্রদর্শনে অটল| কয়েক বছর আগে যখন একটি যুবকদল একটা কুকুরছানার পেটে লাথি মারা দেখে হাসছিল আমার মনে আছে যে তা দেখে আমি মনে আঘাত পেয়েছিলাম| তারা এত জোরে জোরে হাসছিল যে অনেক দূর পর্যন্ত তা শোনা যাচ্ছিল যা আমাকে হতচকিত করে| অপ্রয়োজনীয় হলেও বলি, তারা সকলেই আমাদের মন্ডলী ছেড়ে চলে গেছে| লোকেদের কাছে সত্যই এটা আশ্চর্য্য বলে গ্রহণীয় হতো যখন যাদের কঠিন হৃদয় তারা খ্রীষ্ট বিশ্বাসীতে পরিনত হতো!

আমি বিশ্বাস করি যে এই কঠিন হৃদয়ের কারন হতে পারে যুবকেরা রোজ যা দেখছে দূরদর্শনে, ছায়াছবিতে, এবং আমাদের সাংষ্কৃতিক গন্ডীর মধ্যে| মিসিগান বিশ্ববিদ্যালয় ১৯৯৯ সালে একটি পুস্তিকা প্রকাশ করে যেখানে উল্লেখ রয়েছে যে যুবকেরা ১৮ বছর হওয়ার আগেই ১৬,০০০ এর বেশি খুন দূরদর্শনে দেখে – প্রতি বছরে প্রায় ৯০০ খুন দূরদর্শনে দেখে| এবং এটা শুধুমাত্র দূরদর্শনে! এর মধ্যে সেই খুন বা মৃত্যু গোনা হয়নি যা তারা ছায়াছবিতে, ভিডিও গেমে, এবং বিভিন্ন ধরনের সংবাদমাধ্যমে দেখে! এই সমস্ত আতঙ্ক বা মৃত্যুর উর্দ্ধে, যুবকেরা খুবই সচেতন যখন এই দেশে একজন গর্ভপাতকারী প্রত্যেক দিন ৩,০০০ শিশুকে মারে! হ্যাঁ, ৩,০০০ প্রত্যেক দিন – দশ লক্ষ এবং এক চতুর্থাংশ প্রত্যেক বছর! এই ধরনের ব্যাপক হত্যার ঘটনা, যুবকদের মনে প্রবেশ করে যা কিছুমাত্র হলেও প্রভাবিত করে তাদের মানসিক আবেগকে| আমি দৃঢ়প্রত্যয় যে এই সমস্ত ঘটনা বর্তমান প্রজন্মকে কঠোর এবং আবেগকে অসংবেদনশীল করে দিয়েছে যারা দুঃখভোগ করছে তাদের বিষয়ে চিন্তা করতে|

আজ সকালে আমি বলতে চাই যে আপনি চেষ্টা করুন এবং অনুভব করুন খ্রীষ্ট যে ক্রুশে যাতনা ভোগ করেছেন সে বিষয়ে| যখন আপনি ক্রুশে খ্রীষ্টকে দেখেন তখন আপনি কি দেখেন? যে দিনে খ্রীষ্ট দুঃখভোগ করেন, সেখানে অনেকেই ক্রুশের কাছে ছিল| আমাদের মূল পাঠ বলছে যে সমস্ত সৈন্যরা তাঁকে ক্রুশে পেরেক বিদ্ধ করেছিল তারা বসেছিল এবং “তাঁহাকে চৌকি দিতেছিল” (মথি ২৭:৩৬)| আরও অনেকেই সেখানে ছিল তারাও তাকে লক্ষ্য করছিলো| এই সমস্ত লোকেদের মধ্যে আপনি কার মতন? এই বিষয়ে চিন্তা করুন| যখন আপনি ক্রুশে খ্রীষ্টের প্রতি দেখেন তখন আপনি কি দেখেন?

১. প্রথম, যাজক এবং প্রাচীনবর্গ দেখেছিল একজন শত্রুকে ক্রুশে মারা হয়েছে ।

“আর সেরূপ প্রধান যাজকেরা, অধ্যাপকগন ও প্রাচীনবর্গের সহিত বিদ্রূপ করিয়া, কহিল, ঐ ব্যক্তি অন্য অন্য লোককে রক্ষা করিত; আপনাকে রক্ষা করিতে পারে না| ও তো ইস্রায়েলের রাজা, এখন সে ক্রুশ হইতে নামিয়া আসুক, এবং তাহা হইলে আমরা উহার উপরে বিশ্বাস করিব| ও ঈশ্বরে ভরসা রাখে; এখন তিনি নিস্তার করুন, যদি উহাকে চান: কেননা ও বলিয়াছে, আমি ঈশ্বরের পুত্র” (মথি ২৭:৪১-৪৩)|

যখন তিনি ক্রুশে দুঃখভোগ করছিলেন তখন তারা তাঁকে বিদ্রূপ ও উপহাস করেছিল| তারা তাঁকে একজন শত্রু হিসাবে দেখেছিল, এবং তারা তাঁর থেকে বেরিয়ে আসতে পেরে আনন্দিত ছিল| আজও সেই ধরনের লোকদের দেখা যায়| এইচ বি ও প্রকৃত হলো বিল মাহের ন্যায় এক ব্যক্তিকে দেওয়া হয়েছে ঈশ্বরকে উপহাস এবং খ্রীষ্টকে নিয়ে বিদ্রূপ করা| রিচার্ড ডাউকিনস এবং ক্রিষ্টোফার হিচেনস এর মতো মানুষেরা খ্রীষ্ট এবং বাইবেল ও ঈশ্বরকে আক্রমনের দ্বারা সুন্দর জীবনযাপন করছে! তারা নাস্তিকদের প্রাচীন বলে পরিচিত| ম্যাগডলীন ম্যুরে ও’হেয়ার, সেই নাস্তিক যিনি আমাদের বিদ্যালয়ে প্রার্থনা ও বাইবেল পাঠ বন্ধ করে দিয়েছেন, এই বলে,

“যদি প্রত্যেকে একজন নাস্তিক হয় তবে ইহাই হইবে সম্ভাব্য গ্রহণযোগ্য পৃথিবী|”

“আমি একজন নাস্তিক কারন ধর্ম হইল একটি অন্ধের যষ্ঠি এবং একজন অন্ধের যষ্ঠির প্রয়োজন হয়|”

“আমি যে কোন স্থানে এবং যে কোন সময়ে ঐক্যমত্ত্যের ভিত্তিতে যৌন সম্পর্কে লিপ্ত হইলে আমি ঘৃণার্হ বলিয়া ঘোষিত হইব|”

নাস্তিকতাবাদের মহাযাজকদের চিন্তাধারা কি এইরকমই! আপনাদের অনেক কলেজের, ধর্মনিরপেক্ষ বিদ্যালয়ের, অধ্যাপকগন এইরকমটাই চিন্তা করেন| ঈশ্বর তাদের অগ্রাহ্য করেন, যেমন তিনি করেছেন তাদের যারা ক্রুশের তলে প্রকৃতই ঈশ্বরবিহীন লোক ছিলেন| তিনি সাধারনভাবে বলেছেন, “মূঢ় মনে মনে বলিয়াছে, ঈশ্বর নাই” (গীত ১৪:১)| আপনি কি তাদের মতন? আপনি কি দেখেন যখন আপনি ক্রুশের দিকে তাকান?

২. দ্বিতীয়, রোমান সৈন্যরা গুলিবাঁট করার জন্য ক্রুশের নীচে একটি বস্ত্র দেখেছিল ।

“পরে তাহারা তাঁহাকে ক্রুশে দিয়া, তাঁহার বস্ত্রসকল গুলিবাঁটপূর্বক, অংশ করিয়া লইল: এবং সেখানে বসিয়া তাঁহাকে চৌকি দিতে লাগিল” (মথি ২৭:৩৫-৩৬)|

এই সমস্ত ব্যক্তিরা এতটাই জড়বাদী যে তারা চিন্তা করতে পারে খ্রীষ্টের বস্ত্রের বিষয়| ইহার মূল্য ছিল কিছু অর্থ, এবং তাদের মন এতই দৃঢ় ছিল যে তারা চিন্তা করছিল খ্রীষ্টের বস্ত্রের থেকে যা কিছু অর্থ পাওয়া যায় সেই বিষয়ে! কোথায় আপনার মনের কেন্দ্রবিন্দু? আপনি কি দেখেন যখন আপনি ক্রুশের দিকে তাকান?

অনেক কলেজ ছাত্র আছে যারা খ্রীষ্ট বিশ্বাসী হতে ভয় পায় যে ইহা হয়তো বিদ্যালয়ের শিক্ষার বাধাস্বরূপ হবে, এবং স্নাতক হওয়ার পর তারা ভাল চাকুরী পাবে না| অর্থ! অর্থ! অর্থ! ইহাই চীনের অনেক যুবকেরা মনে করে| তারা বলে, “যদি আমি খ্রীষ্ট বিশ্বাসী হতাম তবে আমার কাছে তার মূল্য কি হতো”|

অনেকদিন আগে, আমি যখন একটি চীনা মন্ডলীর সদস্য ছিলাম, আমি একটি জীবন পরিবর্তনকারী সিদ্ধান্ত নিই| আমি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম যে যেকোন মূল্যেই আমি খ্রীষ্টকে অনুসরন করবো! যীশু একটি মহান প্রশ্ন করেছিলেন যখন তিনি বলেন,

“বস্তুতঃ মনুষ্য যদি সমুদয় জগৎ লাভ করিয়া, আপন প্রাণ খোয়ায়, তবে তাহার কি লাভ হইবে?” (মার্ক ৮:৩৬)|

ওয়ারেন ব্যুফেট ছিলেন পৃথিবীর পাঁচজন ধনীব্যক্তির একজন| কিন্তু তিনি প্রতিবছর পিতৃত্ব বা মাতৃত্ব স্থাপন, এবং মাতৃগর্ভে অক্ষম সন্তানদের উন্মুলিত করার জন্য লক্ষ লক্ষ ডলার সাহায্য করেন| যখন তিনি মারা যাবেন তখন তার আত্মার কি হবে? বর্তমানে তার বয়স ৮০ বছরেরও বেশি| এত অর্থে তার লাভ কি যদি সে তার আত্মাকে অনন্তকালের জন্য নরকের গহ্বরে হারায়?

রোমান সৈন্যরা শুধু দেখেছিল খ্রীষ্টের বস্ত্র থেকে কত অর্থ পাওয়া যায়| আপনি কি দেখেন যখন আপনি ক্রুশের দিকে তাকান?

৩. তৃতীয়, একজন দস্যুকে খ্রীষ্টের সঙ্গে ক্রুশারোপিত করা হয়েছিল আর সে তাকে দেখেছিল ক্রুশে অসফল এক ব্যক্তিরূপে ।

সেখানে যীশুর দুই দিকে দুইজন দস্যুকে, ক্রুশে পেরেক বিদ্ধ করা হয়েছিল| প্রথমজন যীশুকে দেখে ভেবেছিল সে কেবল অন্য আর এক অপরাধী| সে ভেবেছিল যে যীশু শুধুমাত্র এক পাগল ব্যক্তি যে বিশ্বাস করে যে তিনি ঈশ্বরের পুত্র| সে অগ্রাহ্য করেছিল খ্রীষ্টকে এক ধর্মীয় গোঁড়া ব্যক্তি হিসাবে, এবং তাঁর প্রতি তাকিয়ে খ্রীষ্টকে গালিগালাজ ও বিদ্রূপ করেছিল|

কয়েক বছর আগে আমার এক বন্ধু ছিল যে একজন ভাল ব্যক্তি ছিল| আমি সবসময়ে তাকে পছন্দ করতাম| এক রাত্রে আমি তাকে অনুরোধ করলাম সুসমাচার শোনার জন্য আমার সঙ্গে মন্ডলীতে আসতে| সে বলল, “না”| পরে সে বলল, “প্রত্যেকেরই নিজের আছে, রবার্ট| প্রত্যেকেরই নিজের আছে”| আমি যতদিন বেঁচে থাকবো কখনও তার কথা ভুলবো না| সে বোঝাতে চেয়েছিল যে আমার মন্ডলী আছে এবং তার বিয়ার পান করার একদল বন্ধু আছে| আমার জন্য কি ভালো আর তার জন্য কি ভালো সেটাই পার্থ্যকের বিষয়| “প্রত্যেকেরই নিজের আছে, রবার্ট| প্রত্যেকেরই নিজের আছে”| কিছু বছর পরে আমি তার কফিনের দিকে দেখলাম| তার মাথার চুল সাদা হয় নি| তার মুখের চামড়ায় কোন ভাঁজ নেই| মাত্র ৪০ এর ঘরে তার বয়েস ছিল| কোনভাবে সে জানতো যে সে এইভাবেই শেষ হবে| যদিও সে সুস্বাস্থ্যের অধিকারী ছিল, সে প্রায়ই আমাকে বলতো, “আমি কখনও ৫০ পার করবো না, রবার্ট| আমি কখনও ৫০ পার করবো না”| সে যখন হঠাৎ করে তার বাড়ীতে মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়লো তখন তার বয়্স মাত্র ৪৮ বছর| আমি কফিনের মধ্যে তার দিকে যখন তাকালাম তখন তার সেই কথাগুলো আমার মনে আলোড়ন নিয়ে এলো, “প্রত্যেকেরই নিজের আছে, রবার্ট| প্রত্যেকেরই নিজের আছে”| তার অন্ত্যোষ্টিক্রিয়া পরিচালনা করার সময়, আমি তার পরিবার এবং তার বন্ধুদের জন্য কোন আশার শব্দ বলতে পারিনি – কোন আশার শব্দ নয়! যাদের সে পিছনে ফেলে চলে গেছে তাদের জন্য আমি কেবল সুসমাচার প্রচার করি|

প্রথম যে দস্যু যীশুর পাশে ঝুলছিল, সে অস্পষ্টভাবে ঈশ্বরনিন্দা করছিল| সে ভেবেছিল যীশু শুধুমাত্র একজন ধর্মীয় গোঁড়া ব্যক্তি| সেইদিন সূর্য্য অস্ত যাওয়ার পূর্বেই এই ব্যক্তি নরকে গিয়েছিল| আপনি কি দেখেন যখন আপনি ক্রুশের দিকে তাকান?

৪. চতুর্থ, দ্বিতীয় দস্যু ক্রুশের উপরে তাঁকে প্রভু ও পরিত্রাতা রূপে দেখেছিল ।

এই ব্যক্তি সমস্ত সকালটা অন্য সকল জনতার সঙ্গে যীশুর বিরুদ্ধে বিদ্রূপ ও পরিহাস করছিল| কিন্তু দুপুরে সমস্ত দেশ অন্ধকারময় হয়ে গেল| সে শুনতে পেলো যারা তাঁকে ক্রুশে দিয়েছে তাদের জন্য যীশুর প্রার্থনা|

“তখন যীশু কহিলেন, পিতঃ, ইহাদিগকে ক্ষমা কর; কেননা ইহারা কি করিতেছে তাহা জানেনা” (লূক ২৩:৩৪)|

যীশুর প্রার্থনা ছিল যারা তাঁকে মারছে তাদের জন্য যা দ্বিতীয় দস্যুর হৃদয়ে গভীর ভাবে আলোড়ন নিয়ে এসেছিল| সে যীশুকে বিদ্রূপ করা বন্ধ করলো| সে মাথা তুললো, পরিত্রাতার প্রতি তাকাল, এবং তার হৃদয় বিগলিত হলো| সে কখনো জানতো না এমন একজনকে যে তাঁর শত্রুদের ক্ষমার জন্য প্রার্থনা করতে পারে|

“পিতা, ইহাদিগকে ক্ষমা কর!” ইহাই কি প্রার্থনা ছিল,
এমনকি যখন তাঁর শরীর হইতে রক্ত তড়িৎ গতিতে প্রবাহিত হচ্ছে;
এই বিপর্যয়ের মধ্যে তাঁর পাপীর জন্য প্রার্থনা –
কেউ নয় কিন্তু যীশুই সবসময় ভালবাসেন|
মহিমান্বিত পরিত্রাতা! বহুমূল্য পরিত্রাতা!
এখন আমি দেখি তাঁকে কালভেরী বৃক্ষে;
আঘাতপ্রাপ্ত এবং রক্তমোক্ষম, পাপীর জন্য সনির্বন্ধ মিনতি –
অন্ধ এবং অমনোযোগী – আমার জন্য মরেছেন!
      (“Blessed Redeemer” by Avis Burgeson Christiansen, 1895-1985).

দস্যুদ্বয় দেখেছিল জনতার উগ্ররূপ, তাদের প্রতি যীশুর অকৃত্রিম ভালবাসা, এবং যীশুর ক্রুশের উপরে মুদ্রালিপি যাহাতে লেখা ছিল, “এই ব্যক্তি যিহুদীদের রাজা” (লূক ২৩:৩৮)| তৎক্ষনাৎ এই ব্যক্তি বিশ্বাস করলো! সে নিশ্চিতভাবে শুনতে পেল যে যীশুর মাধ্যমে জনতার আরোগ্যতা ও পুনরুদ্ধার| সে নিশ্চিতভাবেই শুনতে পেল যীশু কি প্রচার করছিলেন| এখন সব কিছু একসঙ্গে তার মনে ভেসে উঠলো| এই ব্যক্তিই হলেন যিহুদীদের রাজা! এই ব্যক্তিই হচ্ছেন মশীহ! ইনিই হন উদ্ধারকর্তা! সে এসব বিষয় জানতো না| কিন্তু আমাদের মধ্যে কতজনের যীশুর সম্বন্ধে এই সমস্ত বিষয় জানা আছে? আমি জানি যে আমি সমস্ত বিষয় জানি না – এবং এই বিষয়ে, আমার কোন মতামত নেই| ডাঃ লয়েড-জোন্স বলেন, “ঘটনাই যথেষ্ট নয়”| যীশুর বিষয়ে অনেক কিছু শিখতে হবে যা হয়তো আমাদের ক্ষুদ্র মন দিয়ে সম্পূর্ণ ভাবে জানা সম্ভব নয়! কিন্তু এই দস্যু জানতো যে সে একজন পাপী| সে নিজের হৃদয়ে তা অনুভব করেছিল! সে অবিশ্বাসী দস্যুকে বলেছিল, “আমরা আমাদের কৃতকর্মের জন্য ন্যায়্সঙ্গত দন্ড পাইতেছি: কিন্তু ইনি [অপকার্য] কিছুই করেন নাই – কোনভাবেই বিপথগামী নন” (লূক ২৩:৪১)| বাস্তবিক, “ঘটনাই যথেষ্ট নয়”| এখানেই আমি মনে করি আমার কয়েকজন সংষ্কারসাধক বন্ধুরা ভুল| ডাঃ লয়েড-জোন্সই সঠিক, “ঘটনাই যথেষ্ট নয়”| যদি আপনি আপনার জীবনে খ্রীষ্টকে ঘটনার দ্বারা প্রমাণ করতে চান, তবে আপনি পাপে মারা যাবেন, এবং কখনো পরিত্রাণ পাবেন না| বাইবেল সহজভাবে বলে, “ধার্মিকতার জন্য মানুষ হৃদয়ে বিশ্বাস করে” (রোমীয় ১০:১০)|

এই কারনে বর্তমান প্রজন্মের অনেক প্রচারক বিপথে যায়| তারা হৃদয়ে নয় মস্তিষ্কে প্রচার করে| হে ঈশ্বর, দয়া করে, আমাকে এইরূপ প্রচার করতে দিও না! পিতা অনুগ্রহ করে, আমাকে সাহায্য কর যেন আমার প্রচার তাদের হৃদয়কে স্পর্শ করে! “ধার্মিকতার জন্যে মানুষ হৃদয়ে বিশ্বাস করে”| মৃত্যুপথযাত্রী দস্যু মাথা ঘুরিয়ে যীশুর দিকে তাকাল – এবং সে বললো,

“প্রভু, আপনি যখন আপন রাজ্যে আসিবেন তখন আমাকে স্মরণ করিবেন” (লূক ২৩:৪২)|

এই শব্দগুলি তার মুখ থেকে বের হওয়ার আগেই, দ্বিতীয় দস্যু পরিত্রাণ পেয়ে গেছে! সে খুবই কম ধর্মতত্ব জানতো| তার কোন বিশেষ অনুভূতি ছিল না, অথবা কোন প্রমাণ ছিল না যে যীশুই প্রভু ও পরিত্রাতা| কিন্তু সে যীশুকে বিশ্বাস করেছিল, এবং “ধার্মিকতার জন্য মানুষ হৃদয়ে বিশ্বাস করে”| সে সরলভাবে যীশুকে বিশ্বাস করেছিল! ইহাই ঈশ্বর দাবী করেন!

যে মুহূর্তে একজন পাপী বিশ্বাস করে,
এবং বিশ্বাস করে তার ক্রুশারোপিত ঈশ্বরে,
তাঁর ক্ষমা সে তৎক্ষনাৎ পায়,
তাঁর রক্তের মাধ্যমেই পূর্ণ মুক্তি!
   (“The Moment a Sinner Believes” by Joseph Hart, 1712-1768).

সেই দস্যু যীশুকে বিশ্বাস করেছিল, এবং মুহুর্তে সে পরিত্রাণ পেয়েছিল! আপনি জানেন, যে এইভাবেই আমরা সকলে উদ্ধার পেয়েছি! আমরা যীশুতে বিশ্বাস করেছি| আমরা তাঁর উপরে নির্ভর করেছি| আমরা পরিত্রাণ পেয়েছি! আর যীশু সেই পরিত্রাণ প্রাপ্ত দস্যুকে বললেন,

“আমি তোমাকে সত্য বলিতেছি, অদ্যই তুমি পরমদেশে আমার সহিত উপস্থিত হইবে” (লূক ২৩:৪৩)|

সেই দিনেই দস্যু ক্রুশের উপরে মারা যায় এবং যীশুর সঙ্গে পরমদেশে যায়!

ক্রুশারোপিত একজনের রক্তের দ্বারা পরিত্রাণ!
এখন পাপ হইতে মুক্তি ও নূতন [জীবন] শুরু,
পিতার প্রশংসা গাও এবং পুত্রের প্রশংসা গাও,
ক্রুশারোপিত একজনের রক্তের দ্বারা আমি পাপ থেকে মুক্ত!
মুক্ত! মুক্ত! আমার সমস্ত পাপ ক্ষমা করা হয়েছে,
আমার অপরাধ সব ধুয়ে গেছে!
মুক্ত! মুক্ত! ক্রুশারোপিত একজনের রক্তের দ্বারা আমি পাপ থেকে মুক্ত!
   (“Saved by the Blood” by S. J. Henderson, 1902).

যে মুহূর্তে আপনি যীশুকে বিশ্বাস করবেন, এবং হৃদয় দিয়ে তাঁর উপরে নির্ভর করবেন, ক্রুশের উপরে পরিত্রাতার পাশের দস্যুর ন্যায় - আপনি মুহুর্তের মধ্যে পরিত্রাণ পাবেন| যীশু দস্যুকে উদ্ধার করেছিলেন| সেইদিন ক্রুশের উপরে রক্ত সেচনের মাধ্যমে যীশু সমস্ত মানুষের পাপ ধৌত করেছেন! এবং আজ সকালে তাঁর সেচিত রক্ত আপনার সমস্ত পাপ ধৌত করতে সক্ষম! যে প্রচারক বলেন যে সেখানে কোন রক্ত নেই তাকে কখনও বিশ্বাস করবেন না| ডাঃ লয়েড-জোন্স বলেন, “ক্রুশ ও তাঁর মৃত্যুর সম্বন্ধে বলাটাই যথেষ্ট নয়| ‘রক্তই হল প্রকৃত!’”

আজ সকালে যদি আপনি সরলভাবে যীশুতে নির্ভর করেন তিনি তাঁর রক্তের মাধ্যমে আপনার সমস্ত পাপ ক্ষমা করবেন! আপনি পরিত্রাণ পাবেন! আপনি প্রকৃত খ্রীষ্ট বিশ্বাসী হবেন! আপনি স্বর্গের জন্য প্রস্তুত থাকবেন! খ্রীষ্টে আপনার নূতন জীবন হবে! এখনই অনুতাপ ও বিশ্বাস করুন পরিত্রাতার উপর!

আপনি যদি পরিত্রাণ প্রাপ্ত এবং প্রকৃত খ্রীষ্ট বিশ্বাসী হওয়ার বিষয়ে আমাদের সঙ্গে কথা বলতে চান, তবে অনুগ্রহ করে এখনই আপনার বসার জায়্গা ছেড়ে অডিটোরিয়ামের পিছনে চলে যান| ডাঃ কাগন আপনাকে আর একটি ঘরে নিয়ে যাবেন যেখানে আমরা কথা বলতে বা প্রার্থনা করতে পারবো| আপনি যদি এখানে প্রথমবার এসে থাকেন, এবং এই প্রচারের বিষয়ে আমার কাছে আপনি কোন প্রশ্ন করতে চাইলে, এখনই এই অডিটোরিয়ামের পিছনে চলে যান| আমি নিজে আপনার সঙ্গে বসবো ও কথা বলবো| তাড়াতাড়ি যান| ডাঃ চান, অনুগ্রহ করে প্রার্থনা করুন যেন আজকের সকালে কেউ একজন যীশুতে বিশ্বাস করতে পারেন| আমেন|

(সংবাদের পরিসমাপ্তি)
ডাঃ হাইমার্সের সংবাদ আপনি প্রতি সপ্তাহে ইন্টারনেটের মাধ্যমে
www.realconversion.com এই সাইটে পড়তে পারেন। ক্লিক করুন “সংবাদের হস্তলিপি”

আপনি ডাঃ হাইমার্সকে মেইল পাঠাতে পারেন rlhymersjr@sbcglobal.net - আপনি
তাকে পত্র লিখতে পারেন P.O. Box 15308, Los Angeles, C A 90015.এই ঠিকানায়
। আপনি তাকে টেলিফোন করতে পারেন (818) 352-0452.

এই সুসমাচারের ম্যানুস্ক্রিপ্ট এর ওপর ডাঃ হাইমসের কোন কপিরাইট নেই। আপনারা
ইহা ব্যাবহার করতে পারেন ডাঃ হাইমসের অনুমতি ছাড়াই। অবশ্য, ভিডিও মেসেজ
সবই কপিরাইটের সহিত আছে এবং কেবলমাত্র তার অনুমতি নিয়েই ব্যাবহার করা যাবে।

সংবাদের আগে শাস্ত্রাংশ পাঠ করেছেন মি. আবেল প্রধুম্মে: মথি ২৭:৩৫-৪৪ |
সংবাদের আগে একক সংগীত পরিবেশন করেছেন মি. বেঞ্জামিন কিনকেড গ্রিফিত:
“Blessed Redeemer” (by Avis B. Christiansen, 1895-1985).


খসড়া চিত্র

যখন আপনি ক্রুশের দিকে তাকান তখন আপনি কি দর্শন করেন?

লেখক : ডঃ আর এল হাইমার্স, জে আর।

“এবং সেখানে বসিয়া তাঁহাকে চৌকি দিতে লাগিল” (মথি ২৭:৩৬)|

১. প্রথম, যাজক এবং প্রাচীনবর্গ দেখেছিল একজন শত্রুকে ক্রুশে মারা হয়েছে,
মথি ২৭:৪১-৪৩; গীত ১৪:১ |

২. দ্বিতীয়, রোমান সৈন্যরা গুলিবাঁট করার জন্য ক্রুশের নীচে একটি বস্ত্র দেখেছিল,
মথি ২৭:৩৫-৩৬; মার্ক ৮:৩৬ |

৩. তৃতীয়, একজন দস্যুকে খ্রীষ্টের সঙ্গে ক্রুশারোপিত করা হয়েছিল আর সে তাকে
দেখেছিল ক্রুশে অসফল এক ব্যক্তিরূপে |

৪. চতুর্থ, দ্বিতীয় দস্যু ক্রুশের উপরে তাঁকে প্রভু ও পরিত্রাতা রূপে দেখেছিল,
লূক ২৩:৩৪, ৩৮, ৪১; রোমীয় ১০:১০; লূক ২৩:৪২, ৪৩ |