Print Sermon

এই সমস্ত প্রচারের পান্ডুলিপি এবং ভিডিওগুলি এখন প্রতি মাসে 215টিরও বেশি দেশের প্রায় 116,000 কম্প্যুটারে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে পাঠানো হয়| আরও শত শত লোক ইউ টিউবের ভিডিওর মাধ্যমে এগুলি দেখেন, কিন্তু খুব শীঘ্রই তারা ইউটিউব ছেড়ে বেরিয়ে যান, কারণ প্রত্যেকটি ভিডিও প্রচার তাদেরকে আমাদের ওয়েবসাইটের দিকে পরিচালিত করে| ইউটিউব আমাদের ওয়েব সাইটে লোক এনে দেয়| প্রচারের এই পান্ডুলিপিগুলি প্রতি মাসে 34টি ভাষায় প্রচারিত হয় হাজার হাজার লোকের কাছে| প্রচারের এই সব পান্ডুলিপিগুলি গ্রন্থসত্ত্ব দ্বারা সংরক্ষিত নয়, কাজেই প্রচারকগণ আমাদের অনুমতি ছাড়াই এইগুলি ব্যবহার করতে পারেন| মুসলিম এবং হিন্দু রাষ্ট্রসমেত, সমগ্র পৃথিবীতে সুসমাচার ছড়িয়ে দেওয়ার এই মহান কাজে সাহায্য করার জন্য কিভাবে আপনি একটি মাসিক অনুদান প্রদান করতে পারেন তা জানতে অনুগ্রহ করে এখানে ক্লিক করুন|

যখন আপনি ডঃ হেইমার্সকে লিখবেন সর্বদা তাকে জানাবেন যে আপনি কোন দেশে বাস করেন, অথবা তিনি আপনাকে উত্তর দিতে পারবেন না| ডঃ হেইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net |




তিনটি শব্দ প্রাথমিক মন্ডলীর গুপ্ত বিষয় বলছে !

THREE WORDS GIVE THE SECRET
OF THE EARLY CHURCH!
(Bengali)

2017 সালের, 19শে নভেম্বর, প্রভুর দিনের সন্ধ্যাবেলায় লস্ এঞ্জেল্সের
ব্যাপটিষ্ট ট্যাবারন্যাক্ল মন্ডলীতে প্রচারিত একটি ধর্ম্মোপদেশ
A sermon preached at the Baptist Tabernacle of Los Angeles
Lord's Day Evening, November 19, 2017

‘‘আর তাহারা প্রতিদিন একচিত্তে ধর্ম্মধামে নিবিষ্ট থাকিয়া এবং বাটীতে রুটি ভাঙ্গিয়া উল্লাসে ও হৃদয়ের সরলতায় খাদ্য গ্রহণ করিত; তাহারা ঈশ্বরের প্রশংসা করিত, এবং সমস্ত লোকের প্রীতির পাত্র হইল| আর যাহারা পরিত্রাণ পাইতেছিল, প্রভু দিন দিন তাহাদিগকে তাহাদের সহিত সংযুক্ত করিতেন’’ (প্রেরিত 2:46, 47)|


আমাদের মন্ডলীগুলির ঐক্যহানি ঘটছে এবং মৃত্যু হচ্ছে| তারা তাদের 16 থেকে 30 বছর বয়সী যুবক সদস্যদের 88% এরও বেশি সদস্যদের হারাচ্ছে| জর্জ বামা, বিখ্যাত জনমত-সংগ্রহকারী, বহু বছর ধরে এটা আমাদের বলে আসছেন| ‘‘পারিবারিক জীবনের উপরে সাউদার্ন ব্যাপটিষ্ট পর্ষদ’’ বলেছে, ‘‘সুসমাচার-সংক্রান্ত গৃহে প্রতিপালিত শিশুদের মধ্যে [প্রায়] 88% শিশু তাদের বয়স 18 হইবার পূর্বেই মন্ডলী ত্যাগ করিয়া যায়, আর ফিরিয়া না আসিবার জন্যে’’ (ব্যাপটিষ্ট প্রেস, জুন 12, 2002)| এছাড়াও, এটা ভাল করেই জানা আছে যে আমাদের মন্ডলীগুলি জগৎ থেকে খুব কমই যুবকদের জয় করতে পারে| ডঃ জেম্স ডবসন বলেছিলেন, ‘‘মন্ডলীর বৃদ্ধির 80% হইয়া থাকে সদস্যপদের স্থানান্তর হইতে’’ (‘‘ফোকাস অন দ্য ফ্যামিলি নিউজ লেটার,’’ অগাস্ট, 1998)| জেম্স হ্যাটমেকার, একজন সুসমাচার-সংক্রান্ত লেখক, বলেছিলেন, ‘‘আমরা যে কেবলমাত্র নতুন আকর্ষণ করিতে পারি না [মন্ডলীর প্রতি] তাহাই নহে, আমাদের যাহারা আছেন তাহাদেরও ধরিয়া রাখিতে পারি না| গত বৎসর আমেরিকান মন্ডলীগুলির প্রায় অর্ধেক মন্ডলী মন পরিবর্তন বৃদ্ধির মাধ্যমে একজনও নতুন সদস্য যোগ করিতে পারে নাই...মন্ডলীগুলির 94% হয় বৃদ্ধি পায় নাই অথবা [লোক] হারাইয়াছে সেই সমাজে যেইস্থানে তাহারা পরিষেবা দান করেন...প্রবণতাটি স্পষ্টতই নিম্নগামী, এবং এই গতিতে, [খ্রীষ্টধর্মের এই ‘বিদ্যমানতা’ বিপন্ন]’’ (Interrupted: When Jesus Wrecks Your Comfortable Christianity, ন্যাভ প্রেস, 2014, পৃ. 79, 80)|

এবার সাউদার্ন ব্যাপটিষ্টদের দিকে দেখুন| ‘‘ক্যালিফোরনিয়া সাউদার্ন ব্যাপটিষ্ট’’ নামক গবেষণা পত্রে ক্যারল পাইপ্স দ্বারা প্রদত্ত রিপোর্ট বলছে, ‘‘মন্ডলীগুলি 200,000 এরও বেশি সদস্য হারাইয়াছে [গত বৎসরে], যাহা 1881 সালের পর হইতে সর্বাধিক এক-বার্ষিক পতন (বার্ষিক মন্ডলী চিত্র)...বিবরণ অনুসারে বলা হইয়াছে যে বিগত 10 বৎসরে ব্যাপ্তিস্ম দান আটজনে নামিয়া আসিয়াছে, যাহা 1947 সালের পরে গত বৎসরে সর্বনিম্ন হইয়াছে| থম রেনিয়ার [এক এসবিসি অফিসার] বলিয়াছিলেন, ‘ইহা আমার হৃদয় ভগ্ন করে যে আমাদের সম্প্রদায়ের মূল বিষয় হইতেছে...পতনসমূহের মধ্যে একটি|’ ডঃ ফ্রাঙ্ক পেজ, [আর একজন প্রসিদ্ধ সাউদার্ন ব্যাপটিষ্ট] বলিয়াছিলেন, ‘সত্য এই যে, আমাদের মন্ডলীতে আমরা কম লোক যাহারা কম অর্থ দিতেছেন কারণ আমরা খ্রীষ্টের প্রতি লোকদের জয় করিতেছি [না], এবং আমাদের প্রভুর আধ্যাত্মিক নিয়ম শৃঙ্খলায় আমরা তাহাদের প্রশিক্ষণ দিতে পারিতেছি না|’ তিনি ক্রমাগত বলিয়াই চলিয়াছিলেন, ‘ঈশ্বর আমাদের ক্ষমা করুন...প্রথম-শতাব্দীর মন্ডলীতে শিষ্যত্ব যেরূপ ছিল...সেই বিষয়ে গুরুত্ব দান করিতে ঈশ্বর আমাদের সাহায্য করুন|’’’ (আইবিড., পৃ. 4)|

এই পরিসংখ্যান আমেরিকার মন্ডলীগুলির একটা অন্ধকারাচ্ছন্ন, হতাশাব্যঞ্জক চিত্র প্রদর্শন করছে| তারা নিজেদের সদস্যদের হারাচ্ছে, এবং দিশাহারা জগৎ থেকে খুব কমই কাউকে জয় করছে| এমনকী প্র্রাচুর্য্যপূর্ণ মন্ডলীগুলিও দিশাহারা জগৎ থেকে খুবই সামান্য পরিমানে মন পরিবর্তনকারীকে যুক্ত করছে|

এই হচ্ছে আমাদের আমেরিকা এবং পাশ্চাত্য জগতের মন্ডলীগুলির দুঃখজনক চিত্র| এবার আমাদের মন্ডলীগুলির সঙ্গে প্রেরিতের পুস্তকে বর্ণিত প্রাচীন মন্ডলীগুলির তুলনা করুন| আমি পাঠ্যাংশটি আবার পড়ব,

‘‘আর তাহারা প্রতিদিন একচিত্তে ধর্ম্মধামে নিবিষ্ট থাকিয়া এবং বাটীতে রুটি ভাঙ্গিয়া উল্লাসে ও হৃদয়ের সরলতায় খাদ্য গ্রহণ করিত; তাহারা ঈশ্বরের প্রশংসা করিত, এবং সমস্ত লোকের প্রীতির পাত্র হইল| আর যাহারা পরিত্রাণ পাইতেছিল, প্রভু দিন দিন তাহাদিগকে তাহাদের সহিত সংযুক্ত করিতেন’’ (প্রেরিত 2:46, 47)|

কি বৈসাদৃশ্য! তারা আনন্দে পূর্ণ ছিলেন! তারা প্রতিদিন পরস্পর মিলিত হতেন! তারা ক্রমাগত ঈশ্বরের গৌরব করেই চলতেন! ‘‘আর যাহারা পরিত্রাণ পাইতেছিল, প্রভু দিন দিন তাহাদিগকে তাহাদের সহিত সংযুক্ত করিতেন’’ (প্রেরিত 2:47)|

ডাঃ মার্টিন লয়েড জোন্স বলেছিলেন, ‘‘প্রেরিতদের কার্য্য বিবরণী পুস্তক হইতেছে সেই স্থান যেখানে যাইতে হইবে| ইহাই হইতেছে টনিক [সেই স্বাস্থ্যবর্দ্ধক ঔষধ], ইহাই হইতেছে নবশক্তি লাভের স্থান, যেস্থানে আমরা প্রাচীন মন্ডলীর মধ্যে ঈশ্বরের প্রাণ স্পন্দিত হইতেছে ইহার উপলব্ধি করিব’’ (Authentic Christianity, volume 1 (Acts 1-3), The Banner of Truth Trust, p. 225)| প্রথম শতাব্দীর মন্ডলীর আনন্দ, প্রবল আগ্রগ এবং শক্তির বিষয়ে পাঠ করে আমাদের হৃদয় রোমাঞ্চিত হয়! ডঃ মাইকেল গ্রীনের বই, ইভানজেলিস্ম ইন দ্য আর্লি চার্চ, (এর্ডম্যানস, 2003 সংস্করণ) পাঠ করে আমি অনুপ্রাণিত হয়েছিলাম| এই বইটি পাঠ করে, আর সেই সঙ্গে প্রেরিতের বই পাঠ করে, আমি দেখলাম যে নতুন নিয়মে বহু গ্রীক শব্দ রয়েছে যা আমাদের প্রথম শতাব্দীতে মন্ডলীর জীবনের একটা চিত্র দেখায়|

I. প্রথমত, সেখানে একটা গ্রীক শব্দ ‘‘ক্যুরিওস’’ রয়েছে |

ইংরাজিতে এই শব্দটির অর্থ ‘‘প্রভু|’’ এর অর্থ ‘‘প্রভু,’’ ‘‘মনিব,’’ ‘‘মালিক,’’ ‘‘শাসনকর্তা|’’ এটা সেই শব্দ যা প্রেরিত 10:36 পদে যীশুর বিষয়ে বলার সময়ে প্রেরিত পিতর ব্যবহার করেছিলেন,

‘‘যীশু খ্রীষ্টের দ্বারা সন্ধির সুসমাচার প্রচার করিয়াছেন; ইনিই সকলের প্রভু’’ (প্রেরিত 10:36)|

ডঃ গ্রীনের কথা শুনুন যাতে তিনি আমাদের বলেছেন যে কিভাবে প্রাচীন খ্রীষ্ট বিশ্বাসীরা যীশুর সম্বন্ধে সাক্ষ্য দিতেন এবং প্রচার করতেন,

আমরা তাহাদের সেই সু-সমাচার প্রচার করিতে দেখিতেছি যে যীশু হইতেছেন মসিহা, অথবা যে তাঁহার মাধ্যমে প্রাচীন প্রতিজ্ঞাসমূহ পূর্ণ হইয়াছে| আমরা তাহাদের দেখি যীশুর মাধ্যমে শান্তির সু-সমাচার প্রচার করিতে, দেখিতেছি যীশুর প্রভুত্বের বিষয়ে, যীশুর ক্রুশের বিষয়ে, যীশুর পুনরুত্থানের বিষয়ে, অথবা সাধারণভাবে স্বয়ং যীশুর বিষয়ে প্রচার করিতে...প্রাচীন সুসমাচার প্রচারকদের প্রচার করিবার একটি এবং একমাত্র একটিই বিষয় ছিল, যীশু!... ওরিজেন (185-254) বলিয়াছিলেন, ‘‘একটি উত্তম বিষয় হইতেছে জীবন: কিন্তু যীশুই হইতেছেন জীবন| অপর একটি উত্তম বিষয় হইতেছে জগতের জ্যোতি: কিন্তু যীশুই হইতেছেন জ্যোতি| সেই সত্য, সেই দ্বার, সেই পুনরুত্থানের বিষয়েও একই কথা হয়তো বলা যাইতে পারে| এই সমস্ত বিষয়সমূহ সেই পরিত্রাতা শিক্ষা দিয়াছেন যে তিনিই হন|’’ ওরিজেন ‘‘[সুসমাচারের] খ্রীষ্টকেন্দ্রিক চরিত্রের বিষয়টি আদি প্রেরিতগণ এবং অন্যান্য [যাহারা তাহাদের নিকট হইতে শিক্ষা নিয়াছিলেন] উভয়ের প্রতি পুনরাবৃত্তি করিয়াছেন’’...ওরিজেন সুসমাচারমূলক প্রচারের সামগ্রীক উদ্দেশ্য ব্যক্ত করিয়াছিলেন: ‘‘পৃথিবীতে খ্রীষ্টের জীবনের জ্ঞান চিরস্থায়ী করিতে এবং তাঁহার দ্বিতীয় আগমন প্রস্তুত করিতে’’ (গ্রীন, আইবিড., পৃ.80, 81)|

প্রাচীনকালের খ্রীষ্টবিশ্বাসীরা আত্মনির্ভর ধর্ম্মোপদেশ শুনতেন না| তারা বাইবেলের পদের পর পদের ‘‘ব্যাখ্যামূলক’’ প্রচার শোনেননি| তারা যা ক্রমাগতভাবে শুনেছেন তা ছিল সুসমাচার - সেই মৃত্যু, সমাধি এবং সেই ‘‘ক্যুরিওস,’’ প্রভু যীশু খ্রীষ্টের এর পুনরুত্থান! ‘‘ইনিই সকলের প্রভু’’ (প্রেরিত 10:36)|

আমি আমার প্রত্যেকটি ধর্ম্মোপদেশ খ্রীষ্টের মৃত্যু এবং পুনরুত্থান দিয়ে শেষ করার জন্যে অন্য মন্ডলীর কেউ একজন আমার সমালোচনা করেছেন| দীর্ঘদিন ধরে আমি সেই বিষয়টি চিন্তা করেছি| তারপরে আমার সেটা মনে পড়ল যা স্পারজিয়ন বলেছিলেন, ‘‘আমি একটা পাঠ্যাংশ নিয়েছি, তার ব্যাখ্যা করেছি, আর তারপরে ক্রুশের প্রতি একটা সমান্তরাল রেখা [একটা সরল রেখা] টেনেছি|’’ স্পারজিয়ন, সেই প্রাচীন খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের মতনই, চূড়ান্তভাবে খ্রীষ্টকেন্দ্রিক ছিলেন - যীশু খ্রীষ্ট স্বয়ং, সেই প্রভু যীশু খ্রীষ্টের উপরে কেন্দ্রীভূত ছিলেন! প্রাচীনকালের মন্ডলীগুলি এই সমবেত গানটি খুব ভাল করে গাইতে পারত,

তিনিই প্রভু, তিনিই প্রভু,
   তিনি মৃত্যু থেকে উঠিয়াছেন
এবং তুমিই প্রভু|
   সর্ব্ব জানু পতিত হইবে, সর্ব্ব জিহ্বা স্বীকার করিবে,
যীশু খ্রীষ্টই একমাত্র প্রভু|
    (“He Is Lord” by Marvin V. Frey, 1918-1992) |

আমার সঙ্গে এই গানটি করুন!

তিনিই প্রভু, তিনিই প্রভু,
   তিনি মৃত্যু থেকে উঠিয়াছেন
এবং তুমিই প্রভু|
   সর্ব্ব জানু পতিত হইবে, সর্ব্ব জিহ্বা স্বীকার করিবে,
যীশু খ্রীষ্টই একমাত্র প্রভু|

প্রথম শব্দ, ‘‘ক্যুরিওস,’’ তাদের বার্তার প্রধান বিষয় হিসাবে খ্রীষ্টের কেন্দ্রীয়তা এবং তাদের জীবনের প্রভুকে দেখায়! আশ্চর্যের কিছু নেই যে প্রেরিত পৌল বলেছিলেন,

‘‘আমরা ক্রুশে হত খ্রীষ্টকে প্রচার করি’’ (I করিন্থীয় 1:23)|

‘‘কেননা আমি মনে স্থির করিয়াছিলাম, তোমাদের মধ্যে আর কিছুই জানিব না, কেবল যীশু খ্রীষ্টকে, এবং তাঁহাকে ক্রুশে হত বলিয়াই, জানিব’’ (I করিন্থীয় 2:2)|

আমাদের অবশ্যই নিরবিচ্ছিন্নভাবে খ্রীষ্টের ক্রুশারোপন এবং মৃত্যু থেকে তাঁর পুনরুত্থানের প্রচার চালিয়ে যেতে হবে| সেটা অবশ্যই হবে আমাদের প্রধান বার্তা, চিরকাল এবং সর্বদা!আমি জানি যে বেশির ভাগ মন্ডলী সেই কাজ খুব বেশি করছে না| আর সেটাই প্রধান কারণ যে বর্তমানে তারা মৃতপ্রায়!

মুসলমান উগ্রবাদীরা লোকদের আহ্বান করেন তাদের সঙ্গে আসা এবং মারা যাওয়ার জন্যে| আমেরিকা এবং পাশ্চাত্যের হাজার হাজার যুবক ঠিক সেটাই করছেন| ISIS (আইএসআইএস) এর লোক তাদের কাছে আসছে এবং তাদের নিজেদের উপরেই বোমা বাঁধছে, এবং তারা লোকদের হত্যা করতে যাচ্ছে| এটা সেই জিনিস নয় যা প্রভু যীশু খ্রীষ্ট করেছেন| আপনাকে অনন্ত জীবন উপহার দেওয়ার জন্যে তিনি আপনাদের তাঁর কাছে আসার আহ্বান জানান| খ্রীষ্ট বলেছিলেন, ‘‘আর আমি তাহাদিগকে অনন্ত জীবন দিই, তাহারা কখনই বিনষ্ট হইবে না’’ (যোহন 10:28)| আর প্রভু যীশু খ্রীষ্ট আপনাকে তাঁর শিষ্য হওয়ার জন্যে আহ্বান করছেন| প্রভু যীশু খ্রীষ্ট বলেছিলেন, ‘‘কেহ যদি আমার পশ্চাৎ আসিতে ইচ্ছা করে, তবে সে আপনাকে অস্বীকার করুক, আপন ক্রুশ তুলিয়া লউক, এবং আমার পশ্চাদগামী হউক’’ (মথি 16:24)| খ্রীষ্ট আপনাকে আমাদের মন্ডলীতে আসার আহ্বান করছেন এবং একজন আত্মা জয়কারীতে পরিণত হতে বলছেন| অন্যদের আমাদের মন্ডলীতে নিয়ে আসতে এবং তাদের উদ্ধার করতে আমাদের সাহায্য করার জন্যে খ্রীষ্ট আপনাকে আহ্বান জানাচ্ছেন!

যুবকবৃন্দ ভিত্তিগত খ্রীষ্ট বিশ্বাসী হওয়ার জন্যে আমি আপনাদের আহ্বান করছি! হ্যাঁ, আমি চাই আপনি ভিত্তিগত হন! একজন শিষ্য হন! যীশু খ্রীষ্টের জন্যে - এবং সর্বশক্তিমান ঈশ্বরের জন্যে মৌলিক হন! রবিবারের সকালে আসুন| রবিবারের বিকালে আমাদের সঙ্গে আত্মা জয় করতে বের হন| রবিবারের রাত্রে ফিরে আসুন| খ্রীষ্টের এক মৌলিক শিষ্যে পরিণত হন! এটা করুন! এটা করুন! এটা কি প্রায় সেই সময়ের বিষয় নয় যখন কয়েকজন ব্যাপটিষ্ট প্রচারক আমাদের যুবকদের তা বলেছিলেন? আপনার ক্রুশ তুলে নিন এবং খ্রীষ্টকে অনুসরণ করুন! একজন শিষ্য হন! খ্রীষ্টের সৈন্যদলের একজন সৈনিক হন! এটা আপনার গানের পাতার ____ নং গান| এই গানটি করুন!

অগ্রসর হও, আজি খ্রীষ্ট সেনা সব,
   সবে মিলে আইস করি বিজয় রব;
কর খ্রীষ্টের নামে গৌরব সংঘোষন;
   দূত ও নরে, সবে মিলে কর সংকীর্ত্তন|
অগ্রসর হও, আজি খ্রীষ্ট সেনা সব,
   সবে মিলে আইস, করি বিজয় রব|
(“Onward, Christian Soldiers” by Sabine Baring-Gould, 1834-1924) |

এবং এটা আমাদের চালিত করছে নতুন নিয়মের মধ্যস্থিত দ্বিতীয় গ্রীক শব্দের প্রতি|

II. দ্বিতীয়ত, সেখানে “আগাপে” বলে একটি গ্রীক শব্দ আছে |

ডব্লিউ. ই. ভাইন বলেছিলেন যে আগাপে হচ্ছে ‘‘খ্রীষ্টধর্মের চারিত্রিক শব্দ|’’ এর অর্থ আত্ম-দানমূলক প্রেম| যীশু সেই সময়ে এই শব্দটি ব্যবহার করেছিলেন যখন তিনি তাঁর প্রথম শিষ্যের প্রতি বলেছিলেন| যীশু বলেছিলেন,

‘‘এক নূতন আজ্ঞা আমি তোমাদিগকে দিতেছি, তোমরা পরস্পর প্রেম কর; আমি যেমন তোমাদিগকে প্রেম করিয়াছি, তোমরাও তেমনি পরস্পর প্রেম কর| তোমরা যদি আপনাদের মধ্যে পরস্পর প্রেম রাখ, তবে তাহাতেই সকলে জানিবে যে, তোমরা আমার শিষ্য’’ (যোহন 13:34, 35)|

চীনা মন্ডলীতে ডঃ তিমথী লিন বহু বছর যাবৎ আমার পালক ছিলেন| ডঃ লিন বলেছিলেন,

প্রেরিতগণ প্রেমের এই আদেশ সরাসরি আমাদের প্রভুর নিকট হইতে গ্রহণ করিয়াছিলেন, এবং পরবর্তীতে তাহারা ইহার পূর্বাভাস দিতেছিলেন...একাদিক্রমে| ইহার ফলস্বরূপ, ‘‘দেখ খ্রীষ্ট বিশ্বাসীরা কেমন একে অপরকে প্রেম করেন!’’ বাক্যটি [খ্রীষ্ট-অবিশ্বাসীগণ] হইতে প্রশংসার বৈশিষ্ট্যে পরিণত হইয়াছিল| বর্তমানে ‘‘একে অপরকে প্রেম করেন’’ কথাটি একটি শ্লোগান মাত্র যাহা মন্ডলীগুলি যান্ত্রিকভাবে উচ্চারণ করিয়া থাকে...[এতদনুসারে] ঈশ্বরের পক্ষে ইহা অসম্ভব [তাহাদের] সঙ্গে থাকা| ঈশ্বর আমাদের উপরে করুণা করুন! (Timothy Lin, S.T.M., Ph.D., The Secret of Church Growth, FCBC, 1992, p. 33) |

ডঃ মাইকেল গ্রীন, প্রথম এবং দ্বিতীয় শতাব্দীর খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের উপরে লেখা তার বইতে, এই বিষয়টি বলেছিলেন| ডঃ গ্রীন বলেছিলেন যে ‘‘পরস্পরকে প্রেম করিবার সেই ক্ষমতা এই সকল খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের ছিল’’ তার কারণে খ্রীষ্টধর্ম পরজাতীয় রোমীয়দের প্রতি আবেদন জানিয়েছিল (Michael Green, Evangelism in the Early Church, Eerdmans, 2003, p. 158)|

III. তৃতীয়ত, সেখানে ‘‘কোইনোনিয়া’’ বলে আর একটি গ্রীক শব্দ রয়েছে |

এর অর্থ হচ্ছে সহভাগিতা, সাহচর্য্য, উত্তম সঙ্গ, বন্ধুত্ব| সহভাগিতা হল মন্ডলীতে একে অন্যের প্রতি ঐশ্বরিক প্রেমের প্রসার|

কোন কোন প্রচারক আমাকে বলেছেন যে খ্রীষ্ট অবিশ্বাসীদের আমাদের সঙ্গে সহভাগিতায় অনুমতি দেওয়া আমাদের উচিৎ নয়| এক দিক থেকে তারা ঠিক বলছেন| বাইবেল বলছে, ‘‘আর অন্ধকারের ফলহীন কর্ম্ম সকলের সহভাগী হইও না, বরং সেগুলির দোষ দেখাইয়া দেও’’ (ইফিষীয় 5:11)| অন্যান্য অনেক মন্ডলীতেও ঐ পদটি বহু লোককে বিভ্রান্ত করেছে| তারা মনে করেন এর অর্থ হল তাদের ‘‘মন্ডলীর শিশুদের’’ নতুন লোকদের থেকে দূরে সরিয়ে রাখা উচিৎ| এই বিষয়ে ডঃ জে. ভারন্ন ম্যাকগী’র দেওয়া একটা ভাল টীকা আছে| এটা মূলত সেই একই কথা যা ডঃ থমাস হেল বলেছিলেন, ‘‘পৌল বলিয়াছিলেন [‘‘অন্ধকারের ফলহীন কর্ম্ম’’] লইয়া আমাদের কিছুই করিবার নাই; [দিশাহারা মানুষ] লইয়া আমাদের কিছু করিবার নাই ইহা তিনি বলেন নাই...সর্বোপরি, স্বয়ং যীশু পাপীদের সঙ্গে একত্রে ভোজন করিয়াছিলেন’’ (Thomas Hale, M.D., The Applied New Testament Commentary, Kingsway Publications, 1997 edition, p. 780; note on Ephesians 5:11) |

প্রথম শতাব্দীর প্রাথমিক মন্ডলীগুলির বিষয়ে ডঃ গ্রীন যা বলেছেন তা আমার ভাল লেগেছে| তিনি বলেছিলেন, ‘‘সেখানে জিজ্ঞাসুগণ হইতে মতবাদ গোপন করা হইত না; সেখানে সহভাগিতা প্রত্যাহার ছিল না’’ (আইবিড., পৃ.218)| ‘‘অপরিত্রাণপ্রাপ্ত পরজাতীয়দের একেবারে মন্ডলীর অভ্যন্তরে, এবং সহভাগিতার মধ্যে আনা হইত, যদিও তাহাদের প্রায় তিন বৎসর ব্যাপ্তিস্ম দেওয়া হইত না’’ (আইবিড)|

আমাদের ব্যাপটিষ্ট মন্ডলীগুলি বর্তমানে অন্য উপায়ে এই কাজ চতুর্দিকে করছে| তারা অবিলম্বে নবীন যুবকদের ব্যাপ্তিস্ম দিচ্ছেন, কিন্তু তারা চাইছেন না যে তাদের সন্তানরা ঐ নবীনদের সঙ্গে সহভাগিতায় থাকুক| প্রাচীন মন্ডলীগুলি এই কাজ সঠিকভাবে করত|

এমনকী জ্যাক হাইলসেরও দুটি বাড়ি ছিল| একটা বাড়ি ছিল নতুন বালকদের জন্যে যারা সেখানে থাকত| এমনকী তাদের জন্য আলাদা আরাধনা সভার ব্যবস্থা ছিল! কিন্তু ‘‘আসল’’ মন্ডলী মূল বাড়িতে মিলিত হত| নতুন শিশুদের থেকে ‘‘মন্ডলীর শিশুদের’’ দূরে রাখা হত| তারা ভয় পেতেন যে নতুন শিশুরা তাদের ‘‘বহুমূল্য’’ মন্ডলী শিশুদের খারাপ করে দেবে!

যখন আমি কিশোর বয়সে প্রথবার মন্ডলীতে গিয়েছিলাম, আমি দেখেছিলাম যে আমাকে খারাপ করতে সম্ভাব্য সবকিছু চেষ্টা মন্ডলীর শিশুরা করত! জগতে দিশাহারা শিশুরা যা করত তার তুলনায় অনেক খারাপ কাজ করার কথা আমি মন্ডলীর শিশুদের বলতে শুনেছি| কাজেই অমন্ডলীয় শিশুদের আলাদা করে রাখার এই পদ্ধতি বাইবেলে নাই, আর এটা তাই নয় যা প্রাচীন মন্ডলী করত, যেখানে তারা খ্রীষ্টের জন্য আক্ষরিক অর্থেই লক্ষ লক্ষ লোকের কাছে পৌঁছাচ্ছিলেন!

আমি বলছি ‘‘সানডে স্কুল’’ এর কোন কোন ধারণা থেকে আমাদের মুক্তি পাওয়া দরকার| অপরিত্রাণপ্রাপ্ত শিশুদের ভিতরে আনুন| তাদের ভাল খাবার খাওয়ান| তাদের জন্যে একটা জন্মদিনের পার্টি দিন| তাদের একটা ভাল সময় দেখান - ‘‘সর্বোপরি, স্বয়ং যীশু পাপীদের সঙ্গে একত্রে ভোজন করিয়াছিলেন’’ (Thomas Hale, ibid.)| ‘‘তাহাদিগকে ভিতরে আনুন’’ এই সমবেত গানটি করুন!

তাহাদিগকে ভিতরে আনুন, তাহাদিগকে ভিতরে আনুন,
   পাপের ক্ষেত্র হইতে তাহাদিগকে ভিতরে আনুন;
তাহাদিগকে ভিতরে আনুন, তাহাদিগকে ভিতরে আনুন,
   বিপথগামীকে যীশুতে আনুন|
(“Bring Them In” by Alexcenah Thomas, 19th century) |

সেই কর্কশ, প্রাচীন ধর্ম্মীয় নেতাগণ যীশুর দোষ অনুসন্ধান করতেন| মথি ছিলেন একজন করগ্রাহক| যীশু তাকে ডেকেছিলেন, এবং মথি যীশুকে অনুসরণ করেছিলেন| তখন মথি তার বাড়িতে এক বিশাল ভোজসভার আয়োজন করেছিলেন| যীশু এবং তাঁর বারোজন শিষ্য সেখানে আমন্ত্রিত ছিলেন| আরও অনেক করগ্রাহী এবং পাপীরা যীশুর সঙ্গে খেতে এসেছিলেন| ধর্ম্মীয় নেতারা ভেবেছিলেন যে যীশু ভুল করেছিলেন| তারা বলেছিলেন, ‘‘কেন যীশু এই সমস্ত পাপীদের সহিত একত্রে ভোজন করেন?’’ যীশু উত্তর করেছিলেন, ‘‘কেননা আমি ধার্ম্মিকদিগকে নয়, কিন্তু পাপীদিগকে ডাকিতে আসিয়াছি’’ (মথি 9:13)|

যারা বহু সংখ্যক পাপীদের নিয়ে থাকতে ভীত হন সেই সমস্ত প্রচারকদের উচিৎ এই বিষয়ে চিন্তা করা! আমি বলছি, ‘‘পাপীদের ভিতরে আনুন! আপনি যত বেশি করে পারেন খুঁজে তাদের নিয়ে আসুন! যত বেশি তত আনন্দ!’’ তাদের একেবারে সহভাগিতার মধ্যে আনুন, যেমন যীশু করেছিলেন, যেমন প্রাচীন মন্ডলীগুলি করেছিল! ‘‘তাহাদিগকে ভিতরে আনুন|’’ সমবেত গানটি করুন!

তাহাদিগকে ভিতরে আনুন, তাহাদিগকে ভিতরে আনুন,
   পাপের ক্ষেত্র হইতে তাহাদিগকে ভিতরে আনুন;
তাহাদিগকে ভিতরে আনুন, তাহাদিগকে ভিতরে আনুন,
   বিপথগামীকে যীশুতে আনুন|

প্রথম শতাব্দীর জীবনোচ্ছল, শক্তিশালী মন্ডলীর কথা শুনুন,

‘‘আর তাহারা প্রেরিতদের শিক্ষায় ও সহভাগিতায় [কোইনোনিয়া!] নিবিষ্ট থাকিল এবং যাহারা পরিত্রাণ পাইতেছিল, প্রভু দিন দিন তাহাদিগকে তাহাদের সহিত সংযুক্ত করিতেন’’ (প্রেরিত 2:42, 47)|

জ্যাক হাইলস, এবং তার ব্যাভিচারী পুত্র, এবং এক কিশোরের সঙ্গে যৌন সহবাসে লিপ্ত তার জামাতা - তারা ছিলেন সেই একজন যাদের ‘‘অন্য’’ আর একটি বাড়িতে থাকা উচিৎ ছিল! তাদের দূরে সরিয়ে রাখুন, তারা হয়তো অপরিত্রাণপ্রাপ্ত নবীন শিশুদের ক্ষতি করতে পারে! দিশাহারা নবীন যুবকদের থেকে সেইসব যন্ত্ররূপ কার্যসাধক ‘‘কুকুরদের’’ দূরে রাখুন! এবং সেই দিশাহারা নবীন যুবকদের মূল মন্ডলীর ভিতরে আনুন| সেটাই ঠিক, দিশাহারাদের আনুন - সেই যৌন সহবাসে লিপ্ত ব্যাপটিষ্ট ফরিশি, এবং নষ্ট ছোঁড়াদের তাদের সানডে স্কুলে আটক করে দিন! দিশাহারা শিশুদের ভিতরে আনুন এবং আমরা একটা মহাভোজ ও জন্মদিনের উৎসব করব - আর পুরানো পোপিয়ে কার্টুন দেখব! আমেন! এবং এই বৃদ্ধ প্রচারকের কথা শুনুন, এবং সামান্য কয়েকটি গান করুন, হাততালি দিন আর উচ্চস্বরে বলুন ‘‘আমেন’’ - আর একটা অসাধারণ সময় উপলব্ধ করুন!

সেই তিনটি গ্রীক শব্দ আমাদের একটা জীবনোচ্ছল, শক্তিশালী মন্ডলী দেখায়! ‘‘ক্যুরিওস’’ - প্রভু - খ্রীষ্ট হলেন আমাদের ক্যুরিওস! তিনি আমাদের প্রভু| ফিরে আসুন আর খ্রীষ্টের সম্বন্ধে জানুন, এবং খ্রীষ্টকে অনুসরণ করুন, এবং আপনার সমস্ত হৃদয় দিয়ে খ্রীষ্টকে ভালবাসুন! ‘‘আগাপে’’ - ‘‘খ্রীষ্ট বিশ্বাসীর ভালবাসা! ফিরে আসুন এবং আমরা আপনাকে ভালবাসতে চলেছি| আপনি যেন আমাদের ভালবাসেন তার জন্যে আমরা মরিয়া হয়ে আছি| পুরানো দিনের হিপ্পিরা একটা ‘‘প্রণয়াসক্তি’’র কথা বলতেন| তারা উডস্টককে বলতেন একজন ‘‘প্রণয়াসক্ত|’’ সেই প্রকৃত ‘‘প্রণয়াসক্তি’’ এখানে এই মন্ডলীতে রয়েছে! আমাদের ভালবাসার মধ্যে ফিরে আসুন! এটা উডস্টককে একটা সানডে স্কুল বনভোজনের মতন করে দেখাবে! আর তারপরে সেখানে একটা শব্দ রয়েছে ‘‘কোইনোনিয়া|’’ এটা বোঝায় সহভাগিতা, বন্ধুত্ব, সাহচর্য্য, উত্তম সঙ্গ! কোইনোনিয়া হল সহভাগিতা| সহভাগিতা হল স্থানীয় মন্ডলীর ‘‘আগাপে’’ প্রেমের প্রসার!

এই তো আমরা রয়েছি! আমরা আপনার জন্যে অপেক্ষা করছি! পরের রবিবার সকালে আসুন! পরের রবিবার রাত্রে আসুন! শনিবারের রাত্রে ফিরে আসুন! আসুন এবং অন্যদের ভিতরে আনতে আমাদের সাহায্য করুন! আসুন এবং আমাদের সাহায্য করুন সেই মন্ডলী নির্মান করতে যেখানে নবীন যুবকেরা আসতে পারেন এবং উত্তম বন্ধু তৈরী করতে পারেন; যেখানে যুবকেরা আনন্দ পাওয়ার জন্যে আসতে পারেন; যেখানে যুবকেরা খ্রীষ্টের শিষ্য হওয়ার জন্যে - এবং ক্রুশের সৈন্য হওয়ার জন্যে আসতে পারেন! আমেন! আট নম্বর গানটি দেখুন - ‘‘অগ্রসর হও, আজি খ্রীষ্টসেনা সব!’’ গানটি করুন!

অগ্রসর হও, আজি খ্রীষ্ট সেনা সব,
   সবে মিলে আইস করি বিজয় রব;
কর খ্রীষ্টের নামে গৌরব সংঘোষন;
   দূত ও নরে, সবে মিলে কর সংকীর্ত্তন|
অগ্রসর হও, আজি খ্রীষ্ট সেনা সব,
   সবে মিলে আইস, করি বিজয় রব|

ডঃ চান, অনুগ্রহ করে আমাদের প্রার্থনায় পরিচালিত করুন|


যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তাহলে ডঃ হাইমার্স আপনার কাছ থেকে কিছু শুনতে চান| যখন আপনি ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখবেন তখন অবশ্যই তাকে জানাবেন যে কোন দেশ থেকে আপনি তাকে লিখছেন নয়ত তিনি আপনার ই-মেলের জবাব দিতে সক্ষম হবেন না| যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তবে ডঃ হাইমার্সকে একট ই-মেল পাঠান এবং তাকে সেইকথা জানান, কিন্তু কোন দেশ থেকে আপনি লিখছেন চিঠিতে সেটা অবশ্যই অন্তর্ভূক্ত করবেন| ডঃ হাইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net (এখানে ক্লিক করুন) | আপনি যে কোন ভাষায় ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখতে পারেন, কিন্তু যদি পারেন তো ইংরাজিতেই লিখুন| যদি আপনি ডঃ হাইমার্সকে ডাক-ব্যবস্থার মাধ্যমে চিঠি পাঠাতে চান, তবে তার ঠিকানা হল P.O. Box 15308, Los Angeles, CA 90015 | আপনি তাকে (818)352-0452 নম্বরে ফোন করতে পারেন|

(সংবাদের পরিসমাপ্তি)
ডঃ হাইমার্সের সংবাদ আপনি প্রতি সপ্তাহে ইন্টারনেটে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে গিয়ে পড়তে পারেন| ক্লিক করুন “প্রচার পান্ডুলিপি|”

আপনি ডাঃ হাইমার্সকে মেইল পাঠাতে পারেন rlhymersjr@sbcglobal.net - আপনি
তাকে পত্র লিখতে পারেন P.O. Box 15308, Los Angeles, C A 90015.এই ঠিকানায়
। আপনি তাকে টেলিফোন করতে পারেন (818) 352-0452.

এই সুসমাচারের ম্যানুস্ক্রিপ্ট এর ওপর ডাঃ হাইমসের কোন কপিরাইট নেই। আপনারা
ইহা ব্যাবহার করতে পারেন ডাঃ হাইমসের অনুমতি ছাড়াই। অবশ্য, ভিডিও মেসেজ
সবই কপিরাইটের সহিত আছে এবং কেবলমাত্র তার অনুমতি নিয়েই ব্যাবহার করা যাবে।

সংবাদের আগে একক সংগীত পরিবেশন করেছেন মিঃ বেঞ্জামিন কিনকেড গ্রিফিত:
“The Church’s One Foundation” (by Samuel J. Stone, 1839-1900) |


খসড়া চিত্র

তিনটি শব্দ প্রাথমিক মন্ডলীর গুপ্ত বিষয় বলছে !

THREE WORDS GIVE THE SECRET
OF THE EARLY CHURCH!

ডঃ আর. এল. হেইমার্স, জুনিয়র

‘‘আর তাহারা প্রতিদিন একচিত্তে ধর্ম্মধামে নিবিষ্ট থাকিয়া এবং বাটীতে রুটি ভাঙ্গিয়া উল্লাসে ও হৃদয়ের সরলতায় খাদ্য গ্রহণ করিত; তাহারা ঈশ্বরের প্রশংসা করিত, এবং সমস্ত লোকের প্রীতির পাত্র হইল| আর যাহারা পরিত্রাণ পাইতেছিল, প্রভু দিন দিন তাহাদিগকে তাহাদের সহিত সংযুক্ত করিতেন’’ (প্রেরিত 2:46, 47)|

I.   প্রথমত, সেখানে একটা গ্রীক শব্দ “ক্যুরিওস” রয়েছে, প্রেরিত 10:36
I করিন্থীয় 1:23; 2:2; যোহন 10:28; মথি 16:24 |

II.  দ্বিতীয়ত, সেখানে “আগাপে” বলে একটি গ্রীক শব্দ আছে, যোহন 13:34,35 |

III. তৃতীয়ত, সেখানে ‘‘কোইনোনিয়া’’ বলে আর একটি গ্রীক শব্দ রয়েছে,
ইফিষীয় 5:11; মথি 9:13; প্রেরিত 2:42, 47 |