Print Sermon

এই সমস্ত প্রচারের পান্ডুলিপি এবং ভিডিওগুলি এখন প্রতি মাসে 215টিরও বেশি দেশের প্রায় 116,000 কম্প্যুটারে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে পাঠানো হয়| আরও শত শত লোক ইউ টিউবের ভিডিওর মাধ্যমে এগুলি দেখেন, কিন্তু খুব শীঘ্রই তারা ইউটিউব ছেড়ে বেরিয়ে যান, কারণ প্রত্যেকটি ভিডিও প্রচার তাদেরকে আমাদের ওয়েবসাইটের দিকে পরিচালিত করে| ইউটিউব আমাদের ওয়েব সাইটে লোক এনে দেয়| প্রচারের এই পান্ডুলিপিগুলি প্রতি মাসে 34টি ভাষায় প্রচারিত হয় হাজার হাজার লোকের কাছে| প্রচারের এই সব পান্ডুলিপিগুলি গ্রন্থসত্ত্ব দ্বারা সংরক্ষিত নয়, কাজেই প্রচারকগণ আমাদের অনুমতি ছাড়াই এইগুলি ব্যবহার করতে পারেন| মুসলিম এবং হিন্দু রাষ্ট্রসমেত, সমগ্র পৃথিবীতে সুসমাচার ছড়িয়ে দেওয়ার এই মহান কাজে সাহায্য করার জন্য কিভাবে আপনি একটি মাসিক অনুদান প্রদান করতে পারেন তা জানতে অনুগ্রহ করে এখানে ক্লিক করুন|

যখন আপনি ডঃ হেইমার্সকে লিখবেন সর্বদা তাকে জানাবেন যে আপনি কোন দেশে বাস করেন, অথবা তিনি আপনাকে উত্তর দিতে পারবেন না| ডঃ হেইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net |




উদ্দীপনার জন্য প্রার্থনা

PRAYING FOR REVIVAL
(Bengali)

লেখক : ডঃ আর. এল. হেইমার্স, জুনিয়র
by Dr. R. L. Hymers, Jr.

2016 সালের, 19শে আগষ্ট, শুক্রবার সন্ধ্যাবেলায়
লস্ এঞ্জেল্সের
ব্যাপটিষ্ট ট্যাবারন্যাক্ল মন্ডলীতে এই ধর্ম্মোপদেশটি
প্রচারিত হয়েছিল
A sermon preached at the Baptist Tabernacle of Los Angeles
Friday Evening, August 19, 2016


অনুগ্রহ করে প্রেরিত 1:8 পদটি খুলুন| এটা স্কোফিল্ড স্টাডি বাইবেলের 1148 পৃষ্ঠায় রয়েছে| আমি যখন পড়ব আপনারা অনুগ্রহ করে উঠে দাঁড়ান| এইগুলি হল সেই প্রথম বাক্য যা খ্রীষ্ট প্রথম খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের কাছে বলেছিলেন,

‘‘কিন্তু পবিত্র আত্মা তোমাদের উপরে আসিলে তোমরা শক্তিপ্রাপ্ত হইবে; আর তোমরা যিরূশালেমে, সমুদয় যিহূদীয়া ও শমরিয়া দেশে, এবং পৃথিবীর প্রান্ত পর্য্যন্ত আমার সাক্ষী হইবে’’ (প্রেরিত 1:8)|

আপনারা এবার বসতে পারেন|

কোন কোন প্রচারক বলেন যে এটা শুধুমাত্র পঞ্চসপ্তমীতে পবিত্র আত্মার প্রবাহণের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত| তারা বলেন যে আমরা আশা করতে পারি না যে আগে যেমন তিনি করেছিলেন সেইরকমভাবে পবিত্র আত্মা আমাদের কাছে নেমে আসবেন| তাদের মধ্যে অনেকেই ভয় পেতেন যে তাদের লোকেরা পেন্টিকোষ্টাল হয়ে যাবে যদি তারা তাদের বলেন যে পবিত্র আত্মার প্রবাহণ আজকে আসতে পারে| সুতরাং তারা অনুতাপের এবং মন পরিবর্তনের কাজকে প্রকাশিত করেন কারণ তারা পঞ্চসপ্তমীর তত্ত্বকে ভয় পেত|কিন্তু তারা ভুল করত যখন তারা বলত আমরা প্রত্যাশা করতে পারি না যে পবিত্র আত্মা আমাদের সময়ে নেমে আসবেন| আমাদের পাঠ্যাংশের শেষ আটটি শব্দ দেখাচ্ছে যে তারা ভুল ছিল, "এবং এমনকী পৃথিবীর প্রান্ত পর্য্যন্ত|" একটি আধুনিক অনুবাদ এইভাবে বলছে, "এবং এমনকী পৃথিবীর অতিদূর প্রান্তর পর্যন্ত|" যেহেতু প্রাচীন খ্রীষ্ট বিশ্বাসীরা জগতের "শেষসীমা" অথবা "দূরতম" প্রান্ত অবধি যাননি, যীশু সমস্ত খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের, সব সময়ের জন্য এইকথা বলতেন| তিনি তাদের, এবং আমাদের বলেছিলেন, "পবিত্র আত্মা তোমাদের উপর আসিলে, তোমরা শক্তিপ্রাপ্ত হইবে|" কিছুদিন পরেই প্রেরিত 2:39 পদে, পিতর যা বলেছিলেন তার দ্বারা এটা প্রমানিত হয়েছে| ঐ পদটি দেখুন|

‘‘কারণ এই প্রতিজ্ঞা [পবিত্র আত্মার] তোমাদের জন্য ও তোমাদের সন্তানদের জন্য এবং দূরবর্ত্তী সকলের জন্য যত লোককে আমাদের ঈশ্বর প্রভু ডাকিয়া আনিবেন’’(প্রেরিত 2:39)|

সুতরাং শিষ্যেরা সকলেই যিরূশালেমে ফিরে গিয়েছিলেন, এবং উপরের একটি ঘরে প্রার্থনা করার জন্যে প্রবেশ করেছিলেন| তারা কিসের জন্য প্রার্থনা করেছিলেন? তারা পবিত্র আত্মার শক্তির জন্যে প্রার্থনা করেছিলেন যা যীশু প্রতিজ্ঞা করেছিলেন যখন তিনি বলেছেন, "কিন্তু পবিত্র আত্মা তোমাদের উপরে আসিলে, তোমরা শক্তিপ্রাপ্ত হইবে" (প্রেরিত 1:8)| আমি ইয়ান এইচ. ম্যুরেʼর সঙ্গে সম্পূর্ণ সহমত হয়েছি| তিনি বলেছিলেন,

যেখানে পঞ্চসপ্তমী একটি যুগের প্রবর্তন করিয়াছে, সেখানে খ্রীষ্টের আত্মা প্রদায়ক কার্য্যের সমাপ্তি ঘটে নাই| এবং যাহা সমগ্র [খ্রীষ্টিয়] যুগকে চিহ্নিত করে আত্মার সেই পূর্ণমাত্রার যোগাযোগ, যাহা পঞ্চসপ্তমীতে শুরু হইয়াছিল, অবিরত এবং অপরিবর্তিত এইরূপ ছিল না; কারণ সেইরূপ থাকিলে, যেমন শিষ্যদের আরও বেশি করিয়া ঈশ্বরের আত্মার জন্য প্রার্থনা করিবার সুস্পষ্ট নির্দেশ দেওয়া হইয়াছিল সেই প্রার্থনার দ্বারা কোন উদ্দেশ্য সাধিত হইত? ইহা ছিল 'আমাদের প্রার্থনা করিতে শেখাও' এই অনুরোধের প্রতি উত্তর যাহাতে যীশু বলিয়াছিলেন, "অতএব তোমরা মন্দ হইয়াও যদি তোমাদের সন্তানদিগকে উত্তম উত্তম দ্রব্য দান করিতে জান, তবে ইহা কত অধিক নিশ্চয় যে, স্বর্গস্থ পিতা, যাহারা তাঁহার কাছে যাচ্ঞা করে, তাহাদিগকে পবিত্র আত্মা দান করিবেন" (লূক 11:13)| খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের নিকট এই প্রতিজ্ঞার কোন অব্যাহত প্রাসঙ্গিকতা থাকে না যদি না সেখানে সর্বদা বেশি করিয়া গ্রহণ করিবার কিছু থাকে (Iain H. Murray, Pentecost Today? The Biblical Understanding of Revival, The Banner of Truth Trust, 1998, p. 21) |

আলেক্সজান্ডার মুডী স্টুয়ার্ট বলেছিলেন, "যখন তাহার মন্ডলীতে পবিত্র আত্মা সর্বদা উপস্থিত আছেন, তখন সেখানে একটি সময় থাকে যখন তিনি আরও অধিক নিকটে আকর্ষণ করেন এবং প্রবলতর শক্তির সক্রিয়তা প্রদান করেন" (Murray, ibid., p. 22) |

কিন্তু 1859 সালের মহা উদ্দীপনার পর থেকে আমরা এটার খুব কমই দেখেছি, বাস্তবিকই খুব অল্প| আমি নিশ্চিত যে এর প্রধান কারণ হল সেই সত্য যে বেশির ভাগ সুসমাচারমূলক প্রচারকেরা আর বিশ্বাস করেন না যে মন পরিবর্তন হচ্ছে একটা অলৌকিক ঘটনা| আজকের দিনে বেশির ভাগ সুসমাচারমূলক প্রচারকেরা মনে করেন যে মন পরিবর্তন একটা মানবিক সিদ্ধান্তের চেয়ে বেশি কিছু নয়| তারা মনে করেন যে আপনাকে সবথেকে বেশি যা করতে হবে তা হল একজন হারানো মানুষকে প্ররোচিত করে তাকে দিয়ে তথাকথিত "পাপীর প্রার্থনা"র বাক্যগুলি বলানো| আপনি কেবলমাত্র ঐ শব্দগুলি উচ্চারণ করুন এবং পরিত্রাত হন! প্রত্যেকটি প্রচারের শেষে যোয়েল অস্টিন এই কথাই বলেন| তার কাছে একটি প্রার্থনা বাক্য বলার জন্য লোক রয়েছে| তারপরে তিনি বলেন, "আমরা বিশ্বাস করি আপনি যদি সেই কথাগুলি বলেছেন তাহলেই আপনি নূতন জন্ম লাভ করবেন|" আপনার দেখুন, এখানে পবিত্র আত্মার একটি অলৌকিক কাজ সম্পাদনের কোন প্রয়োজনই পড়ছে না! যদি আপনি সেই শব্দগুলি উচ্চারণ করেছেন "তাহলেই আপনি নূতন জন্ম লাভ করবেন|"

এটা হল প্রাচীন পেলেজিয়ানিজ্ম এর ভ্রান্ত মতবাদের প্রতি ফিরে যাওয়া - একটি মতবাদ যা শিক্ষা দেয় যে মানুষ তার নিজের পরিত্রাণ নিজেই আনতে সক্ষম - এই ক্ষেত্রে, মাত্র কয়েকটি কথা বলার দ্বারা! অথবা কোন খ্রীষ্টিয় সেবাকাজে "এগিয়ে" আসার দ্বারা - বা আপনার হাত তোলার দ্বারা! "আপনাদের মধ্যে যারা পরিত্রাণ পেতে চাইছেন, তারা কেবলমাত্র হাত তুলুন|" এই হচ্ছে অরূপান্তরিত পেলাজিয়ানিজ্ম! সেই প্রাচীন ভ্রান্ত মতবাদের প্রতি ফিরে যাওয়া, যা শিক্ষা দেয় যে একজন হারানো মানুষ নিজেকে পরিত্রাণ করতে পারে কয়েকটি ক্রিয়ার দ্বারা, অথবা প্রার্থনার বাক্য উচ্চারণের দ্বারা| আমি একে "যাদু প্রার্থনা" বলে থাকি| এটি খ্রীষ্ট বিশ্বাসের তুলনায় প্রকৃতপক্ষে যাদু| যাদুবিদ্যায় আপনি কিছু কথা বলেন, বা একটা নির্দ্দিষ্ট কিছু কাজ করে দেখান, এবং সেই কথা বা কাজগুলি একটি অতিপ্রাকৃতিক ফলাফল উৎপন্ন করে| মন পরিবর্তনের বিষয়ে আমাদের আধুনিক সুসমাচারমূলক ধারনার মাধ্যমেই "যাদু" সংক্রান্ত সমস্ত ধারনাগুলি পাওয়া গেছে! এই সমস্যার একটি পুঙ্খানুপুঙ্খ পরীক্ষার জন্য ডেভিড ম্যালকোম বেনেট'এর লেখা, The Sinner's Prayer : Its Origins and Dangers নামের বইটি পড়ুন, এমনকী সেটা প্রকাশ হওয়ার আগেই, n.d., যা Amazon.Com এ উপলব্ধ|

প্রত্যেকটি প্রকৃত মন পরিবর্তন হল অলৌকিক ঘটনা| অনুগ্রহ করে আমার সঙ্গে সঙ্গে মার্ক 10:26 পদটি দেখুন| এটা স্কোফিল্ড স্টাডি বাইবেলের 1059 পৃষ্ঠাতে আছে|

‘‘তখন তাঁহারা অতিশয় আশ্চর্য্য মনে করিলেন, কহিলেন, তবে কাহার পরিত্রাণ হইতে পারে? যীশু তাঁহাদের প্রতি দৃষ্টি করিয়া কহিলেন, ইহা মনুষ্যের অসাধ্য বটে...’’ (মার্ক 10:26, 27)|

তারা জিজ্ঞাসা করেছিলেন, "তবে কাহার পরিত্রাণ হইতে পারে?" যীশু উত্তর দিয়েছিলেন, "ইহা মনুষ্যের অসাধ্য বটে|" পাপী অবস্থায় মানুষ পরিত্রাত হওয়ার প্রতি বা এমনকী পরিত্রাত হওয়ার জন্য নিজেই নিজেকে সাহায্য করার প্রতি কোন কিছুই করতে পারে না! কিন্তু তখন যীশু বলেছিলেন, "কিন্তু ঈশ্বরের অসাধ্য নয়: কারণ ঈশ্বরের সকলই সাধ্য|" কোন একজন লোকের পরিত্রাণ হল ঈশ্বরের এক অলৌকিক কাজ! আমরা এই বছরে বেশ কয়েকটি আশাপূর্ণ মন পরিবর্তনের ঘটনা দেখেছে, যাদের মধ্যে একটি গত রাত্রিতে ঘটেছে| প্রত্যেকটি প্রকৃত মন পরিবর্তন হচ্ছে একটা অলৌকিক কাজ| পল কুক সঠিকভাবে বলেছিলেন, "কেবলমাত্র তীব্রতা এবং ব্যাপ্তির পরিপ্রেক্ষিত ব্যতীত উদ্দীপনার বৈশিষ্ট্যগুলি পবিত্র আত্মার স্বাভাবিক কাজের বৈশিষ্ট্যের চেয়ে কোন অংশেই পৃথক কিছু নয়" (Fire From Heaven, EP Books, 2009, p. 117)|

যখন একজন লোক মন পরিবর্তন করেন সেটা হয় ঈশ্বরের থেকে প্রাপ্ত একটা অলৌকিক কাজ| যখন খুব অল্প সময়ের মধ্যে অনেক লোক মন পরিবর্তন করেন সেটা হয় ঈশ্বরের থেকে প্রাপ্ত একটা অলৌকিক কাজ| একমাত্র পার্থক্য "কেবলমাত্র তীব্রতা এবং ব্যাপ্তির পরিপ্রেক্ষিত|" যখন আমরা উদ্দীপনার জন্য প্রার্থনা করি, তখন অনেক লোকের হৃদয়ে পবিত্র আত্মার একযোগে কাজ করার জন্য আমরা প্রার্থনা করি|

মন পরিবর্তনে পবিত্র আত্মা কি কাজ করেন? প্রথমত, "আর তিনি আসিয়া পাপের সম্বন্ধে... জগৎকে দোষী (অপরাধী) করিবেন" (যোহন 16:8)| পল কুক বলেছিলেন, "লোকেরা কখনো স্বাভাবিকভাবে তাহাদের পাপে অপরাধী হন না; স্বভাবগতভাবেই তাহারা স্বীয়-ন্যায্যতা প্রতিপাদন করেন| আত্মার একটি বিশেষ কাজের প্রয়োজন হয়| এবং যখন সেই আত্মা কাজ করে, পাপ জঘণ্য [ভয়ঙ্কর, বীভৎস] হইয়া পড়ে, এবং কোন একজন ব্যক্তিকে উহা ঘৃণা করিতে এবং ভুলিয়া যাইতে পরিচালিত করে|" যেমন একটি মেয়ে বলেছিল, "আমি আমার প্রতি নিদারুণ বিরক্ত ছিলাম|" এটা হচ্ছে অপরাধের চেতনার যতটা সম্ভব ভাল একটা সংজ্ঞা যা আমি এখন পর্যন্ত দেখেছি| "আমি আমার প্রতি নিদারুণ বিরক্ত ছিলাম|" যদি আপনার মধ্যে পাপের বিষয়ে কমপক্ষে ঐ ধরনের কিছুটা অনুভূতি না থাকে, তাহলে আপনার প্রকৃত মন পরিবর্তন হবে না| সুতরাং যারা অপরিত্রাত রয়েছেন তাদের মধ্যে পাপের চেতনা দিতে পবিত্র আত্মার কাজ করার জন্য আমরা অবশ্যই প্রার্থনা করব|

মন পরিবর্তনের সময়ে দ্বিতীয় যে কাজটি পবিত্র আত্মা করেন তা হল সেই ব্যক্তিকে খ্রীষ্ট চিনিয়ে দেওয়ার কাজ যিনি পাপের চেতনার অধীনে আছেন| যীশু বলেছিলেন, "কেননা যাহা আমার, তাহাই লইয়া তোমাদিগকে জানাইবেন" (যোহন 16:14)| একটি আধুনিক অনুবাদ এই রকমভাবে বলতে পারে, "তিনি...আমার যাহা কিছু তাহা লইবেন এবং তাহাই তোমাদের জানাইবেন|" একজন হারানো মানুষ ব্যক্তিগতভাবে কখনো খ্রীষ্টকে জানতে পারেন না যদি না পবিত্র আত্মা তাকে সেটা জানান| কিন্তু যদি আপনি পাপের জন্য অনুতপ্ত না হন, তাহলে আপনার পরিত্রাণে পবিত্র আত্মা খ্রীষ্টকে আপনার কাছে বাস্তবায়িত করবেন না|

সুতরাং, আমরা যখন পবিত্র আত্মার পূর্ণ শক্তিতে নেমে আসার জন্য প্রার্থনা করি, আমরা প্রধানত চাই ঈশ্বর আত্মা প্রেরণ করুন (1) যেন হারানো-মানুষ তার পাপী-স্বভাবের জন্য অনুতাপ করেন, এবং (2) যেন পবিত্র আত্মা সেই ব্যক্তির কাছে খ্রীষ্টকে প্রকাশ করেন তার জন্য আমরা অবশ্যই প্রার্থনা করি, যাতে তার কৃত পাপ থেকে তাকে শুচি করার প্রতি খ্রীষ্টের রক্তের শক্তিকে তিনি প্রকৃতভাবে জানতে পারেন| যোহনের 16 অধ্যায়ে যেমন প্রকাশিত হয়েছে যে, একটি প্রকৃত মন পরিবর্তনে পাপের চেতনা আনা এবং খ্রীষ্টের রক্তের দ্বারা শুচিকৃত করাই হল ঈশ্বরের আত্মার দুটি প্রধান কাজ| ব্রেইন এইচ. এডওয়ার্ড বলেছিলেন, "আজকের দিনে যখন তাহাদের উদ্দীপনার জন্য প্রার্থনা করিতে বলা হয় তখন খুব বেশি সংখ্যক খ্রীষ্ট বিশ্বাসী বোঝেন না যে কি প্রার্থনা করিতে হইবে" (Brian H. Edwards, Revival, Evangelical Press, 2004 edition, p. 80)|

কিসের জন্য প্রার্থনা করতে হবে সেটা তারা জানেন না তার কারণগুলির একটা হল এই যে হারানো লোকদের পাপের অনুতাপের অধীনে আনার প্রয়োজনীয়তাটি বর্তমানে বেশির ভাগ খ্রীষ্ট বিশ্বাসী অনুভব করেন না, এবং "মন পরিবর্তনের সংকট" তারা বিশ্বাস করেন না যেমন আমাদের পূর্ব্বপুরুষেরা করতেন| কিন্তু আমি আপনাদের বলেছি যে আমাদের অবশ্যই প্রার্থনা করতে হবে যাতে পবিত্র আত্মা নেমে আসেন এবং হারানো লোকদের পাপের অনুতাপের অধীনে এনে আমাদের মন্ডলীতে যোগদান করান| যদি তারা পাপের অনুতাপের অধীনে না আসেন তাহলে তারা পরিত্রাত হবেন না|

আর তারপরে, কি প্রার্থনা করতে হবে সেটা যে বেশির ভাগ সুসমাচারমূলক প্রচারকরা জানেন না তার অন্য একটা কারণ হল বর্তমানে অধিকাংশ সুসমাচারমূলক প্রচারকরা মন পরিবর্তনে "সংকট" বিশ্বাস করেন না, যেমন আমাদের পূর্ব্বপুরুষেরা করতেন| আমাদের পূর্ব্বপুরুষেরা বলেছিলেন যে পাপের অনুতাপের অধীনস্থ কোন ব্যক্তি "জাগ্রত" থাকেন, কিন্তু তখনও তিনি পরিত্রাত হন না| আমাদের পূর্ব্বপুরুষেরা বলেছিলেন যে একজন জাগ্রত মানুষের পাপ থেকে মুখ ঘুরিয়ে নেওয়ার যন্ত্রণার মধ্যে দিয়ে যাওয়ার প্রয়োজন হয়, ঠিক যেমন সন্তান প্রসবের জন্য একজন মহিলাকে গর্ভযন্ত্রণার মধ্যে দিয়ে যেতে হয়| আমাদের পূর্ব্বপুরুষেরা বলেছেন, শুধুমাত্র এই পথে, একজন লোক মন পরিবর্তনের যথার্থ অভিজ্ঞতা পেতে পারত (cf. the conversion of “Christian” in Pilgrim’s Progress)|

জন্ শ্যামূয়েল কেগান একটি পরিস্কার মন পরিবর্তন সংকটের অভিজ্ঞতা অর্জন করেছিলেন| তার মন পরিবর্তন ছিল জন্ ব্যানিয়ানের মতন, তথাকথিত আধুনিক সুসমাচারমূলক প্রচারকদের মতন নয়|

      আমার মন পরিবর্তনের পূর্বে আমি মৃতের ন্যায় অনুভব করিয়াছিলাম...আমি শান্তির কোন রূপ খুঁজিয়া পাই নাই...সেই সময়ে পবিত্র আত্মা খুব নিশ্চিতভাবে আমাকে আমার পাপের চেতনা দিতে শুরু করিয়াছিলেন, কিন্তু আমার সমগ্র ইচ্ছাশক্তি দিয়া আমি ঈশ্বর এবং মন পরিবর্তন সম্বন্ধে আমার সমস্ত ধারনাগুলি প্রত্যাখ্যান করিয়াছিলাম| এই বিষয়ে চিন্তা করিতে আমি অস্বীকার করিয়াছিলাম, তথাপি এত নিদারুণ যন্ত্রণা অনুভব করা বন্ধ করিতে পারি নাই| 2009 সালের, 21শে জুন, রবিবারের সকালের মধ্যেই আমি সম্পূর্ণরূপে পরিশ্রান্ত হইয়া পড়িয়াছিলাম| আমি এই বিষয়ে খুবই ক্লান্ত হইয়া পড়িয়াছিলাম| আমি নিজেকে, নিজের পাপকে ঘৃণা করিতে শুরু করিয়াছিলাম এবং কিভাবে ইহা আমাকে অনুভব করাইল|
      যখন ডঃ হেইমার্স প্রচার করিতেছিলেন, তখন আমার গর্ব তাহা প্রত্যাখ্যান করিতে, তাহা না শুনিতে নিদারুণভাবে সচেষ্ট ছিল, কিন্তু তিনি যেমন প্রচার করিতেছিলেন তাহাতে আমি আমার সমস্ত পাপ আমার আত্মার উপরে আক্ষরিকভাবে অনুভব করিতে পারিলাম| কখন প্রচার শেষ হইবে তাহার জন্য আমি সেকেন্ডের বিপরীত গণনা করিতেছিলাম, কিন্তু পালক প্রচার চালাইয়া যাইতেছিলেন, এবং আমার পাপসমূহ অন্তহীনভাবে মন্দ হইতে মন্দ হইতেছিল| আমি আর দীর্ঘক্ষণ ব্যর্থ প্রতিরোধের জন্য নিজেকে পদাঘাত করিতে পারিতেছিলাম না, আমাকে উদ্ধার পাইতেই হইত! এমনকী যখন আমন্ত্রণ জানানো হইল তখনও আমি প্রতিরোধ করিয়াছিলাম, কিন্তু আমি উহা আর কোনভাবেই সহ্য করিতে পারি নাই| আমি জানিতাম যে আমি ছিলাম যতটা সম্ভব হইতে পারে ততটাই মন্দ পাপী এবং আমাকে নরকে যাওয়ার মতন দোষী সাব্যস্ত করতে ঈশ্বর ন্যায়নিষ্ঠ ছিলেন| সংগ্রাম করার পক্ষে, আমার যা আছে তার সমস্ত কিছুর জন্যে আমি যথেষ্ট ক্লান্ত ছিলাম| পালক আমাকে পরামর্শ দিয়াছিলেন, এবং খ্রীষ্টের নিকটে আসিতে বলিয়াছিলেন, কিন্তু আমি আসি নাই| এমনকী যদিও আমার সমস্ত পাপ আমাকে অপরাধী সাব্যস্ত করিয়াছিল তাহা সত্ত্বেও আমি যীশুকে পাই নাই| এই মুহূর্ত্তগুলি ছিল সর্বাপেক্ষা মন্দ যেহেতু আমি অনুভব করিতাম যেন আমি পরিত্রাত হইব না এবং আমাকে ঠিক নরকে যাইতে হইবে| আমি পরিত্রাত হইবার "চেষ্টা" করিতেছিলাম, আমি খ্রীষ্টকে বিশ্বাস করিবার "চেষ্টা" করিতেছিলাম এবং আমি পারি নাই, আমি নিজের ইচ্ছা শুধু খ্রীষ্টের প্রতি দিতে পারি নাই, এবং ইহা আমাকে আশাহীন অনুভূত করাইয়াছিল| আমি অনুভব করিতে পারিতাম যে আমার পাপ আমাকে নীচে নরকের দিকে ঠেলিয়া দিতেছে তাহা সত্ত্বেও আমি অনুভব করিতে পারিতাম আমার অনমনীয়তা বলপূর্বক আমার অশ্রুজল দূরে সরাইয়া দিতেছে| আমি এই দ্বন্দের মধ্যে আটকাইয়া পড়িয়াছিলাম|
      হঠাৎ করিয়া বহুবছর আগে প্রচারিত একটি ধর্ম্মোপদেশের বাক্য আমার মনের মধ্যে প্রবেশ করিয়াছিল: "খ্রীষ্টের প্রতি আত্মসমর্পণ কর! খ্রীষ্টের প্রতি আত্মসমর্পণ কর!" সেই ভাবনা যে আমাকে যীশুর প্রতি নিজেকে বিসর্জন দিতে হইবে আমাকে এতই আকুল করিয়া তুলিয়াছিল যে যাহাকে চিরকালের ন্যায় করিব বলিয়া বোধ হইত আমি সহজভাবে আর তাহা করিব না| যীশু আমার জন্য তাঁর জীবন দিয়াছেন| আমার জন্য প্রকৃত যিশু ক্রুশারোপিত হওয়ার প্রতি গিয়াছেন যখন আমি তাঁহার শত্রু ছিলাম এবং আমি তাঁহার প্রতি আত্মসমর্পণ করি নাই| এই চিন্তা আমাকে ভগ্ন করিয়াছিল; এই সকলই আমাকে ভাবিতে হইয়াছিল| আমি আর নিজেকে ধরিয়া রাখিতে পারি নাই, আমাকে যীশুকে পাইতেই হইয়াছিল! সেই মুহূর্ত্তে আমি তাঁহার প্রতি আত্মসমর্পণ করিয়াছিলাম এবং বিশ্বাসে যীশুর নিকটে আসিয়াছিলাম| সেই মুহূর্ত্তে ইহা মনে হইতেছিল যেন মরিবার জন্য আমি স্বয়ংকে দিতে চলিয়াছি, এবং তখন খ্রীষ্ট আমাকে জীবন দান করিতেছেন! আমার হৃদয় ব্যতীত আমার মনের কোন সক্রিয়তা বা ইচ্ছা কিন্তু সেখানে ছিল না, খ্রীষ্টে সরল অবলম্বন করাতে, তিনি আমাকে রক্ষা করিয়াছিলেন! তার রক্ত দিয়া তিনি আমার পাপ ধৌত করিয়া দূরে সরাইয়া দিয়াছিলেন! সেই একটি মুহূর্ত্তে, আমি খ্রীষ্টের বিরোধিতা করা হইতে বিরত হইলাম| ইহা এতই স্বচ্ছ যে আমাকে যাহা করিতে হইয়াছিল তাহা হইল কেবল তাঁহাকে বিশ্বাস করা; আমি সেই সঠিক মুহূর্তটি চিহ্নিত করিতে পারিলাম যখন আমি নিবৃত্ত হইলাম এবং শুধুই খ্রীষ্ট থাকিলেন| আমাকে আত্মসমর্পণ করিতে হইয়াছিল! সেই মুহূর্তে সেখানে কোন শারীরিক অনুভূতি বা আচ্ছন্নকারী আলোক ছিল না, আমার কোন অনুভূতির প্রয়োজন হয় নাই, আমার খ্রীষ্ট ছিল! ইহা ছাড়াও যীশুকে বিশ্বাস করিয়া ইহা অনুভব করিতেছিলাম যেন আমার পাপ আমার আত্মা হইতে উঠাইয়া লওয়া হইয়াছে| আমি আমার পাপ হইতে ঘুরিয়া দাঁড়াইলাম এবং আমি শুধু যীশুর প্রতি তাকাইলাম! যীশু আমাকে রক্ষা করিয়াছিলেন|
      কিভাবে যীশু আমাকে অবশ্যই ভালবাসিয়াছিলেন এই নূন্যতম যোগ্য পাপীকে ক্ষমা করিবার জন্য যিনি একটি উত্তম মন্ডলীতে বড় হইয়াছেন এবং তাহা সত্ত্বেও এখনো তাঁহার বিরুদ্ধে রহিয়াছেন! আমার মন পরিবর্তনের বর্ণনা এবং খ্রীষ্টের জন্য আমার ভালবাসার বর্ণনা করিতে মনে হয় যেন যথেষ্ট পরিমানে শব্দ নাই| আমার জন্য খ্রীষ্ট জীবন দিয়াছিলেন এবং এই কারণে আমি আমার সর্বস্ব তাঁহাকে দিয়াছি| এমনকী যদিও আমি তাঁহার মন্ডলীতে থুতু দিয়াছিলাম এবং তাঁহার পরিত্রাণকে বিদ্রুপ করিয়াছিলাম তাহা সত্ত্বেও আমার জন্য খ্রীষ্ট একটি ক্রুশের বিনিময়ে নিজের সিংহাসন উৎসর্গ করিয়াছিলেন; কিভাবে আমি কখনও পর্যাপ্ত পরিমানে তাঁহার প্রেম এবং দয়া প্রচার করিতে পারি? যীশু আমার ঘৃণা এবং ক্রোধ দূরে সরাইয়া দিয়াছেন ও তাহার পরিবর্তে আমাকে ভালবাসা দিয়াছেন| শুধু একটি নূতন যাত্রারম্ভের তুলনায় তিনি আমাকে অনেক বেশি দিয়াছেন - তিনি আমাকে একটি নূতন জীবন দান করিয়াছেন|

আমি ডঃ মার্টিন লয়েড-জোন্সের সঙ্গে একমত যে রোমীয় 7 এর শেষ দুটি পদে প্রেরিত পৌল আমাদেরকে প্রকৃত মন পরিবর্তনের একটি উদাহরণ দিয়েছেন| ডঃ লয়েড-জোন্স বলেছিলেন এই পদগুলি পৌলের মন পরিবর্তনের বর্ণনা দেয়| আমি একমত| পৌল বলেছিলেন,

‘‘দুর্ভাগ্য মনুষ্য আমি! এই মৃত্যুর দেহ হইতে কে আমাকে নিস্তার করিবে’’ (রোমীয় 7:24)|

এই হল অনুতাপ! - যখন পাপী নিজেকে ছেড়ে দেয় এবং তার পাপপূর্ণ হৃদয়ের জন্য নিদারুণ বিরক্ত হয় যা তাকে ক্রীতদাস বানিয়ে রেখেছে| কিন্তু তখন পৌল বলেছেন,

‘‘আমাদের প্রভু যীশু খ্রীষ্ট দ্বারা আমি ঈশ্বরের ধন্যবাদ করি’’ (রোমীয় 7:25)|

এই হল মন পরিবর্তন - যখন যন্ত্রণা পীড়িত পাপী প্রভু যীশু খ্রীষ্টের দ্বারা উদ্ধার প্রাপ্ত হন! এটা এইরকম, প্রথমবারের জন্য, যে সেই পাপী, যাকে বোঝান হয়েছে যে সে হল পাপের আশাহীন ক্রীতদাস, শেষ পর্যন্ত যীশুর প্রতি ফিরে আসে এবং তাঁর রক্তের দ্বারা পাপ থেকে শুচি হয়| আমাদের সময়ের দুঃখদায়ক ঘটনাগুলির মধ্যে সবচেয়ে বড় ঘটনা হল যে অধিকাংশ সুসমাচার প্রচারকগণ কখনও কোন ব্যক্তিকে এই দুটি সর্ব-গুরুত্বপূর্ণ অভিজ্ঞতার মধ্যে দিয়ে যাওয়ার অনুমতি দেন না| বিবেকের প্রথম বেদনাতেই, অথবা হতে পারে এমনকী তাতেও নয়, সেই সিদ্ধান্তবাদী তাদের দিয়ে পাপীর প্রার্থনা বলিয়ে নেয়| আমি বিশ্বাস করি আমাদের কাছে সেটাই হল একমাত্র গুরুত্বপূর্ণ কারণ যে 1859 সালের পর থেকে আমরা আমেরিকাতে একটিও রাষ্ট্র-পরিবর্তনকারী উদ্দীপনা দেখিনি|

সুতরাং, আপনি যদি চান যে আমাদের মন্ডলী একটি উদ্দীপনার অভিজ্ঞতা লাভ করুক তাহলে এই সমস্ত বিষয়গুলির জন্য আপনি অবশ্যই প্রার্থনা করুন| প্রথমত, হারানো লোকদের মধ্যে পাপের চেতনা আনতে ঈশ্বরকে তাঁর আত্মা প্রেরণের জন্য প্রার্থনা করুন| দ্বিতীয়ত, তাদের প্রতি যীশুর প্রকাশ ঘটাতে এবং তাঁর প্রতি তাদের আকর্ষণ করতে, ক্রুশের উপরে তাঁর মৃত্যুর মাধ্যমে তাদের ক্ষমা করতে, এবং তাঁর বহুমূল্য রক্তের মাধ্যমে পাপ থেকে তাদের শুচি করতে ঈশ্বরের আত্মার জন্য প্রার্থনা করুন!

পালক ব্রিয়ান এইচ. এডওয়ার্ডস্ বলেছিলেন যে উদ্দীপনার প্রার্থনাগুলি "মন পরিবর্তিত, উদ্বিগ্ন (জাগরিত), এবং অ-জাগরিতদের" উপরে মনোনিবেশ করে থাকে (Revival, Evangelical Press, 2004 edition, p. 127)| উদ্দীপনার প্রার্থনাগুলি "মন পরিবর্তিত"দের আর একইসঙ্গে "উদ্বিগ্ন" এবং "অ-জাগরিত"দের উপরে মনোনিবেশ করে কেন? কারণ যারা মন পরিবর্তন করেছেন তারা পশ্চাদপসারন করতে পারেন| প্রথম চীনা ব্যাপটিষ্ট মন্ডলীতে উদ্দীপনা শুরু হয়েছিল পরিত্রাণ প্রাপ্ত লোকদের মধ্যে যাদের হৃদয়ে পাপ ছিল| তারা চোখের জলে, সকলের সামনে খোলাখুলিভাবে, নিজেদের পাপ স্বীকার করতে শুরু করেছিলেন| কোন কোন লোকের মনে মন্ডলীর অন্য লোকদের প্রতি তিক্ততা ছিল| কেউ কেউ নিজেদের জীবনে গোপন পাপ প্রবেশের অনুমতি দিয়েছিলেন| তারা পাপের অজুহাত খাড়া করেছিলেন, বলেছিলেন যে এতে কিছু আসে যায় না| কিন্তু যেমনি পবিত্র আত্মা নেমে আসলেন, তারা ভগ্নহৃদয় হয়ে পড়লেন| তারা অনুভব করলেন নিজেদের প্রার্থনায় তারা শীতল এবং মৃত ছিলেন| তারা অনুভব করেছিলেন যে মন্ডলীর অন্যান্য সকলের প্রতি তারা তিক্ত এবং ক্রোধী ছিলেন| অন্যান্যরা কোন কাজ করতে অস্বীকার করেছিলেন যা তারা জানতেন ঈশ্বর তাদের দিয়ে করাতে চান|

আমাদের মন্ডলীতে হয়তো একজন খ্রীষ্ট বিশ্বাসী আছেন যিনি কোন কিছু করতে ঈশ্বরের বাধ্য হতে অস্বীকার করেন| এটা উদ্দীপনায় বাধা দিতে পারে! কেন্টাকির, উইলবোর শহরে অবস্থিত এসব্যুরি কলেজে 1970 সালে যখন উদ্দীপনা এসেছিল তখন শতাধিক যথার্থভাবে মন পরিবর্তিত ছাত্ররা অনুভব করেছিল যে তাদের পাপ স্বীকার করতে হবে... জনসমক্ষে| তারা লাইনে দাঁড়িয়ে, কখনও ঘন্টার পর ঘন্টা ধরে, অপেক্ষা করেছিল চ্যাপেলের মাইক্রোফোনটি পাওয়ার জন্য যাতে তারা স্বীকার করতে পারেন...তাদের [অবাধ্যতা] এবং প্রার্থনা যাচ্ঞা করতে পারেন|

যিনি এসব্যুরি সভা পরিচালনা করছিলেন সেই লোকটি প্রচার করেননি| পরিবর্তে, তিনি সংক্ষেপে নিজের সাক্ষ্য প্রদান করেছিলেন, এবং তারপরে ছাত্রদের তাদের নিজস্ব খ্রীষ্টিয় অভিজ্ঞতার বিষয়ে কথা বলার জন্য একটি আমন্ত্রণ জানিয়েছিলেন| সেই বিষয়ে বিশেষভাবে কোন অস্বাভাবিকতা ছিল না| তার প্রস্তাবে একজন ছাত্র সাড়া দিয়েছিল| তারপরে আর একজন| তারপরে আর একজন| "তাহার পরে তাহারা বেদী পূর্ণ করিতে শুরু করিয়াছিলেন," তিনি বলেছিলেন| "ইহা ভাঙ্গিয়া পড়িয়াছিল|" ক্রমাগতভাবে, অনির্বচনীয়ভাবে, ছাত্র এবং ফ্যাকাল্টি সদস্যগণ নিজেদের শান্তভাবে প্রার্থনা করতে, কাঁদতে, গান করতে দেখলেন| তারা অন্যান্য লোকদের অন্বেষণ করছিলেন যাদের প্রতি তারা অন্যায় আচরণ করেছিলেন এবং ক্ষমাভিক্ষা করছিলেন| এই চ্যাপেলের সভা আটদিন পর্য্যন্ত চলেছিল [24 ঘন্টায় একদিন]|

এস্ব্যুরি উদ্দীপনার সঙ্গে প্রায় একই সময়ে, প্রথম চীনা ব্যাপটিষ্ট মন্ডলীতেও ঠিক এই ধরনের ঘটনা ঘটেছিল| এটা ঘন্টাধিক সময় নিয়ে চলেছিল, যখন চীনা যুবকেরা স্বীকারোক্তি দিয়েছিলেন এবং প্রার্থনা করেছিলেন| 1910 সালের কোরিয়া উদ্দীপনায় উন্মুক্ত স্বীকারোক্তি দান খুব সাধারন একটা ব্যাপার ছিল| বর্তমানে চীন দেশে হওয়া মহান উদ্দীপনায়, খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের দ্বারা প্রদত্ত, সজলচোখে, উন্মুক্ত স্বীকারোক্তি সেখানকার একটি সাধারন ঘটনা| এমনকী রবার্টস্ কেঁদে বলেছিলেন, "প্রভু, আমাকে অবনত কর," যখন তিনি ঈশ্বরের কাছে আত্মসমর্পণ করেছিলেন এবং 1905 সালের ওয়াল্শ উদ্দীপনায় নেতা হয়েছিলেন| আপনি কি করবেন? ঈশ্বর যেন আপনাকে অবনত করেন তার জন্য কি আপনি প্রার্থনা জানাবেন? "হে ঈশ্বর, আমাকে অনুসন্ধান কর" গানটি করুন|

"হে ঈশ্বর, আমাকে অনুসন্ধান কর, এবং আমার অন্তঃকরন জ্ঞাত হও:
আমার পরীক্ষা কর আর আমার চিন্তাসকল জ্ঞাত হও:
আর আমার অন্তঃকরন জ্ঞাত হও;
আমার পরীক্ষা কর আর আমার চিন্তাসকল জ্ঞাত হও;
আর দেখ আমাতে দুষ্টতার পথ পাওয়া যায় কি না,
এবং সনাতন পথে আমাকে গমন করাও|"
   (গীতসংহিতা 139:23, 24)|

প্রার্থনা করি, জীবন্ত ঈশ্বরের আত্মা, নেমে এসো|
প্রার্থনা করি, জীবন্ত ঈশ্বরের আত্মা, নেমে এসো|
আমাকে বিগলিত কর, গঠন কর, ভগ্ন কর, অবনত কর|
প্রার্থনা করি, জীবন্ত ঈশ্বরের আত্মা, নেমে এসো|

উদ্দীপনায় যদি ঈশ্বর তাঁর আত্মা প্রেরণ করেন তবে আমাদের মন্ডলীতেও ঐরকম ঘটতে পারে| "হে ঈশ্বর, আমাকে অনুসন্ধান কর|" গানটি নরমসুরে করুন|

"হে ঈশ্বর, আমাকে অনুসন্ধান কর, এবং আমার অন্তঃকরন জ্ঞাত হও:
আমার পরীক্ষা কর আর আমার চিন্তাসকল জ্ঞাত হও:
আর আমার অন্তঃকরন জ্ঞাত হও;
আমার পরীক্ষা কর আর আমার চিন্তাসকল জ্ঞাত হও;
আর দেখ আমাতে দুষ্টতার পথ পাওয়া যায় কি না,
এবং সনাতন পথে আমাকে গমন করাও|"
   (গীতসংহিতা 139:23, 24)|

আমেন|


যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তাহলে ডঃ হাইমার্স আপনার কাছ থেকে কিছু শুনতে চান| যখন আপনি ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখবেন তখন অবশ্যই তাকে জানাবেন যে কোন দেশ থেকে আপনি তাকে লিখছেন নয়ত তিনি আপনার ই-মেলের জবাব দিতে সক্ষম হবেন না| যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তবে ডঃ হাইমার্সকে একট ই-মেল পাঠান এবং তাকে সেইকথা জানান, কিন্তু কোন দেশ থেকে আপনি লিখছেন চিঠিতে সেটা অবশ্যই অন্তর্ভূক্ত করবেন| ডঃ হাইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net (এখানে ক্লিক করুন) | আপনি যে কোন ভাষায় ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখতে পারেন, কিন্তু যদি পারেন তো ইংরাজিতেই লিখুন| যদি আপনি ডঃ হাইমার্সকে ডাক-ব্যবস্থার মাধ্যমে চিঠি পাঠাতে চান, তবে তার ঠিকানা হল P.O. Box 15308, Los Angeles, CA 90015 | আপনি তাকে (818)352-0452 নম্বরে ফোন করতে পারেন|

(সংবাদের পরিসমাপ্তি)
ডঃ হাইমার্সের সংবাদ আপনি প্রতি সপ্তাহে ইন্টারনেটে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে গিয়ে পড়তে পারেন| ক্লিক করুন “প্রচার পান্ডুলিপি|”

আপনি ডাঃ হাইমার্সকে মেইল পাঠাতে পারেন rlhymersjr@sbcglobal.net - আপনি
তাকে পত্র লিখতে পারেন P.O. Box 15308, Los Angeles, C A 90015.এই ঠিকানায়
। আপনি তাকে টেলিফোন করতে পারেন (818) 352-0452.

এই সুসমাচারের ম্যানুস্ক্রিপ্ট এর ওপর ডাঃ হাইমসের কোন কপিরাইট নেই। আপনারা
ইহা ব্যাবহার করতে পারেন ডাঃ হাইমসের অনুমতি ছাড়াই। অবশ্য, ভিডিও মেসেজ
সবই কপিরাইটের সহিত আছে এবং কেবলমাত্র তার অনুমতি নিয়েই ব্যাবহার করা যাবে।