Print Sermon

এই সমস্ত প্রচারের পান্ডুলিপি এবং ভিডিওগুলি এখন প্রতি মাসে 215টিরও বেশি দেশের প্রায় 116,000 কম্প্যুটারে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে পাঠানো হয়| আরও শত শত লোক ইউ টিউবের ভিডিওর মাধ্যমে এগুলি দেখেন, কিন্তু খুব শীঘ্রই তারা ইউটিউব ছেড়ে বেরিয়ে যান, কারণ প্রত্যেকটি ভিডিও প্রচার তাদেরকে আমাদের ওয়েবসাইটের দিকে পরিচালিত করে| ইউটিউব আমাদের ওয়েব সাইটে লোক এনে দেয়| প্রচারের এই পান্ডুলিপিগুলি প্রতি মাসে 34টি ভাষায় প্রচারিত হয় হাজার হাজার লোকের কাছে| প্রচারের এই সব পান্ডুলিপিগুলি গ্রন্থসত্ত্ব দ্বারা সংরক্ষিত নয়, কাজেই প্রচারকগণ আমাদের অনুমতি ছাড়াই এইগুলি ব্যবহার করতে পারেন| মুসলিম এবং হিন্দু রাষ্ট্রসমেত, সমগ্র পৃথিবীতে সুসমাচার ছড়িয়ে দেওয়ার এই মহান কাজে সাহায্য করার জন্য কিভাবে আপনি একটি মাসিক অনুদান প্রদান করতে পারেন তা জানতে অনুগ্রহ করে এখানে ক্লিক করুন|

যখন আপনি ডঃ হেইমার্সকে লিখবেন সর্বদা তাকে জানাবেন যে আপনি কোন দেশে বাস করেন, অথবা তিনি আপনাকে উত্তর দিতে পারবেন না| ডঃ হেইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net |




উদ্দীপনার একটি দর্শন

A VISION OF REVIVAL
(Bengali)

লেখক : ডঃ আর. এল. হেইমার্স, জুনিয়র
by Dr. R. L. Hymers, Jr.

2016 সালের, 3রা জুলাই, প্রভুর দিনের সন্ধ্যাবেলায় লস্ এঞ্জেল্সের
ব্যাপটিষ্ট ট্যাবারন্যাক্ল মন্ডলীতে এই ধর্ম্মোপদেশটি প্রচারিত হয়েছিল
A sermon preached at the Baptist Tabernacle of Los Angeles
Lord's Day Evening, July 3, 2016


আমার সঙ্গে সঙ্গে যিশাইয় 64:1 পদটি খুলুন| এটা স্কোফিল্ড স্টাডি বাইবেলের 768 পৃষ্ঠাতে আছে|

‘‘আহা, তুমি আকাশমন্ডল বিদীর্ণ করিয়া নামিয়া আইস, পর্ব্বতগণ তোমার সাক্ষাতে কম্পিত হউক; যেমন অগ্নি ঝোপ প্রজ্জ্বলিত করে, যেমন অগ্নি জল ফুটায় [তদ্রূপ হউক]; তোমার বিপক্ষদিগকে তোমার নাম জ্ঞাত কর; তোমার সাক্ষাতে জাতিগণ কম্পমান হউক| যখন তুমি ভয়ানক কার্য্য করিয়াছিলে, যাহার অপেক্ষা আমরা করি নাই, তখন তুমি নামিয়া আসিয়াছিলে, তোমার সাক্ষাতে পর্ব্বতগণ কম্পিত হইয়াছিল| কারণ, পুরাকাল অবধি লোকে শুনে নাই, কর্ণে অনুভব করে নাই, চক্ষুতে দেখে নাই যে, তোমা ভিন্ন আর কোন ঈশ্বর আছেন, যিনি তাঁহার অপেক্ষাকারীর পক্ষে কার্য্য সাধন করেন’’ (যিশাইয় 64:1-4)|

আমেন| আপনারা বসতে পারেন|

সাধারনত উদ্দীপনা তাদের মধ্যেই প্রথমে আসে যারা ইতিমধ্যেই মন পরিবর্তন করেছেন| কিন্তু তাদের জীবনে ঈশ্বরের উপস্থিতির সম্বন্ধে তাদের প্রকৃত সচেতনতা থাকে না| তারা অভ্যাসের বশে মন্ডলীতে আসেন, কিন্তু ঈশ্বরের উপস্থিতির জীবন্ত অনুভূতি তাদের নেই| তারা প্রার্থনা করেন, কিন্তু মনে হয় যেন তারা বাক্যগুলি শুধুমাত্র উচ্চারন করছেন| তাদের সেই অনুভূতি নেই যে ঈশ্বর যথার্থভাবেই তাদের কথা শুনছেন| তারা এটা অনুভব করে না যে তাদের প্রার্থনার উত্তর দেওয়া হবে| ঈশ্বর তাদের কথা শুনছেন এই অনুভূতি তাদের হয় না| এমনকী প্রার্থনা সভাতে তারা অতীব সুন্দরভাবে প্রার্থনাও করেন| তাদের প্রার্থনা শুনতে খুব শক্তিশালী বলে মনে হতে পারে| কিন্তু ঈশ্বরের সাথে তাদের গভীর অন্তরঙ্গ আলাপচারীতা নেই| উদ্দীপনায় প্রায়শই দেখা যায় যে মহা ক্ষমতার সঙ্গে প্রার্থনা পরিচালনা করছেন বলে যাদের মনে করা হচ্ছে তারাই সর্বপ্রথমে অনুভব করছেন যে তাদের ‘‘পাপসকল তোমাদের [তাহাদের] হইতে তাঁহার শ্রীমুখ আচ্ছাদন করিয়াছে, এইজন্য তিনি শুনেন না’’ (যিশাইয় 59:2)|

প্রায়ই উদ্দীপনা সেই সময়ে শুরু হয় যখন কোন একজন উত্তম খ্রীষ্ট বিশ্বাসী নেতা অনুভব করেন যে ঈশ্বরের উপস্থিতির সেই পবিত্র এবং কোমল অনুভূতি হারানোর জন্য তার নিজের কৃত পাপই দায়ী| কিছুক্ষণের মধ্যেই আমি একটি মহান উদ্দীপনার বর্ণনা পড়ব| কিভাবে তা শুরু হয়েছিল? এক শনিবারের রাত্রের প্রার্থনা সভায় সেটা শুরু হয়েছিল| সেখানে রোজকারের মতন সাধারন প্রার্থনা চলছিল, এবং সেই সভায় ঈশ্বরের উপস্থিতির কোন অনুভূতি ছিল না| ‘‘তাহার পর একজন পালক ভাঙ্গিয়া পড়িলেন এবং ক্রন্দন করিতে লাগিলেন| ইহা খুব অস্বাভাবিক একটি বিষয় ছিল|’’ তিনি মুক্তকন্ঠে সেই জমায়েতের সামনে স্বীকার করলেন যে ‘‘তাহার হৃদয় কঠিন ছিল|’’ যখন তিনি দুইচোখে জল নিয়ে তা বলছেন, সেই সময় অনুতাপ ‘‘বিস্তার লাভ করিল যতক্ষণ না সভার সর্বস্থান হইতে ফোঁপাইয়া ক্রন্দন, হাহাকার, গভীর আর্তনাদ...আসিতে লাগিল|’’ এরা সকলেই উদ্ধারপ্রাপ্ত ছিলেন, কিন্তু পালকের উন্মুক্ত স্বীকারোক্তি তাদের অনুভব করিয়েছিল যে তাদেরও ছিল সেই হৃদয়সমূহ যা শক্ত হয়ে গিয়েছিল| ‘‘সেই সভা সকাল 2 ঘটিকা অবধি চলিয়াছিল...এবং ইহাই ছিল সেই সময় যখন পবিত্র আত্মা সভায় নামিয়া আসিয়াছিলেন|’’

যখন আমি উদ্দীপনার উল্লেখ করি তখন আপনাদের মধ্যে কেউ কেউ, যারা বহু বছর ধরে এখানে আছেন, সেটা শুনতে চান না| এর কারণ আপনি কখনও কোন উদ্দীপনা দেখেননি এবং জানেন না যে আমরা কি হারাচ্ছি| জন কেগান আমাকে বলেছিলেন যে আমি উদ্দীপনা চাই এই কারণে যাতে আমি তা ‘‘আস্বাদন’’ করতে পারি| আমি একটি উদ্দীপনা দেখেছি এবং তার ‘‘স্বাদ’’ আমার ভাল লেগেছিল এবং আমি আবার তা গ্রহণ করতে চেয়েছিলাম| আপনি কখনও এর স্বাদ গ্রহণ করেননি তাই ভাবছেন, ‘‘পালক এইসব কি বলছেন? কেন তিনি উদ্দীপনার বিষয়ে ক্রমাগত বলে চলেছেন?’’ যদি আপনি কখনও এর স্বাদ পেতেন, তাহলে আপনিও এটাই চাইবেন| আপনিও এর জন্যে প্রকৃতই আকাঙ্খিত হবেন| ঈশ্বরের উপস্থিতি আমাদের মধ্যে নেমে আসুক তার জন্যেও আপনি আকাঙ্খিত হবেন|

আজ সকালে আমি ‘‘দ্য নিউ ব্যাপটিষ্ট ট্যাবারন্যাক্ল’’ বিষয়ে আমি প্রচার করেছি| কিন্তু সামান্য কয়েকটি বিষয়ের পরিবর্তন এবং মন্ডলীর ‘‘প্রশাসনিক ব্যবস্থাপত্রের’’ রদবদল ঘটিয়ে, আমরা একটি নূতন মন্ডলী সৃষ্টি করতে পারি না| আমাদের অবশ্যই নূতন জীবন পেতে হবে! এবং নূতন জীবন একমাত্র ঈশ্বরের কাছ থেকেই আসতে পারে| ডঃ এ. ডব্লিউ. টোজার বলেছিলেন, ‘‘ঈশ্বর জীবন উৎসর্গ করেন, কিন্তু কোন উন্নত পুরানো জীবন দেন না| তিনি মৃত্যু থেকে জীবন উৎসর্গ করেন...সমস্ত জীবনভর আমরা সম্পূর্ণভাবে এবং ক্রমাগতভাবে ঈশ্বরের উপরে নির্ভরশীল থাকি, কারণ তিনিই হলেন জীবনের উৎস এবং ধারা|’’ যতক্ষণ না আমাদের হৃদয়গুলি ঈশ্বরের পবিত্র আত্মার দ্বারা সংস্কারকৃত, নবজীবনপ্রাপ্ত, পুনঃস্থাপিত এবং পুনরুজ্জীবিত হচ্ছে ততক্ষণ আমরা ‘‘নূতন’’ ব্যাপটিষ্ট ট্যাবারন্যাক্ল পেতে পারি না| একটাই শব্দ সেখানে আছে যা এটা ব্যাখ্যা করে| সেই শব্দটি হল উদ্দীপনা! সেটাই হল উদ্দীপনা যার জন্যে যিশাইয় প্রার্থনা করেছেন যেটা আমাদের পাঠ্যাংশে রয়েছে,

‘‘আহা, তুমি আকাশমন্ডল বিদীর্ণ করিয়া নামিয়া আইস, পর্ব্বতগণ তোমার সাক্ষাতে কম্পিত হউক; যেমন অগ্নি ঝোপ প্রজ্জ্বলিত করে, যেমন অগ্নি জল ফুটায় [তদ্রূপ হউক]; তোমার বিপক্ষদিগকে তোমার নাম জ্ঞাত কর; তোমার সাক্ষাতে জাতিগণ কম্পমান হউক| যখন তুমি ভয়ানক কার্য্য করিয়াছিলে, যাহার অপেক্ষা আমরা করি নাই, তখন তুমি নামিয়া আসিয়াছিলে, তোমার সাক্ষাতে পর্ব্বতগণ কম্পিত হইয়াছিল| কারণ, পুরাকাল অবধি লোকে শুনে নাই, কর্ণে অনুভব করে নাই, চক্ষুতে দেখে নাই যে, তোমা ভিন্ন আর কোন ঈশ্বর আছেন, যিনি তাঁহার অপেক্ষাকারীর পক্ষে কার্য্য সাধন করেন’’ (যিশাইয় 64:1-4)|

‘‘আমার সমস্ত দর্শন পূর্ণ কর’’ গানটি না করে আমি থামতে পারছি না| যখন আমি পার্কে বেড়াতে যাই এবং প্রার্থনা করি, তখন আমি গানটি করি| যখন আমি একটি প্রচার প্রস্তুত করি, তখন আমি গানটি করি| আমি দেখি সবসময় এই গানটি আমি নিজে গুনগুন করে গেয়ে চলেছি| রাত্রে বিছানায় যাওয়ার আগে এই গান গাওয়াটাই হচ্ছে আমার শেষ কাজ|

আমার সমস্ত দর্শন পূর্ণ কর, স্বর্গীয় পরিত্রাতা,
   তোমার গৌরবের সহিত আমার আত্মা উজ্জ্বল হইবে|
আমার সমস্ত দর্শন পূর্ণ কর, যাহা সমস্ত আমি দেখি|
   তোমার পবিত্র আকার আমাতে প্রতিবিম্বিত হোক|
(“Fill All My Vision” by Avis Burgeson Christiansen, 1895-1985) |

উঠে দাঁড়ান এবং আমার সাথে এই কোরাসটি করুন|

আমার সমস্ত দর্শন পূর্ণ কর, স্বর্গীয় পরিত্রাতা,
     তোমার গৌরবের সহিত আমার আত্মা উজ্জ্বল হইবে|
আমার সমস্ত দর্শন পূর্ণ কর, যাহা সমস্ত আমি দেখি|
     তোমার পবিত্র আকার আমাতে প্রতিবিম্বিত হোক|

আপনারা এখন বসতে পারেন|

যিশাইয় প্রার্থনা করেছিলেন, ‘‘আহা, তুমি আকাশমন্ডল বিদীর্ণ [ছিঁড়িয়া সম্পূর্ণ উন্মুক্ত করিয়া] করিয়া, নামিয়া আইস, পর্ব্বতগণ তোমার সাক্ষাতে কম্পিত হউক’’ (যিশাইয় 64:1)| ডঃ লয়েড জোন্স একে বলেছেন ‘‘উদ্দীপনার [জন্য] চূড়ান্ত প্রার্থনা’’ (Martyn Lloyd-Jones, M.D., Revival, Crossway Books, 1992 edition, page 305)|

আমি গভীরভাবে দুঃখিত যে আমি সেই উদ্দীপনার বিষয়ে একটি পত্রিকা সংগ্রহ করে রাখিনি, যা আমার মন্ডলীতে অর্থাৎ লস এঞ্জেল্সের প্রথম চীনা ব্যাপটিষ্ট মন্ডলীতে ঘটেছিল| কি প্রার্থনা করতে হয় সেই বিষয়ে সেটা আপনাকে একটা আভাস দিতে পারত| কিন্তু, হায়, আমি তার কোন লিখিত বিবরণ রাখিনি| সবথেকে ভাল আমি যা করতে পারি তা হল আপনাকে অন্য একটা উদ্দীপনার বিবরণ দেওয়া, যা হুবহু সেই মহা উদ্দীপনারই মতন যেটা আমি 1960 সালের শেষের দিকে চীনা মন্ডলীতে প্রত্যক্ষ করেছিলাম| রেভাঃ ডেভিড ডেভিস 1989 সালে এর বর্ণনা লিপিবদ্ধ করেছিলেন| আমি তা থেকে আপনাকে উদ্ধৃতি দিচ্ছি| রেভাঃ ডেভিস বলেছিলেন,

...ইহা একটি সুসমাচার প্রচারমূলক অভিযান নয়, এবং ইহা কিছু ঘুরিয়া ঘুরিয়া জমায়েত করিবার বিষয়ও নয়| উদ্দীপনা হইল যখন ঈশ্বর তাঁহার উপস্থিতির সহিত নামিয়া আসেন|

তিনি বলেছিলেন,

         আমাদের এলাকার মধ্যে আমি অনেকগুলি মন্ডলীর নেতা ছিলাম| মন্ডলীগুলি তাহাদের প্রচুর পরিমান কার্য্যকলাপ লইয়া ব্যস্ত থাকিত| আমাদের অনেক সভা হইত...কিন্তু লোকেরা শীতল হইয়া গিয়াছিল; যেরূপে তাহারা পূর্ব্বে আসিতে অভ্যস্ত ছিল সেইরূপে প্রার্থনা সভায় যোগদান করিতে তাহারা আর আগ্রহী ছিল না| কোনরূপ সন্দেহ ব্যতীত সেখানে পরিত্রাণ হইত এবং লোকেরা মন পরিবর্তন করিতেন, কিন্তু কোন একটি কিছুর অভাব সেইস্থানে ছিল| একজন প্রচারক আমাকে বলিয়াছিলেন, ‘‘বহিরাগতদের নিকটে আমরা উত্তম প্রতিপন্ন হইতেছি|’’ [আমার মন্তব্য: কোন কোন সময়ে আপনিও কি অনুভব করছেন না যে আমাদের সেবাতেও কোন কিছু একটার অভাব আছে?]
         কোন এক ব্যক্তি নেতাদের নিকটে আগ্রহ প্রকাশ করিয়াছিলেন যেন প্রতি মাসের একটি সম্পূর্ণ দিন প্রার্থনার জন্য ব্যয় করা হয়| আমরা তাহা করিয়াছিলাম| আমাদের মধ্যে বেশ কিছু লোক এই বিষয়ে সচেতন হইয়াছিলেন যে আমরা ঈশ্বরের জন্য উদ্দীপিত হইতেছি না| আমরা অনুভব করিয়াছিলাম যে আমরা ভ্রান্ত সম্পর্কের মধ্যে রহিয়াছি, এবং আমাদের একে অপরের সহিত সঠিক সম্পর্ক স্থাপন করিতে হইবে|
         প্রকৃতপক্ষে উদ্দীপনা শুরু হইয়াছিল এক শনিবারের সন্ধ্যাকালীন বাইবেল অধ্যয়ণ এবং প্রার্থনা সভাতে| কিছু সময়ের জন্য প্রেরিতের পুস্তক হইতে, প্রাচীন মন্ডলীর ঈশ্বর আরাধনা-কেন্দ্রিক অধ্যয়ণ চলিতেছিল| প্রচারকগণ উদ্বিগ্ন ছিলেন যে সেই সভায় প্রার্থনার স্বাধীনতা ছিল না, এবং সভাগুলি শীতল ছিল| তাহার পর একজন পালক ভাঙ্গিয়া পড়িলেন এবং ক্রন্দন করিতে লাগিলেন| ইহা খুব অস্বাভাবিক একটি বিষয় ছিল| তিনি বলিয়াছিলেন যে তাহার হৃদয়ের কঠোরতা ছিল, এবং যখন তিনি তাহা বলিলেন, তখনই অনুতাপ বিস্তার লাভ করিল - যতক্ষণ না সভার সর্বস্থান হইতে ফোঁপাইয়া ক্রন্দন, হাহাকার, গভীর আর্তনাদ, এবং এমনকী তীক্ষ্ণ চিৎকার আসিতে লাগিল| লোকেরা তাহাদের সম্মুখে কাঁদিতেছিল এবং প্রার্থনা করিতেছিল| আমার স্মরণে আসিয়াছিল যে স্পারজিয়ন একদা এই প্রার্থনা করিয়াছিলেন, ‘‘প্রভু, আমাদিগকে একবার গৌরবময় বিশৃঙ্খলা পাঠাও|’’ নেতৃবৃন্দ সকলকে শান্ত করিতে চেষ্টা করিলেন, কিন্তু তাহারা অকৃতকা্র্য্য হইলেন, এবং সেই সভা সকাল 2 ঘটিকা অবধি চলিল|
         আমার আপন ভ্রাতা এই উদ্দীপনার বিষয়ে শুনিয়াছিলেন এবং ইহার বিরুদ্ধে দাঁড়াইয়াছিলেন কারণ ইহা মাত্রাধিক আবেগযুক্ত বলিয়া মনে হইয়াছিল| তিনি উদ্দীপনার জন্য প্রার্থনা করিতেছিলেন, এবং তিনি ঈশ্বরকে বলিয়াছিলেন যে যাহা হইয়াছে তাহা তিনি চাহেন নাই| অতঃপর ঈশ্বর তাহাকে এই বিষয়ে বলিলেন যে উদ্দীপনার অগ্নি তাহার অবিশ্বাসের প্রস্তরময় হৃদয়ে পতিত হইয়া শীতল হইতেছে| এবং ইহাই ছিল সেই সময় যখন আত্মা সভার উপরে নামিয়া আসিয়াছিলেন| [আমার মন্তব্য: সেটাই সময় যখন ঈশ্বর ঝরে পড়ছেন এবং সেটাই হয়ে থাকে, যাকে স্পারজিয়ন বলেছেন ‘‘গৌরবময় বিশৃঙ্খলা|’’]

রেভাঃ ডেভিস বলেছিলেন,

         এখন ইহা আমার সন্দেহ করিবার সময় ছিল| আমি বিব্রত হইয়াছিলাম যখন আমার ভ্রাতা কি ঘটিতেছিল তাহার বিবরণ প্রদান করিবার জন্য চরম ভাষা ব্যবহার করিতেছিলেন| কিন্তু, তাহার পর, উদ্দীপনা সকল সময়েই বিভিন্ন হইয়া থাকে কারণ ইহা মনুষ্যের দ্বারা পরিচালিত নয়| উদ্দীপনা শত শত মাইল ব্যাপিয়া দাবানলের ন্যায় বিস্তার লাভ করে, এবং অন্যান্য মন্ডলীগুলিও ইহার স্পর্শ পাইয়া থাকে|
         একজন নবীন প্রচারক এক শক্তিশালী প্রচার করিয়াছেন, কিন্তু কিছুই ঘটে নাই| সুতরাং আমি শেষ গানটি করিলাম এবং প্রার্থনাসহ সভা সমাপ্ত করিয়া দিলাম| যখন ধর্মসভার সকলে স্থানত্যাগ করিতেছিল, একজন নবীন শিক্ষক আসিলেন এবং সম্মুখের সারিতে বসিলেন| তিনি অনিয়ন্ত্রিতভাবে কম্পিত হইতেছিলেন এবং ফোঁপাইতেছিলেন| একটি যুবতী মেয়ে চিৎকার করিতেছিল, ‘‘আমি কি করিব? আমি কি করিব? আমি নরকে যাইতেছি!’’ লোকেরা পুনরায় মন্ডলীতে ছুটিয়া আসিল| একজন উত্তম খ্রীষ্ট বিশ্বাসী হিসাবেই মেয়েটি পরিচিত ছিল| কিন্তু তিনি প্রতারণার পাপে অনুতপ্ত হইয়াছিলেন| সেই নবীন যুবকটি হিংসাপরায়ণতার দোষে দোষী ছিলেন, যাহা অনেকের নিকটে একটি ক্ষুদ্র বিষয়, কিন্তু ইহা তাহাকে আতঙ্কিত করিয়াছিল|
         যখন আমি যাহারা সাহায্য পাইবার জন্য ক্রন্দনরত ছিলেন তাহাদের পরামর্শদান করিতেছিলাম তখন কেহ একজন আসিয়া আমাকে বলিল যে বাড়িতে আমার স্ত্রীর আমাকে প্রয়োজন| আমি দেখিলাম একজন উত্তম খ্রীষ্ট বিশ্বাসী মানুষ নিদারুন মানসিক যন্ত্রণায় ভূমিতে পড়িয়া আছেন, এবং ক্রমাগত ক্রন্দন করিতেছেন, ‘‘আমি কি করিব? আমি কি করিব?’’ কিছুক্ষণ পরে তিনি সকলের সম্মুখে নিজের সমস্ত পাপ স্বীকার করিলেন এবং আনন্দের সহিত বলিলেন, ‘‘যীশুর রক্তের মাধ্যমে আমার হৃদয় শুচি হইল|’’ আমরা সকলে অপর একটি সভার জন্য মন্ডলীতে ফিরিয়া আসিলাম| পরবর্ত্তী দিনটি ছিল সর্বসমক্ষে পাপ স্বীকার করিবার, এবং একে অপরের সহিত বিষয়সমূহ সঠিক করিবার একটি দিন| সহসা ঈশ্বর নামিয়া আসিয়াছিলেন এবং ইহা ছিল স্বর্গ হইতে প্রাপ্ত এক দৈবানুগ্রহ|
         আমরা নিজেদের নিয়ন্ত্রণে ছিলাম না| ঈশ্বর নিয়ন্ত্রণে ছিলেন, এবং সমস্ত কিছুই নিখুঁত ছিল| আমি লক্ষ্য করিয়াছিলাম যে প্রথম দিনটিতে মন্ডলীর নেতৃবৃন্দ প্রভাবিত হইয়াছিলেন| দ্বিতীয় দিনটিতে ছিলেন সমস্ত কর্মচারীগণ যাহারা অনুতাপের অধীনে আসিয়াছিলেন| তৃতীয় দিনে ছিলেন, সমস্ত মহিলাগণ, চতুর্থদিনে স্কুলের ছাত্রগণ, এবং পঞ্চমদিনে স্কুলের ছাত্রীগণ| আমরা সব প্রচারকগণ দর্শকের ন্যায়, ঈশ্বরের কার্য্য নিরীক্ষণ করিতেছিলাম|
         এই সময়ে ইহা ছিল সেই সমস্ত লোকেদের মধ্যে এক উদ্দীপনা যাহারা পরিত্রাণপ্রাপ্ত ছিলেন| প্রথম দুই বা তিন মাসে অবিশ্বাসীগণ খুব কম সংখ্যায় উদ্বারপ্রাপ্ত হয়েছিলেন| ঈশ্বর প্রথমে মন্ডলীগুলিকে পরিস্কার করিতেছিলেন| হৃদয়সমূহের অনুসন্ধান চলিতেছিল| কোন কোন লোকের পাপ ছিল যাহা বছরের পর বছর ধরিয়া লুক্কায়িত ছিল; এবং তাহারা অনুভব করিত যে এই সমস্ত পাপ কোন ব্যাপার নহে| ঈশ্বর বেদনাদায়কভাবে ব্যক্তিগণের সহিত আচরণ করিয়াছিলেন| একজন মহৎ, শক্তিশালী প্রচারক তাহার মুখমন্ডলে অশ্রু প্রবাহরত অবস্থায়, তাহার হস্তদ্বয় কচলাইতেছেন| সেই মানুষটি অনেককে খ্রীষ্টের প্রতি পরিচালিত করিয়াছেন| কিন্তু তাহার একটি স্বীকারযোগ্য পাপ রহিয়াছে, এবং তিনি ততক্ষণ শান্তি পাইতে পারেন না যতক্ষণ না তিনি দাঁড়াইতেছেন এবং সমগ্র মন্ডলীর সম্মুখে তাহার সমস্তই স্বীকার করিতেছেন| তাহার কথাগুলি বিদ্যুতস্পৃষ্ট হইবার ন্যায় ছিল এবং লোকেরা অনুতাপে ভূমিতে পতিত হইয়াছিল| এই সময়ের মধ্যে সমস্ত শহর ঈশ্বরের বিষয়ে আলোচনা করিতেছিল| [আমার মন্তব্য: যখন খ্রীষ্ট বিশ্বাসীরা উন্মুক্ত হন এবং একে অন্যের সঙ্গে সঠিক হন তখন হারানো মানুষেরা প্রভাবিত হন|]
         কোন কোন সময় অনুতাপ ভয়ঙ্কর এক বিষয় হইতে পারে, এবং যাহারা খোলাখুলিভাবে পাপ স্বীকার প্রতিরোধ করিয়াছেন তাহারা বেশি কষ্টভোগ করিয়াছেন| একজন মারা গিয়াছেন| একজন মহিলা অনুভব করিয়াছেন যে অনুতাপের অধীনস্থ হইয়া তিনি পাগল হইয়া যাইবেন যতক্ষণ না তিনি সকলের সম্মুখে নিজের পাপ স্বীকার করিতেছেন| ইহাই ছিল কিছু লোকের জন্য মূল্য যাহারা তাহাদের পাপ লুকাইবার চেষ্টা করিয়াছিলেন, এবং ঈশ্বরকে প্রতিরোধ করিয়াছিলেন| সেই ইন্দ্রিয়গোচর বিষয়গুলি শীঘ্র অতিবাহিত হইয়াছিল, কিন্তু উদ্দীপনার দীর্ঘস্থায়ী ফল হইয়াছিল পবিত্রতা, বিনম্রতা, বাইবেল এবং প্রার্থনার প্রতি এক ভালবাসা, এবং কোন ব্যক্তি এবং খৄষ্টের কার্য্যের মহিমান্বয়ন| [আমার মন্তব্য: যখন খ্রীষ্ট বিশ্বাসীরা নিজেদের মুখোশ খুলে ফেলেন এবং পরস্পরের প্রতি সঠিক হন তখন তা মন্ডলীতে একটি নূতন বিনম্রতা এবং ভালবাসা সৃষ্টি করে| পুরানো হিংসাপরায়ণতা, ভীতি এবং প্রতিকূলধারণাসমূহ প্রকৃত সমবেদনা এবং কোমল প্রেমের দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়|]
         প্রত্যেকেই সেই সভাতে আসিত, যাহা অনেকক্ষণ অবধি চলিতে থাকিত| কোন একটি সভার পক্ষে ইহা মোটেই অস্বাভাবিক ছিল না যে তাহা সকাল 6:30 মিনিটে শুরু হইত এবং দ্বিপ্রহর অবধি চলিতে থাকিত| লোকেরা ফিসফিস করিয়া কথা বলিত কারণ তাহারা অনুভব করিত যে ঈশ্বর এত নিকটবর্ত্তী আছেন| এক ব্যক্তি বলিয়াছিলেন, ‘‘মনে হইতেছে যেন আমরা ঈশ্বরের উপস্থিতির দ্বারা চতুর্দিক হইতে জড়াইয়া আছি|’’ আমি সেই সমস্ত সভাগুলিতে উপস্থিত ছিলাম যেখানে ঈশ্বর এতটাই বাস্তব হইয়াছিলেন যে আপনার একটি চেয়ারে বসিবার সাহসও হইত না| আমাকে ইয়োব 42:5 পদটি স্মরণ করানো হইয়াছিল, ‘‘পূর্ব্বে তোমার বিষয় কর্ণে শুনিয়াছিলাম, কিন্তু সম্প্রতি আমার চক্ষু তোমাকে দেখিল|’’
         যেমন পূর্ব্বে কখনও তাহারা করিত না সেইরূপ তাহারা প্রার্থনা করিত| উদ্দীপনায় যুগপৎ প্রার্থনা ছিল খুব সাধারন একটি বিষয়, কিন্তু ইহাকে কখনই স্থানের বাহিরে অথবা বিশৃঙ্খল বলিয়া মনে হইত না| ইহা ব্যতীত লোকেদের ধর্মপ্রচারজনিত আবেগও ছিল| শতাধিক এবং সহস্রাধিক লোক উদ্ধারপ্রাপ্ত হইয়াছিল| [আমার মন্তব্য: আমি দুটি উদ্দীপনায় এইরকম ঘটতে দেখেছি|]

রেভাঃ ডেভিস বলেছিলেন,

         শেষ অবধি আমি ইহা করিয়াছিলাম? আঠারো মাস ধরিয়া আমি একটি ডায়েরী রাখিয়াছিলাম, এবং সেই সময় শেষ হইবার পরেও ঈশ্বরের শক্তি সেইস্থানে তখনও বর্তমান ছিল| তিরিশ বছর পরেও মন্ডলীর নেতৃবৃন্দ তাহারাই ছিলেন যাহারা উদ্দীপনার দ্বারা আশীর্বাদিত হইয়াছিলেন| কিন্তু সেইস্থানে একটি নূতন প্রজন্ম আছে যাহাদের নিজস্ব উদ্দীপনার প্রয়োজন হয় - কারণ, ‘‘তাহাদের পরে নূতন বংশ উৎপন্ন হইল, ইহারা সদাপ্রভুকে জানিত না এবং ইস্রায়েলের জন্য তাঁহার কৃত কার্য্য জ্ঞাত ছিল না’’ (বিচারকর্ত্তৃগণ 2:10)| কিন্তু আপনি আপনার মন্ডলীতে উদ্দীপনা আসিবার জন্য প্রার্থনা করিতে পারেন না যদি না আপনি ব্যক্তিগতভাবে ইহাকে নিজের প্রতি আনয়নের জন্য ইচ্ছা প্রকাশ করেন - যদি না আমরা ‘‘একজন অন্যজনের কাছে [আমাদের] আপন আপন পাপ স্বীকার করি, ও একজন অন্যজনের নিমিত্ত প্রার্থনা করি’’ (যাকোব 5:16)|

এই বিবরণ ডেভিড ডেভিসের লেখা থেকে দেওয়া হয়েছে| আমি কিছু জায়গায় শব্দান্তর করেছি, আর বোঝার সুবিধার জন্যে কিছু শব্দ বাদ দিয়েছি, ব্রায়ান এইচ. এডওয়ার্ড এর বই, Revival! A People Saturated With God, Evangelical Press, 1991 edition, pp. 258-262 থেকে উদ্ধৃত|

রেভাঃ ডেভিস বলেছিলেন, ‘‘যখন ঈশ্বর উদ্দীপনার শক্তি লইয়া নামিয়া আসেন তখন আপনি যাহা কল্পনা করিতে পারেন তাহার তুলনায় উহা পৃথক হয়...উদ্দীপনা হইল যখন ঈশ্বর তাঁহার উপস্থিতির সহিত নামিয়া আসেন| ইহা শুরু হইয়াছিল যখন একজন মন্ডলী নেতা ভাঙ্গিয়া পড়িয়াছিলেন এবং ক্রন্দন করিয়াছিলেন| তিনি ব্যাখ্যা করিয়াছিলেন যে তাহার হৃদয়ে কঠোরতা ছিল এবং যখন তিনি উহা বলিলেন সেই অনুতাপ তাহাদের মধ্যে বিস্তার লাভ করিল যাহারা ইতিমধ্যেই পরিত্রাণপ্রাপ্ত ছিলেন, যতক্ষণ না সেইস্থানে ফোঁপাইয়া ক্রন্দন, হাহাকার ও গভীর আর্তনাদ হইতে লাগিল| লোকেরা ক্রন্দন এবং প্রার্থনা করিতেছিল, সেই সভা সকাল 2 ঘটিকা অবধি চলিয়াছিল|’’

1960 সালের শেষের দিকে চীনা ব্যাপটিষ্ট মন্ডলীতে যে উদ্দীপনা আমি দেখেছিলাম এই উদ্দীপনা প্রায় সেইরকমই ছিল| উদ্দীপনার প্রধান বৈশিষ্ট্যগুলি ছিল অশ্রুজল, প্রার্থনা, এবং খোলাখুলিভাবে সমগ্র মন্ডলীর সামনে পাপের স্বীকারোক্তি দান| এটা একটা ক্যারিস্মেটিক বা পঞ্চসপ্তমীর সভার থেকে একেবারেই আলাদা ছিল| সেখানে কোন ‘‘পরভাষা’’ বা আরোগ্য, অথবা বিশেষ সঙ্গীত ছিল না| সেখানে কোন ‘‘আরাধনা’’ ছিল না| ছিল শুধুমাত্র খোলাখুলিভাবে পাপের স্বীকারোক্তি, কান্না, এবং লোকেরা একে অন্যের কাছে তাদের ক্ষমা যাচ্ঞা করছিল| বেশ কয়েক সপ্তাহ পরে অনেক মন্ডলীবিহীন লোক এসেছিলেন এবং পরিত্রাণ পেয়েছিলেন| জন্ কেগান আমাকে প্রশ্ন করেছিলেন যে কিভাবে হারানো লোকেরা সেখানে এসেছিলেন| এর উত্তর দেওয়াটা আমার পক্ষে খুব কঠিন হয়েছিল| লোকেরা খালি তাদের বন্ধুবান্ধব এবং পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে নিয়ে আসতেন| কোন গাড়ির ব্যবস্থা করা হত না| এটা শুধুমাত্র ঘটত| সবশেষে সেই চীনা মন্ডলীতে প্রায় 2,000 লোক এসেছিলেন এবং তাদের উদ্ধার ও ব্যাপ্তাইজিত করা হয়েছিল, এবং তারা মন্ডলীর দৃঢ় সদস্য হয়েছিলেন| তাদের মধ্যে একশʼর বেশি লোক এখনও সেখানে আছেন! পবিত্র আত্মার সেই বর্ষণে আরও চারটি নূতন মন্ডলীর বহিঃপ্রকাশ ঘটেছিল|

‘‘আহা, তুমি আকাশমন্ডল বিদীর্ণ করিয়া নামিয়া আইস, পর্ব্বতগণ তোমার সাক্ষাতে কম্পিত হউক; যেমন অগ্নি ঝোপ প্রজ্জ্বলিত করে, যেমন অগ্নি জল ফুটায় [তদ্রূপ হউক]; তোমার বিপক্ষদিগকে তোমার নাম জ্ঞাত কর; তোমার সাক্ষাতে জাতিগণ কম্পমান হউক| যখন তুমি ভয়ানক কার্য্য করিয়াছিলে, যাহার অপেক্ষা আমরা করি নাই, তখন তুমি নামিয়া আসিয়াছিলে, তোমার সাক্ষাতে পর্ব্বতগণ কম্পিত হইয়াছিল|’’ (যিশাইয় 64:1-3)|

অনুগ্রহ করে উঠে দাঁড়ান এবং আট নম্বর গানটি করুন|

পরিত্রাতা, প্রার্থনা করি, আমার সকল দর্শন পূর্ণ কর,
   হউক আজ শুধু যীশুকেই দেখি;
যদিও উপত্যকার মধ্য দিয়া তুমি আমায় পরিচালনা কর,
   তোমার অম্লান গৌরব আমায় পরিবেষ্টন করে|
আমার সমস্ত দর্শন পূর্ণ কর, স্বর্গীয় পরিত্রাতা,
   তোমার গৌরবের সহিত আমার আত্মা উজ্জ্বল হইবে|
আমার সমস্ত দর্শন পূর্ণ কর, যাহা সমস্ত আমি দেখি
   তোমার পবিত্র আকার আমাতে প্রতিবিম্বিত হউক|

সকল ইচ্ছা, আমার সকল দর্শন পূর্ণ কর
   তোমার গৌরবের জন্য রাখ; আমার আত্মা অনুপ্রাণিত,
তোমার পূর্ণাঙ্গ রূপ, তোমার পবিত্র প্রেম,
   উর্দ্ধ হইতে আলোর স্রোত আমার পথ|
আমার সমস্ত দর্শন পূর্ণ কর, স্বর্গীয় পরিত্রাতা,
   তোমার গৌরবের সহিত আমার আত্মা উজ্জ্বল হইবে|
আমার সমস্ত দর্শন পূর্ণ কর, যাহা সমস্ত আমি দেখি
   তোমার পবিত্র আকার আমাতে প্রতিবিম্বিত হউক|

পাপের ধ্বংস হউক, আমার সকল দর্শন পূর্ণ কর
   উজ্জ্বল জ্যোতি অন্তরে প্রতিবিম্বিত হউক|
আসুন শুধু তোমার আশীর্ব্বাদের মুখ দেখি,
   তোমার অনন্ত অনুগ্রহ আমার আত্মার পর্ব্ব|
আমার সমস্ত দর্শন পূর্ণ কর, স্বর্গীয় পরিত্রাতা,
   তোমার গৌরবের সহিত আমার আত্মা উজ্জ্বল হইবে|
আমার সমস্ত দর্শন পূর্ণ কর, যাহা সমস্ত আমি দেখি|
   তোমার পবিত্র আকার আমাতে প্রতিবিম্বিত হোক|
(“Fill All My Vision,” Avis Burgeson Christiansen, 1895-1985) |

উদ্দীপনা পাঠানোর জন্য ঈশ্বরের কাছে প্রার্থনা করা বন্ধ করবেন না| ঈশ্বর আকাশমন্ডল বিদীর্ণ করে আমাদের মধ্যে নেমে আসবেন এর জন্যে প্রার্থনা করা বন্ধ করবেন না! ঈশ্বর আমাদের দিয়ে সেটা করিয়ে নেবেন যাতে আমরা ‘‘একজন অন্যজনের কাছে [আমাদের] আপন আপন পাপ স্বীকার করি, ও একজন অন্যজনের নিমিত্ত প্রার্থনা করি, যেন [আমরা] সুস্থ হইতে পারি’’ আমাদের শীতলতা এবং আমাদের পাপ থেকে, এর জন্যে প্রার্থনা করা বন্ধ করবেন না (যাকোব 5:16)| এটাই হল একটি উদ্দীপনার বৈশিষ্ট্য যা বর্তমানে চীন এবং তৃতীয় বিশ্বের অন্যান্য অংশে ঘটছে| আমাদের হৃদয়ের আরোগ্য দিতে এবং আমাদের নূতন এবং আরও প্রেমময় এবং আরও শক্তিশালী একটি ব্যাপটিষ্ট ট্যাবারনাক্ল দান করার প্রতি ঈশ্বরের নেমে আসার জন্য প্রার্থনা করা বন্ধ করবেন না! ঈশ্বর যাতে আমাদের মধ্যে নেমে আসেন তার জন্যে আমি চাইছি এ্যরন ইয়ান্সি এবং জন্ কেগান উঠে দাঁড়ান এবং এই প্রার্থনা পরিচালনা করুন| প্রথমে এ্যরন, তারপরে জন্| আর কেউ কি আছেন? অনুগ্রহ করে উঠে দাঁড়ান এবং প্রার্থনা করুন!

যীশু খ্রীষ্ট জগতে এসেছিলেন দুঃখভোগ করতে এবং পাপীদের পরিবর্তে নিজে ক্রুশের উপরে মৃত্যুবরণ করতে| যদি আপনি এখনও পরিত্রাত না হয়ে থাকেন, তাহলে অবশ্যই আপনাকে আপনার পাপপূর্ণ এবং স্বার্থপর জীবনধারা থেকে বেড়িয়ে আসতে হবে| আপনি অবশ্যই অনুতাপ করুন এবং ঈশ্বরের একমাত্র পুত্র, যীশুর উপরে বিশ্বাস স্থাপন করুন| একমাত্র তিনিই পারেন তাঁর রক্তের দ্বারা আপনার সমস্ত পাপ ধুয়ে দিতে| কেবলমাত্র তিনিই আপনাকে নরকের অগ্নিশিখা থেকে রক্ষা করতে পারেন| আপনার সমস্ত পাপ থেকে একমাত্র যীশুই আপনাকে উদ্ধার করতে পারেন| যদি আপনি পরামর্শ গ্রহণ করতে ইচ্ছুক হন তাহলে আপনি অবশ্যই ডঃ কেগানের সঙ্গে বৃহস্পতিবারের সন্ধ্যায় সাক্ষাৎ করার অনুমতি নিন| সাক্ষাৎ করার জন্য আপনি তাকে ফোন করতে পারেন অথবা এই সভার পরে তার সঙ্গে এই বিষয়ে কথা বলতে পারেন| আমেন|


যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তাহলে ডঃ হাইমার্স আপনার কাছ থেকে কিছু শুনতে চান| যখন আপনি ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখবেন তখন অবশ্যই তাকে জানাবেন যে কোন দেশ থেকে আপনি তাকে লিখছেন নয়ত তিনি আপনার ই-মেলের জবাব দিতে সক্ষম হবেন না| যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তবে ডঃ হাইমার্সকে একট ই-মেল পাঠান এবং তাকে সেইকথা জানান, কিন্তু কোন দেশ থেকে আপনি লিখছেন চিঠিতে সেটা অবশ্যই অন্তর্ভূক্ত করবেন| ডঃ হাইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net (এখানে ক্লিক করুন) | আপনি যে কোন ভাষায় ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখতে পারেন, কিন্তু যদি পারেন তো ইংরাজিতেই লিখুন| যদি আপনি ডঃ হাইমার্সকে ডাক-ব্যবস্থার মাধ্যমে চিঠি পাঠাতে চান, তবে তার ঠিকানা হল P.O. Box 15308, Los Angeles, CA 90015 | আপনি তাকে (818)352-0452 নম্বরে ফোন করতে পারেন|

(সংবাদের পরিসমাপ্তি)
ডঃ হাইমার্সের সংবাদ আপনি প্রতি সপ্তাহে ইন্টারনেটে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে গিয়ে পড়তে পারেন| ক্লিক করুন “প্রচার পান্ডুলিপি|”

আপনি ডাঃ হাইমার্সকে মেইল পাঠাতে পারেন rlhymersjr@sbcglobal.net - আপনি
তাকে পত্র লিখতে পারেন P.O. Box 15308, Los Angeles, C A 90015.এই ঠিকানায়
। আপনি তাকে টেলিফোন করতে পারেন (818) 352-0452.

এই সুসমাচারের ম্যানুস্ক্রিপ্ট এর ওপর ডাঃ হাইমসের কোন কপিরাইট নেই। আপনারা
ইহা ব্যাবহার করতে পারেন ডাঃ হাইমসের অনুমতি ছাড়াই। অবশ্য, ভিডিও মেসেজ
সবই কপিরাইটের সহিত আছে এবং কেবলমাত্র তার অনুমতি নিয়েই ব্যাবহার করা যাবে।

সংবাদের আগে শাস্ত্রাংশ পাঠ করেছেন মিঃ আবেল প্রুধোম্মে: যিশাইয় 64:1-3 |
সংবাদের আগে একক সংগীত পরিবেশন করেছেন মিঃ বেঞ্জামিন কিনকেড গ্রিফিত:
“Fill All My Vision” (Avis Burgeson Christiansen, 1895-1985) |