Print Sermon

এই সমস্ত প্রচারের পান্ডুলিপি এবং ভিডিওগুলি এখন প্রতি মাসে 215টিরও বেশি দেশের প্রায় 116,000 কম্প্যুটারে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে পাঠানো হয়| আরও শত শত লোক ইউ টিউবের ভিডিওর মাধ্যমে এগুলি দেখেন, কিন্তু খুব শীঘ্রই তারা ইউটিউব ছেড়ে বেরিয়ে যান, কারণ প্রত্যেকটি ভিডিও প্রচার তাদেরকে আমাদের ওয়েবসাইটের দিকে পরিচালিত করে| ইউটিউব আমাদের ওয়েব সাইটে লোক এনে দেয়| প্রচারের এই পান্ডুলিপিগুলি প্রতি মাসে 34টি ভাষায় প্রচারিত হয় হাজার হাজার লোকের কাছে| প্রচারের এই সব পান্ডুলিপিগুলি গ্রন্থসত্ত্ব দ্বারা সংরক্ষিত নয়, কাজেই প্রচারকগণ আমাদের অনুমতি ছাড়াই এইগুলি ব্যবহার করতে পারেন| মুসলিম এবং হিন্দু রাষ্ট্রসমেত, সমগ্র পৃথিবীতে সুসমাচার ছড়িয়ে দেওয়ার এই মহান কাজে সাহায্য করার জন্য কিভাবে আপনি একটি মাসিক অনুদান প্রদান করতে পারেন তা জানতে অনুগ্রহ করে এখানে ক্লিক করুন|

যখন আপনি ডঃ হেইমার্সকে লিখবেন সর্বদা তাকে জানাবেন যে আপনি কোন দেশে বাস করেন, অথবা তিনি আপনাকে উত্তর দিতে পারবেন না| ডঃ হেইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net |




আপনার হৃদয় কি কন্টকাকীর্ণ ভূমি ?

IS YOUR HEART THORNY GROUND?
(Bengali)

লেখক : ডঃ আর. এল. হেইমার্স, জুনিয়র
by Dr. R. L. Hymers, Jr.

ব্যাপটিষ্ট ট্যাবারন্যাক্ল মন্ডলীতে এই ধর্ম্মোপদেশটি প্রচারিত হয়েছিল
A sermon preached at the Baptist Tabernacle of Los Angeles
Lord’s Day Morning, May 1, 2016

‘‘আর অধর্ম্মের বৃদ্ধি হওয়াতে, অধিকাংশ লোকের প্রেম শীতল হইয়া যাইবে’’ (মথি 24:12)|


আমাদের মন্ডলীগুলিতে কি ভুল হচ্ছে সেটা বোঝার জন্যে নতুন নিয়মের এই পদটি হল একটি মূল পদ| যদি আপনি এই পদটি না বোঝেন তাহলে আপনি আমাদের মন্ডলীগুলির সমস্যা এবং সমস্যা সমাধানের উপায় সম্বন্ধে কিছুই বুঝতে পারবেন না| এটা এমনই একটা বিশিষ্ট পদ যে আমার মন বারে বারে, বছরের পর বছর, দশকের পর দশক ধরে এর দিকে ফিরে ফিরে যায়| আমি বিলি গ্রাহামের কাছে প্রথম এই পদটির বিষয়ে শুনেছিলাম| যখন আমি কিশোর ছিলাম সেইসময়েই আমি প্রায় প্রত্যেক রবিবারের বিকালে তাকে রেডিওতে প্রচার করতে শুনতাম| আমাদের জগতের সমাপ্তির চিহ্নের বিষয়ে প্রচার করতে গিয়ে প্রায়ই তিনি এই পদটির উদ্ধৃতি দিতেন| তার সর্বশেষ প্রকৃতই একটি ভাল বই ছিল World Aflame (Doubleday, 1965)| বিলি গ্রাহাম এই কথাগুলি বলেছিলেন,

         যীশু বলেছিলেন, ‘‘বিধি বিহীনতার বিস্তার, মানুষের অন্যের প্রতি ভালবাসা শীতলতায় বৃদ্ধি পায়’’ (মথি 24:12 NEB)| ‘‘কিন্তু ইহা জানিও, শেষকালে বিষম সময় উপস্থিত হইবে| কেননা মনুষ্যেরা আত্মপ্রিয়, অর্থপ্রিয়...ঈশ্বরপ্রিয় নয় বিলাসপ্রিয় হইবে; লোকে ভক্তির অবয়বধারী, কিন্তু তাঁহার শক্তি অস্বীকারকারী হইবে: তুমি এরূপ লোকদের হইতে সরিয়া যাও’’ (II তীমথিয় 3:1-5)... এই সকলই মনে হয় একটি সুদূরপ্রসারী কপটতার সময়ের প্রতি নির্দেশ করিতেছে যখন বহুসংখ্যক লোকদের ব্যক্তিগতভাবে যীশু খ্রীষ্টের সহিত অভিজ্ঞতা ব্যতীত মন্ডলীতে পশুপালের ন্যায় রাখা হইবে...ভ্রান্ত শিক্ষকেরা মন্ডলীতে অনুপ্রবেশ করিবে...তাহারা ‘পাপে পতিত’ হওয়ার নেতা, যাহা শেষ যুগের মন্ডলীগুলির বৈশিষ্ট্য বর্ণনা করিতেছে (Billy Graham, D.D., World Aflame, Doubleday and Company, 1965, pp. 220, 221, 219)|

পরে আমি একটা বিবৃতি পড়েছিলাম যেটা মিঃ গ্রাহাম তার ছেলে ডঃ এম. আর. ডিহানের কাছে পাঠিয়েছিলেন| 1965 সালে ডঃ ডিহান যখন একটি মোটরগাড়ী দূর্ঘটনায় মারা যান, মিঃ গ্রাহাম বলেছিলেন যে রেডিওতে মিঃ ডিহানের প্রচার শুনে শুনে তিনি তার ধারণার অধিকাংশই গ্রহণ করেছিলেন| তার লেখা Signs of the Times শিরোনামের বইতে, ডঃ ডিহান বলেছিলেন,

ভ্রান্তশিক্ষা এবং উপেক্ষা হইতেছে উল্লেখিত পরবর্তী পাপ| ‘‘আর অধর্ম্মের বৃদ্ধি হওয়াতে, অধিকাংশ লোকের প্রেম শীতল হইয়া যাইবে’’ (মথি 24:12)| মানব জাতির ইতিহাসে ইহা কখনও সেইরূপ সত্য হয় নাই বর্তমানে যেরূপ হইয়াছে| মাত্র কয়েকটি সংক্ষিপ্ত দশকের মধ্যে, আমরা পিউরিটান পিতাদের সাধারন বিশ্বাস হইতে সরিয়া গিয়াছি...খ্রীষ্ট বিশ্বাসীগণের মধ্যে ইহা অতি দুঃখজনকভাবে সত্য যে ‘‘অধিকাংশ লোকের প্রেম শীতল হইয়া যাইবে|’’ অনেকেরই প্রেম শীতল হইয়াছে (M. R. DeHaan, M.D., Signs of the Times, Zondervan Publishing House, 1951, p. 58)|

বিলি গ্রাহাম এবং ডঃ ডিহানের প্রচার শোনার পর থেকেই, আমি মথি 24:12 পদটি ধ্যান করে আসছি| শিষ্যদের প্রশ্ন ‘‘আপনার আগমনের, এবং যুগান্তের চিহ্ন কি?’’র উত্তরে, যীশু খ্রীষ্টের দেওয়া বাক্য থেকে এই শব্দগুলি নেওয়া হয়েছে| সেই প্রশ্নের প্রতি খ্রীষ্টের উত্তরের একটি অংশ আমাদের পাঠ্যাংশের অন্তর্ভূক্ত হয়েছে,

‘‘আর অধর্ম্মের বৃদ্ধি হওয়াতে, অধিকাংশ লোকের প্রেম শীতল হইয়া যাইবে’’ (মথি 24:12)|

I. প্রথমত, এরকম ঘটবে সেটা যীশু কখন বলেছিলেন ?

তিনি বলেছিলেন ‘‘(তাঁহার) আগমনের, এবং যুগান্তের চিহ্ন’’ (মথি 24:3) হিসাবে এইরকম ঘটবে| অন্য অনেক শাস্ত্রই শেষ-সময়ের চিহ্নের বিষয়ে বলেছে| এই পৃষ্ঠার (1033) নিচে দেওয়া স্কোফিল্ডের টীকা সঠিকভাবে এই পদটির বর্ণনা করেছে ‘‘যুগান্তে বিশেষভাবে ইহা ব্যবহার করা হয়...সমস্ত কিছু যাহা যুগকে চিহ্নিত করিতেছে, যুগের শেষে ভয়াবহ তীব্রতায় একত্রিত হইতেছে’’ (স্কোফিল্ড স্টাডি বাইবেল, 1917, পৃ. 1033; মথি 24:3 পদের টীকা)| আমি আরও অনেক পদের তালিকা দিতে পারি, যেমন II তীমথিয় 3:1-13; যিহুদা 4, 19; প্রকাশিত বাক্য 3:14-22, ইত্যাদি|

মন্ডলীগুলি যে কতখানি নিচে নামতে পারে সেই সম্বন্ধে আপনাদের মতন যুবকদের কোন ধারণাই নেই| কিন্তু আমার জীবনকালে আমি স্পষ্টভাবে সেটা দেখতে পাই| 1969 সালে আমি একটি স্থানীয় মন্ডলীর উদ্দীপনা দেখেছিলাম| 1971 সালে আমি এক অঞ্চল-ব্যাপী উদ্দীপনা হতে দেখেছি| আমি 1992 সালে অন্য আর একটি স্থানীয় মন্ডলীর উদ্দীপনা দেখেছি| কিন্তু সেই সময় থেকে, আমেরিকা এবং পাশ্চাত্য জগতের কোন জায়গায়, কোন উদ্দীপনার কথা আমি শুনিনি! একটিও না! এখন, আরও বেশি বেশি করে, আমরা আমাদের মন্ডলীগুলিতে মথি 24:12 পদের মতন দুঃখজনক ছবি দেখছি,

‘‘আর অধর্ম্মের বৃদ্ধি হওয়াতে, অধিকাংশ লোকের প্রেম শীতল হইয়া যাইবে’’ (মথি 24:12)|

সেটাই হচ্ছে আমাদের সময়ে ব্যাপটিষ্ট এবং অন্যান্য সুসমাচার প্রচারকারী মন্ডলীগুলির অবস্থা| যুবকগণ আপনাদের এই সংক্ষিপ্ত জীবনে একমাত্র সেই ধরনের মন্ডলীগুলিই আপনারা দেখেছেন অথবা তাদের বিষয়ে শুনেছেন| অতীতের উদ্দীপনাগুলি সম্বন্ধে যদি আপনি না পড়ে থাকেন, তাহলে আপনার কোন ধারণাই নেই যে বর্তমানে মন্ডলীগুলি কি ভয়ঙ্কর এবং স্বধর্ম্মত্যাগী হয়ে উঠেছে! আপনি হয়তো ভাবছেন যে যখন আমি উন্নত ধরনের একটি মন্ডলীর বিষয়ে বলছি তখন অদ্ভূত সব কথা বলছি, যেহেতু আপনাদের এই সংক্ষিপ্ত জীবনকালের মধ্যে, আপনারা সেইরকম কখনও দেখেননি, অথবা এইরকম একটির বিষয়েও শোনেননি| ডঃ কেনেথ কোনোলী, যিনি আমাদের মন্ডলীতে প্রচার করেছিলেন, বলেছিলেন যে আপনার একটি প্রজন্মের মধ্যে বসবাস করছেন যা কখনও কোন উদ্দীপনা দেখেনি - অন্ততঃ পাশ্চাত্য জগতের কোথাও নয়!

‘‘আর অধর্ম্মের বৃদ্ধি হওয়াতে, অধিকাংশ লোকের প্রেম শীতল হইয়া যাইবে’’ (মথি 24:12)|

II. দ্বিতীয়ত, এরকম ঘটবে সেটা যীশু কেন বলেছিলেন ?

পাঠ্যাংশের প্রথম শব্দটি লক্ষ্য করুন, ‘‘আর|’’ ‘‘আর অধর্ম্মের বৃদ্ধি হওয়াতে, অধিকাংশ লোকের প্রেম শীতল হইয়া যাইবে|’’ 10 নং থেকে 12 নং পদের মধ্যে ‘‘আর’’ শব্দটির পরম্পরা লক্ষ্য করুন| ‘‘আর...অনেকে বিঘ্ন পাইবে’’ (পদ 10)| ‘‘আর একজন অন্যকে সমর্পণ করিবে’’ (পদ 10)| ‘‘আর একজন অন্যকে দ্বেষ করিবে’’ (পদ 10)| ‘‘আর অনেক ভাক্ত ভাববাদী উঠিবে’’ (পদ 11)| ‘‘আর অনেককে ভুলাইবে’’ (পদ 11)| ‘‘আর অধর্ম্মের বৃদ্ধি হওয়াতে’’ (পদ 12)| ‘‘আর’’ শব্দের এই দীর্ঘ সূত্র তার সঙ্গেই শেষ হয়েছে যা এইগুলি উৎপন্ন করেছে - এইগুলির ফল হল ‘‘অনেকের প্রেম শীতল হইয়া যাইবে|’’ ঐ সমস্ত ‘‘আর’’ এর শেষ ফল হচ্ছে সেই সমস্ত মন্ডলী যেখানে ‘‘অনেকের [‘‘অধিকাংশের’’ NIV] প্রেম [বৃদ্ধি] শীতল হইয়া যাইবে|’’ সেই সমস্ত ভ্রান্ত প্রচারক যারা লোকদের প্রতারণা [‘‘বিপথে চালনা’’ NASV] করে তাদের অনুসরণের দ্বারা, মন্ডলীতে অধর্ম্মের [অনিয়ম; ‘‘ব্যবস্থাহীনতা’’ NASV] অনুসরণের দ্বারা, 10 নং পদের মন্ডলী বিভাজন এবং মন্ডলীর দ্বন্দ, উৎপন্ন করছে একটি মন্ডলী যা সেই সমস্ত শীতল লোকদের দ্বারা পূর্ণ যাদের কোন ‘‘আগাপে’’ নেই, খ্রীষ্টিয় প্রেম নেই - খ্রীষ্টের জন্য ভালবাসা নেই, ঈশ্বরের জন্য ভালবাসা নেই, এবং মন্ডলীর অন্য কারোর জন্য ভালবাসা নেই! সেখানে আপনার এটা আছে! ‘‘আর’’ এর এই অনুক্রম আমাদের দেখায় যে কেন আমাদের একটি ‘‘বৃহৎ সুসমাচার সংক্রান্ত বিপর্যয়’’ ঘটেছে (ডঃ ফ্রান্সিস শেফারের বই এর শিরোনাম ব্যবহৃত হয়েছে!)| মন্ডলী দ্বন্দের কারণে (পদ 10) ব্যাপটিষ্ট এবং সুসমাচার প্রচার সংক্রান্ত মন্ডলীগুলির বিপর্যয়, ভ্রান্ত প্রচারকগণ যারা এই সুযোগে মাথা চাড়া দিয়েছেন (পদ 11), এবং অপরিত্রাণ প্রাপ্ত ও পশ্চাদ্পসারিত সদস্যদের বেশির ভাগের মধ্যে এক অবাধ ব্যবস্থাহীনতা, খ্রীষ্টের প্রতি ভালবাসাহীন, এবং একে অন্যের প্রতি ভালবাসাহীন শীতল মন্ডলীগুলির জন্ম দিচ্ছে!

‘‘আর অধর্ম্মের বৃদ্ধি হওয়াতে, অধিকাংশ লোকের প্রেম [বৃদ্ধি] শীতল হইয়া যাইবে’’ (মথি 24:12)|

III. তৃতীয়ত, কারা সেই অধিকাংশ যাদের শীতলতা বৃদ্ধি হয় ?

সেই ‘‘অধিকাংশ’’ হলেন তারাই যারা পরিত্রাণ প্রাপ্ত হননি, অথবা গভীরভাবে পশ্চাদ্পসারন করেছেন, যা এই সত্যের দ্বারা প্রমাণিত যে এই যুগের ব্যবস্থাহীন আত্মা তাদের আগ্রহ এবং প্রেমের কন্ঠরোধ করে দেয়| তাদের ‘‘শীতলতা বৃদ্ধি হয়’’ কারণ জগতের আত্মা তাদের হয়তো বা প্রদর্শিত কোন প্রবল উদ্দীপনাপূর্ণ প্রেমের উপরে বিজয়লাভ করে|

বীজ বপকের দৃষ্টান্ত এটা স্পষ্ট করে দেয় যে কেন সেই ‘‘অধিকাংশ’’ লোক ‘‘শীতল’’ হয়ে যান| বীজ বপকের দৃষ্টান্ত আমাদের চার ধরনের লোক, এবং কিভাবে প্রত্যেক দল সুসমাচার প্রচারের প্রতি সাড়া দেয় তার দৃষ্টান্ত দিচ্ছে| সেই দৃষ্টান্তটিতে চার ধরনের লোক রয়েছে| প্রথম তিন ধরনের লোকেরা প্রকৃত খ্রীষ্ট বিশ্বাসী নন| ডঃ জে. ভারন্ন ম্যাকগী বলেছিলেন, ‘‘এই [প্রথম] তিন ধরনের ভূমি তিন শ্রেণীর বিশ্বাসীদের প্রতিনিধিত্ব করিতেছে না - তাহারা আদৌ বিশ্বাসী নন! তাহারা বাক্যটি শুনিয়াছে এবং উহা কেবল নামেমাত্র গ্রহণ করিয়াছে’’ (J. Vernon McGee, Th.D., Thru the Bible, volume IV; note on Matthew 13:22)| সেইজন্যে, একমাত্র চতুর্থ শ্রেণীর লোকরাই হলেন প্রকৃতপক্ষে পরিত্রাণপ্রাপ্ত মানুষ| বাকি সকলেই হারিয়ে যাওয়া মানুষ|

সেই দৃষ্টান্তে ‘‘বীজ’’ হচ্ছে ঈশ্বরের বাক্য| ডঃ ম্যাকগী বলেছেন, ‘‘ইহা লক্ষ্য করুন যে কোনস্থানে বীজ পতিত হইতেছে| ইহা পতিত হইতেছে চার ধরনের ভূমির উপরে - এবং সেই বীজের তিন-চতুর্থাংশ বৃদ্ধি পাইতেছে না - উহারা মরিয়া যাইতেছে| সেস্থানে বীজের মধ্যে কোন সমস্যা ছিল না, কিন্তু ভূমিতেই সমস্যা নিহিত ছিল|’’ সেই বীজ যেগুলি রাস্তার পাশে পড়েছিল, সেগুলি হচ্ছে সেই সমস্ত মানুষ যারা সেই বাক্য শোনেন এবং দিয়াবল সেটা তৎক্ষণাৎ সেটা কেড়ে নেয়| সেগুলি প্রতিনিধিত্ব করছে সেই সমস্ত লোকদের যারা মাত্র কয়েকবার মন্ডলীতে আসেন, কিন্তু সেটা তাদের মোটেও বিচলিত করে না| যেখানে বাক্য পাষাণময় ভূমির উপরে পড়ছে সেখানে আছেন দ্বিতীয় শ্রেণীভূক্তেরা, যাদের দেখে মনে হয় যেন তারা বাক্য গ্রহণ করছেন, কিন্তু যখনই তারা সমস্যা অথবা নিগ্রহের দ্বারা পরীক্ষিত হচ্ছেন সেই মুহূর্ত্তে পশ্চাদ্পসরণ করছেন| তৃতীয় শ্রেণীভূক্ত হলেন তারা যারা কাঁটাঝোপের মধ্যে বীজ গ্রহণ করছেন| তারা বাক্য শোনেন এবং মনে করেন যেন তারা পরিত্রাণ পেয়ে গেছেন| লূক 8:14 পদটি শুনুন,

‘‘আর যাহা কাঁটাঝোপের মধ্যে পড়িল, তাহা এমন লোক, যাহারা শুনিয়াছে, কিন্তু চলিতে চলিতে, জীবনের চিন্তা ধন ও সুখভোগের দ্বারা চাপা পড়ে, এবং পক্ক ফল উৎপন্ন করে না|’’ (লূক 8:14)|

ঈশ্বরের বাক্য ‘‘রুদ্ধ’’ হয় - ‘‘জীবনের চিন্তা ও ধন ও সুখভোগের দ্বারা চাপা পড়ে, এবং পক্ক ফল উৎপন্ন করে না’’ (অথবা পরিপক্কতা); লূক 8:14| ডঃ ম্যাকআর্থার, যদিও তিনি খ্রীষ্টের রক্তের বিষয়ে ভুল ধারণা করেছিলেন, লূক 8:14 পদের বিষয়ে সঠিক ধারণা করেছিলেন| তিনি বলেছিলেন, ‘‘এই সমস্ত দ্বিমনা লোক (যাকোব 1:8) অস্থাবর [জাগতিক] বস্তুর দ্বারা ক্ষয়প্রাপ্ত হইয়া থাকেন - যেমন পাপপূর্ণ সুখাভিলাষ, আকাঙ্খা এবং ইচ্ছা, উচ্চাকাঙ্খা, পেশায় উন্নতি, গৃহ, গাড়ি, আত্মসন্মান, সম্পর্কস্থাপন, যশ - যাহার সবগুলিই সুসমাচারের বীজকে চাপা দিয়া রাখে যাহাতে তাহারা কোন ফলে পরিপক্কতা উৎপন্ন করিতে পারে না... ইহা হইতেছে পূর্ব-অধিকৃত জাগতিক হৃদয় যাহা, ‘জীবনের উদ্বেগ ও ধন ও সুখভোগের দ্বারা চাপা পড়িয়াছে’’’ (The MacArthur New Testament Commentary; note on Luke 8:14)|

প্রথম শ্রেণীভূক্ত কারা হয়েছেন তা দেখা খুব সহজ| ‘‘তৎক্ষণাৎ শয়তান আসিয়া, তাহাদের মধ্যে যাহা বপন করা হইয়াছিল, সেই বাক্য হরণ করিয়া লইয়া যায়’’ (মার্ক 4:15)| তারা খুব অল্প কয়েকটি ধর্ম্মোপদেশ শোনেন, এবং আমরা আর তাদের দেখতে পাই না| কারা দ্বিতীয় শ্রেণিভূক্ত সেটা দেখাও খুব সহজ| তাদের দেখলে মনে হয় যেন তারা পরিত্রাত হয়েছেন, কিন্তু ‘‘তাহারা অল্পকাল মাত্র স্থির থাকে: পরে, যখন সেই বাক্য হেতু ক্লেশ [সমস্যা] কিংবা তাড়না ঘটিলে...তাহারা [‘পলাইয়া যায়.’ NIV অনুযায়ী],’’ মার্ক 4:17|

কিন্তু কোন কোন লোকেরা ‘‘কন্টকাকীর্ণ ভূমি’’ বিশিষ্ট সেটা বলতে বেশ খানিকটা সময়ের প্রয়োজন হয়| আমাদের আধুনিক ব্যাপটিষ্ট মন্ডলীগুলিতে (এমনকি আমাদের নিজেদেরটিতেও) আমরা তাদের একটা বিশ্বাসের পেশায় নিযুক্ত হতে দেখছি| অনেক ক্ষেত্রেই এটা এমনকি একটা পেশা হয়ে দাঁড়িয়েছে যা সংগ্রাম এবং অশ্রুজলকে অন্তর্ভূক্ত করছে| একজন শিশু, অথবা একটি কিশোর হিসাবে, তারা শিক্ষাগ্রহণ করছে যে খ্রীষ্টের সামনে আসার আগে তাদের একটা সংগ্রামের মধ্যে দিয়ে যেতে হবে| তারা বলবে যে খ্রীষ্টের সেবা করার জন্যে তাদের একটি নূতন হৃদয় এবং অভিপ্রায় রয়েছে| এমনকি তারা আমাকেও অনেকবার বোকা বানিয়েছে| তাদের দেখে মনে হয় যেন তারা কত আন্তরিক| তাদের দেখায় মহান খ্রীষ্ট বিশ্বাসীদের মতন| সেটা ততদিনের জন্যেই যতদিন না তারা প্রাপ্তবয়স্ক হচ্ছে| এটা শুধুমাত্র ততক্ষণ যতক্ষণ না তাদের সাক্ষ্যে চিড় ধরা শুরু করে| তাদের পিতামাতার দ্বারা তাদের অর্থ দেওয়া হয়েছে| পিতামাতার বাড়িতে তাদের থাকার জন্যে বিনাভাড়ায় একটা ঘর দেওয়া হয়েছে| খরচ করার জন্যে তাদেরকে টাকাপয়্সা দেওয়া হয়েছে| কিন্তু তখন তারা কলেজের পড়াশোনা ছেড়ে দিয়েছে| এখন তারা একটা চাকরি পেতে পারে, এবং যদি তারা গ্রাজুয়েট স্কুলে ভর্তি হয়, তাহলে তার জন্যে তারা ঋণ পেতে পারে| এখন তারা ‘‘মুক্ত’’ হওয়ার প্রত্যাশা করছে - যেমন তারা এটাকে বলে থাকে| এটা একমাত্র তখনই হয় যখন তাদের সাক্ষ্যের চিড় ধরা লক্ষ্য করতে শুরু করা হয়| এর আগে তাদের পিতামাতা অথবা পালক যা অনুমোদন করতেন না কখনও তারা সেই সমস্ত কাজ করা অথবা বিশ্বাস করার কথা চিন্তাও করতেন না| মন্ডলীর নেতারা খুব দেরী করে বুঝতে পারেন যে তারা ভুল পথে চলছেন| এখন তাদেরকে নিবৃত্ত করার জন্যে কিছুই নেই এইজন্যে যে তাদের আর আমাদের সাহায্যের কোন প্রয়োজন নেই| ধীরে ধীরে তারা তাদের আগ্রহ এবং খ্রীষ্টের প্রতি ভালবাসা ত্যাগ করে এবং তারা ‘‘আপনাকে [তাহাদেরকে] সাংসারিক ব্যাপাররূপ পাশে আবদ্ধ হইতে দেয়’’ (II তীমথিয় 2:4)| যদি মন্ডলীর নেতারা তাদের নিরাপদ জায়্গায় ফিরিয়ে নিয়ে আসার চেষ্টা করেন, তাহলে তারা ক্রুদ্ধ এবং তিক্ত হয়ে পড়েন| তখন শয়তান অন্তরে প্রবেশ করে এবং তাদের প্রতি ফিস্ফিস্ করে বলতে শুরু করে, ‘‘ওদের কথা শুনোনা! ওরা কি জানে?’’ আর সেইজন্যে, সবশেষে, তারা দিয়াবল এবং জগতের কোলে ছুটে চলে যায়| ‘‘আমি মন্ডলী ত্যাগ করিনি,’’ এই কথা তারা বলে - যদিও মন্ডলী ত্যাগ করাটাই ছিল একমাত্র পাপ! কিন্তু তাদের হৃদয়গুলি ইতিমধ্যেই খ্রীষ্টকে ত্যাগ করতে শুরু করে দিয়েছে!

উষিয় মাত্র ষোল বছরের ছিলেন যথন আমরা বাইবেলে প্রথম তার সাক্ষাৎ পাই| যখন তিনি তরুণ ছিলেন ‘‘সদাপ্রভুর সাক্ষাতে যাহা ন্যায্য তাহা করিতেন’’ (II বংশাবলী 26:4)| ভাববাদী সখরিয় তার পালক ছিলেন| ‘‘আর যতকাল সদাপ্রভুর অন্বেষণ করিলেন, ততকাল ঈশ্বর তাঁহাকে আশীর্ব্বাদ করিলেন’’ (II বংশাবলী 26:5)| এবং আমাদের বলা হয়েছে, ‘‘তিনি অলৌকিকভাবে সাহায্যপ্রাপ্ত হয়েছিলেন, যতক্ষণ তিনি শক্তিমান ছিলেন|’’ কিন্তু তখন, ‘‘শক্তিমান হইলে পর তাহার মন উদ্ধত হইল, তিনি দুরাচরণ করিলেন - তাহার হৃদয় এত গর্বিত হইল যে তিনি তাহার ঈশ্বরের বিরুদ্ধে সত্যলঙ্ঘন করিলেন’’ (II বংশাবলী 26:16 KJV, NASV)| যখন তিনি শক্তিশালী হয়েছিলেন, তার হৃদয় এত গর্বিত হয়েছিল যে তিনি বিপথে গিয়েছিলেন! আর প্রভু উষিয়কে অভিশাপ দিয়েছিলেন এবং তিনি ‘‘মরণ দিন পর্য্যন্ত কুষ্ঠরোগী হইয়া রহিলেন’’ (II বংশাবলী 26:21)|

উষিয়ের জীবন ঈশ্বরের দ্বারা আমাদের সামনে রাখা হয়েছিল একটি উদাহরণ জন্য| তিনি সেই সমস্ত যুবক এবং যুবতীদের প্রতিচ্ছবি যারা ঈশ্বরের বাক্য রুদ্ধ করার জন্যে নিজেদের হৃদয়ে কাঁটাঝোপের বৃদ্ধি হতে দেন| উদ্বিগ্নতা, যা প্রয়োজন তার চাইতে বেশি অর্থলিপ্সা, এবং আত্মা-ধ্বংসকারী জটীলতার দ্বারা তারা অবরুদ্ধ হয়ে রয়েছেন, কর্কট রোগের মতন, ধীরে ধীরে শরীরকে হত্যা করছেন, সেইজন্যে এই কাঁটাগুলি ধীরে ধীরে কিন্তু নিশ্চিতভাবে সেই সমস্ত লোকদের আত্মাকে অবরুদ্ধ করছে যারা সেগুলিকে এইরকম করার অনুমতি দেন| আপনার প্রেম কি শীতলতায় বৃদ্ধি পেয়েছে? আপনি কি জাগতিক হয়ে পড়ছেন? আপনি কি অবাধ্য হয়ে যাচ্ছেন? আপনি এককালে যেখানে ছিলেন তার চাইতেও খারাপ জায়গাতে কি এখন আছেন? ওহ, আপনার জাগতিকতা থেকে ফিরে আসুন| আপনার অবাধ্যতা থেকে ফিরে আসুন| ঘুরে দাঁড়ান| অনুতাপ করুন| যেমন ছিলেন সেদিকে কেন এগিয়ে যেতে চাইছেন যখন বর্তমানে খ্রীষ্টতেই আপনি শান্তি পেতে পারেন? - যদি আপনি আপনার অবাধ্যতা ও গর্ব থেকে মুখ ফিরিয়ে নেন এবং তাঁর পদতলে লুটিয়ে পড়েন, যিনি আপনাকে রক্ষা করার জন্য মৃত্যুবরণ করেছিলেন?

‘‘আর অধর্ম্মের বৃদ্ধি হওয়াতে, অধিকাংশ লোকের প্রেম শীতল হইয়া যাইবে’’ (মথি 24:12)|

বীজবপকের দৃষ্টান্ত এইজন্য আপনাদের দেওয়া হয়েছে যাতে আপনারা - ‘‘নিজেদের পরীক্ষা করেন এটা আবিষ্কার করার জন্যে যে আপনি কোন দলে পড়ছেন| যদি আপনি প্রথম তিনটি দলের একটিতে রয়েছেন, তাহলে অবশ্যই আপনার পরিত্রাণ পেতে হবে’’ - অথবা কমপক্ষে, ‘‘তুমি স্মরণ কর কিরূপে প্রাপ্ত হইয়াছ ও শুনিয়াছ, আর তাহা পালন কর, এবং মন ফিরাও’’ (প্রকাশিত বাক্য 3:3)| একেবারে শেষে আপনি সত্যিকারের একজন ‘‘কন্টকাকীর্ণ ভূমি’’র মানুষে পরিণত হওয়ার আগেই, খ্রীষ্টের প্রতি আপনার জীবন পুনঃউৎসর্গ করুন এবং অনুতাপ করুন! (William Hendriksen, Th.D., The Gospel of Luke, Baker Book House, 1978, p. 429; note on Luke 8:14)|

আপনার বলা উচিৎ, ‘‘হে ঈশ্বর, আমি আমার অবাধ্যতা এবং গর্ব থেকে ফিরে এসেছি! হে ঈশ্বর, খ্রীষ্টের রক্ত দিয়ে আমাকে প্রকৃতভাবে শুচি কর!’’ ‘‘হে ঈশ্বর, আমাতে বিশুদ্ধ অন্তঃকরণ সৃষ্টি কর’’ (গীতসংহিতা 51:10)|

অনুগ্রহ করে উঠে দাঁড়ান এবং আপনার গানের পাতার 4 নং গানটি করুন|

‘‘আমাকে তোমার হৃদয় দাও,’’ স্বর্গীয় পিতা বলেন,
   আমাদের ভালবাসার মতন কোন উপহারই মূল্যবান নয়;
যেখানেই তুমি থাক, তিনি মৃদুস্বরে বলেন,
   ‘‘কৃতজ্ঞতায় আমাকে বিশ্বাস কর, এবং আমাকে তোমার হৃদয় দাও|’’
‘‘তোমার হৃদয় আমাকে দাও, তোমার হৃদয় আমাকে দাও,’’
   যেখানেই তুমি যাও, সেই মৃদুস্বর শোন:
অন্ধকার জগৎ থেকে তিনি তোমাকে পৃথকভাবে আকর্ষণ করবেন;
   অতি সদয়ভাবে বলেন, ‘‘আমাকে তোমার হৃদয় দাও|’’

‘‘তোমার হৃদয় আমাকে দাও,’’ মানুষের পরিত্রাতা বলেন,
   পুনঃ পুনঃ অনুগ্রহে ডাকেন;
‘‘এখন পাপ থেকে ফিরে এস, এবং মন্দ থেকে প্রস্থান কর,
   আমি কি তোমার জন্য মরি নাই? তোমার হৃদয় আমাকে দাও|’’
‘‘তোমার হৃদয় আমাকে দাও, তোমার হৃদয় আমাকে দাও,’’
   যেখানেই তুমি যাও, সেই মৃদুস্বর শোন:
অন্ধকার জগৎ থেকে তিনি তোমাকে পৃথকভাবে আকর্ষণ করবেন;
   অতি সদয়ভাবে বলেন, ‘‘আমাকে তোমার হৃদয় দাও|’’

‘‘তোমার হৃদয় আমাকে দাও,’’ স্বর্গীয় আত্মা বলেন;
   ‘‘তোমার যা কিছু আছে, আমার গচ্ছিত পরিত্যাগ কর;
অনুগ্রহ অধিক উপচাইয়া পরে ইহা আমার জ্ঞাত,
   সম্পূর্ণ সমর্পণ কর এবং তোমার হৃদয় আমাকে দাও|’’
‘‘তোমার হৃদয় আমাকে দাও, তোমার হৃদয় আমাকে দাও,’’
   যেখানেই তুমি যাও, সেই মৃদুস্বর শোন:
অন্ধকার জগৎ থেকে তিনি তোমাকে পৃথকভাবে আকর্ষণ করবেন;
   অতি সদয়ভাবে বলেন, ‘‘আমাকে তোমার হৃদয় দাও|’’
(“Give Me Thy Heart” by Eliza E. Hewitt, 1851-1920)|

যদি এখনও আপনি পরিত্রাণ না পেয়ে থাকেন, তবে আমি আপনার কাছে এই বিনতি করছি যে আপনি আপনার পাপ থেকে ফিরে আসুন এবং যীশুকে বিশ্বাস করুন| আপনার পাপের দেনা শোধ করার জন্য তিনি ক্রুশের উপরে মৃত্যুবরণ করেছেন| আপনাকে অনন্ত জীবন দান করার জন্য তিনি মৃত্যু থেকে পুনরুত্থিত হয়েছেন| আমি প্রার্থনা করি যে আপনি তাঁকে বিশ্বাস করবেন এবং তাঁর জন্য বেঁচে থাকবেন| আমেন|


যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তাহলে ডঃ হাইমার্স আপনার কাছ থেকে কিছু শুনতে চান| যখন আপনি ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখবেন তখন অবশ্যই তাকে জানাবেন যে কোন দেশ থেকে আপনি তাকে লিখছেন নয়ত তিনি আপনার ই-মেলের জবাব দিতে সক্ষম হবেন না| যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তবে ডঃ হাইমার্সকে একট ই-মেল পাঠান এবং তাকে সেইকথা জানান, কিন্তু কোন দেশ থেকে আপনি লিখছেন চিঠিতে সেটা অবশ্যই অন্তর্ভূক্ত করবেন| ডঃ হাইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net (এখানে ক্লিক করুন) | আপনি যে কোন ভাষায় ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখতে পারেন, কিন্তু যদি পারেন তো ইংরাজিতেই লিখুন| যদি আপনি ডঃ হাইমার্সকে ডাক-ব্যবস্থার মাধ্যমে চিঠি পাঠাতে চান, তবে তার ঠিকানা হল P.O. Box 15308, Los Angeles, CA 90015 | আপনি তাকে (818)352-0452 নম্বরে ফোন করতে পারেন|

(সংবাদের পরিসমাপ্তি)
ডঃ হাইমার্সের সংবাদ আপনি প্রতি সপ্তাহে ইন্টারনেটে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে গিয়ে পড়তে পারেন| ক্লিক করুন “প্রচার পান্ডুলিপি|”

আপনি ডাঃ হাইমার্সকে মেইল পাঠাতে পারেন rlhymersjr@sbcglobal.net - আপনি
তাকে পত্র লিখতে পারেন P.O. Box 15308, Los Angeles, C A 90015.এই ঠিকানায়
। আপনি তাকে টেলিফোন করতে পারেন (818) 352-0452.

এই সুসমাচারের ম্যানুস্ক্রিপ্ট এর ওপর ডাঃ হাইমসের কোন কপিরাইট নেই। আপনারা
ইহা ব্যাবহার করতে পারেন ডাঃ হাইমসের অনুমতি ছাড়াই। অবশ্য, ভিডিও মেসেজ
সবই কপিরাইটের সহিত আছে এবং কেবলমাত্র তার অনুমতি নিয়েই ব্যাবহার করা যাবে।

সংবাদের আগে শাস্ত্রাংশ পাঠ করেছেন মিঃ আবেল প্রুধোম্মে: মার্ক 4:13-20 |
সংবাদের আগে একক সংগীত পরিবেশন করেছেন মিঃ বেঞ্জামিন কিনকেড গ্রিফিত:
“Take My Life and Let It Be” (by Frances R. Havergal, 1836-1879) |


খসড়া চিত্র

আপনার হৃদয় কি কন্টকাকীর্ণ ভূমি ?

IS YOUR HEART THORNY GROUND?

লেখক : ডঃ আর. এল. হাইমার্স, জুনিয়র|

‘‘আর অধর্ম্মের বৃদ্ধি হওয়াতে, অধিকাংশ লোকের প্রেম শীতল হইয়া যাইবে’’ (মথি 24:12)|

(II তীমথিয় 3:1-5)

I. প্রথমত, এরকম ঘটবে সেটা যীশু কখন বলেছিলেন? মথি 24:3 |

II. দ্বিতীয়ত, এরকম ঘটবে সেটা যীশু কেন বলেছিলেন? মথি 24:10, 11, 12 |

III. তৃতীয়ত, কারা সেই অধিকাংশ যাদের শীতলতা বৃদ্ধি হয়? লূক 8:14;
যাকোব 1:8; মার্ক 4:15, 17; II তীমথিয় 2:4;
II বংশাবলী 26:4, 5, 16, 21; গীতসংহিতা 51:10; প্রকাশিত বাক্য 3:3 |