Print Sermon

এই সমস্ত প্রচারের পান্ডুলিপি এবং ভিডিওগুলি এখন প্রতি মাসে 215টিরও বেশি দেশের প্রায় 116,000 কম্প্যুটারে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে পাঠানো হয়| আরও শত শত লোক ইউ টিউবের ভিডিওর মাধ্যমে এগুলি দেখেন, কিন্তু খুব শীঘ্রই তারা ইউটিউব ছেড়ে বেরিয়ে যান, কারণ প্রত্যেকটি ভিডিও প্রচার তাদেরকে আমাদের ওয়েবসাইটের দিকে পরিচালিত করে| ইউটিউব আমাদের ওয়েব সাইটে লোক এনে দেয়| প্রচারের এই পান্ডুলিপিগুলি প্রতি মাসে 34টি ভাষায় প্রচারিত হয় হাজার হাজার লোকের কাছে| প্রচারের এই সব পান্ডুলিপিগুলি গ্রন্থসত্ত্ব দ্বারা সংরক্ষিত নয়, কাজেই প্রচারকগণ আমাদের অনুমতি ছাড়াই এইগুলি ব্যবহার করতে পারেন| মুসলিম এবং হিন্দু রাষ্ট্রসমেত, সমগ্র পৃথিবীতে সুসমাচার ছড়িয়ে দেওয়ার এই মহান কাজে সাহায্য করার জন্য কিভাবে আপনি একটি মাসিক অনুদান প্রদান করতে পারেন তা জানতে অনুগ্রহ করে এখানে ক্লিক করুন|

যখন আপনি ডঃ হেইমার্সকে লিখবেন সর্বদা তাকে জানাবেন যে আপনি কোন দেশে বাস করেন, অথবা তিনি আপনাকে উত্তর দিতে পারবেন না| ডঃ হেইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net |




যোষেফ এবং যীশু

(আদি পুস্তকের উপর #৮৬ নং প্রচার)
JOSEPH AND JESUS
(SERMON #86 ON THE BOOK OF GENESIS)
(Bengali)

লেখক : ডঃ আর. এল. হাইমার্স, জুনিয়র|
by Dr. R. L. Hymers, Jr.

২০১৫ সালের, ৬ই ডিসেম্বর, প্রভুর দিনের সন্ধ্যাবেলায় লস্ এঞ্জেল্সের
ব্যাপটিষ্ট ট্যাবারন্যাক্ল মন্ডলীতে এই ধর্ম্মোপদেশটি প্রচারিত হয়েছিল
A sermon preached at the Baptist Tabernacle of Los Angeles
Lord's Day Evening, December 6, 2015

‘‘আর ঈশ্বর এইরূপ বলিলেন যে, তাঁহার বংশ পরদেশে প্রবাসী থাকিবে; এবং লোকে তাহাদিগকে দাসত্ব করাইবে, ও তাহাদের প্রতি চারিশত বৎসর পর্য্যন্ত দৌরাত্ম্য করিবে| আর তাহারা যে জাতির দাস হইবে আমিই তাহার বিচার করিব, ঈশ্বর আরও কহিলেন: তৎপরে তাহারা বাহির হইয়া আসিবে, এবং এই স্থানে আমার আরাধনা করিবে| আর তিনি তাঁহাকে ত্বক্ছেদের নিয়ম দিলেন: আর এইরূপে আব্রাহাম ইস্হাককে জন্ম দিলেন, এবং অষ্টম দিবসে তাঁহার ত্বক্ছেদ করিলেন; পরে ইস্হাক যাকোবের; এবং যাকোব সেই বারোজন পিতৃকুলপতির জন্ম দিলেন| আর পিতৃকুলপতিরা, যোষেফের প্রতি ঈর্ষা করিয়া, তাঁহাকে বিক্রয় করিলে তিনি মিশরে নীত হন: কিন্তু ঈশ্বর তাঁহার সঙ্গে সঙ্গে ছিলেন, এবং তাঁহার সমস্ত ক্লেশ হইতে তাঁহাকে উদ্ধার করিলেন, আর মিসর-রাজ ফরৌণের সাক্ষাতে অনুগ্রহ ও বিজ্ঞতা প্রদান করিলেন; তাহাতে ফরৌণ তাঁহাকে মিসরের ও আপন সমস্ত গৃহের অধ্যক্ষ পদে নিযুক্ত করিলেন| পরে সমস্ত মিসরে ও কনানে দুর্ভিক্ষ হইল, বড়ই ক্লেশ ঘটিল: আর আমাদের পিতৃপুরুষদের ভক্ষ্যের অভাব হইল| কিন্তু মিসরে শষ্য আছে শুনিয়া, যাকোব আমাদের পিতৃপুরুষদিগকে প্রথম বার প্রেরণ করিলেন| পরে দ্বিতীয় বারে যোষেফ আপন ভ্রাতাদের পরিচিত হইলেন; এবং যোষেফের জাতি ফরৌণের কাছে ব্যক্ত হইল| পরে যোষেফ আপন পিতা যাকোবকে, এবং আপনার সমস্ত জ্ঞাতিকে, পঁচাত্তর প্রাণীকে, আপনার নিকটে ডাকিয়া পাঠাইলেন’’ (প্রেরিত 7:6-14)|


বাইবেলে যোষেফ নামের দুইজন লোক খুব প্রসিদ্ধ| নতুন নিয়মে যোষেফ হলেন, ঈশ্বরের সেই একজাত পুত্রের সৎপিতা| পুরানো নিয়মের যোষেফ ছিলেন যাকোবের পুত্র| আজকের সন্ধ্যায় আমি পুরানো নিয়মের যোষেফের কথাই বলছি| আদিপুস্তকে বলা হয়েছে এমন সাতজন বিখ্যাত পবিত্র ব্যক্তিদের মধ্যে যোষেফ ছিলেন সর্বশেষ ব্যক্তি| সেই সাতজন ছিলেন আদম, হেবল, নোহ, অব্রাহাম, ইস্হাক, যাকোব এবং যোষেফ| আদিপুস্তকের বেশিরভাগ অধ্যায়ে অন্য সকলের চাইতে যোষেফের কথাই বেশি করে বলা হয়েছে| আর্থার ডব্লিউ. পিঙ্ক বলেছিলেন,

ইহা হইল যোষেফের জীবন যাহা ইব্রীয়দের কিছু মুষ্টিমেয় বিস্ময়কর মেষপালক হইতে মিশরের একটি [বৃহত্তম] উপনিবেশে পরিবর্তিত হইবার আশ্চর্য্য [বৃদ্ধির] ঘটনাকে ব্যাখ্যা করে| কিন্তু কেন যোষেফের জীবনকে এমন পরিপূর্ণতার সহিত ব্যাখ্যা করা হইয়াছে সেই [প্রধান] কারণের বিষয়ে কোন সন্দেহ নাই এই কারণে যে [তাহার জীবনে] প্রায় সমস্তটাই খ্রীষ্টের সঙ্গে সম্পর্কযুক্ত কোন কিছুর হিসাবে লিপিবদ্ধ করা হইয়াছে...[যোষেফের] ইতিহাস এবং খ্রীষ্টের ইতিহাসের মধ্যে আমরা প্রায় একশত সাদৃশ্যের ধাপ সম্পূর্ণভাবে চিহ্নিত করিতে পারি! (Arthur W. Pink, Gleanings in Genesis, Moody Press, 1981 reprint, pp. 342, 343)|

যোষেফ স্পষ্টতই আগত খ্রীষ্টের এক স্বরূপ, অথবা প্রতিকৃতি ছিলেন| কেউ কেউ বলেছেন যে নতুন নিয়মে সেখানে যোষেফের অনুরূপ অন্য কোন বিপরীত আকার নাই| আদিপুস্তক 37:2 পদের উপরে স্কোফিল্ড বাইবেলের টীকা বলছে ‘‘ইহা কোনস্থানে দৃঢ়ভাবে ঘোষিত হয় নাই যে যোষেফ হইতেছেন খ্রীষ্টের প্রতীক|’’ সেই কথাটি ভুল| নতুন নিয়মের চারটি সুসমাচার দেখায় যে যোষেফের জীবন অনেক ভাবে খ্রীষ্টের প্রতীক, এবং প্রভু যীশু খ্রীষ্ট হলেন অনুরূপ আকার, আকারের পরিপূর্ণতা| যেমন স্কোফিল্ডের টীকায় বলা হচ্ছে, ‘‘সাদৃশ্য হইতেছে প্রচুর পরিমানে আকস্মিক|’’ আর্থার ডব্লিউ. পিঙ্ক বলেছিলেন ‘‘সাদৃশ্যের একশত ধাপ’’ - যোষেফ এবং ঈশ্বরের পুত্র যীশুর মধ্যে তুলনা| এই প্রচারে আমি নিশ্চিতভাবে সেই একশটি ধাপের কথা বলতে পারব না| কিন্তু আমি সেইগুলির মধ্যে থেকে বেশ কয়েকটির কথা বলব|

১| প্রথমত, যোষেফ এবং যীশু উভয়ের জন্মই ছিল অলৌকিক |

যোষেফের মায়ের নাম ছিল রাহেল, যিনি ছিলেন যাকোবের স্ত্রী| তিনি সন্তানধারনে অপারগ ছিলেন| তিনি স্বামীর কাছে কেঁদে বলেছিলেন, ‘‘আমাকে সন্তান দেও, নতুবা আমি মরিব’’ (আদিপুস্তক 30:1)| তিনি স্ত্রীকে তিরস্কার করেছিলেন এবং বলেছিলেন, ‘‘আমি কি ঈশ্বরের প্রতিনিধি?’’ - আমি কি ঈশ্বরের জায়গায় আছি, যিনি তোমাকে সন্তান হওয়া থেকে বিরত করেছেন? কিন্তু বেশ কয়েক বছর পরে, আমরা পড়ছি, ‘‘আর ঈশ্বর রাহেলকে স্মরণ করিলেন, ঈশ্বর তাহার প্রার্থনা শুনিলেন, তাহার গর্ভ মুক্ত করিলেন| তখন তাঁহার গর্ভ হইলে, তিনি পুত্র প্রসব করিলেন... তিনি তাহার নাম যোষেফ রাখিলেন’’ (আদিপুস্তক 30:22-24)| ডঃ জে. ভারন্ন ম্যকগী বলেছিলেন, ‘‘যোষেফের জন্ম অলৌকিক এই অর্থে যে প্রার্থনার উত্তরে ঈশ্বরের মধ্যস্থতার দ্বারাই উহা হইয়াছিল| প্রভু যীশু কুমারীর গর্ভে জন্মিয়াছিলেন| তাঁহার জন্ম নিশ্চিতভাবেই ছিল অলৌকিক!’’ (Thru the Bible, Thomas Nelson Publishers, 1981, vol. 1, p. 150)| কুমারী মরিয়মকে স্বর্গদূত বলেছিলেন,

‘‘পবিত্র আত্মা তোমার উপরে আসিবেন, এবং পরৎপারের শক্তি তোমার উপরে ছায়া করিবে: এই কারণে যে পবিত্র সন্তান জন্মিবেন তাঁহাকে ঈশ্বরের পুত্র বলা যাইবে’’ (লূক 1:35)|

২| দ্বিতীয়ত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনেই তাদের পিতার ভালবাসার বিশেষ সামগ্রী ছিলেন |

আদিপুস্তক 37:3 নং পদে বলা হচ্ছে, ‘‘যোষেফ ইস্রায়েলের [যাকোব] বৃদ্ধাবস্থার সন্তান, এইজন্য তিনি সকল পুত্র অপেক্ষা তাহাকে অধিক ভালবাসিতেন|’’ যখন যীশু ব্যাপ্তাইজিত হয়েছিলেন, যখন তিনি জল থেকে উঠেছিলেন সেইসময়ে স্বর্গীয় বাণী শোনা গেছিল, ‘‘ইনি আমার প্রিয় পুত্র, ইহাতেই আমি প্রীত’’ (মথি 3:17)|

৩| তৃতীয়ত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনেই ত্রিশ বছর বয়সে তাদের জাগতিক সেবা কাজ শুরু করেছিলেন |

আদিপুস্তক 41:46 পদ বলছে, ‘‘যোষেফ ত্রিশ বৎসর বয়সে মিসর রাজ ফরৌণের সাক্ষাতে দন্ডায়মাণ হইয়াছিলেন|’’ তাহলে সেটাই ছিল সেই সময় যখন যোষেফ তার জীবনের আসল কাজ শুরু করেছিলেন| নতুন নিয়ম আমাদের বলছে, ‘‘আর যীশু নিজে যখন তিনি কার্য্য আরম্ভ করেন তখন কমবেশী ত্রিশ বৎসর বয়স্ক ছিলেন’’ যখন তিনি জগতে তাঁর জীবনের প্রধান কাজ শুরু করেছিলেন (লূক 3:23)|

৪| চতুর্থত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনেই আপন ভাইদের দ্বারা ঘৃণিত হয়েছিলেন |

আদিপুস্তক 37:8 পদে আমাদের বলা হয়েছে,

‘‘ইহাতে তাহার ভ্রাতৃগণ তাহাকে কহিল, তুই কি বাস্তবিক আমাদের রাজা হইবি? আমাদের উপরে বাস্তবিক কর্ত্তৃত্ব করিবি? ফলে তাহারা তাহার স্বপ্ন, ও তাহার বাক্য প্রযুক্ত তাহাকে আরও দ্বেষ করিল’’ (আদিপুস্তক 37:8)|

যোষেফের ভাইয়েরা তাকে ঘৃণা করত কারণ তাদের পিতা যোষেফকে বেশি ভালবাসতেন, ‘‘কিন্তু পিতা তাহার সকল ভ্রাতা অপেক্ষা তাহাকে অধিক ভালবাসেন, ইহা দেখিয়া তাহার ভ্রাতৃগণ তাহাকে দ্বেষ করিত, তাহার সঙ্গে প্রণয়ভাবে কথা কহিতে পারিত না’’ (আদিপুস্তক 37:4)| তারা যোষেফকে ঘৃণা করত এবং বলত, ‘‘তুই কি বাস্তবিক আমাদের রাজা হইবি?’’ (আদিপুস্তক 37:8)| নতুন নিয়মের মধ্যে, যীশু বলেছিলেন, ‘‘তাঁহার প্রজাগণ তাঁহাকে দ্বেষ করিত, তাহারা তাঁহার পশ্চাৎ দূত পাঠাইয়া দিল, কহিল, আমাদের ইচ্ছা নয় যে এ ব্যক্তি আমাদের উপরে রাজত্ব করে’’ (লূক 19:14)| এবং যীশু বলেছিলেন, ‘‘তাহারা অকারণে আমাকে দ্বেষ করিয়াছে’’ (যোহন 15:25)| ডঃ জে. ভারন্ন ম্যাকগী বলেছিলেন, ‘‘যোষেফ তাহার ভাইদের সমীপবর্তী হইবার চেষ্টা করিতেছিলেন, এবং তাহার ভ্রাতাগণ তাহার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করিতেছিল| তিনি নানা বর্ণের বস্ত্র পরিধান করিয়াছিলেন... যাহা ছিল তাহার পদাধিকারের চিহ্ন| আমাদের অবশ্যই স্মরণে রাখিতে হইবে যে যোষেফ তাহার ভ্রাতাদিগের অপেক্ষা কনিষ্ঠ ছিলেন তথাপি তাহার স্থান তাহাদের উপরে ছিল| সেই কারণেই এই সকল ঘৃণা এবং ঈর্ষা হইয়াছিল - এমনকি তাহার হত্যাস্থানেও!’’ (McGee, ibid.; note on Genesis 37:18-20)|

৫| পঞ্চমত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনেই তাদের ভাইদের দ্বারা চক্রান্তের শিকার হয়েছিলেন |

আদিপুস্তক 37:18 বলছে,

‘‘তাহারা দূর হইতে তাহাকে [যোষেফকে] দেখিতে পাইল...তাহাকে বধ করিবার জন্য ষড়যন্ত্র করিল|’’

নতুন নিয়মে আমরা পড়ছি,

‘‘তখন, প্রধান যাজকেরা, ও লোকদের প্রাচীনবর্গ, কায়াফা নামক মহাযাজকের প্রাঙ্গনে, একত্র হইল, আর এই মন্ত্রণা করিল, যেন ছলে যীশুকে ধরিয়া বধ করিতে পারে’’ (মথি 26:3, 4)|

৬| ষষ্ঠত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনকেই কয়েকটি রৌপ্যমুদ্রার বিনিময়ে বিক্রি করা হয়েছিল |

যোষেফের ভাইয়েরা তাকে একটা গর্তের মধ্যে ছুঁড়ে ফেলে দিয়েছিল| যখন সেখান দিয়ে কিছু মিদিনিয় বণিকেরা যাচ্ছিল, আর তারা ‘‘যোষেফকে বিংশতি রৌপ্যমুদ্রায় ইশ্মায়েলীয়দের নিকট বিক্রয় করিল’’ (আদিপুস্তক 37:28)|

যখন যীহুদা যীশুর প্রতি বিশ্বাসঘাতকতা করেছিল, তিনি প্রধান যাজকের কাছে গেলেন, এবং ‘‘তাহাদিগকে কহিল, আমাকে কি দিতে চান বলুন, আমি তাঁহাকে [যীশুকে] আপনাদের হস্তে সমর্পণ করিব? তাহারা তাহাকে ত্রিশ রৌপ্যখন্ড তৌল করিয়া দিল’’ (মথি 26:15)|

৭| সপ্তমত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনেরই রক্তাত বস্ত্র ছিল |

যোষেফের ভাইয়েরা তাকে আরবীয়দের কাছে বিক্রি করে দেওয়ার পরে ‘‘তাহারা যোষেফের বস্ত্র লইয়া, একটি ছাগ মারিয়া, তাহার রক্তে তাহা ডুবাইল’’ (আদিপুস্তক 37:31)| তারা প্রভু যীশুর বস্ত্র নিয়ে নিয়েছিল এবং ক্রুশের উপরে তাঁর মৃত্যুর সময়ে সেটা গুলিবাঁট করেছিল|

‘‘যীশুকে ক্রুশে দিবার পরে, সেনারা, তাঁহার বস্ত্রসকল লইয়া, চারি অংশ করিয়া, প্রত্যেক সেনাকে এক এক অংশ দিল; এবং আঙ্রাখাটিও লইল: ঐ আঙ্রাখায় সেলাই ছিল না, উপর হইতে সমস্তই বোনা’’ (যোহন 19:23)|

৮| অষ্টমত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনকেই দীর্ঘ সময় ধরে তাদের ভাইদের থেকে পৃথক করে রাখা হয়েছিল |

ডঃ ম্যাকগী বলেছেন,

‘‘যোষেফকে মিশরে বিক্রয় করিয়া দেওয়ার পরে, তিনি বহু বৎসর ধরিয়া চক্ষুর আড়ালে ছিলেন| খ্রীষ্ট স্বর্গে আরোহণ করিয়াছিলেন| তিনি তাঁহার শিষ্যদিগকে বলিয়াছিলেন যে তাঁহার প্রত্যাবর্তন না হওয়া অবধি তাহাদের আর তাঁহাকে দেখিতে পাওয়া উচিৎ নহে’’ - তাঁহার দ্বিতীয় আগমনের কালে|

৯| নবমত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনই অন্ধকারে নেমে গিয়েছিলেন |

যোষেফকে মিশরে ক্রীতদাস হিসাবে বিক্রি করে দেওয়া হয়েছিল, এটা হচ্ছে অন্ধকার এবং মৃত্যুর একটি প্রতীক| যীশুর মৃতদেহ কবরের অন্ধকারে মুদ্রাঙ্ক করে রাখা হয়েছিল|

ডঃ এম. আর. ডিহান বলেছিলেন, ‘‘যোষেফের পোষাক খুলিয়া লওয়া হইয়াছিল এবং তাহাকে মরিবার জন্য গর্তে ছুঁড়িয়া ফেলা হইয়াছিল, কিন্তু তিনি সেই মৃত্যুস্থান হইতে জীবন্ত অবস্থায় উঠিয়া আসিয়াছিলেন’’ - ঠিক যেমনভাবে যীশু ইস্টার রবিবারের সকালে কবর থেকে পুনরুত্থিত হয়েছিলেন (M. R. DeHaan, M.D., Portraits of Christ in Genesis, Zondervan Publishing House, 1966, p. 171)| দাউদ বলেছিলেন, ‘‘কারণ তুমি আমার প্রাণ পাতালে পরিত্যাগ করিবে না; তুমি নিজ সাধুকে ক্ষয় দেখিতে দিবে না’’ (গীতসংহিতা 16:10)| প্রেরিত পিতর, প্রেরিত 2:31 পদে, খ্রীষ্টের এই বাক্য বলেছিলেন| এইভাবে, যোষেফ এবং যীশু দুইজনেই অন্ধকারে নেমেছিলেন, এবং যেন মৃত্যু থেকে, উঠে এসেছিলেন|

১০| দশমত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনই জগতের পরিত্রাতায় পরিণত হয়েছিলেন |

২০টি রৌপ্যখন্ডের বিনিময়ে যোষেফকে আরবীয়দের কাছে বিক্রি করে দেওয়ার পরে তাকে মিশরদেশে পাঠানো হয়েছিল| মিশরদেশে তার এবং যীশুর প্রতিচ্ছবি খুবই সমৃদ্ধশালী হয়েছিল| ডঃ ডিহান বলেছিলেন,

‘‘যোষেফ...মিশরে প্রেরিত হইয়াছিলেন [জগতের একটি প্রতিচ্ছবি| তিনি] ক্রীতদাসে পরিণত হইতে [যেমন যীশু করিয়াছিলেন]| তিনি পোটিফারের স্ত্রীর দ্বারা মিথ্যা অভিযোগে অভিযুক্ত হইয়াছিলেন এবং কারাগারে নিক্ষেপিত হইয়াছিলেন| আত্মপক্ষ সমর্থনের জন্য তিনি কোন চেষ্টাই করেন নাই, এবং কারাগারে তাহাকে অন্যান্য অপরাধীদের সঙ্গে একসাথেই চিহ্নিত করা হইত [যেমন যীশুকে করা হইয়াছিল, ক্রুশের উপরে]| প্রত্যাখ্যানের কারাগারে থাকাকালীন তিনি রাজার খানসামার পরিত্রাতায়, কিন্তু রাজার রুটিওয়ালার বিচারকে পরিণত হইয়াছিলেন [ইহারা সেই দুই দস্যুর প্রতীক যাহাদের খ্রীষ্টের সঙ্গে একইসঙ্গে ক্রুশারোপিত করা হইয়াছিল]| খানসামাকে মুক্ত করা হইয়াছিল, এবং [পরে] তিনি রাজার নিকট যোষেফের নামের উল্লেখ করিয়াছিল যিনি এক ভয়ানক, রহ্স্যময় স্বপ্ন দেখিয়াছিলেন| ফরৌণের স্বপ্নের ব্যাখ্যা করিবার জন্যে যোষেফকে ডাকা হইয়াছিল এবং তিনি তাহা ব্যাখ্যা করিয়াছিলেন [‘দেখুন, সমস্ত মিসর দেশে সাত বৎসর অতিশয় শষ্যবাহুল্য হইবে: তাহার পরে সাত বৎসর এমন দুর্ভিক্ষ হইবে যে...সেই দুর্ভিক্ষে দেশ নষ্ট হইবে,’ আদিপুস্তক 41:29, 30]| যোষেফকে উচ্চ পদে উন্নীত করা হইয়াছিল’’ (DeHaan, ibid., p. 171)|

ফরৌণ যোষেফের দ্বারা এত বেশি প্রভাবিত হয়েছিলেন যে তিনি তাকে এই বলে অভিহিত করেছিলেন যে ‘‘ইহার তুল্য পুরুষ যাঁহার অন্তরে ঈশ্বরের আত্মা আছেন’’ (আদিপুস্তক 41:38)| তারপরে ফরৌণ যোষেফকে তার রাজ্যের প্রধান মন্ত্রী নিযুক্ত করেছিলেন, স্বয়ং ফরৌণের পরেই দ্বিতীয় স্থান| শষ্যবহুল সেই সাতটি বছরে যোষেফ মিশরের লোকদের দিয়ে শষ্য গুদামজাত করিয়েছিলেন| তারপরে পরবর্তী সাত বছরের জন্যে দুর্ভিক্ষ শুরু হয়েছিল|

‘‘পরে সমস্ত মিশর দেশে দুর্ভিক্ষ হইলে, প্রজারা ফরৌণের নিকটে ভক্ষ্যের জন্য ক্রন্দন করিল: তাহাতে ফরৌণ মিস্রীয়দের সকলকে কহিলেন, তোমরা যোষেফের নিকটে যাও; তিনি তোমাদিগকে যাহা বলেন, তাহাই কর| তখন সমস্ত দেশেই দুর্ভিক্ষ হইয়াছিল: আর যোষেফ সকল স্থানের গোলা খুলিয়া, মিশ্রীয়দের কাছে শষ্য বিক্রয় করিতে লাগিলেন; আর মিসর দেশে দুর্ভিক্ষ প্রবল হইয়া উঠিল| এবং সর্ব্বদেশীয় লোকে মিসর দেশে যোষেফের নিকটে শস্য ক্রয় করিতে আসিল; কেননা সর্ব্বদেশেই দুর্ভিক্ষ প্রবল হইয়াছিল’’ (আদিপুস্তক 41:55-57)|

এইভাবে যোষেফ জগতের পরিত্রাতায় পরিণত হয়েছিলেন| ডঃ ম্যাকগী বলেছিলেন, ‘‘আমি আপনাদের মনোযোগ আকর্ষণ করিতেছি এই সত্যের প্রতি যে যোষেফই ছিলেন একমাত্র সেই ব্যক্তি যাহার নিকটে ভক্ষ্য ছিল| অন্য আর একটি সাদৃশ্যও এইস্থানে ছিল| যীশু খ্রীষ্ট বলিয়াছিলেন, ‘আমিই সেই জীবন-খাদ্য: যে ব্যক্তি আমার কাছে আইসে সে ক্ষুধার্ত্ত হইবে না’’’ (যোহন 6:35), McGee, ibid., p. 168; note on Genesis 41:54, 55 |

‘‘এবং সর্ব্বদেশীয় লোকে মিসর দেশে যোষেফের নিকটে শষ্য [বা খাদ্য] ক্রয় করিতে আসিল; কেননা সর্ব্বদেশেই দুর্ভিক্ষ প্রবল হইয়াছিল’’ (আদিপুস্তক 41:57)|

জগতের লোকেরা খাদ্য পাওয়ার জন্যে যোষেফের কাছে এসেছিলেন| এবং যীশু বলেছিলেন যে তিনিই হলেন জীবন খাদ্য - ‘‘যে ব্যক্তি আমার কাছে আইসে সে ক্ষুধার্ত্ত হইবে না|’’ যেমন জগতের সমস্ত জায়গার লোকে খাদ্যের জন্য যোষেফের কাছে এসেছিলেন, তেমনই আপনি পরিত্রাত হওয়ার জন্যে যীশুর কাছে অবশ্যই আসুন| যোষেফ জগতের সমস্ত লোককে রক্ষা করেছিলেন, যারা তার কাছে এসেছিলেন| যীশু জগতের সমস্ত লোকদের রক্ষা করেন যারা বিশ্বাসে তাঁর কাছে আসেন|

যোষেফের ভাইয়েরা শুনেছিলেন যে মিশরদেশে শষ্য পাওয়া যাচ্ছে| সুতরাং তারা নিজেদের যেটুকু প্রয়োজন ছিল সেইটুকু শষ্য কেনার জন্যে যোষেফের কাছে গিয়েছিলেন| যোষেফ তার ভাইদের চিনতে পেরেছিলেন, কিন্তু তারা যোষেফকে চিনতে পারেনি| যোষেফ দীর্ঘদিন ধরে মিশরদেশে বসবাস করছিলেন| তিনি মিশরীয়দের মতন পোষাক পরিধান করেছিলেন| তারা যোষেফকে চিনতে পারেননি| যখন তারা দ্বিতীয়বার জন্যে এসেছিলেন, তখন যোষেফ নিজেকে তাদের কাছে প্রকাশ করার জন্যে প্রস্তুত হয়েছিলেন|

এখন আমি চাই যে আপনারা আপনাদের বাইবেলে আদিপুস্তক 45:1 পদটি খুলুন| যোষেফ এখন তার সেই ভাইদের সঙ্গে একা আছেন যারা বাস্তবিকভাবে গর্তে ফেলে দিয়ে, তাকে হত্যা করতে চেয়েছিল, মিশরে ক্রীতদাস হিসাবে বিক্রি করে দিয়েছিল| এখন তারা সমগ্র মিশরের প্রধান মন্ত্রী, সেই যোষেফের সামনে দাঁড়িয়ে আছে| তারা এখনও জানে না যে তিনি কে, কিন্তু যোষেফ তাদের জানেন| আমি আদিপুস্তক 45 অধ্যায়ের প্রথম পাঁচটি পদ পাঠ করে শোনাচ্ছি| সমগ্র বাইবেলের সর্বাপেক্ষা আবেগতাড়িত অধ্যায়গুলির মধ্যে এটা হল একটা অধ্যায়| আমার সঙ্গে সঙ্গে এর দিকে দেখুন|

‘‘তখন যোষেফ আপনার নিকট দন্ডায়মান লোকদের সাক্ষাতে আত্মসম্বরণ করিতে পারিলেন না; তিনি উচ্চৈঃস্বরে কহিলেন, আমার সম্মুখ হইতে সব লোককে বাহির কর| তাহাতে কেহ তাঁহার কাছে দাঁড়াইল না, আর তখনই যোষেফ ভাইদের কাছে আপনার পরিচয় দিতে লাগিলেন| তিনি উচ্চৈঃস্বরে রোদন করিলেন: মিস্রীয়েরা তাহা শুনিতে পাইল ও ফরৌণের গৃহস্থিত লোকেরাও শুনিতে পাইল| পরে যোষেফ আপন ভাইদের কহিলেন, আমি যোষেফ; আমার পিতা কি এখনও জীবিত আছেন? ইহাতে তাহার ভাইরা তাঁহার সাক্ষাতে বিহ্বল হইয়া পড়িলেন; উত্তর করিতে পারিলেন না| পরে যোষেফ আপন ভাইদের কহিলেন, বিনয় করি, আমার নিকট আইস| তাহারা নিকটে গেলেন| তিনি কহিলেন, আমি যোষেফ তোমাদের ভাই, যাহাকে তোমরা মিসরগামীদের কাছে বিক্রয় করিয়াছিলে| কিন্তু তোমরা আমাকে এইস্থানে বিক্রয় করিয়াছ বলিয়া, এখন দুঃখিত, কি বিরক্ত হইও না: কেননা প্রাণ রক্ষা করিবার জন্যই ঈশ্বর তোমাদের অগ্রে আমাকে পাঠাইয়াছেন’’ (আদিপুস্তক 45:1-5)|

অনুগ্রহ করে, তাকান| ডঃ ম্যাকগীর মন্তব্য শুনুন,

[যোষেফ] ভাঙ্গিয়া পড়িয়াছিলেন এবং রোদন করিতেছিলেন| কেন তাহা যোষেফ ব্যতীত একজনও জানিত না| তাঁহার আপন ভ্রাতাগণও এই মুহূর্তে তাহা জানিত না... সেই দিন আসিতেছে যখন প্রভু যীশু খ্রীষ্ট তাঁহার ভ্রাতা, যিহুদার নিকট নিজেকে প্রকাশ করিতে যাইতেছেন| যখন তিনি প্রথমবার আসিয়াছিলেন, ‘‘তিনি নিজ অধিকারে আসিলেন, আর যাহারা তাঁহার নিজের তাহারা তাঁহাকে গ্রহণ করিল না’’ (যোহন 1:11)| সত্য ইহাই যে, তাহারা তাঁহাকে ক্রুশারোপিত করিতে মুক্ত করিয়াছিল| কিন্তু যখন তিনি দ্বিতীয়বার আসেন, তখন তিনি স্বয়ং তাঁহার নিজের লোকদের জানাইবেন| ‘‘আর যখন কেহ তাহাকে বলিবে, তোমার দুই হস্তের মধ্যে এই সকল ক্ষতের দাগ কি? তখন সে উত্তর করিবে, আমার আত্মীয়দের বাটীতে যে সকল আঘাত পাইয়াছি এ সেই সকল আঘাত’’ (সখরিয় 13:6)| খ্রীষ্ট স্বয়ং নিজেকে তাঁহার ভ্রাতাদের সহিত পরিচিত করাইবেন| এবং ‘‘সেই দিন দায়ূদ-কুলের ও যিরূশালেমনিবাসীদের জন্য পাপ ও অশৌচ হরণার্থে এক উনুই খোলা যাইবে’’ (সখরিয় 13:1)| ইহা হইবে প্রভু যীশু ও তাঁহার ভ্রাতাদের মধ্যকার একটি পারিবারিক বিষয়| তাহার ভ্রাতাদিগের নিকট যোষেফের আত্মপ্রকাশের এই উপাখ্যান আমাদের সেই বিষয়ে একটি ক্ষুদ্র ধারণা [সংকেত] দিতেছে যে খ্রীষ্টের আত্মপ্রকাশের দিনটি কিরূপ বিস্ময়কর হইবে (McGee, ibid., p. 179; note on Genesis 45:1, 2)|

আমি পঞ্চাশ বছরেরও বেশি সময় যাবৎ ভালভাবে ভাববাদীমূলক শাস্ত্র অধ্যয়ণ করে আসছি| সেই বিস্ময়কর দিনটিতে সমগ্র জগতের সমস্ত যিহুদি লোকেদের পরিত্রাণের বিষয়ে বাইবেল স্পষ্টভাবে আমাদের শিক্ষা দিচ্ছে| অনুগ্রহ করে রোমীয় 11:25, 26 পদগুলি দেখুন|

‘‘কারণ ভ্রাতৃগণ, তোমরা যেন আপনার জ্ঞানে বুদ্ধিমান্ না হও, এজন্য আমি ইচ্ছা করি না যে, তোমরা এই নিগূঢ়তত্ত্ব অজ্ঞাত থাক; যে কতক পরিমাণে ইস্রায়েলের কঠিনতা ঘটিয়াছে, যে পর্য্যন্ত পরজাতিয়দের পূর্ণ সংখ্যা প্রবেশ না করে| আর এই প্রকারে সমস্ত ইস্রায়েল পরিত্রাণ পাইবে: যেমন লিখিত আছে, সিয়োন হইতে মুক্তিদাতা আসিবেন, তিনি যাকোব হইতে ভক্তিহীনতা দূর করিবেন’’ (রোমীয় 11:25, 26)|

এটা একটা রহস্য (মাস্টেরিয়ন), আমরা একটা কিছু জিনিষ বুঝতে পারছি না, যা হল ‘‘অন্ধত্বের একটা অংশ ইস্রায়েলের প্রতি ঘটিয়াছিল - যদ্দপি পরজাতিয়রা [অ-যিহুদী খ্রীষ্ট বিশ্বাসীরা] পূর্ণতার সহিত [পূর্ণ সংখ্যায়] প্রবেশ না করিবে| এবং এই প্রকারে সমস্ত ইস্রায়েল পরিত্রাণ পাইবে: যেমন লিখিত আছে, সিয়োন [zion] হইতে মুক্তিদাতা আসিবেন, তিনি যাকোব হইতে ভক্তিহীনতা দূর করিবেন’’ (রোমীয় 11:25, 26)|

‘‘আর এই প্রকারে সমস্ত ইস্রায়েল পরিত্রাণ পাইবে’’ (রোমীয় 11:26)| সম্প্রতি আমি এই শব্দগুলি শুনেছি উদারপন্থী সেমিনারি থেকে শিক্ষাপ্রাপ্ত একজন ব্যাপটিষ্ট পালকের কাছে| তিনি বলছিলেন, ‘‘এতে যা বোঝাচ্ছে এর অর্থ সেটা নয়!’’ আমি বলেছিলাম, ‘‘আমি আপনাকে বলিনি যে এর অর্থ কি| আমি শুধু আপনার কাছে সেই বাক্যটি পড়েছি|’’ ‘‘এবং এই প্রকারে সমস্ত ইস্রায়েল পরিত্রাণ পাইবে|’’ যেমন লেখা হয়েছে শব্দগুলিকে সেইভাবেই থাকতে দিন! যোষেফের মতন, প্রভু যীশু আসবেন, ভালবাসা ও দুঃখের সঙ্গে ক্রন্দনরত, তাঁর নিজস্ব গভীর-ভালবাসার লোকদের, সেই যিহুদীদের বুকে জড়িয়ে ধরতে| ‘‘এবং এই প্রকারে সমস্ত ইস্রায়েল পরিত্রাণ পাইবে|’’ এটা হল ঈশ্বরের বাক্য! এটা এইরকমই থাকুক!

আর সেইসঙ্গে যীশু হারিয়ে যাওয়া পরজাতিয়দেরও ভালবাসেন| যোষেফ সমগ্র জগতকে জীবন-দায়ী খাদ্য সরবরাহ করেছিলেন, ‘‘এবং সর্ব্বদেশীয় লোকে মিশরদেশে যোষেফের নিকট শষ্য ক্রয় করিতে আসিল’’ (আদিপুস্তক 41:57)| যীশু হলেন আমাদের যোষেফ| তাঁর কাছে আসুন| তিনি তাঁর বহুমূল্য রক্তের দ্বারা আপনাকে সমস্ত পাপ থেকে শুচি করবেন| মৃত্যু থেকে তাঁর পুনরুত্থানের দ্বারা তিনি আপনাকে অনন্ত জীবন প্রদান করবেন| আমি আপনাদের কাছে বিনয়ের সঙ্গে বলছি, যীশুর কাছে আসুন| যীশুকে বিশ্বাস করুন| এখন শুধু যীশুতে বিশ্বাস স্থাপন করুন| আপনার কৃত পাপ থেকে তিনি আপনাকে উদ্ধার করবেন| আমেন| ডঃ চান, অনুগ্রহ করে আমাদের প্রার্থনায় পরিচালিত করুন|


যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তাহলে ডঃ হাইমার্স আপনার কাছ থেকে কিছু শুনতে চান| যখন আপনি ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখবেন তখন অবশ্যই তাকে জানাবেন যে কোন দেশ থেকে আপনি তাকে লিখছেন নয়ত তিনি আপনার ই-মেলের জবাব দিতে সক্ষম হবেন না| যদি এই প্রচার আপনাকে আশীর্বাদ দান করেছে তবে ডঃ হাইমার্সকে একট ই-মেল পাঠান এবং তাকে সেইকথা জানান, কিন্তু কোন দেশ থেকে আপনি লিখছেন চিঠিতে সেটা অবশ্যই অন্তর্ভূক্ত করবেন| ডঃ হাইমার্সের ই-মেল ঠিকানা হল rlhymersjr@sbcglobal.net (এখানে ক্লিক করুন) | আপনি যে কোন ভাষায় ডঃ হাইমার্সকে চিঠি লিখতে পারেন, কিন্তু যদি পারেন তো ইংরাজিতেই লিখুন| যদি আপনি ডঃ হাইমার্সকে ডাক-ব্যবস্থার মাধ্যমে চিঠি পাঠাতে চান, তবে তার ঠিকানা হল P.O. Box 15308, Los Angeles, CA 90015 | আপনি তাকে (818)352-0452 নম্বরে ফোন করতে পারেন|

(সংবাদের পরিসমাপ্তি)
ডঃ হাইমার্সের সংবাদ আপনি প্রতি সপ্তাহে ইন্টারনেটে www.sermonsfortheworld.com ওয়েবসাইটে গিয়ে পড়তে পারেন| ক্লিক করুন “প্রচার পান্ডুলিপি|”

আপনি ডাঃ হাইমার্সকে মেইল পাঠাতে পারেন rlhymersjr@sbcglobal.net - আপনি
তাকে পত্র লিখতে পারেন P.O. Box 15308, Los Angeles, C A 90015.এই ঠিকানায়
। আপনি তাকে টেলিফোন করতে পারেন (818) 352-0452.

এই সুসমাচারের ম্যানুস্ক্রিপ্ট এর ওপর ডাঃ হাইমসের কোন কপিরাইট নেই। আপনারা
ইহা ব্যাবহার করতে পারেন ডাঃ হাইমসের অনুমতি ছাড়াই। অবশ্য, ভিডিও মেসেজ
সবই কপিরাইটের সহিত আছে এবং কেবলমাত্র তার অনুমতি নিয়েই ব্যাবহার করা যাবে।

সংবাদের আগে শাস্ত্রাংশ পাঠ করেছেন মিঃ আবেল প্রুধোম্মে |
সংবাদের আগে একক সংগীত পরিবেশন করেছেন মিঃ বেঞ্জামিন কিনকেড গ্রিফিত:
“What a Friend We Have in Jesus” (by Joseph Scriven, 1819-1886) |


খসড়া চিত্র

যোষেফ এবং যীশু

(আদি পুস্তকের উপর #৮৬ নং প্রচার)
JOSEPH AND JESUS
(SERMON #86 ON THE BOOK OF GENESIS)

লেখক : ডঃ আর. এল. হাইমার্স, জুনিয়র|

‘‘আর ঈশ্বর এইরূপ বলিলেন যে, তাঁহার বংশ পরদেশে প্রবাসী থাকিবে; এবং লোকে তাহাদিগকে দাসত্ব করাইবে, ও তাহাদের প্রতি চারিশত বৎসর পর্য্যন্ত দৌরাত্ম্য করিবে| আর তাহারা যে জাতির দাস হইবে আমিই তাহার বিচার করিব, ঈশ্বর আরও কহিলেন: তৎপরে তাহারা বাহির হইয়া আসিবে, এবং এই স্থানে আমার আরাধনা করিবে| আর তিনি তাঁহাকে ত্বক্ছেদের নিয়ম দিলেন: আর এইরূপে আব্রাহাম ইস্হাককে জন্ম দিলেন, এবং অষ্টম দিবসে তাঁহার ত্বক্ছেদ করিলেন; পরে ইস্হাক যাকোবের; এবং যাকোব সেই বারোজন পিতৃকুলপতির জন্ম দিলেন| আর পিতৃকুলপতিরা, যোষেফের প্রতি ঈর্ষা করিয়া, তাঁহাকে বিক্রয় করিলে তিনি মিশরে নীত হন: কিন্তু ঈশ্বর তাঁহার সঙ্গে সঙ্গে ছিলেন, এবং তাঁহার সমস্ত ক্লেশ হইতে তাঁহাকে উদ্ধার করিলেন, আর মিসর-রাজ ফরৌণের সাক্ষাতে অনুগ্রহ ও বিজ্ঞতা প্রদান করিলেন; তাহাতে ফরৌণ তাঁহাকে মিসরের ও আপন সমস্ত গৃহের অধ্যক্ষ পদে নিযুক্ত করিলেন| পরে সমস্ত মিসরে ও কনানে দুর্ভিক্ষ হইল, বড়ই ক্লেশ ঘটিল: আর আমাদের পিতৃপুরুষদের ভক্ষ্যের অভাব হইল| কিন্তু মিসরে শষ্য আছে শুনিয়া, যাকোব আমাদের পিতৃপুরুষদিগকে প্রথম বার প্রেরণ করিলেন| পরে দ্বিতীয় বারে যোষেফ আপন ভ্রাতাদের পরিচিত হইলেন; এবং যোষেফের জাতি ফরৌণের কাছে ব্যক্ত হইল| পরে যোষেফ আপন পিতা যাকোবকে, এবং আপনার সমস্ত জ্ঞাতিকে, পঁচাত্তর প্রাণীকে, আপনার নিকটে ডাকিয়া পাঠাইলেন’’ (প্রেরিত 7:6-14)|

১| প্রথমত, যোষেফ এবং যীশু উভয়ের জন্মই ছিল অলৌকিক,
আদিপুস্তক 30:1, 22-24; লূক 1:35 |

২| দ্বিতীয়ত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনেই তাদের পিতার ভালবাসার বিশেষ সামগ্রী ছিলেন, আদিপুস্তক 37:3; মথি 3:17 |

৩|  তৃতীয়ত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনেই ত্রিশ বছর বয়সে তাদের জাগতিক সেবা কাজ শুরু করেছিলেন, আদিপুস্তক 41:46; লূক 3:23 |

৪|  চতুর্থত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনেই আপন ভাইদের দ্বারা ঘৃণিত হয়েছিলেন,
আদিপুস্তক 37:8, 4; লূক 19:14; যোহন 15:25 |

৫|  পঞ্চমত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনেই তাদের ভাইদের দ্বারা চক্রান্তের শিকার হয়েছিলেন, আদিপুস্তক 37:18; মথি 26:3, 4 |

৬|  ষষ্ঠত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনকেই কয়েকটি রৌপ্যমুদ্রার বিনিময়ে বিক্রি করা হয়েছিল, আদিপুস্তক 37:28; মথি 26:15 |

৭|  সপ্তমত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনেরই রক্তাত বস্ত্র ছিল, আদিপুস্তক 37:31;
যোহন 19:23 |

৮|  অষ্টমত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনকেই দীর্ঘ সময় ধরে তাদের ভাইদের থেকে পৃথক করে রাখা হয়েছিল |

৯|  নবমত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনই অন্ধকারে নেমে গিয়েছিলেন, গীতসংহিতা 16:10, প্রেরিত 2:31 |

১০| দশমত, যোষেফ এবং যীশু দুইজনই জগতের পরিত্রাতায় পরিণত হয়েছিলেন,
আদিপুস্তক 41:29, 30, 38, 55-57; যোহন 6:35; আদিপুস্তক 45:1-5;
যোহন 1:11; সখরিয় 13:6, 1; রোমীয় 11:25, 26; আদিপুস্তক 41:57 |